নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • শ্মশান বাসী
  • আহমেদ শামীম
  • গোলাপ মাহমুদ

নতুন যাত্রী

  • নীল মুহাম্মদ জা...
  • ইতাম পরদেশী
  • মুহম্মদ ইকরামুল হক
  • রাজন আলী
  • প্রশান্ত ভৌমিক
  • শঙ্খচূড় ইমাম
  • ডার্ক টু লাইট
  • সৌম্যজিৎ দত্ত
  • হিমু মিয়া
  • এস এম শাওন

আপনি এখানে

কোটা আন্দোলন সমর্থনে প্রধানমন্ত্রীর উষ্মা এবং জাফর ইকবালের চামচামী।


মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ১১ এপ্রিলে সংসদে দাঁড়িয়ে অতীব বিরক্ত নিয়ে কোটা বাতিল করেলেন, আনন্দমিছিল হলো, তিনি “মাদার অফ এডুকেশন” খেতাব পেলো। শাহজালালের অধ্যাপক এই আন্দোলনের পক্ষে কথা বলায় প্রধানমন্ত্রী উষ্মা প্রকাশ করলেন। ব্যাস হয়ে গেলো। কোটা যে বাতিল হবে না, যারা আন্দোলন করে ঘরে ফিরে গেছে, তারা সবাই তা খুউব ভালো করেই জানে। কিন্তু প্রতিটা ক্ষেত্রে পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থা, আর ছাত্রলীগ, স্থানীয় আওয়ামী লীগ এতো বেশি বল প্রয়োগ করছিলো যে আন্দোলন থেকে জানের ভয় নিয়ে সসম্মানে ফিরে আসা ছাড়া আর কারো কোনো উপায় ছিলো না। প্রধানমন্ত্রী সুযোগ দিয়েছে সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে জান নিয়ে আমরা ছাত্ররা আন্দোলন থেকে ফিরে আসছি। আমরা ছাত্ররা তো বেঁচে গেলাম কিন্তু যেসব বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপকদের নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী তাদের কি হবে?

০১.
এই ভাবনা ভাবতে ভাবতে, আমার অত্যন্ত শ্রদ্ধেয় একজন ব্যাক্তি অত্যন্ত চমৎকার উপায় বের করলেন, নিজে লেখক মানুষ, লেখা দিয়ে করতে হবে যা করার, তাই কলাম লিখলেন, প্রকাশ করলো বাংলাট্রিবিউন নামক আওয়ামী লীগের অন্যতম দালাল অনলাইন নিউজ পোর্টাল (দাবি, আন্দোলন ও আন্দোলনের প্রক্রিয়া)। লিখেছেন মুহম্মদ জাফর ইকবাল, যিনি অন্যতম ইসালামিক বিজ্ঞানী। প্রদত্ত লিঙ্কে গিয়ে তার লেখাটা পুরুটা পড়তে পারনে। আমি একটু সারসংক্ষেপ দেই।

তিনি প্রথমে বেশ প্রসংশা করলেন ছাত্রদের, তারপর বললেন ৫৬ভাগ কোটা আসলেই বেশি, কিন্তু ৩০ভাগ নিয়ে বেশি কথা বলা যাবে না। কারন তাতে করে, মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান করা হয়। মানে যারে বলে শ্যাম ও কুল দুটো রক্ষা করেই কথা বলা। তারপর তিনি প্রশ্ন তুললেন ঢাকার রাস্তাঘাট বন্ধ করে আন্দোলনের যৌক্তিকতা নিয়ে। তিনি বললেন “মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার বা সৈরশাসকের পতনের মতো জাতীয় কোনও দাবি নয়, নিজেদের একটা চাকরি পাওয়ার সুযোগটা বাড়িয়ে দেওয়ার দাবি”

জাফর ইকবালের কাছে মনে হয়েছে চাকরির সুবিধা প্রাপ্তির দাবি নেহাতই তুচ্ছ দাবি ছাত্রদের, যার জন্য রাস্তা বন্ধ করে আন্দোলন করাটা অনুচিত। যাক তার কথা মনে কষ্ট পাইনি কারন এই ভদ্দর লোক কখনোই ছাত্র আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরাট বাহক হওয়া সত্ত্বেও মুক্তিযুদ্ধের নয়মাস রাজাকার নানার শেল্টারে ছিলেন।

০২.
আমাদের দেশের নেতা নেত্রী ও রাজনৈতিক সুবিধা প্রাপ্ত ব্যক্তিরা যে কথাটি বুঝেও বুঝতে চান না, তা হলো আমরা আপনাদের নিজস্ব অধিকার রক্ষার আন্দোলনের প্রতি কখনোই আগ্রহী নয়, স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন তখনই প্রকট হয়েছিলো, যখন ওই স্বৈরাচরী সরকারের নিপিড়ন প্রতিটা ঘরে ঘরে ইফেক্ট ফেলছিলো। বর্তমান স্বৈরাচারী সরকারে বিরুদ্ধে তেমন কোনো বিষয়বস্তুগত আন্দোলন হচ্ছে না, কারন তার এখনো এরশাদ স্টাইলে শাষন শুরু করেনি, কিন্তু তার মানে এই নয় যে হাসিনা সরকার স্বৈরাচার নয়।

তারপর জাফর ইকবালের কথা মানবতাবিরোধী অপরাধীর বিচারের দাবির আন্দোলন নিয়ে। আচ্ছা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার তো আওয়ামীলীগের নির্বাচনী ইশতেহারই ছিলো, ওটা নিয়ে কেন আন্দোলন করতে হলো? জাফর ইকবাল কি একবার সেই প্রশ্ন তুলেছিলেন? আইনে সীমাবদ্ধতা ছিলো, তাই আইনের সংশোধনের জন্য রাজপথে নামতে হলো তরুন প্রজন্মকে, আমরা নামলাম। আন্দোলন হলো সেই আন্দোলনের বৈধতা কিছু দিনের জন্য থাকলেও, আন্দোলনকারীদের শফি হুজুরের দোয়া নিয়ে পিটিয়ে রাস্তা থেকে উৎখাত ও করা হয়েছিলো । তখনো জাফর ইকবাল চুপ ছিলো। কিন্তু তিনি কোনো প্রশ্ন করলো না ! এমন ঘাগু মাথার হাসিনা সব বুঝতো আর সেটা বুঝতনা যে বিদ্যমান আইন নিয়ে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করা সম্ভব নয়?

০৩.
কোটা সংস্কার আন্দোলন ছাত্ররা করেছে নিজস্ব তাড়না থেকে, সেটাকে মিস্টার ইকবাল যথেষ্ট কম গুরুত্বপূর্ণ আন্দোলন বলে আখ্যাদিলেন। যার জন্য ঢাকার রাস্তাঘাট বন্ধ করা নিতান্তই অযৌক্তিক তার কাছে। কিন্তু এই যে গতমার্চেই ৭ই মার্চের ভাষণ উদ্‌যাপন, উন্নয়নশীল দেশের ভুয়া স্ট্যাটাস পাবার উদ্‌যাপনকে ঘিরে সমস্ত ঢাকা শহর যখন আওয়ামী লীগই বন্ধ করে দেয় কই তখন তো দেখলাম কোনো গার্মেন্টস কমী, রিক্সাচালক কিংবা এম্বুলেন্সের রোগী নিয়ে কথা বলতে? কখন বললেন? যখন দেখলেন প্রধানমন্ত্রী সংসদে দাঁড়িয়ে একটা ঝাড়ি তাকে দিয়েছে। প্রায় প্রতি সপ্তাতেই ঢাকার কোনো না কোনো এলাকায় আওয়ামীলীগের কোনো না কোনো সমাবেশ চলতেই থাকে, এইতো গেলো ৩১মার্চ সম্পূর্ন মিরপুর বন্ধ করে দিয়ে তারা দূর্নীতি বিরোধী সমাবেশ করলো, তখন তো মিস্টার ইকবাল লিখলো না আহারে, একটা ছেলেমেয়ে যদি পরীক্ষা দিতে যেতে দেরি হয়?

শেখ হাসিনা ব্যাপক উৎকন্ঠায় ছিলেন তার ক্ষমতা নিয়ে, আর জাফর ইকবাল ব্যাপক উৎকন্ঠায় আছে তার সুবিধা নিয়ে, জঙ্গী হামলার পরে সেরে উঠে, শাবিপ্রবিতে গিয়ে এজন্য কোরানের আয়াতের গতানুগতিক ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে জঙ্গীদের প্রিয় হতে চেয়েছিলেন। এইসব সুবিধাবাদী দালাল শ্রেণীর লোক দেখলে আমার বড় কষ্ট হয়, এরা নাকি আমাদের জাতীয় ব্যক্তিত্ব।

০৪.
মিস্টার ইকবাল তার লেখার একদম শেষে একটা প্রশ্ন তুলেছেন, বলেছেন তিনি বিসিএস-এর ভাইভা বোর্ড থাকলে একটা প্রশ্ন করতো চাকরী প্রত্যাশীদের

“তোমার দাবি আদায় করার জন্যে তুমি কী সবাইকে নিয়ে রাস্তাঘাট বন্ধ করে পুরো শহরকে জিম্মি করে ফেলার বিষয়টি সমর্থন করো?
যারা এই দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদে চাকরি নেওয়ার স্বপ্ন দেখছে তারা কী উত্তর দিতো?”

জাফর ইকবালের বুকের পাটা থাকলে একটা কলাম লিখে এই প্রশ্ন একটু ঘুরিয়ে সরকারকে করুক, প্রতিদিন তাদের মন্ত্রী এম্নি, প্রধামন্ত্রী যাতায়তের জন্য অফিসগামীরা কি দুঃসহনীয় জ্যাম মোকাবেলা করে, জাফর ইকবাল মনে হয় জানেন না। প্রতিমাসে আওয়ামী লীগের এককেকটা সমাবেশকে ঘিরে পুরো ঢাকা যখন অচল হয়ে যায়, তখন কি যায় ঢাকাবাসীর উপর দিয়ে, কখনো তো তাকে এমন প্রশ্ন করতে দেখলাম না।

কোটার মতো বৈষম্য ও অমানবিক একটা বিষয় নিয়ে যখন যৌক্তিক একটা আন্দোলন হচ্ছে, তখন এসে জাফর ইকবাল প্রশ্ন তুললেন রাস্তা অবরোধ করে আন্দোলনের যৌক্তিকতা নিয়ে। আন্দোলন তাহলে কোথায় করবো মিস্টার ইকবাল? নিজেদের বাসায়? বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে? শাহবাগকে তো আপনিই চিনিয়ে দিয়ে গেছেন আন্দোলনের মোক্ষম জায়গা হিসেবে ভুলে গেছেন? আমরা শাস্তিপূর্ণ আন্দোলন বাসায় বসে করলে, আপনার স্বৈরাচারী সরকার কি আমাদের দাবি মেনে নিতো?

আরেকটা কথা জনাব জাফর ইকবাল, শোনেন যতই চামচামী করেন, আর জঙ্গীদের তৃপ্তির জন্য কোরানের আয়াত আওড়ান, সাপ-কুমির-বাঘের সাথে কখনো বন্ধুত্ব হয় না, সুযোগ পেলেই ঠিক আপনাকে খেয়ে নিবে।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

নগরবালক
নগরবালক এর ছবি
Offline
Last seen: 2 দিন 20 ঘন্টা ago
Joined: সোমবার, ডিসেম্বর 11, 2017 - 11:50পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর