নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 9 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • মোমিনুর রহমান মিন্টু
  • মিশু মিলন
  • সত্যর সাথে সর্বদা
  • রাজিব আহমেদ
  • দীপ্ত সুন্দ অসুর
  • ফারুক
  • আব্দুল্লাহ্ আল আসিফ
  • নীল কষ্ট

নতুন যাত্রী

  • ফারজানা কাজী
  • আমি ফ্রিল্যান্স...
  • সোহেল বাপ্পি
  • হাসিন মাহতাব
  • কৃষ্ণ মহাম্মদ
  • মু.আরিফুল ইসলাম
  • রাজাবাবু
  • রক্স রাব্বি
  • আলমগীর আলম
  • সৌহার্দ্য দেওয়ান

আপনি এখানে

আপনারা কি ধর্মীয় উগ্রতার বর্ষবর্তী হয়ে জারুজালেম বিষয়ে ইসরাইলের কট্টর বিরোধিতা করছেন?



ডোনাল্ড ট্রাম্পকে আমি চরম অপছন্দ করি এবং তার প্রত্যক আগ্রাসী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করি আমার জায়গা থেকে।কিন্তু জেরুজালেম নিয়ে কি তার নেওয়া সিদ্ধান্তের আমি বিরুধীতা করতে পারছি না।তার পিছনের ইসরাইলের অসাধারন অবদান পৃথিবীর বিভিন্ন ক্ষেত্রে তা ইসরাইলের অস্তিত্বকে শক্ত ও মজবুত করেছে।পক্ষান্তরে সমগ্র মধ্য প্রাচ্যের মুসলিম আরব দেশগুলোর তৈরি করছি জঙ্গি কারখানা।

তাদের স্বভাব চরিত্র আজও সেই বর্বরতা জর্জরিত।আমি মনে করি প্যালেস্থানিরা তাদের মুসলিম শাসকের চেয়ে ইসরাইলি ইহুদি শাসকের কাছে নিরাপদ থাকবে এবং উন্নত জীবন-যাপন করতে পারবে।আর প্যালেস্থানীয়রা অহেতুক ইসরাইলে জঙ্গি হামলা বন্ধ করে যুক্তরাজ্যে,যুক্তরাষ্ট্রে এবং ইউরোপীয় দেশগুলোর মতো ধর্ম নিরোপক্ষতা নিয়ে থাকা উচিত।জোরপূর্বক ইসলাম প্রচার না করে যার যার মতো তার তার ধর্ম-অধর্ম পালন করবে।কিন্তু প্যালেস্থানীরাও তাদের অন্যান্য মুসলিম ভাই-বোনদের মতো ধর্মীয় উগ্রতাকে প্রধান্য দিয়ে ইসরাইলকে বার বার রকেট হামলা করছে আর ইসরাইল তার প্রতিবাদে মারছে শত শত প্যালেস্থানীদের।আজ ইসরাইলের জায়গায় প্যালেস্থান হলে এবং ইসরাইলের মতো উন্নত প্রযুক্তি নির্ভর হলে একই কাজ করতো।আর এক সময় সমগ্র আরব দেশ চেষ্টা করেছে ইসরাইলকে ধংস্ব করতে কিন্তু তার পরিনাম কি হলো? নিচের প্যারায় কিছু সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিলাম আরব-ইসরাইলের সংকটের।

"১৯৪৯ সালে সদ্য ভূমিষ্ট ইসরাইল রাষ্ট্রটিকে ছয়টি মুসলিম দেশ একজোট হয়ে আক্রমন করে। সৌদী আরবের নেত্রীত্বাধীন সেই জোটে কাতার এবং ইয়ামেনও ছিলো। মাত্র তিন সপ্তাহে লজ্জাজনক পরাজয় ঘটেছিলো যৌথবাহিনীর। বার বার ভাগ্যের হাতে মার খেয়ে অতীত থেকে শিক্ষা নেয়া আত্মবিশ্বাসী ইহুদীদের সামনে টিকতে পারেনি সম্মিলিত মুসলিম শক্তি। ইতিহাস আজ সবার যায়গা ঠিক করে দিয়েছে। জোটের ছয়টি দেশের মধ্যে তিনটিই ধ্বংসস্তুপে পরিনত হয়েছে নিজেদের মধ্যে হানাহানী করে; কাতারও আজ সৌদী আরব কর্তৃক হুমকির মুখে। ইতিহাস বারবার ফিরে আসে কিন্তু বর্বররা তা থেকে শিক্ষা নেয়না।

শুনেছি বাচ্চা শুয়োরের দাঁত গজালে প্রথমে বাপের পাছায় কামড় বসায়। সপ্তম শতাব্দীতে আরবের পাহাড়গুহায় যে বিষবৃক্ষটি রোপিত হয়েছিলো তা আজকে পুষ্প পল্লবে সুশোভিত। সমানে ধ্বংস করে চলেছে একের পর এক জনপদ। পৃথিবীজুড়ে সাতশ কোটি মানুষকে করে রেখেছে আতংকিত। আর ইসরাইল? ইন্টারনেটের যুগ, চাইলেই খোঁজ নিয়ে দেখা যেতে পারে। ইসরাইলের জিডিপি ৫৭ টি মুসলিমপ্রধান দেশের সম্মিলিত জিডিপির চাইতেও বেশী। ইসরাইলের অর্থনীতি পশ্চিমা সমমানের। অভ্যান্তরীন নিরাপত্তা, মানবসম্পদ উন্নয়নে ইসরাইল পৃথিবীর যে কোন দেশের চাইতে এগিয়ে। বৈজ্ঞানিক গবেষনা এবং উদ্ভবনে খোদ আমেরিকাকে ছাড়িয়ে গেছে।

দেড় কোটির ইহুদীদের বিজ্ঞানে অবদান রেখে বাগিয়ে নিয়েছে ১৫৩ টি নোবেল পুরস্কার আর দেড়শ কোটির শান্তির মানবের অর্জন সাকুল্যে দুই! ধর্মের বই পড়ে বংশপরম্পরায় মানুষের প্রতি ঘৃণা পুষে রেখে আমরা কি পেয়েছি? উত্তর জানতে ইহুদীদের মত রকেট সায়েন্টিস্ট হওয়ার প্রয়োজন নেই। প্রতিনিয়ত নিজেরা শেষ হচ্ছি, অন্যকে শেষ করছি তবুও মধ্যযুগের ধর্মের বইগুলো আকড়ে পড়ে আছি। ইহুদিরা বিজ্ঞানের বই খুলে মঙ্গলে আলু চাষের উপায় খুঁজে আর আমরা কোরান হাদীস খুলে খুঁজি কিভাবে শরীয়তসম্মতভাবে বউ পেটানো যায়।"

১৯৬৭ ও ১৯৭৩ তে ও আরব জোট ইসরাইলের কাছে পরাজিত হয়, আর সেই পরাজিত আরব দেশে আরবদের মনোরঞ্জনের জন্যে বাংলাদেশ থেকে সরকারিভাবে হাজার হাজার নারী পাঠানো হচ্ছে, ছি কি লজ্জা!

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

হিউম্যানিস্ট বা...
হিউম্যানিস্ট বাই নেচার এর ছবি
Offline
Last seen: 1 দিন 6 ঘন্টা ago
Joined: বুধবার, এপ্রিল 5, 2017 - 4:57পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর