নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 10 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • অর্বাচীন উজবুক
  • নুরুন নেসা
  • সুজন আরাফাত
  • সংবাদ পর্যবেক্ষক
  • নাস্তিকের আত্মকথা
  • আবীর সমুদ্র
  • মূর্খ চাষা
  • নরসুন্দর মানুষ
  • দ্বিতীয়নাম
  • পৃথু স্যন্যাল

নতুন যাত্রী

  • সোহম কর
  • অজিতেশ মণ্ডল
  • আতিকুর রহমান স্বপ্ন
  • অ্যালেক্স
  • মিশু মিলন
  • আগন্তুক মিত্র
  • গাজী নিষাদ
  • বেকার
  • আসিফ মহিউদ্দীন
  • সাধনা নস্কর

আপনি এখানে

দৃশ্যমান উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ


বর্তমানের রাজনীতিতে সহনশীলতা আর গ্রহণযোগ্যতার উদার মানসিকতা শীতের কুয়াশার মত লক্ষ করা যাচ্ছে। এমন ভাব যদি সবসময় থাকে তবেই ভালো। আত্মশক্তির যে উত্থান তৈরি হয়েছিল সত্তরের দশকে গত শতাব্দীতে, তবে খেই হারিয়ে ফেলে, দেশীয় রাজনীতিতে একমাত্র বিকল্প রাজনৈতিক শক্তি হতে পারত যারা, তারা আজ কৃষক-শ্রমিকের কথা মুখে বলেন কিন্তু জনগণের আদতশক্তি হিসেবে সমাজতান্ত্রিক চিন্তাধারা নিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে না গিয়ে উপরি রাজনীতিতেই পড়ে আছেন। মুক্তিযুদ্ধকে যারা সমর্থন করেছিলেন, সশস্ত্র লড়াইয়ে জানকবুল করে নিজেকে উৎসর্গ করেছিলেন দেশকে পাকিস্তানি নিপীড়ক দস্যু আর নরপিশাচ হায়েনার দলকে বিতাড়িত করে মাতৃভূমিকে পুনরুদ্ধার করতে। অথচ দেশ শত্রুমুক্ত হওয়ার পর থেকে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষশক্তির মধ্যে রাজনৈতিক আদর্শভিত্তিক ফারাক ক্রমে বাড়তে থাকলে মুক্তিফোজ এবং মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী রাজনৈতিক দলগুলোর ঐক্যের বন্ধনও ক্রমে ঢিলে হতে থাকল রাজনৈতিক একদর্শিতার কাছে। অন্যদিকে চক্রান্ত, কুমতলব আর আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তার হতে থাকল এবং স্থানীয় নরপিশাচ শক্তিÑ ঘাতক, দালাল-দোসর-জল্লাদ গোষ্ঠী গোপনে একত্রিত হতে হতে গোপন আস্তানা ছেড়ে বঙ্গবন্ধু হত্যার পর জেনারেল জিয়ার অপরিপক্ব রাজনীতি এবং ক্ষমতালিপ্সার সুযোগ নিয়ে দেশীয় রাজনীতিতেই পাখা মেলে দিল। ক্রমে ক্রমে রাজনীতি হয়ে উঠল মুক্তিযুদ্ধ চেতনার বিরোধীশক্তি।বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে ইতিহাসের চাকা ঘোরাতে গিয়ে জেনারেল জিয়া কর্নেল তাহেরকে বিনা বিচারে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে জলাঞ্জলি দিয়ে পাকিস্তানি কায়দায় সেনাশাসন জারি করেছিল দেশে। এর বিরুদ্ধে যে জনমত তার সুযোগ গ্রহণ করে জিয়া শাসনের অবসান ঘটিয়ে জেনারেল এরশাদ গদিনসীন হলেন। প্রায় এক দশকে তার স্বৈরশাসন দেশবাসীকে হত্যা, গুম, খুন, নিপীড়ন-নির্যাতনের শিকারে পরিণত করে ফেলল। তারপর সবাই মিলে এরশাদকে হটিয়ে একটা আপসরফায় ক্ষমতাবদল হলো।... কত নির্মম ইতিহাস রচিত হলো। তারপর নিরবধি দিনরাত্রির সংগ্রামী আমাদের আবার গণতন্ত্রের পথে পৌঁছে দিল। কিন্তু কী অদ্ভুত! জিয়ার স্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জিতে গেলেন। অতঃপর যেসব কুৎসিত রাজনীতির নামে যে ঘটনাবলি হয়েছে, তার কোনো শেষ নেই। আর আমরা তো এই দেশেরই লড়াকু মানুষ, সব অঘটন-অপশাসনকে কখনো কিছুটা সহ্য করে আবার কখনো বিদ্রোহ করে জানিয়ে দিয়েছি আমাদের মতামত। তাই গণতন্ত্রের যাত্রা যদিও বা শুরু হলো, তা খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলতে থাকল।কারণ বিএনপি যে ভুল করেছিল ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে, তা নিয়ে প্রচুর রাজনৈতিক গোঁয়ার্তুমি করে দেখেছে মহাজোট সরকার এবং বিশেষ করে দলীয় ভিত্তিতে আওয়ামী লীগকে কাবু করা যাচ্ছে না। খালেদা জিয়া কত নাটকীয় রাজনীতি করলেন কিন্তু জমাতে পারলেন না। ৯৩ দিন নিজ-অবরোধ গুলশান কার্যালয়ে আলিশান ব্যবস্থাপনায় ৩০-৪০ সহচর-সহচারী নিয়ে দিনরাত্রি যাপন করেও ফায়দা কিছুই হয়নি। মাঝখান থেকে নিরীহ-গরিব মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করার অপরাধে ভবিষ্যতে অপরাধের সম্মুখীন হতে হবে। জনগণ তাকে প্রতিহত করে নতুন সরকার গঠন করে বর্তমান সরকার। এই সরকার করছেন।দেশের আপসহীন বুদ্ধিজীবী, শিল্পী, সাহিত্যিক, লেখক, সাংবাদিক, প্রকৌশলী, চিকিৎসক, শিক্ষাবিদ, শিক্ষার্থী এবং সব পেশাজীবী প্রতিনিধিদের সম্মিলিত প্রয়াসে বাংলাদেশকে শান্তি ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। দেশ এখন দিনে দিনে উন্নতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে যা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ দৃশ্যমান।

বিভাগ: 

মন্তব্যসমূহ

Md Mazharul এর ছবি
 

বহু চরাই উতরাই পেরিয়ে আজকের এই সোনার বাংলা ।

 

নতুন কমেন্ট যুক্ত করুন

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

Facebook comments

বোর্ডিং কার্ড

মলি
মলি এর ছবি
Offline
Last seen: 20 ঘন্টা 44 min ago
Joined: সোমবার, অক্টোবর 17, 2016 - 10:53পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর