নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

There is currently 1 user online.

  • ড. লজিক্যাল বাঙালি

নতুন যাত্রী

  • অন্নপূর্ণা দেবী
  • অপরাজিত
  • বিকাশ দেবনাথ
  • কলা বিজ্ঞানী
  • সুবর্ণ জলের মাছ
  • সাবুল সাই
  • বিশ্বজিৎ বিশ্বাস
  • মাহফুজুর রহমান সুমন
  • নাইমুর রহমান
  • রাফি_আদনান_আকাশ

আপনি এখানে

অজপাড়াগাঁয়ে গড়ে উঠছে টাউনশিপ


বর্তমানে দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ডের ছোঁয়া লেগেছে সবখানে। পর্যটন নগরী কক্সবাজার সংলগ্ন মহেশখালী দ্বীপ ঘিরে দেশী-বিদেশী অর্থায়নে উন্নয়নের যে মহাযজ্ঞ শুরু হয়েছে তাতে শুধু এলাকা নয়, দেশের সামগ্রিক অর্থনীতির চেহারা পাল্টে যাবে। পরিবেশ ও ভৌগোলিক অবকাঠামোগত সুবিধার কারণে মহেশখালী দ্বীপ এলাকা ইতোমধ্যে চিহ্নিত করা হয়েছে এলএনজি, কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুত প্রকল্প। ‘বাংলাদেশ-জাপান কম্প্রিহেনসিভ পার্টনারশিপ’ সমঝোতার আওতায় এ কর্মযজ্ঞ শুরু হয়েছে। কর্মসূচীর নাম দেয়া হয়েছে বিগ-বি বা বে অব বেঙ্গল ইন্ডাস্ট্রিয়াল গ্রোথ বেল্ট। এর আগে গভীর সমুদ্রবন্দর প্রতিষ্ঠার ফিজিবিলিটি স্টাডিও সম্পন্ন হয়েছে এ দ্বীপের সোনাদিয়া পয়েন্টে। দেশী-বিদেশী পরামর্শক ও অর্থায়ন নিয়ে ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে এলএনজি ও কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুত প্রকল্পের কাজ। দ্বীপের মাতারবাড়িতে কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুত কেন্দ্র, এলএনজি টার্মিনাল, কয়লা আমদানির জন্য জেটি নির্মাণ, মাতারবাড়ি থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন স্থাপন, কক্সবাজার থেকে মাতারবাড়ি পর্যন্ত সমুদ্রের ওপর দিয়ে সেতু নির্মাণ এবং মাতারবাড়ি ইউনিয়নকে একটি টাউনশিপ হিসেবে গড়ে তুলতে অর্থায়ন করবে জাপান সরকার। এজন্য জাপান সরকার খরচ করবে বিপুল অঙ্কের অর্থ। জাপান সরকার বিগ-বি প্রকল্পের জন্য ইতোমধ্যে যাবতীয় পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। মাতারবাড়িকে দেশের অন্যতম প্রধান জ্বালানি সরবরাহ কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা হবে। এ জন্য ঢাকা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজারের মধ্যে বিদ্যমান সড়ক ও রেল যোগাযোগ ব্যবস্থাকে শিল্প ও বাণিজ্যের উপযোগী করে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। পরবর্তীতে এর বিস্তৃতি ঘটবে পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে। এ কর্মসূচীর মাধ্যমে ঢাকা-চট্টগ্রাম-কক্সবাজার এলাকায় একটি ইন্ডাস্ট্রিাল বেল্ট প্রতিষ্ঠা করা হবে। প্রস্তাবিত বেল্টটির জন্য মাতারবাড়ি থেকে প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। কর্মসূচীর আওতায় সরকারের পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত শিল্প স্থাপনের জন্য একটি ডিটেইল্ড এরিয়া প্ল্যান তৈরির প্রস্তাব করা হয়েছে জাইকার কাছে। অজপাড়াগাঁয়ে গড়ে উঠছে টাউনশিপ। আর সোনাদিয়ায় প্রস্তাবিত সেই গভীর সমুদ্রবন্দর প্রতিষ্ঠা বাস্তবে রূপায়িত হলে দেশের সমুদ্র বাণিজ্যের চেহারাই পাল্টে যাবার পাশাপাশি অর্থনীতিতে আসবে আমূল পরিবর্তন। অবকাঠামোগত সুবিধার কারণে সরকারের এসব মেগা প্রকল্প গ্রহণে সায় দিয়েছে জাইকাসহ আন্তর্জাতিক পর্যায়ের বিশেষজ্ঞরা। এসব প্রকল্প যখন বাস্তবায়ন হবে তখন বৃহত্তর চট্টগ্রামের গ্যাস ও বিদ্যুত চাহিদার ঘাটতির অবসান ঘটার পাশাপাশি দেশের অন্যান্য অঞ্চলেও জাতীয় গ্যাস ও বিদ্যুত গ্রিডের মাধ্যমে সঞ্চালিত হবে সেখানকার উৎপাদিত বিদ্যুত ও আমদানিকৃত এলএনজি গ্যাস।

Comments

পথচারী এর ছবি
 

দেশি ও বিদেশি কর্মকাণ্ডে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ।

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

মলি
মলি এর ছবি
Offline
Last seen: 1 দিন 12 ঘন্টা ago
Joined: সোমবার, অক্টোবর 17, 2016 - 4:53অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর