নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • লিটমাইসোলজিক
  • কিন্তু

নতুন যাত্রী

  • আমজনতা আমজনতা
  • কুমকুম কুল
  • কথা নীল
  • নীল পত্র
  • দুর্জয় দাশ গুপ্ত
  • ফিরোজ মাহমুদ
  • মানিরুজ্জামান
  • সুবর্না ব্যানার্জী
  • রুম্মান তার্শফিক
  • মুফতি বিশ্বাস মন্ডল

আপনি এখানে

অধিকার

কর্মজীবি-মা নাকি কর্মজীবি ও মা?


সাহানা বাজপেয়ী আমার খুব প্রিয় একজন সংগীত শিল্পী। কয়েকদিন আগে তার ফেইসবুকের পাতায় পোস্ট করা একটা ছবি নজর কাড়লো বলেই আজ লিখতে বসলাম। সাহানা প্রফেশনাল শিল্পী, অনেক স্টেজ প্রোগ্রাম করেন। সাম্প্রতিক একটি অনুষ্ঠানে তিনি গাইছেন, এর মাঝেই তার তিন-চার বছরের মেয়েটি তাকে জড়িয়ে ধরে আছে- এমন একটি ছবি সবার সাথে তিনি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে শেয়ার করেছেন। এ ছবিটি একজন কর্মজীবি মায়ের ছবি। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আরেকটি ছবি সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়েছে, যেখানে ভারতের এক মহিলা ব্যাংক কর্মকতর্া অফিসের চেয়ার-টেবিলে বসে কাজ করে চলেছে, পিছনে মেঝেতে দুধের বোতলমুখে শুয়ে আছে তারছোট্ট জ্বরাক্রান্ত শিশু সন্তানটি। এটিও একটি কমর্জীবী মায়েরই ছবি।

আমরা হাস্যকর, আমরা নারী।


নারী হয়ে জন্ম নেয়া একটা হাস্যকর ব্যাপার! ভাবছেন কি যে ক্ষোভের বশে বলছি এটা? একদমই না! সুস্থ, শান্তভাবেই বলছি, কারন ক্ষোভটা অন্য জায়গায়।

কবিমন,প্রেমিক হৃদয়ের হয়তো অভিযোগ থাকবে, তারা তো নারীকে দেবী বন্দনায় প্রেম নিবেদন করে থাকেন, তবে এহেন কথা কেন? প্রেমের জন্য ট্রয় নগরীকে শ্মশান বানিয়ে দেয়ার মতোন ও অনেক পুরুষের ভালোবাসা! সমাজপ্রগতির চিন্তায় যাদের ঘুম হয় না, তারা লাঞ্ছিত, ধর্ষিত নারীর জন্য শোকে কাতরিত হাতে কলম বা কিবোর্ড তুলে নেন!

ভালো পুরুষ খারাপ নারী


বিশ্বাস খুবই ভয়ঙ্কর একটা ভাইরাস। এটি মানুষকে না দেয় যুক্তি মানতে না দেয় প্রমাণে আস্তা রাখতে। তেমনি পুরুষতন্ত্র মানুষের জীবনে এমন ভাবে লেপ্টে আছে যে এ থেকে বের হবার উপায় খোঁজে পাওয়া কঠিন। এটি বিশ্বাসের মতো ভাইরাসে আক্রান্ত। এ ভাইরাস এমনই কঠিন ভাইরাস যে এটিই এখন এন্টিভাইরাস বলে মানুষ বিশ্বাস করে।

আমাদের জন্য এ নগর মৃত্যু ফাঁদ


এই নগরের বেশিরভাগ নাগরিক নিম্ন মধ্যবিত্ত আয়ের পরিবারের সদস্য। হয় আপনি হয় সকাল নয়টা টু রাত আটটা কর্পোরেট ঘানি টানেন কিংবা সরাদিন সন্তান সামলান। পড়াশুনা কিংবা ব্যাবসা আর সরকারী চাকরি করেই জীবনযাপন করে হয়তো বাকি লোকগুলো। এ শহরে জীবনযাপন যতই দিন যাচ্ছে ততই নরকময় হয়ে উঠছে। ঘরে থাকলে পানি পাবেন না, গ্যাস নেই, লোডসেডিং। বাসার বাইরে বের হলেই আপনার প্রথম পা ফেলতে হবে নাক চেপে। ঢাকা শহরের রাস্তার চেয়ে অজপাড়া গায়ের রাস্তা এখন ঢের ভালো। এখানে হাঁটতে গেলে প্যান্ট গুটিয়ে হাঁটুর উপরে তুলে হাঁটতে হবে আপনাকে। বর্ষা হলে সাঁতার না জানলে রাস্তা বের হওয়া ঠিক হবে না। রাস্তার দুইপাশে যে ময়লার স্তুপ থাকে বৃষ্টির

বাঙালির পরিচয়


ইদানীং, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাংলাদেশে আদিবাসীদের অধিকার নিয়ে মাত্রাতিরিক্ত নেতিবাচক Post চোখে পড়ার মতো বৃদ্ধি পেয়েছে।
কিছু অপ্রত্যাশিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিছু সুযোগ সন্ধানী দুষ্কৃতিকারী, সুযোগসন্ধানী ব্যক্তি, তথাকথিত বুদ্ধিজীবী, বিচ্ছিন্নতাবাদের আগুনকে উস্কে দিচ্ছে।
দুঃখের বিষয় হচ্ছে, আমাদের কেউ সহানুভূতি দেখাতে গিয়ে, কেউ স্বচ্ছ ধারণার অভাবে, কেউবা সীমিত জ্ঞানের কারণে, না জেনে- না বুঝে এসব হঠকারীদের সাথে সুর মিলিয়ে ফেলছেন। যা বিচ্ছিন্নতাবাদের আগুনে "ঘি" ঢেলে দিচ্ছে।

আমি পুরুষ হয়ে বাচঁতে চাই


শিপন একজন দিনমজুর, ইতিপূর্বে একটি ডাকাতি মামলায় পাঁচ বছর জেল খেটে বেড়িয়েছে এক বছর হলো। আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলে অপরাধী তার সাজা ভোগ করে সভ্য সমাজে ফিরে আসবেন, এটাই স্বাভাবিক প্রক্রিয়া।
জেলখানাকে বলা হয় Correctional Home, কিন্তু এই বেচারার মনের কালি দূর হয়নি মোটেই। মাত্র পৌনে চার বছরের তানহা তার প্রতিবেশী পরিবারের একমাত্র সন্তান।

নিকৃষ্ট নারী ও নারীবাদ


আমার ঘরের দরজায় বেগম রোকেয়ার একটা পোস্টার সাঁটা ছিল। স্কুল-কলেজ জীবনে। পরীক্ষার দিনগুলিতে কথা শুনাতাম পোস্টারের বেগম রোকেয়াকে। কি দরকার ছিল আপনার এতো নারীশিক্ষার আন্দোলন করার। জীবন তো ফানা ফানা হয়ে গেল পড়তে পড়তে। আপনার কপাল ভাল ছিল তাই পরীক্ষা দিতে হয়নি। পড়তে পড়তে আমার কালো অঙ্গ কাইল্যা হয়ে গেল। ইস কি দরকার ছিল আপনার এতো ঝামেলা করার। আমার মা শুনলেই বলতেন “আজ এমন করে বলছিস, একদিন বুঝবি নারী শিক্ষার দরকার কত? সেই আমলে উনি বুঝেছেন, মেয়েদের জীবনের সব থেকে বড় প্রয়োজন শিক্ষা। নারী শিক্ষাই শুধু না সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত হওয়াটাই বেশি প্রয়োজন জানবি, বুঝবি একদিন”।

মুসলিম বিবাহ আইন-১


ধরা হয় বিয়ে একটি পবিত্র বন্ধন। দু’জন মানুষের (নারী+পুরুষ) একসাথে যৌনক্রিয়ার জন্য বসবাসের অনুমোদন নেয়ার একরীতি এই বিয়ে। কিছু অঙ্গিকার, কিছু আশা, ভালোবাসা নামক অনুভূতি ইত্যাদি নিয়ে এর সূচনা হয়। কিন্তু পথ মটেও মধুর থাকেনা সবসময়। ভালোবাসার টানে নাকি দুজন মানুষ কাছাকাছি আসে, একসাথে থাকে বা বিয়ে করে। কিন্তু আমি ভালোবাসবোটা কাকে? এই সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিয়ে দেয়া হয়! যদি আমি হিন্দু পরিবারে হই তবে হিন্দু আর যদি মুসলিম পরিবারের হই তো মুসলিম।

পৃষ্ঠাসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর