নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজিব আহমেদ
  • নাগিব মাহফুজ খান
  • পৃথু স্যন্যাল
  • নুর নবী দুলাল
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • আমি অথবা অন্য কেউ

নতুন যাত্রী

  • গোলাম মাহিন দীপ
  • দ্য কানাবাবু
  • মাসুদ রুমেল
  • জুবায়ের-আল-মাহমুদ
  • আনফরম লরেন্স
  • একটা মানুষ
  • সবুজ শেখ
  • রাজদীপ চক্রবর্তী
  • নাজমুল-শ্রাবণ
  • চিন্ময় ভট্টাচার্য

আপনি এখানে

ধর্ম-অধর্ম

দেশের কোণে কোনে স্থাপিত হোক মৃণাল হকের ভাস্কর্য্যের অবিকল প্রতিরুপ!



মৃণাল হকের ভাস্কর্য্যকে আর জায়গামত নেবার কোন উপায় নেই। কিন্তু আমার মনে হয় যারা ব্যাপারটা মেনে নিতে পারছেন না, তারা সহিংস না হয়ে অন্য পদক্ষেপও নিতে পারেন। যেমন, দেশের নানা স্থানে বানানো যেতে পারে শত সহস্র অবিকল একই ভাস্কর্য্য ওরফে হেফাজতীদের মতে দেবী থেমিসের মূর্তি ওরফে দেশের উচ্চপদে থাকা কারো কারো মতে গ্রীক দেবী থেমিসের দেশি ভার্সন অদ্ভুত মূর্তি। ভাস্কর্য্য কিংবা মূর্তি কোথাও স্থাপন দেশের আইনানুসারে এখনো অবৈধ নয়। হেফাজতীদের দাবী মানতে গেলে তখন দেশের আইন পালটে মূর্তি ও ভাস্কর্য্যই নিশিদ্ধ করতে হবে। আর সেটাই যদি হয়, তখনই দেশের মানুষ জাগবে। কারণ, এমন অসহিষ্ণু দেশ দেশের নাগরিকদের সিংহভাগই চায়না।

হাইকোর্টের সামনের ভাস্কর্য সরানো বা না সরানো- কোনটা সঠিক , ইসলামিক ?


বাংলাদেশের হাইকোর্টের সামনে একটা নারী মূর্তি বা ভাস্কর্য নিয়ে শুরু হয়েছে হেফাজতের আন্দোলন। সেই আন্দোলনে সমর্থন জুগিয়েছেন আমাদের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিছু সংস্কৃতিমনা লোক বুঝে বা না বুঝে এর বিরোধীতা করছে। এখন প্রশ্ন হলো - কাদের দাবী সঠিক? হেফাজত ইসলামের দাবী , নাকি সংস্কৃতিমনা লোকদের দাবী ? যদি এই দেশের ৯০% মানুষের প্রানের ধর্ম ইসলাম হয়ে থাকে , তাহলে তাদের আসলে কাদের পক্ষে সমর্থন দেয়া উচিত ? সেটাই ব্যখ্যঅ করা হবে এখন ।

মীর জাফরের চেয়েও বড় গালি হবে শেখ হাসিনা!


পত্রিকা খুললেই শত শত সব দুর্নীতির খবর। যেন তেন সব দুর্নীতি না, একেবারে বিশ্ব রেকর্ড করার মত দুর্নীতি! লাখ টাকা দিয়ে সিলিং ফ্যান কেনা হচ্ছে! তাও আবার ভিক্ষার টাকায়। কোন বিচার নেই, ঠেকানোর উদ্যোগ নেই। অথচ শ্যামল কান্তিকে জেলে পাঠানো হয়েছে ঘুষের অভিযোগে। অর্থমন্ত্রী না বলেছিলেন, ঘুষ বলে কিছু নেই, সব স্পীড মানি? অনেক দেশেই নাকি এমন ব্যবস্থা। তো নিরীহ শিক্ষক মশায়কে সেই বাবদে একটু ছাড় দিতে পারতেন।

সালমান আবেদি কেন মানচেষ্টারে গানের কনসার্টেই হামলা চালাল ?


সালমান আবেদি আরও বহু যায়গা যেমন সুপার মার্কেট বা অন্য কোন জনবহুল জায়গায় আক্রমন করতে পারত। কিন্তু সেসব না করে কেন গানের কনসার্টকে তার আক্রমনের লক্ষ্য বস্তু করল ? কি কারন ?

রমজান - রহমত , গুনাহ্ মাফ ও জাহান্নাম থেকে মুক্তি বনাম অভিশাপ, লা’নত্ ও আল্লাহর গজবের মাস


রমজান মাস রহমত , গুনাহ্ মাফ্ ও জাহান্নাম হতে মুক্তির মাস ।।

রমজান মাস রহমতের মাস তাদের জন্য - যারাঃ

আল্লাহর বাণীতে বিশ্বাস স্থাপন করে যে شَهْرُ رَمَضَانَ الَّذِي أُنزِلَ فِيهِ الْقُرْآنُ هُدًى لِّلنَّاسِ وَبَيِّنَاتٍ مِّنَ الْهُدَىٰ وَالْفُرْقَانِ

* এই সেই রমজান মাস, যে মাসে ক্বোর'আন অবতীর্ণ হয়েছে মানুষমাত্রের পথ নির্দেশনার জন্য , যাতে সবিস্তার হেদায়াত রয়েছে , যা ন্যায় অন্যায় যাচাইয়ের কষ্টিপাথর।”

* আল্লাহর নির্দেশ ও রাসূল (সা:) এর আমল অনুযায়ী সিয়াম সাধনা করবে ।

* ক্বোর'আন শিখবে ও শিখাবে , অর্থ বুঝে আমল করবে ।

সালমান আবেদী কেন মানচেষ্টারে কনসার্টে হামলা করল ?


ইসলামে খুব পরিস্কারভাবে অমুসলিম ও মুনাফিকদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার ও তাদের ওপর কঠিন আঘাত হানার বিধান দেয়া আছে। ইসলামে নাচ ও গান কঠিনভাবেই হারাম। সুতরাং উক্ত কনসার্টে যারা গেছিল তাদের প্রায় সবাই ছিল অমুসলিম তথা কাফের। আর যদি কিছু মুসলমান ঢুকেও থাকে , তারা ইসলামের বিধান অমান্য করেই সেখানে গেছে। আর তাই তারা হলো আসলে মুনাফিক। সালমান আবেদী কনসার্ট লক্ষ্য করে এ আক্রমন চালায় এই উদ্দেশ্যে যে তার আঘাতে যেন কোন খাটি মুমিন নিহত না হয়। পরে যেন কেউ অভিযোগ করতে না পারে যে , তাদের আক্রমনে মুসলমানরাও নিহত হয় ও একারনে এই জিহাদ ইসলাম সম্মত নয়।

সভ্যতার উন্নয়নে বৈদিক মনিষীদের বিস্ময়কর অবদান!!


আজকাল বাসাবাড়ী জীবানু মুক্ত রাখার জন্য সেভলন, সেপনিল, ডেটল, হারপিক, ফিনাইল ইত্যাদি তরণ রাসায়নিক ব্যবহার করা হয়। অথচ কেহই জানে না, কবে থেকে কার নির্দেশের কিংবা উপদেশে হিন্দুবাড়ীর আঙ্গিনা, বসত ভিটি ও জায়গা জীবানুমুক্ত রাখার জন্য গো-ছনা ও গো-বিষ্টা ব্যবহার করা হয়ে আসছে। গো-ছনা আর গো-বিষ্টার মধ্যে জীবানু নাশক উপদান আছে এবং এভাবে ব্যবহার করার ফলে কোনরুপ পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ছাড়াই জীবনুমুক্ত পরিবেশ পা্ওয়া যায় – এটি বৈদিক ঋষিরা তাদের অনুসারীদের উপদেশ দিয়ে গেছেন বলেই আজও হিন্দুরা গ্রামের বাড়ীতে গো-ছনা, গো-বিষ্ঠা ব্যবহার করে থাকে। জীবানুমুক্ত পরিবেশের জন্য এটা যে কতবড় আবিষ্কার ছিলো এটা অন্য ধর্মাবলম্বী তো দূরের কথা স্বয়ং হিন্দুদের মাথাও ব্যাপারটা কাজ করে কি না সন্দেহ।

ডোনাল্ড ট্রাম্প কি ইসলাম গ্রহন করল , নাকি সৌদি বাদশা সালমান ইসলাম ত্যাগ করল ?


আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সৌদি সফরের সময় সৌদি বাদশা সালমান ট্রাম্পের বেপর্দা স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পের সাথে করমর্দন করেছেন প্রকাশ্যে , সারা দুনিয়ার মানুষ দেখেছে। এই বাদশা সালমান শুধু সৌদি আরবের বাদশাই না , তিনি কাবা শরিফ ও মসজিদে নব্বির মোতোয়াল্লীও। যে সৌদি আরবে কঠোর ইসলামী শাসন চলে , যেখানে নারীরা মুখ ঢাকা বোরখা ছাড়া বাইরে যেতে পারে না, সেখানে সালমানের এই আচরন কি প্রমান করে ? তিনি কি ইসলাম ত্যাগ করে মুর্তাদ হয়ে গেলেন ? তাছাড়া , কোরানে বলেছে-

সুখি সমকামি যুগল নাকি অসুখি বিষমকামী দম্পতি?


বছর পনের আগের কথা। আমাদের মহল্লার এক ছটফটে তরুনীর বিয়ে হল খুব ঘটা করে। মেয়ে দেখার দিনে ছেলে অনুপস্থিত কিন্তু ছেলেপক্ষ ডায়মন্ডের আংটি নিয়ে এসেছিল সাথে করে, মেয়ের আঙুলের মাপ না জেনেই। ঢ্যাঙা গোছের শ্যামলা মেয়ের হাতের চা খেয়ে দামী গাড়িতে চড়ে আসা ছেলের মা, মিসেস চৌধুরি এতই মুগ্ধ হয়েছিলেন যে নিজের হাতের বেশ চওড়া বালাগুলো তৎক্ষনাৎ খুলে মেয়েটির হাতে পরিয়ে দিতেও এক মুহূর্ত দেরি করেননি। শুকনো দুহাতে ঢলঢলে বালাদুটো পরে মেয়েটা যখন বিকেলে পাড়ার আর সব মহিলা আর সমবয়সী মেয়েদের সাথে আড্ডা দিতে আসত, আমার কেন যেন হাতে বেড়ি পরা জেলখানার কয়েদী মনে হত ওকে। টানাপোড়েনের সংসারে বেড়ে ওঠা মেয়ে

ইসলাম গ্রহন না করাটাই অপরাধ, আর তার শাস্তি মৃত্যুদন্ড


প্রায়ই মুমিনরা প্রচার করে - যার যার ধর্ম তার তার কাছে। কথাটা ডাহা মিথ্যা কথা। মুহাম্মদের জীবনে সর্বশেষে নাজিল হয় সুরা তাওবা। এই তাওবার বিধানই হলো ইসলামের সর্বশেষ বিধান। সুরা তাওবাতে বলা হয়েছে - ইসলাম গ্রহন না করাটাই হলো অপরাধ এবং অনর্থ সৃষ্টি করা। আর এর শাস্তি হলো তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে হত্যা করা।

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর