নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • আকাশ লীনা
  • সীমান্ত মল্লিক

নতুন যাত্রী

  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম
  • মোঃ মনজুরুল ইসলাম
  • এলিজা আকবর
  • বাপ্পার কাব্য

আপনি এখানে

ধর্ম-অধর্ম

কুরআন অনলি: (৮) কুরআানে অবিশ্বাস ও তার কারণ!


স্বঘোষিত আখেরি নবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) তার আল্লাহর রেফারেন্সে সুদীর্ঘ ২৩ বছর ব্যাপী (৬১০সাল- ৬৩২ সাল) যে বানীগুলো প্রচার করেছিলেন তার এক বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো, একই বাক্য বা বিষয় ঘুরিয়ে ফিরিয়ে বার বার উপস্থাপন করা। তিনি তার জবানবন্দি ‘কুরআনে’ ঘোষণা দিয়েছেন যে, অবিশ্বাসীরা তার দাবীকে নাকচ করতেন এই অভিযোগে যে তিনি যা প্রচার করছেন তা তাদের কাছে ‘পূর্ববর্তীদের কিচ্ছা-কাহিনী ও উপকথা বৈ আর কিছু নয়।’

মুহাম্মদের ভাষায়: [1] [2]

ইসলামের বিধান: দুনিয়াতে বেঁচে থাকাটাই হারাম , কারন ইসলাম হলো Death Cult


ইসলামের বিধান অনুযায়ী, এই দুনিয়া দুই দিনের জন্যে পরীক্ষা ক্ষেত্র মাত্র। মরার পরের জগতই আসল। দুই দিনের দুনিয়াতে থাকার সময় যেসব নেক কাম কাজ মুমিন বান্দারা করবে, যাকে বলে পরীক্ষা , তার ভিত্তিতে কেয়ামতের মাঠে বিচার হবে , যারা পাশ করবে , তারা সোজা বেহেস্তে চলে যাবে। দুনিয়াতে সেই পরীক্ষা দিতে হলে অনেকগুলো কাজ করা যাবে না , যাকে হারাম বলা হয়েছে। সেইসব হারাম কাজের ভিত্তিতে বিচার করলে দেখা যায়, দুনিয়াতে বেঁচে থাকাটাই একটা মহা হারাম কাজ।

ধার্মিক ও অসাম্প্রদায়িক : পারষ্পরিক সম্পর্ক


ধার্মিকতা এবং অসাম্প্রদায়িকতা একসাথে যায়না। এই থিসিসটা শুনতে খারাপ এবং ভাবতে নির্বোধের মতো মনে হয় অনেকের কাছে। তবুও একবার ভেবে দেখা যাক।

তার আগে একটা কথা বলে রাখি।কলহপ্রিয় মানুষেরা বলেন যে ধর্ম বলতে বোঝায় কোন কিছুর অর্ন্তগত বৈশিষ্ট্য। যেমন আগুনের ধর্ম উত্তাপ, বাতাসের ধর্ম প্রবাহমানতা ইত্যাদি ইত্যাদি। তাদের জন্য জ্ঞাতব্য হচ্ছে পদার্থের বৈশিষ্ট্য (Properties) আর মানুষ কর্তৃক মান্য সর্বশক্তিমান সৃষ্টিকর্তাকেন্দ্রিক ধর্ম (religion) - এ দুটোকে একসাথে গোলাবেন না। যদি না গোলান তাহলে পরের কথায় আসি।

পশ্চিম দিকে পা দিয়ে ঘুমানো বা বসা জায়েজ/ইসলাম সম্মত কিনা..?


পশ্চিম দিকে পা দিয়ে ঘুমানো বা বসা জায়েজ কিনা-এ নিয়ে আমাদের সমাজে মধ্যে বিতর্ক রয়েছে। আসলে কোরআন, হাদিস ও সালফে-সালিহীনের বক্তব্যে এ বিষয়ে কোনো বিতর্ক পাওয়া যায় না। তবে বর্তমান বিশ্বে এ নিয়ে কিছুটা বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।

সেদিন মানুষের জন্য আমাদের প্রাণ কাঁদেনি, কেঁদেছিলো ধর্মের জন্য।


মিয়ানমারে উগ্র বার্মিবাদীদের হাতে যখন রাখাইনরা নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছিলো, তখন আমাদের দেশের মানুষের মানবতা অন্তত প্রথম বারের জন্য হলেও উঁকি দিয়েছিলো। আমরা যারা মানুষের জন্য মানুষের মন সিক্ত হওয়ার মতো জগৎশ্রেষ্ঠ সুন্দর দৃশ্যটি দেখার অপেক্ষায় ছিলাম, তারা খুশি হলাম এই ভেবে যে, যাক আমরা শেষ পর্যন্ত মানুষ হতে পারলাম! মানুষের জন্য কাঁদার মানসিকতার মতো মনোহরবৃত্তি জগতে আর কিছু নেই। আমরা সেটা রপ্ত করে ফেলেছি!

ইসলামের বিধান : লুইচ্চাকে লুইচ্চা না বলে সর্বশ্রেষ্ঠ মহাপুরুষ বলতে হবে, না বললেই কল্লা কাটা যাবে


প্রথমেই জানা দরকার , সমাজে লুইচ্চা কাকে বলে ? ঘরে বউ রেখে , যদি কোন পুরুষ মানুষ অন্য লোকের স্ত্রীর সাথে ফষ্টি নষ্টি করে , তারপর নানা কায়দা করে তাকে বিয়ে করে ঘরে তোলে , তাহলে এই ধরনের পুরুষকে লুইচ্চা বলে। লুইচ্চা টাইপের পুরুষকে কেউ সম্মান করে না , সমালোচনা করে , তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে। বাংলাদেশের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট এরশাদ এ ধরনেরই একজন লুইচ্চা । ঘরে বউ রেখে , সে অন্যের স্ত্রীর সাথে প্রেমলীলা করে তাকে নিয়ে ফুর্তি করত। তার কারনে কিছু নারীদের সংসার ভেঙ্গে গেছে। তাকে নিয়ে এক সময় দেশের মানুষ রঙ্গ তামাসা করত , সমালোচনা করত।

নাস্তিক না আস্তিক?


সত্য বলো খোকা তুমি আস্তিক না নাস্তিক,
সত্য হল আমি অজ্ঞেয়বাদী।

আস্তিকদের সম্পর্কে আমার কখনো তেমন উচু ধারনা ছিল না, এবং গত ৫ বছর নাস্তিক, ও আজ্ঞেয়বাদীর পরিচয় ব্যাবহার করে বাংলা ভাষা ব্যবহার করা নাস্তিকদের সাথে কথা বলবার সুযোগ হবার পরে তাদের নিয়েওে কোন উচু ধারনা নেই। গত ৫ বছরে অনেক মূর্খে ও পিশাচ টাইপ নাস্তিকের সাথে পরিচয় হবার সুযোগ হয়েছে।

পৃষ্ঠাসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর