নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • এলিজা আকবর
  • পৃথ্বীরাজ চৌহান
  • নুর নবী দুলাল

নতুন যাত্রী

  • সুমন মুরমু
  • জোসেফ হ্যারিসন
  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান

আপনি এখানে

সমালোচনা

আস্তিক - নাস্তিক পার্থক্য ও ব্যক্তিগত মতামত!!


"আস্তিকরা এক ধরনের বই পড়ে নিজেদেরকে মহাজ্ঞানী মনে করে! আর নাস্তিকরা সব ধরনের বই পড়ে চুপচাপ থাকার চেষ্টা করে!

"আস্তিকদেরকে তাদের ধর্ম সম্বন্ধে প্রশ্ন করলে রেগে যায়। আর নাস্তিককে যেকোনো ধর্ম নিয়ে প্রশ্ন করলে সেটার সুন্দরভাবে উত্তর দেয়ার চেষ্টা করে।

"আস্তিকরা সবাই এখনো একমত হতে পারেনি যেকোনো একটা ধর্ম সঠিক। কিন্তু নাস্তিকরা একমত হয়েছে যে পৃথিবীর কোন ধর্মই সঠিক না‌।

"আস্তিকরা নিজের ধর্ম ব্যতীত অন্য সকল ধর্মের মানুষদের শত্রুর চোখে দেখে। আর নাস্তিকরা পৃথিবীর সকল মানুষকে মানবতার দৃষ্টিতে বন্ধুর মত মনে করে।

বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা এবং কোথায় যাচ্ছি আমরা


বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা কিংবা শিক্ষা নীতির দিকে তাকালে আমি ভয় অনুভব করি।সেই ভয়ের
অনেক কারণ ও অবশ্য আছে।আমি জানি না শুধু আমি একাই ভয় পাচ্ছি নাকি আমার মতো আরো অনেকেই ভয় পাচ্ছে।হয়ত আমার পুরো লেখাটা পড়ে কেউ মনে মনে বলে উঠবে বাহ আমার ও তো এরকমই চিন্তাভাবনা, ওনার চিন্তার সাথে আমার চিন্তার অনেকাংশেই মিল।অনেকের হয়তো আমার লেখা ভালো নাও লাগতে পারে।দ্বিমত থাকবেই স্বাভাবিক।দেশটা নিয়ে ভয় কেন হয় তা আমার পুরো লেখাটি পড়লে আপনার কাছে পরিষ্কার হবে এই আশা করছি।টাইপিং মিসটেকের জন্য আগে থেকেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।

রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের জন্য আশির্বাদ নাকি অভিশাপ


আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ভারত সফর সময়কার একটা লেখা সমকাল পত্রিকায় সম্পাদকীয় কালের আয়না বিভাগে শ্রদ্ধেয় আব্দুল গাফফার ছৌধুরীর "পাকিস্তান যেটা করে শিক্ষা হয়েছে - ভারতের তা দেখে শিক্ষা নেওয়া উচিত"। আমেরিকার মতো বন্ধু থাকলে আর শত্রুর দরকার নেই কারো, কথাটা খুবই প্রচারিত সত্য যা আমার বয়স সময় কালের বিশ্ব রাজনীতি যুদ্ধ বিরোধ থেকেই প্রমানিত মনে করি। আমি মুলত ভারত-পাকিস্তান-আমরিকা নিয়ে লিখবনা, লিখবো আমাদের সমস্যা নিয়ে, আমরা কতটা শিক্ষা নিচ্ছি অতীত থেকে,

রোহিঙ্গা বাংলাদেশের জন্য অভিশাপ নাকি আশীর্বাদ

মানবতা নয়, পাকিস্তান ভোট দিয়েছে ধর্মের বিবেচনায়।


রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারত বাংলাদেশকে ভোট দেয়নি, কিন্তু পাকিস্তান দিয়েছে এই খুশিতে যে সকল ইমানদার পাক-প্রেমিক ভাইয়েরা বগল বাজাতে শুরু করেছেন, তারা শুনুন, রোহিঙ্গা ইস্যুটিকে ভুল ভাবে উপাস্থাপন করা হয়েছে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে। মিয়ানমার সামরিক বাহিনী কর্তৃক রাখাইন জনগোষ্ঠির উপর বর্বরোচিত নির্যাতনকে 'মানবতা'র সমস্যা না বলে উপস্থাপন করা হয়েছে 'ধর্মীয়' সমস্যা হিসেবে। যার কারণে রাখাইন মুসলিম জনগোষ্ঠির পক্ষে নিয়ে পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও মালদ্বীপ বাংলাদেশকে ভোট দিলেও, অমুসলিম মিয়ানমারের পক্ষ নিয়ে বাংলাদেশকে ভোট দেয়নি অমুসলিম দেশ নেপাল, ভুটান ও শ্রীলঙ্কা।

ফেমিনিজমের নামে নগ্নতা!!


আমার ডাক্তার সাহেবা একবার বলেছিলেন, সাইকোলজীর বইগুলো পড়লে নাকি বোঝা যায় যে বাংলাদেশের শতকরা ৮০% মানুষই কোন না কোনভাবে মানসিক রোগে আক্রান্ত। শতকরা হিসেবে সংখ্যাটা একটু কমতে পারে তবে ধারণাটা একেবারে ভুল না। আমাদের আশেপাশেই অনেক সুশীল ব্যক্তিবর্গ আছেন যাদের বিভিন্ন কাজকর্ম দেখে সত্যি ব্যাপারটা আরও পরিষ্কার মনে হয়।

ইসলাম অবমাননার নামে টিটু রায়কে গ্রেপ্তারঃ এটা সরকার-প্রশাসনের নির্লজ্জতাই ফুটে উঠে!


আওয়ামিলীগ সরকার (ও তার প্রশাসন) মুসলমানের সমর্থনের জন্য এতোটা নগ্ন ও নির্লজ্জ হয়েছে যে, তাদের এই নির্লজ্জতা ঠিক কোন ভাষায়, কোন শব্দ দিয়ে ব্যাখ্যা করবো, সেইটুকু ভাষা ও শব্দ আমার জ্ঞাণ ভাণ্ডারে নেই। রংপুরের ঠাকুর পাড়ার টিটু রায়কে ঠিক কোন অপরাধে গ্রেপ্তার করলো আওয়ামিলীগ সরকারের প্রশাসন? আমি বুঝে উঠতে পারছি না টিটু রায়ের অপরাধটা কি? যে ছেলেটা ফেইসবুকের 'ফ' ও বুঝেনা, সেই ছেলে কি করে ইসলাম ও নবী অবমাননা করবে?

নাস্তিক না আস্তিক?


সত্য বলো খোকা তুমি আস্তিক না নাস্তিক,
সত্য হল আমি অজ্ঞেয়বাদী।

আস্তিকদের সম্পর্কে আমার কখনো তেমন উচু ধারনা ছিল না, এবং গত ৫ বছর নাস্তিক, ও আজ্ঞেয়বাদীর পরিচয় ব্যাবহার করে বাংলা ভাষা ব্যবহার করা নাস্তিকদের সাথে কথা বলবার সুযোগ হবার পরে তাদের নিয়েওে কোন উচু ধারনা নেই। গত ৫ বছরে অনেক মূর্খে ও পিশাচ টাইপ নাস্তিকের সাথে পরিচয় হবার সুযোগ হয়েছে।

বিশ্বাসের ভাইরাস - পর্ব তিন! নারী বলেই কি মেয়েরা অবহেলিত?


ফুটন্ত গোলাপের মত একটি শিশুর আগমন ঘটে এই পৃথিবীতে। আস্তে আস্তে বাড়তে থাকে শিশুটির শারীরিক গঠন। পৃথিবীর সব ধরনের জীব জন্তু পশুপাখি একই নিয়মে বেড়ে ওঠে। মানুষও এটার বিপরীত নয়। বিবর্তনের কারণে আজকে মানুষের এই জায়গায় উপস্থিতি। মানুষের বিবর্তন হয়েছে দীর্ঘ সময় ধরে, আর এখনও হচ্ছে।

উৎসর্গ, ছিনালবাদী লেখক, দাউদ হায়দার’কে


নারী

নারী’র গর্ভে থেকে, পুরুষ তুই,
পৃথিবী’তে এলি, তা কী তুই ভুলে গেলি!
কেন তবে জন্মেই, তাকেই দিস গালি!
বেশ্যা!ছিনাল মাগি! আরও কতকি!

কৃষিকাজ কে শিখিয়েছিল তোকে?
জানিস কী তুই, তা?
তাহলে কেন রটিয়ে বেড়াস,
তার নামে’ই মিথ্যা?

তুই কী মনে করিস,
নারীর যৌনাঙ্গ, তোর বীর্য ফেলার জায়গা?
পাচ্ছে হাসি, ওরে তুই বড্ড বোকা!

শিশ্ন নিয়ে গর্ব করিস? ওরে মহাবীর!
ওই নিস্তেজ অংশ, সজাগ হয়,
স্পর্শে, নারীর।

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর