নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নগরবালক
  • নুর নবী দুলাল
  • শ্মশান বাসী
  • মৃত কালপুরুষ
  • গোলাপ মাহমুদ
  • সজীব সাখাওয়াত

নতুন যাত্রী

  • নীল মুহাম্মদ জা...
  • ইতাম পরদেশী
  • মুহম্মদ ইকরামুল হক
  • রাজন আলী
  • প্রশান্ত ভৌমিক
  • শঙ্খচূড় ইমাম
  • ডার্ক টু লাইট
  • সৌম্যজিৎ দত্ত
  • হিমু মিয়া
  • এস এম শাওন

আপনি এখানে

আন্তর্জাতিক

তুরস্ক কর্তৃক আর্মেনিয়ান গণহত্যা (১৯১৫-১৯১৮)


গ্রামে নতুন আতঙ্ক ছড়িয়েছে যে, শহর থেকে দলে দলে সৈন্যদল আসছে আর গ্রামের পর গ্রাম আগুনে পুড়িয়ে দিচ্ছে। শিশু থেকে শুরু করে নারী, পুরুষ, বৃদ্ধ কাউকে বাদ রাখা হচ্ছে না যাকেই সামনে পাচ্ছে তারা তাকেই হত্যা করে গ্রামের একস্থানে মৃতদেহ জড় করে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিচ্ছে। খুবই নৃশংসভাবে তারা সাধারণ মানুষ হত্যা করছে। আমাদের গ্রাম বা আশেপাশের গ্রামগুলিতে এখনও এধরনের কোন ঘটনা শুনতে পাইনি। গ্রামের প্রধান ডাকঘরে কয়েকদিন ধরে কোন সংবাদপত্র আসছে না তাই আর নতুন কোন খবর পাওয়া যাচ্ছে না। শহর থেকে পালিয়ে আশা অনেকেই বলাবলি করছে আমরা যদি মুসলিম জাতি না হই আমাদেরকেও হত্যা করা হবে। আমি আমার পরিবারকে নিয়ে খুব দুশ্চিন্তাই সময় পার করছি।

ফিলিস্তিনের জাতীয় মুক্তি সংগ্রামের সবচেয়ে বড় শত্রু কে?


কয়েকদিন পরপর স্বাধীনতাকামী ফিলিস্তিনিরা মৃত্যুবরণ করে মিডিয়ার আলোচনায় আসে। আমরা সাধারণ জনগন হিসেবে কিছুদিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সক্রিয় থাকি, তারপর বিবিধ ইস্যুতে আবার ব্যস্ত হয়ে যাই। ফিলিস্তিনিদের সংগ্রাম চলতেই থাকে। নিজের ভূমিতে বিদেশী মানুষ হয়ে থাকার যন্ত্রনা তারা নিজেরা ছাড়া আর কেউ জানেনা।

ফকল্যান্ড ওয়ারের গেম চেঞ্জারঃ অপারেশন ব্ল্যাক বাক



ফকল্যান্ড যুদ্ধ হয় আটলান্টিক মহাসাগরে, ব্রিটেন থেকে ১৬ হাজার কিলোমিটারের লম্বা লজিস্টিক রুট বহুদিন চালানো ব্যাপক খরচের ব্যাপার ছিল। আর্জেন্টিনার মেইনল্যান্ড থেকেও ফকল্যান্ড ছিল ৫৫০ কিলোমিটার দূরে। ব্রিটিশদের পক্ষে আর্জেন্টাইন মেইনল্যান্ডে যুদ্ধ নিয়ে যাওয়া সম্ভব ছিল না। আর্জেন্টিনার পক্ষেও এত দূরের ফকল্যান্ডে নেভাল আর এয়ার অপারেশন ছিল দূরুহ। তারপরও আর্জেন্টাইনরা শুরুতেই একটা সুবিধা পায়। ফকল্যান্ডের পোর্ট স্ট্যানলির এয়ারফিল্ড এম্ফিবিয়াস ইনিভেশনের পর আর্জেন্টাইনদের দখলে আসে। সেখানে জেট এয়ারক্রাফট, এয়ার ডিফেন্স রাডার, এন্টি এয়ারক্রাফট গান আর স্যাম সিস্টেম মোতায়েন করে। ফাস্ট স্ট্রাইক এয়ারক্রাফটগুলো ছিল ব্রিটিশ টাস্কফোর্সের জন্য মারাত্মক হুমকি।

অতীব সম্পদশালী দেশ ভেনেজুয়েলার আজকের শোচনীয় অবস্থা এবং প্রাসঙ্গিক আলোচনা



যে দেশ গত শতকের ইতিহাসের অর্ধেকের বেশি সময় পৃথিবীর তেলের সবচেয়ে বড় রপ্তানিকারক ছিল, তাদের দেশের মুদ্রার অবস্থা এখন কেমন? কেন তাদের দেশে এখন প্রায় সবকিছুর জন্য হাহাকার? বাস্তব অবস্থা কেমন একটু দেখি। ধরেন, আপনি কদুর তেল আমদানি করবেন ওই দেশে। সরকারী রেটে যদি ১০০ বলিভার ১ ডলার হয়, সেটা কেবল সরকারী রেটই। বাইরে ১ ডলারের দাম এরচেয়ে শতগুণ বেশি। তাহলে আপনাকে কালোবাজারে অনেকগুণ বেশি দাম দিয়ে ওই কদুর তেল আনতে হবে মাথা ঠান্ডা রাখার জন্য। এনে ওইটা বিক্রি করতে গেলে প্রকাশ্যে সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশিতে বিক্রি করতে পারবেন না। ধরেন আপনার আনতে কালোবাজারে খরচ পড়লো ১০০০ বলিভার। কিন্তু সরকার বললো ১০০ বলিভারের বেশিতে বিক্রি করা যাবে না। আপনি কি ১০ গুণ কমদামে বিক্রি করবেন? শুরু হবে নৈরাজ্য। আর প্রতিটা জিনিসের বেলাতেই এই অবস্থা। কারণ, সরকার দেশের বেসরকারী খাতকে এমনভাবে ধ্বংস করে ফেলছে যে হতাশা বাদে এমন কোনো জিনিস প্রায় নাই-ই যা দেশে উৎপাদিত হয়। কাগজে কলমে ওইদেশের মানুষের আয় এখনো প্রায় দশ হাজার ডলার। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ এখন অপুষ্টির শিকার।

আমাদের দেশের বিশাল একটা জনগোষ্ঠি ডিপ্রেশনে ভুগছে।


আজ অব্দি এতবড় লিখা লিখেছি বলে আমার জানা নেই তবে আজ লিখলাম। হয়তো এটা কারও ভালোও লাগতে পারে আবার কারও বা নাও লাগতে পারে তবুও বলবো একটু পড়ার জন্য। আমি তাদের অনেকের সাথে কথা বলেছি। নিজেকে ডিপ্রেশন বিশারদ টাইপ কিছু মনে করি না, কিন্তু আমার মনে হয়েছে, তারা যদি কারো কাছে নিজেদের কথাগুলো বলে হালকা হতে পারে, এতোটুকু তো আমি করতেই পারি। সবচেয়ে বেশি যে সমস্যাটা নিয়ে মানুষ ডিপ্রেশনে ভুগছে – সেটা বেকারত্ব। বিডি জবসে লক্ষ লক্ষ সিভি, চোখের সামনে লক্ষ লক্ষ শিক্ষিত বেকার।

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর