নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • জংশন
  • বেহুলার ভেলা
  • রুদ্র মাহমুদ
  • রিক্ত রিপন
  • দীব্বেন্দু দীপ
  • সাইয়িদ রফিকুল হক

নতুন যাত্রী

  • মাইনুদ্দীন স্বাধীন
  • বিপু পাল
  • মৌন
  • ইকবাল কবির
  • সানসাইন ১৯৭১
  • রসরাজ
  • বসন্ত পলাশ
  • মারুফ মোহাম্মদ বদরুল
  • রাজীব গান্ধী
  • রুবেল মজুমদার

আপনি এখানে

সমসাময়িক

বাংলাদেশের ভূমি ব্যবস্থাপনার আধুনিকায়নঃ


পর্ব-০১

চাই ভূমি ব্যবস্থাপনার আধুনিকায়ন। একের ভেতরে তিন_Three in One. Land management, Land Settlement & Land Registration.

প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান


সম্প্রতি দেশে কিশোর-তরুণদের নানা ধরণের অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ার প্রবণতা বেশ বৃদ্ধি পেয়েছে। রাজধানীসহ দেশের প্রত্যন্ত জনপদের বিভিন্ন স্থানে কিশোর অপরাধের সংখ্যা বাড়ছে। মাদক ব্যবহার, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, নৈতিকতার স্খলনজনিত সামাজিক অপরাধের পাশাপাশি জঙ্গিবাদেও জড়িয়ে পড়ছে তরুণরা। তরুণ প্রজন্মের এই ক্রমবর্ধমান অপরাধ প্রবণতা প্রশমনে সবচেয়ে সক্রিয় ভূমিকা রাখতে পারেন প্রতিটি পরিবারের মায়েরা। সন্তানদের অপরাধ প্রবণতার বিষয়ে প্রতি প্রতিটি মায়ের সচেতনতার পাশাপাশি সতর্ক নজরদারী প্রয়োজন, আর সম্প্রতি এ বিষয়টির প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মায়েদের আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, সন্তানের সঙ্গ

একজন মুসলমান জঙ্গি হতে পারেনা?


শুরুটা হয়েছিল রাজীব হায়দারকে হত্যার মধ্য দিয়ে। সেটা ২০১৩ সালের কথা। এর পর পর্যায়ক্রমে ঘটতে থাকে ধর্মের দোহাই দিয়ে হত্যাকান্ড। ব্লগার, মুক্তচিন্তাবিদ, পুরোহিত, চার্চের ফাদার, স্কুল শিক্ষক; শেষ পর্যন্ত বাদ যায়নি মসজিদের ইমাম। তখন, অনেকেই যুক্তি দিয়েছে যে, ধর্ম নিয়ে লেখালেখি করলে এমনি হবে। তাদের হত্যা করা ঠিক বলেও অনেকে ফতোয়া দিয়েছেন।

বাংলাদেশ কি তবে একটি জঙ্গী রাষ্ট্রে পরিনত হচ্ছে?


প্রত্যেকটা হামলার পরেই অনেক মডারেট মুসলমান কিবোর্ড যোদ্ধা হিসেবে হাজির হয়ে যান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলিতে। ”ইসলাম শান্তির ধর্ম”, ” ইসলাম এইসব সাপোর্ট করেনা”, ”জঙ্গীরা মুসলিম নয়”, ” এগুলি ইহুদী নাসারাদের ষড়যন্ত্র” ইত্যাদি ইত্যাদি লিখে মাখিয়ে ফেলেন। কেউ কেউ মনে করেন কোন ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার জন্যেই এগুলি কোন সাজানো নাটক। এগুলি লিখে মনের শান্তিতে ইসলামকে রক্ষা করে ফেলেছেন ভেবে শান্তিতে ঘুমাতে যান। তবুও কোনভাবেই ধর্মের দোষ দেয়া যাবে না।

বাসা ভাড়া নিতে জঙ্গিদের নতুন কৌশল


আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একের পর এক জঙ্গিবিরোধী অভিযানেও বন্ধ হচ্ছে না সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ কর্মকাণ্ড। এখন বাড়ি ভাড়া নিতে নতুন কৌশল অবলম্বন করছে নব্য জেএমবির সদস্যগণ। বাড়ি ভাড়া নেওয়ার সময় তারা সিংহভাগ সময়ই নিজেদের পরিচয় দেন কাপড় ব্যবসায়ী হিসেবে। সঙ্গে থাকা অন্য জঙ্গিদের পরিচয় দেয় ছোট ভাই হিসেবে আর সঙ্গে থাকে স্ত্রী ও শিশুসন্তান। এই নতুন কৌশল অবলম্বন করেই বাড়ি ভাড়া নিচ্ছে নব্য জেএমবির সদস্যরা। বিভিন্ন সময় গ্রেফতার জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদ এবং জেএমবি আস্তানা থেকে জব্দ করা নথিতে এমন তথ্য ও প্রমান পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। কাপড় ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়ে জঙ্গিদের বাসা ভাড়া নেওয়ার কৌশ

ব্লগের ফেসবুক পেজ কেমন হওয়া উচিত?


সম্প্রতি পারভেজ আলম একটা ফেসবুক পোস্ট দিয়েছেন। সেখানে মুলতঃ দুটি বক্তব্য। ইস্টিশান ব্লগে তিনি লেখা ছেড়েছেন আর দ্বিতীয়টি ব্লগের ফেসবুক পেজ, যেখানে সাধারণতঃ নির্বাচিত লেখার লিঙ্ক দেয়া হয়, সেটায় যেসব লেখা শেয়ার করা হচ্ছে তার মানদণ্ড সবসময় ঠিক থাকে না। যথারীতি লেখার প্রতিবাদে কিংবা বলা যায় উত্তরে এর অন্যতম উদ্যক্তা নুর নবী দুলাল কমেন্ট করেছেন। উত্তরটা ঠিক প্রাসঙ্গিক মনে হয়নি। তিনি মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে বক্তৃতা করেছেন, কিন্তু ফেসবুক পেজে কিসের ভিত্তিতে পোস্ট সিলেক্ট করা হয়, বা উচিত এই প্রশ্নে নীরব। প্রশ্নোত্তর পর্বে একসময় জানালেন, এটা হয় অটো। অর্থাৎ লেখার মানদণ্ড কিংবা বক্তব্য কোনটাই ধর্তব্

বিশ্ববিদ্যালয় না কিন্ডারগার্টেনঃ প্রসঙ্গ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইউনিফর্ম।


দেশের কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ড্রেসকোড এর বিধান যুক্ত করা হয়েছে। বিশেষ করে মেয়েদের জন্য ড্রেসকোড মানা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এই বছরের ১ম শ্রেণির পাঠ্য বইয়ে লেখা হয়েছিলো, ও-তে ওড়না চাই। এই শিক্ষায় দীক্ষিত হয়ে কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অথরিটি ওড়নাকে মেয়েদের জন্য বাধ্যতামূলক করেছে!

প্রয়োজন বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান


দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে সরকারের মহাপরিকল্পনায় ২০৪০ সালে দেশে মোট বিদ্যুতের চাহিদা দেখানো হয়েছে ৫০ হাজার মেগাওয়াট, যা বর্তমানের তুলনায় প্রায় তিনগুণ। এ জন্য আগামী ২৩ বছরে আরও ৩৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে স্থাপন করতে হবে প্রয়োজনীয় উৎপাদনকেন্দ্র। তবে বিপুল এই উৎপাদনের জন্য কোনো একক জ্বালানির প্রতি নির্ভর করা সমীচীন হবে না। জ্বালানির ধরন এবং দেশের অর্থনীতির সঙ্গে সংগতিপূর্ণ হিসেবে এ জন্য কয়লাকেই এগিয়ে রাখা হচ্ছে। দেশে বড় বড় কয়লাচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ শুরু হলেও জ্বালানি সংগ্রহে নানা প্রতিবন্ধকতার মুখে পড়ছে কোম্পানিগুলো। কারণ আপাতত দেশীয় কয়লা উত্তোলন না করে আমদানি

সবাই মিলে দিলে কর, দেশ হবে স্বনির্ভর


কোনো পরিবারের কর আয়যোগ্য সবাই কর পরিশোধ করলে সেই পরিবারকে সম্মাননা জানানোর পরিকল্পনার এক সময়োপযোগী এবং প্রণোদনামূলক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। দেশের করযোগ্য আয়সম্পন্ন নাগরিকদের কর প্রদানে উৎসাহ দিতে যে পরিবারের সকলে আয়কর দেবে সেই পরিবারকে পুরস্কার প্রদানের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। সরকারের অব্যাহত প্রচেষ্টায় বর্তমানে দেশের সাধারণ মানুষের মাঝে কর সংস্কৃতি নিয়ে ক্রমশঃ ইতিবাচক চেতনা বিকশিত হচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষ এখন কর প্রদান করে গর্ব অনুভব করে, মনে করে কর দেয়া একটি বাহাদুরির ব্যাপার। এই মানসিকতাকে সর্বসাধারণের মাঝে সমভাবে ছড়িয়ে দিতেই কর প্রদানকারী বাহাদুর ব্যক্ত

শুধু কি ধর্মীয় মৌলবাদীরাই সভ্যতার জন্যে ভীতিকর? “মুক্তমনা”রা নন? - শেষ পর্ব


আগের পর্ব পড়তে এখানে ক্লিক করুন

বিজ্ঞানের আবিষ্কার, ইতিহাস এবং “মুক্তমনা” বয়ান !

এবারে আসুন ফাইনাল কাউন্ট-ডাউন দেখা যাক। “মুক্তমনা” সাহেব লিখছেন –

পৃষ্ঠাসমূহ

Facebook comments

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর