নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 7 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি
  • নুর নবী দুলাল
  • দীব্বেন্দু দীপ
  • দীপ্ত সুন্দ অসুর
  • সুবিনয় মুস্তফী
  • রহমান বর্ণিল

নতুন যাত্রী

  • আরিফ হাসান
  • সত্যন্মোচক
  • আহসান হাবীব তছলিম
  • মাহমুদুল হাসান সৌরভ
  • অনিরুদ্ধ আলম
  • মন্জুরুল
  • ইমরানkhan
  • মোঃ মনিরুজ্জামান
  • আশরাফ আল মিনার
  • সাইয়েদ৯৫১

আপনি এখানে

প্রবন্ধ

অভিজিৎ হত্যার ভবিষ্যৎ প্রতিশোধের স্বপ্ন


অভিজিৎ রায়, ড.অভিজিৎ রায়, আমাদের অভিজিৎ দা, কারো কারো কাছে অভিদা, অজয় স্যারের গুল্লু, বন্যা আপার অভি-শুধু একজন ব্যক্তিমাত্র নয়,অভিজিৎ রায় এখন আমাদের কাছে একটা আদর্শের নাম, প্রেরণার অশেষ উৎস, মননশীলতার বেঞ্চমার্ক,মুক্তচিন্তার স্ট্যান্ডার্ড, বাংলা ভাষায় পপুলার সায়েন্স লেখার এপিটোম।আর সব মানুষের মতো একটাই মস্তক নিয়ে জন্মেছিলেন তিনি। কি যে ছিলো সেই মস্তিষ্কে আমরা এখনো বুঝে উঠতে পারিনি।কত বিচিত্র বিষয়ে সাবলীলভাবে লিখেছেন বিজ্ঞানভিত্তিক লেখা। অভিজিৎ রায়ের যা দেওয়ার ছিলো পৃথিবীকে, তার খুব সামান্যই দিয়ে যেতে পারলেন।তাঁর অনবদ্য মগজ রাস্তার ধুলায় গড়ালো!আমরা নিস্পৃহভাবে দেখছি রক্ত, মগজ ও অ

বাঙ্গালিকে মরিয়া প্রমাণ করিতে হয় - সে মরে নাই !


অাবহমান কাল ধরে বাঙ্গালি জাতি ঠাকুর, পুরুত, বৃক্ষ, দেবতার পূজা করে অাসছে।
প্রাণহীন মূর্তি, বাকশক্তিহীন বটগাছ এবং পরবর্তীতে ক্ষমতাহীন কবর এসবই হচ্ছে বাঙ্গালির পূজ্য।
পূজারি ও ভক্তি-গদগদ বাঙ্গালি ব্রাক্ষ্মণ্যে অতিষ্ঠ হয়ে যখন ইসলামে বিবর্তিত হচ্ছিল তখনো তাই তারা ওহাবী ইসলাম কবুল না করে বরং সুফী ও ভক্তিবাদী ইসলাম কবুল করেছে।
বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের খান, চৌধুরী, শেখ বংশ হচ্ছে অাদিতে ব্রাক্ষ্মণ্যবাদীদের থেকে বিবর্তিত প্রজাতি; যারা অাদিতে ছিল ব্যানার্জী, বন্দোপাধ্যায়, ঠাকুর ইত্যাদি।

একটি উপলব্ধির সূত্রপাতঃ মাতৃভাষায় বসবাস


মাতৃভাষা হল মাতৃদুগ্ধ -মাতৃভাষার উপর এমন অনেক আপ্তবাক্য সেই ছোট্টবেলা থেকেই শুনে আসছি।মাতৃভাষা চর্চার গুরুত্ব নিয়েও কত কিছু পড়ে আসছি।কিন্তু যতদিন না নিজের ভিতর থেকে বিষয়টি আবিষ্কার করতে পারছিলাম না ততদিন 'মাতৃভাষা' আমার কাছে অন্য অনেক বিষয়ের মতই ছিল সাধারণ।অন্য সকলে আলাদা ক্রেডিট দিলেও আমার পক্ষে তা দেওয়া সম্ভব ছিল না।

আমার ভাষা বিষয়ক চিন্তন প্রপঞ্চ # ৭



(বাঙলা ভাষার আধুনিকায়ন তথা সংস্কার বিয়ষক ১০-টি পোস্টের সিরিজ)

এসো বন্ধু মানবতার কল্যাণে


প্রযুক্তির উৎকর্ষ এবং তার ব্যাবহারিক বাস্তবতায় অজ্ঞতা আর অন্ধাকরের যুগ শেষ হয়েছে অনেক আগেই। শিল্পবিপ্লবের পর-পরই সভ্য যুগে প্রবেশ করে বিশ্ব। শুরু থেকেই সভ্যতা দুই ভাগে বিভক্ত দৈহিক শ্রম নির্ভর সমাজ সভ্যতা। বৌদ্ধিক শ্রম নির্ভর সমাজ সভ্যতা। এখানে দৈহিক শ্রম বলতে শারীরিক পরিশ্রমকে বুঝানো হয়েছে। আর বৌদ্ধিক শ্রম বলতে জ্ঞান বা মেধা ভিত্তিক পরিশ্রম উদ্দেশ্য।

একটা সময় শারীরিক শ্রমকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হলেও সময়ের পরির্বতনে সঙ্গে সঙ্গে পরিবর্তনে এসেছে সমাজ, পরিবেশ, অর্থনৈতিক কর্মকান্ড ও জীবন যাত্রায়।

বিশিষ্ট নাগরিক


একটি শিশু জন্মগ্রহণ করে, সে থাকে নিষ্পাপ ক্লেদমুক্ত। এ শিশুটিকে ঘিরে কত মানুষের অানন্দ, কত স্বপ্ন, কতশত অনুভূতি!
শিশুসুলভ বালখিল্য, বড়দের অাদিখ্যেতা, খেলার সাথীদের নির্মলতায় সে তখনো বোঝেনা সে কত নির্মম ভবিষ্যতের পথে এগোচ্ছে। এমন এক ভবিষ্যৎ যেখানে সে হয় শোষক হবে নয়তো শোষিত।
হয় বিশিষ্ট মানুষ হবে, নয়তো সাধারণ।
হয় বন্দুকের নল অন্যের দিকে তাক করবে, নয়তো তার নিজের দিকেই নলটি ঘুরবে।
ছোট্ট শিশুটি বড় হতে থাকে, অার ক্রমেই সে বদলে যেতে থাকে।

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর