নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

There is currently 1 user online.

  • ড. লজিক্যাল বাঙালি

নতুন যাত্রী

  • অন্নপূর্ণা দেবী
  • অপরাজিত
  • বিকাশ দেবনাথ
  • কলা বিজ্ঞানী
  • সুবর্ণ জলের মাছ
  • সাবুল সাই
  • বিশ্বজিৎ বিশ্বাস
  • মাহফুজুর রহমান সুমন
  • নাইমুর রহমান
  • রাফি_আদনান_আকাশ

আপনি এখানে

কবিতা

হায় বিহঙ্গ


বিহঙ্গ উড়ে গেলে?
যাও,জানি আর আসবে না এই ভাঙা নীড়ে।
এও জানি নতুন করে
নতুন কোনো স্থানে -আবার বেঁধেছ বাসা।
ভাঙা নীড়ে তোমার ঝরা কোনো এক পালক
স্মৃতিসম পড়ে আছে।আর তুমি
অন্য নীড়ে সুখাবাসে।আর আমি
ভগ্নহৃদয় নিয়ে তোমার ভাঙা নীড়ে
স্মৃতির রোমন্থন করি,আর অবসাদে
নিজকে বিসর্জন দেই প্রতি রাতে।

কবিতাঃ মাননীয়া, আমার পরামর্শ গ্রহন করেন!


মাননীয়া, আমার পরামর্শ গ্রহন করেন!
অতীতের উদ্ভিন্ন তৃণ উপড়াইয়া ফায়দা নাই,
পিছন ফিরা আগাইলে প্রপাত ধরণীতলেই আশংকা!

অতীত রোমন্থনে আলো অপেক্ষা আঁধারই অধিক জাগে;
আমি তাই সবিনয় পরামর্শ দেই অতীত ভুইলা যান, এরপর-
আসমানে অম্বু নাজিল হইলে আপনিও বেলাগাম কাঁদেন অথবা হাসেন!
আবেগ আড়ালের নিমিত্তে এমন প্রাকৃতিক নেকাব মেলেনা চাহিবামাত্র...

বেশ্যা বলে গালি দিয়ে বশ্য হয়ে রই




বিশ্বাস করো এ সভ্যতা?
এখানে কোনো সুখ পাখি বাসা বাঁধেনি আজও।


একবারে নয়,
আমরা সত্যি ক্রমাগত মরি।


আমায় বলেছিল সে একটি পাগলা কুকুরের গল্প,
বলেছিল, আমি যেন ওটার কাছে না যাই।
আজ দেখি সে ঘটা করে কুকুরটার সাথে খেলছে!


বেশ্যা বলে গালি দিয়ে বশ্য হয়ে রই।

কবিতার ভিতরে তুমি


এক

তুমি ঘুমিয়ে পড়েছ জানলে
রাতের বাতাসে উড়িয়ে নিতাম-
ঠাণ্ডা পৃথিবী
একশ উষ্ণ-কণা তোমার বিছানায়
ঘুমের পূর্ণতায় ছড়াতাম ।

আমি শুয়েই কাটিয়ে দিতাম ভোর বেলা চেয়ে ;
তুমি যদি বলতে, পাঁজর ছিঁড়ে প্রতীক্ষা করতাম

অথচ দুজনেরই কথা ছিল স্বপ্ন দেখার
গাছের ছায়ায় , পাতার নীচে পিঠে পিঠ রেখে ।

অসুস্থ শব্দ পাহাড়ী মেঘে ভাসে
অপেক্ষা করে কবিতা হয়ে নিবে

তুমি তো জানতে-
আমি তো কখনই তোমার
প্রেমিক হতে চাই নি
যতটা হতে চেয়েছিলাম কবি ।

দুই

হুমায়ুন আজাদের নারী


প্রাণবন্ত মানুষ ছিলেন তিনি
তাঁর মতো কতো মানুষ আছে যারা স্বার্থপর
অথচ সেই মানুষটার কোনো স্বার্থসিদ্ধি ছিলোনা-
* তবে কি তিনি স্বার্থপর ছিলোনা?
: অবশ্যই স্বার্থপর, কিন্তু স্বার্থটা তাঁর ছিলোনা;
* তবে কার স্বার্থের জন্য তিনি স্বার্থপর?
: আমাদের, এই প্রজন্মের, আগামী প্রজন্মের
অসংখ্য কবিতার, অসংখ্য পূর্ণিমার - মাধবীলতার
কথার, স্বাধীনতার, কলমের, খাতার।

'নিশ্চিহ্ন ভালোবাসা'


একশত তেত্রিশ নং প্রহলাদ সেন রোড
রোডের শেষান্তে জীর্ন একটি নিবাস,
মস্ত বড় একটা মরীচিকা পড়া লোহার গেট
ঝুঁলে আছে দুপাশের পলেস্তারা পড়া
দেয়ালটাকে আঁকড়ে;
প্রানশূন্য এই বাড়িময় সারা বেলা
অবাধে পায়তারা করে বেড়ায় নিঃশব্দেরা_
বাড়ির ঠিক পেছনে ঝোঁপের মাঝে একটি কবর
যে কবরে শুয়ে আছে আমার অর্ধাংশ ।
এপিটাফটা আগাছার প্রকোপে নিজের
দৃশ্যতা হারিয়েছে আজ বহুদিন হলো_
শ্যাঁওলার নিষ্ঠুরতায় মুছে গেছে এপিটাফে
গোঁটা গোঁটা অক্ষরে খোঁদিত আমার
প্রিয়তমার নাম ।
কবরটার কোন চিহ্নই
এখন খুঁজে পাওয়া ভার!

দূরত্ব


আমার মনের হাসনা হেনায়
তোমার ছবি ফোটে

কবে কিছু মানুষ এমন ঈশ্বর হল?



এখনই ছেড়ে যাবি জীবন?
যাস নে। কত যে হিসেব আছে বাকী!
মরা কি যায় এমন বেহিসেবে
নিজেকে সব দিয়ে ফাঁকি?


অক্ষরে অক্ষরে লিখে রেখেছি
যাদের মহাপাপ যত
দিয়ে যেতে হবে বিচারের ভার,
রেখে যেতে হবে পাণ্ডুলিপি সব অক্ষত।


হারিয়েছে অনেক অপ্রস্তুত হয়ে,
তবু প্রতিশোধে
রক্তপাত ঘটাতে চাইনি কারো,
শুধু অদৃশ্য তলোয়ারটা মুখের
সামনে উঁচিয়ে ধরে বলতে চেয়েছি-
তোরে এখন শেষ করে দিতে পারি, শয়তান, সাবধান!

স্বদেশ তুমি


সত্য বলে ভুল করেছি
দেও আমাকে সাজা
স্বদেশ তুমি অন্ধ কানা
সত্য কভু বুঝবেনা।

তোমার কোলে রাখে মাথা
ধর্ম নামক অন্ধ জেঠা
তার ঘরেতে দিনেরাতে
রাজনীতির ঐ বৈঠক খানা;

তোমার গায়ে গন্ধ করে
তুমি বুঝলেনা
গোবরভরা তোমার মাঝে
তুমি দেখলেনা।

আমার মাঝে খুঁজলে কেবল
অশুভ এক ছায়া
তুমি নিজেই এখন-
অশুভ অন্ধকার আর অপয়া

দিন গিয়েছে পরবাসে
খুঁজছে আমার মা
আমার মেয়ে কোথায় গেল
ফিরে আসলো না!

বাণিজ্যিক ডাক্তার: ডাক্তারী পাশ করে তারা কসাই হয়, মানুষ হয়না


এদেশের অধিকাংশ ছাত্র-ছাত্রীরা ডাক্তারী পাস করার পর ডাক্তারই হয়, কিন্তু মানুষ হয়না। দীর্ঘদিন ডাক্তারী অভিজ্ঞতার পর যখন চেম্বার নিয়ে বসে, তখন তারা আর ডাক্তার থাকেনা, একেকটি কসাই হয়!

পৃষ্ঠাসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর