নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • লিটমাইসোলজিক
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • কাঠমোল্লা
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • জহিরুল ইসলাম
  • নুর নবী দুলাল

নতুন যাত্রী

  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান
  • একরামুল হক
  • আব্দুর রহমান ইমন
  • ইমরান হোসেন মনা
  • আবু উষা
  • জনৈক জুম্ম
  • ফরিদ আলম
  • নিহত নক্ষত্র

আপনি এখানে

শোকগাঁথা

সব কিছু ভেঙ্গে পড়ে (পর্ব-১)


বৃষ্টিরা দুই ভাই-বোন। শুনেছি বৃষ্টির বড় ভাই অনেক ভালো ছাত্র। সে এখন বুয়েটে পড়ে। পারফরমেন্সও বেশ ভালো। কয়েকদিনের মধ্যে বিদেশে যাবে। তবে বড় ভাই ভালো ছাত্র হলে ছোট বোনদের উপর কেমন আগুন বয়ে যায় তা বৃষ্টিকে দেখলেই বেশ বোঝা যায়।

সুন্দর এক সকাল বৃষ্টি শুয়ে আছে। সে এবার নবম শ্রেণীর পরীক্ষা দিয়ে দশম শ্রেণীতে উঠেছে। প্রতিবারের মত এবারও সে দ্বিতীয় হয়েছে। বাড়িতে সবাই বেশ খুশি। শুধু তার বাবা বাদে।

খুন করে চলছি


চিত্ত ভানু (সৌগত দাস)

আমি নিম্নবিত্ত, করে চলি অসংখ্য খুন।
শরীরকে করে তুলি রক্তে রঞ্জিত,
স্বপ্নকে দেই বিসর্জন। 
সকাল থেকে শুরু হয় খুনের পর্ব।

আগে হাত কাঁপত, বুক কাঁপত-
                                               এখন আর কাঁপে না।
এখন আমার শরীর সহ্য করতে শিখেছে সকল কাঁপনি।
আমি হাতে-মুখে- সমস্ত শরীরে দেখি রক্তের দাগ,
                                                             কি বীভৎস!

তার চেয়ে ঘরে ঘাপটি মেরে থাকুন, উপভোগ করুন ধর্ষিতার অর্তনাদ


ডায়রি পাতা থেকে জানা যায় তারই সহকর্মী সাব-ইন্সপেক্টর 'মিজানুল ইসলাম' দ্বারা ধর্ষিত হয়েছিলেন তিনি, নিয়মমাফিক থানার বড়কর্তা 'দেলোয়ার আহমে' এর কাছে অভিযোগ ও করেছিলেন, কর্তাবাবু তা আমলে নেননি।
হয়তো ধর্ষিত হওয়া ও ধর্ষিতা হওয়া অনেক বড় অপরাধ ছিল তাই।

আজ অগ্নীযুগের বিপ্লবী বীরকন্যার জন্মদিন



'মাগো, অমন করে কেঁদোনা! আমি যে সত্যের জন্য, স্বাধীনতার জন্য প্রাণ দিতে এসেছি, তুমি কি তাতে আনন্দ পাও না? কী করব মা? দেশ যে পরাধীন! দেশবাসী বিদেশির অত্যাচারে জর্জরিত! দেশমাতৃকা যে শৃঙ্খলভাবে অবনতা, লাঞ্ছিতা, অবমানিতা! তুমি কি সবই নীরবে সহ্য করবে মা? একটি সন্তানকেও কি তুমি মুক্তির জন্য উত্সর্গ করতে পারবে না? তুমি কি কেবলই কাঁদবে?'

এই চিঠিটা মৃত্যুর আগের রাতে মাকে লেখা এক অগ্নীযুগের বীর কন্যার। যিনি ছিলেন ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের অগ্নিকন্যা।

আজ শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ৮৯ তম জন্মদিন


আমাদের অঙ্গীকার ছিল লক্ষ্য অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত কেউ রাজপথ ছেড়ে যাবো না। মরণব্যাধি ক্যান্সার আমাকে শেষ মরণ কামড় দিয়েছে। আমি আমার অঙ্গীকার রেখেছি। রাজপথ ছেড়ে যাই নি। মৃত্যুর পথে বাধা দেবার ক্ষমতা কারো নেই। তাই আপনাদের কাছ থেকে বিদায় নিচ্ছি এবং অঙ্গীকারপালনের কথা আরেকবার আপনাদের মনে করিয়ে দিতে চাই।

সমগ্র পৃথিবীর শ্রমজীবী মানুষের কাছে আজ ঐতিহাসিক শ্রমিক দিবস


পৃথিবীর প্রতিটা দিনই কোন না কোন দিবস। মে দিবস সারা পৃথিবীর মেহনতি শ্রমজীবী মানুষের জন্য একটি ঐতিহাসিক দিবস। এ দিনটা শ্রমিকদের ঐক্য বদ্ধ লড়াইয়ের দিন সংগ্রামের দিন। এই দিনে ৮ ঘন্টা কাজের দাবীতে আমেরিকার শ্রমজীবী মানুষেরা সকল শিল্পাঞ্চলে আন্দোলন গড়ে তুলেছিল, হতাহত হয়েছিলেন অসংখ্য শ্রমিক, নিহত হয়েছিলেন বেশ ক'জন, শ্রমিক নেতাদের মিথ্যে মামলায় ফাঁসিতে ঝুলানো হয়েছিল। সারা পৃথিবী শ্রমজীবী মানুষের আজকের এই শ্রমিক দিবস পালিত হলেও খোদ মার্কিন মুল্লুকে আজও মে দিবস সরকারিভাবে স্বীকৃত নয়।

শাহানাকে মনে পড়ে?



শাহানার শরীরটা ভারী ছিলো কিনা আমার জানা নেই। তবে যেটুকু পথ তাকে বেড় করার জন্য উদ্ধারকারীরা খুঁজে পেয়েছিলো- তা ছিল নিতান্ত সরু। সেই সরু পথ দিয়ে শাহানাকে বেড় করে আনার কী চেষ্টাটাই না সেদিন করেছিল উদ্ধারকারীরা!

আজ ২৪ এপ্রিল ঐতিহাসিক খাপড়া ওয়ার্ড শহীদ দিবস



পাকিস্তানের শাসকরা কারাগারে বন্দিদের ওপর চালাত অমানসিক ও পৈশাচিক নির্যাতন, পরিবেশন করত নিন্মমানের খাবার,কারা কর্তৃপক্ষের দুর্ব্যবহার, কারাবিধানের চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় সুযোগ না দেওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছিলেন বিপ্লবী রাজবন্দিরা। এই প্রতিবাদেই জেলের মধ্যেই হতে হয়েছিল পাকিস্তানি কারারক্ষীদের হাতে নৃশংস খুন।

২৪ এপ্রিলের রক্তাক্ত স্মৃতিঃ ১৪৬১ দিন পর


Milan Kundera — 'The struggle of man against power is the struggle of memory against forgetting.'

২৪ তারিখ সকাল থেকেই মোবাইলে কল আসছিলো। একটার পর একটা।
দুপুরনাগাদ জানলাম মৃতের সংখ্যা ৮০, আহত ৬০০।

দুর্ঘটনা ছিল না। হত্যাকাণ্ড ছিল। পরিষ্কার হত্যাকাণ্ড।

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর