নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি
  • মোমিনুর রহমান মিন্টু
  • রহমান বর্ণিল

নতুন যাত্রী

  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান
  • একরামুল হক
  • আব্দুর রহমান ইমন
  • ইমরান হোসেন মনা
  • আবু উষা
  • জনৈক জুম্ম
  • ফরিদ আলম
  • নিহত নক্ষত্র

আপনি এখানে

গু, যেদিকেই উল্টান সমান দুর্গন্ধ !!!


রুশো পাগলা বডড বিপদে আছে নিজেকে নিয়ে ,মাস দুই চাকরি বাকরি ছেড়ে বসে আছে ।দুঃসময়টা আর কাটছেনা ,ঠিক যেন আমার দেশটার মত ।পেপার পড়তে মন চায় না,সরাদিন একটা লাগসই চকরির ধান্দা করি, ব্যাটে বলে হচ্ছে না কোনো মতেই।চারদিক থেকে সমস্যা গুলো এমন করে চেপে ধরেছে যে পাগলামি ছুটে যাবার যোগাড় । বেশ কয়দিনের জমানো খবরের কাগজ নিয়ে একবেলা কটিয়ে দিলাম । দফ্য় দফায় আমার ২ বছর বয়সী ভাইগ্নার অসহযোগ স্বত্তেও যেটুকু পড়লাম তাতে ইস্টিশনের পাতা ছাড়া দুইন্যায় আর কুনু জায়গা পাইলামনা - একটাই বিকল্প থাকে ইস্টিশনের পথ ঘাটে পাগলামি কইরা মাথা ঠান্ডা নাহইলে মহাম্ম্মাদপুর নুরজাহান রোডে যায়া হায়দার বাবার পিছে দিন দুই চাইর হাইটা তাবিজটা জালালী গরমে হিট কইরা আনা

পরথম নিউজ, সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার সমালোচনায় মুরিচিরার মত মৌখিক লাত্থি গুতা দিছে সরকারদলীয় সাংসদেরা। ওয়াশিংটন টাইমস-এ লেখা খালেদা জিয়ার নিবন্ধকে দেশের মান ইজ্জত ব্যবহৃত ফুটা সেকেন্ড হ্যান্ড পায়্খ্নার বদনার মত কইরা রাষ্ট্রদ্রোহ করনের আকাম কইরা ফেলায় খালেদা জিয়াকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইয়া আরেক ধরনের প্রতারণার আহ্বান জানাইছে।
ওয়াশিংটন টাইমস পত্রিকায় এক নিবন্ধে বিএনপির চেয়ারপারসন লেইখা দেওয়া ভাষণ রিডিং পরনের পুরান অভ্যাস অনুযায়ী বর্তমান নিকটজন আর মূলতঃ জামায়াতি মতামত রিলে করতে গিয়া কইছেন -- বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা এখন হুমকির মুখে। গোটা দেশ একটি পরিবারের হাতে জিম্মি।[ একটা পরিবার কই ? আমি তো শ খানেকের বেশি পরিবার দেখি-- নিদেন পক্ষে ২ টা ফ্যামিলি জেনারেলাইজ কইরা কইলে ] উন্নয়নশীল রাষ্ট্র হিসেবে দেশটির সামনে এগিয়ে যাওয়ার যে সম্ভাবনা ছিল, দুর্নীতির কারণে তা-ও ম্লান হতে বসেছে। নির্বাচনে যাতে ভোটারদের সুষ্ঠু মতামত প্রতিফলিত হয়, সে জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের মতো মিত্র দেশগুলোর জোরালো ভূমিকা রাখার সুযোগ রয়েছে। গণতন্ত্রের পথ থেকে বাংলাদেশের বিচ্যুতি ঠেকাতে পশ্চিমা দেশগুলোকে আরও ভূমিকা রাখার আহ্বান রয়েছে এই নিবন্ধে।ক্যান আম্রিকা ইউকে ভুমিকা রাখব? অগ অধিকার টা কি এখানে? এইডা আমাগো বিষয় , সাইধ্যা ....কী মারা খাওনে কাম কি?
ইয়েস উদ্দিন আইজ্যার কথা তো কেউ ভুলে নাই এখনো ।আর তত্বাবধায়ক নিয়া আম্লিগ যে নাটক টা খেলতাছে তা নিয়া নাচন কুদনের কি আছে ? তত্বাবধায়ক দিয়াই নির্বাচন হইব এইটা সব সবাই জানে , খালি টং দোকানে চা খাওনের আগে গরম পানি দিয়া কাপ ধুয়া নেওয়ার মতন একটু মাঠ গরম করতে কাহিনী করে।নাগিন সিনেমার মতন বিন বাজায় জাময়াত আর সাপ হওয়া নাচে খা -লেদা ।
৩০ জানুয়ারি প্রকাশিত ওই নিবন্ধে বিরোধীদলীয় নেতা আরও বলেন, শেখ হাসিনা সরকারে যাঁরা গণতন্ত্র, বাকস্বাধীনতা ও মানবাধিকার লঙ্ঘন করছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে ভ্রমণ ও অন্যান্য নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টি বিবেচনা করতে পারে পশ্চিমা শক্তিগুলো।-- এইগুলা তো হর হামেশাই হয়, সব সরকারি করে,হের নিজেরাও করছে ,খলেদার পোলাগো হিস্ট্রি জীয়গ্র্ফি কি কয়?আবদার অফ মামুর বাড়ি ????

খালেদা জিয়ার এসব বক্তব্যকে কেন্দ্র করে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সংসদ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। এ নিয়ে অনির্ধারিত আলোচনার সূচনা করেন শেখ ফজলুল করিম সেলিম। প্রায় দুই ঘণ্টা আলোচনা চলে।
শেখ সেলিম বলেন, ‘খালেদা জিয়া যুদ্ধাপরাধের বিচার নস্যাৎ করতে দেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছেন। সরকারের বিরুদ্ধে বলতে গিয়ে তিনি রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বলেছেন। তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিয়ে তিনি ওবামার হস্তক্ষেপ চেয়েছেন। ওবামা কে? তত্ত্বাবধায়ক সরকার যদি দরকার হয়, জনগণ দেবে। ওবামার ওখানে কি তত্ত্বাবধায়ক আছে?’
আপনে কি ওবামা? আপনেগো কাম কাইজ কি ওবামার দেশের মানুষগো লাহান ?আপনেরা কি সৎ , প্রকৃত সম্মানের যোগ্য দেশ নায়কের প্রকৃত উত্তর্সুরিগ গায়ে হাত তোলে রাজাকার বিয়াইরে সম্মানিত করতে [আশা করি সোহেল তাজ সমস্ত সৎ মানুষের মনে এখনো আছেন ? ওদিকে ইঙ্গিত করলাম ]
তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘সাংবিধানিক একটি পদে থেকে খালেদা জিয়া কীভাবে নিজের দেশের বিরুদ্ধে অন্য রাষ্ট্রকে ব্যবস্থা নিতে বললেন, ভেবে আমি বিস্মিত হয়েছি। দুইন্যার আকাম কুকাম কইরা যখন দলের ভাই বেরাদর রা মুখরে পায়ু পথের মতন বানাইছে, শুওরন্জিত যখন কলা বিলাই ধলা বিলাই খ্লেলে,আবুইল্যা যখন মন্ত্রনালয়ের হোগা মাইরা শেখ হাসিনার নামে এক খান ইস্কুল খুইল্যা আবার বিলবোর্ডে তার বিজ্ঞাপন দিয়া খেইল দেখায় তখন বিস্ময় পু---কি তে ভইরা মুখে চাটু কারিতা চোদান ?
খালেদা জিয়া এমন সময় লেখাটি লিখেছেন, যখন দেশে যুদ্ধাপরাধের বিচার চলছে। হে জামাইত্যাগো খোঁচা গোয়া মোবারকে খাইয়া দেশের ইসলামের নেত্রী সাইজা জামায়াতি বয়ান রিলে করছেন যে ,গোলাম আযম, নিজামী, সাঈদী, কাদের মোল্লারা যুদ্ধাপরাধী নয়।
বাংলাদেশ যখন অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে চলেছে, তখন তিনি পশ্চিমা দেশকে বাংলাদেশের অর্থনীতির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে বলেছেন। কেনু কেনু কেনু কেনু ?তার নেতৃত্বে কামতটা হইতাছেনা বৈলা ? জামায়াত এই কৃতিত্বের ভাগিদার হইয়া হাম্বালীগের পোঙ্গে আইক্কা ওয়ালা দিতে পারতাছে না বৈলা ?? তিনি চার বছরে সংসদে মাত্র আট দিন উপস্থিত ছিলেন। তিনি জনগণের কাছে নালিশ না করে বিদেশের কাছে কেন নালিশ করতে গেলেন।’
অর্থমন্ত্রী আল্লাহর বাতিল মাল বলেন, ‘আমি মনে করি, খালেদা জিয়ার সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার কোনো সম্পর্ক নেই। এ বিষয়ে তাঁর কোনো আগ্রহ বা জ্ঞানও নেই। বিরোধীদলীয় নেতা নন, কোনো ব্যক্তি এমন কথা বলতে পারেন, তা আমি ভাবতেই পারি না।’-- আপনের নিজের সপ্ম্পর্কটা জানান দয়া কইরা ,এবিষয়ে আপনার আগ্রহ আর জ্ঞান দিয়া আলোকিত অএন জাতিকে , প্লিজ এনলাইটেন আস ।কামের কম কি করছেন ৪ অছরে আর কয়টা আকাম কইরা আবাল বুলি কপ্চায়া লোক হাসিছেন সেইটা আগে কন । আমাগো এত ইনকাম ট্যাক্স এর ট্যাকায় আপনেরে পালন অসহনপোষণ কইরা খলেদার চাইতে ভালো কি পাইছি জানতে মুন্চায় ।
দপ্তরবিহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধা নেওয়ার জন্য আমরা যখন কাজ করছি, তখন খালেদা জিয়া জিএসপি-সুবিধা বাতিলের কথা বলেছেন। এর চেয়ে ন্যক্কারজনক কাজ আর হতে পারে না। এর মাধ্যমে তিনি রাষ্ট্রদ্রোহ অপরাধ করেছেন। এ জন্য তাঁকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।’-- কি কমু কোন? অধিক শোকে পাথর অবস্থা । এ বানচোত রে লেকচার দেওনের সুযোগ কি আছে ?বিলাই ইন্দুর কেন ধরে না এইধ আগ অবাব্দিহি করে না ক্যান ?
খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘আপনি চুপ থাকেন। চুপ থাকলে মানুষ আপনাকে বুদ্ধিমতী ভাববে। বেশি কথা বললে নিজের ও দলের দেউলিয়াত্ব প্রকাশ পাবে।’--- এইকথাটা শান্তি দিল । হক কথা-- একই পরামর্শ নিজ দলের প্রধান রেও দিলে কামের কাম হইত ।অগ্নিকন্যা হয়ত তার অগ্নেয়তা হারিয়ে ফেলছেন,আমার বাবা যখন ছাত্র জীবনে এই মহিলার কাজ কাম নিয়া গল্প করত ,উত্তেজিত হয়ে পরতেন .... শ্রদ্ধা করতেন ত্র গ্নেও চরিত্র আর সৎ দৃষ্টিভঙ্গি আর কাজ কে ।
রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘খালেদা জিয়ার বক্তব্য দুরভিসন্ধিমূলক। এ জন্য তাঁকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।’
পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি বলেন, ‘বিরোধীদলীয় নেত্রী বিদেশি রাষ্ট্রকে কিছু করতে বলেছেন, বাংলাদেশের সংবিধান বদলে দিতে বলেছেন। বাংলাদেশের জিএসপি-সুবিধা বাতিল করতে বলেছেন। সরকারি ব্যক্তিদের ভ্রমণ-সুবিধা বাতিল করতে বলেছেন। সরাসরি বিদেশের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। দেশের মানুষের বিরুদ্ধে এমন ন্যক্কারজনক কাজ রাজনীতিবিদ হিসেবে তিনি করতে পারেন না।’
এ ছাড়া আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, শিরীন শারমিন চৌধুরী, মইন উদ্দীন খান বাদল, তারানা হালিম, বেবী মওদুদসহ আরও কয়েকজন সাংসদ খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে বক্তব্য দেন।
একগাদা যৌন কেশ অপসারণ করে সংসদের অধিবেশন ৩ ফেব্রুয়ারি বিকেল সাড়ে চারটা পর্যন্ত মুলতবি করা হয়।
চোরের সাক্ষী মাতাল [যদিও প্রবাদ কিন্তু মাতাল বিষয়টা তরিকুলের ক্ষেত্রে একদম খাপের খাপ ময়যুদ্দির বাপ মিল্লা গেছে , হেহে ]বিএনপির প্রতিক্রিয়া: যোগাযোগ করা হলে বিএনপির সমন্বয়ক তরিকুল ইসলাম বলেছেন, বিদেশি গণমাধ্যমে এ ধরনের নিবন্ধ প্রকাশ নতুন কোনো বিষয় নয়। লিখিত হোক বা সাক্ষাৎকার হোক, অতীতে অনেকেই এ ধরনের মন্তব্য করেছেন। এমনকি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেও যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য সফরে গিয়ে এ ধরনের সাক্ষাৎ দিয়েছেন।পরমান দিয়া দিলে ভালো হইত না? হাসিনা বিবির মুখের কন্ট্রোল কম, কিন্তুক এরকম গাধামি সে করছে শুনি নাই-- কেউ শুনাইলে কৃতার্থ হইতাম ।
খালেদা জিয়ার নিবন্ধ নিয়ে সরকারের মন্ত্রী-সাংসদদের সমালোচনাকে ‘নিচু মানসিকতা ও অসহিষ্ণুতার’ পরিচায়ক বলে মন্তব্য করেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ!!! এই অন্তর্জিক মানের বানচোদ তার আর রাজনীতিক বেশ্যাটার কি যোগ্যতা বা গ্রহণ যোগ্যতা আছে অন্য কুরে বিচার করার ? মওদুদ বলেন,এর মতে দেশের ভেতরে বা বাইরে সরকারের সমালোচনা করলেই তা রাষ্ট্রদ্রোহ হয় না।কথা ঠিক,কিন্তুক যেখানে সত্যি কারের রাষ্ট্রদ্রোহী আচরণ হয় , বিষয়টা পাড়ার মাস্তান গো রে নিজের ক্লোজ বড় ভাই হিসাবে পাইতে একটু জুতা চাইটা কিংবা শিশ্ন লেহন কইরা নিজের পাতে ঝোল টানতে বা জামায়াতি অপরাধহালকা কইরা দল ভারী কইরা সামনের বৈতরণী পার ধান্দায় এগুলা করা বিম্পি,জামায়াত বা মওদুদের জন্য নতুন কিছু না ।খা -লেদা বিবির তো দুই চাইর মাস পর পর উমরা করনের লাইগা ফালু রে নিয়া সৌদি বাদশার লগে শলা পরামর্শ করতে যাইতেই হয় ।আমরা আবাল, পাগল, বোকচোদ , গোবেচারা পাবলিক কিন্তুক এখন বিষয় গুলা বুঝি । এর আগে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল, ইকোনমিস্ট, ওয়াশিংটন পোস্ট, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালসহ নয়টি প্রতিষ্ঠান সরকারের বিভিন্ন বিষয়ে খালেদা জিয়ার চেয়ে আরও বেশি সমালোচনামূলক প্রতিবেদন প্রকাশ করে বলে তিনি দাবি করেন। আমি তার গুইন্যা ৯ বারের পরমান দেখতে বুড়া ঠাকুরের ' আমি কান পেতে রই' গান ছাইড়া বইসা রইলাম .............
দ্যাশ নেত্রী এই স্টেটমেন্ট গুলা বাংলাদেশের গণমাধ্যমে দিতে পারতেন কি না, এ প্রশ্নের জবাবে মওদুদ বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির এ যুগে এখানে বা ওখানে লেখার মধ্যে তফাতটা কী? দেশের বাইরে বাংলাদেশের শুভাকাঙ্ক্ষীদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য প্রতিবেদনটি ওয়াশিংটন টাইমসকে দেওয়া হয়েছে।যেমন তারেকের হোগা বাচাইতে রাজনৈতিক আশ্রয় চাওয়া হইসে ইউকে তে ।মওদুদের বেশ্যামির অসততার চূড়ান্ত হলো এটাকে হালাল বানানের চেষ্টা । পুতু মারা এদেশেই খান আর বিদেশেই খান, সাদা শিশ্নের খান আর কালো শিস্নেই খান , বড় আর ছোট যাই হোক যন্ত্রের আকার , মওদুদ তথা [বিএনপি -- মূলতঃ নয়াকালি - গ্রুপ মানে দলের সিংহভাগ ] দের কিছুই যায় আসে না ।
নিলফামারী থিক্যা মফিজ গাড়িতে ঢাকা যাইতেছিল মকবুল ডাক্তারের পোলা মোজাফফর ।
নাইট কোচ ..... মাঝ রাইত পার, সবার মাঝেই হুমের আমেজ,ইঞ্জিন কভারে বসা দুই চাইরজন মেরিস বা শেখ ধরাইসে দুই চাইরজন লোকাল ক্রেজ গফুর বা আনসার বিড়ি জ্বালিয়ে ঝিমাচ্ছে ---হঠাত আর্ত রব --

"ওই ড্রাইভার বাস থামা,হাগা ব্যারে গেল , হাগা...হাগা"
তোর্ পাও দুইটা ধরো , টক বাপ কও [পা ধরার এবং বাপ ডাকার আঞ্চলিক ভাষায় প্রতিশ্রুতি ]
পিছন দিক থেকে আরেক যাত্রী বলে উঠল, "ওই মিয়া,অভদ্রের মত হাগা হাগা কয়া চিল্লান ক্যান? কইলেই ত হয় বাথরুমে লাগছে বাস থামান"
প্রকৃতির ডাকে আক্রান্ত যাত্রীর উত্তর : হ্যাট পাখে যুদুক চাপ আইসে , ওইলা ঢাকাইয়া আও মুখ দিয়া বেরায় না [নিচে দিয়া যখন চাপ আসে তখন আমার মুখ দিয়া স্টাইলের ঢাকাইয়া কথা বাইর হয়না]হাগাই বাইর হয়...
প্রতিবাদী যাত্রীঃ বাসে আরও লোক আছে , মহিলা আছে ... তাদের সামনে হাগা হাগা কইরা চিল্লাইতে লজ্জা লাগেনা?
প্রকৃতির ডাকে আক্রান্ত যাত্রী : মোর প্যাটের গুক মুই যা মন চায় কইম , তোমাক পুছির নাগে ? টান বেশি হইলে কাঁচা গু কইম [আমার হাগারে আমি যা খুশী কমু,আপনেরে জিগাইয়া কইতে হইব?...দরকার হইলে কাঁচা গু কইয়া ডাকমু।]
পরিস্থিতি সোজা - মোজাফফর বুঝলো, সব করা সম্ভব কিন্তু প্রকৃতির সন্তান হয়ে প্রকৃতির ডাক উপেক্ষা অসম্ভব এবং বিলম্ব ভাষা ও কর্ম কান্ড কে মারাত্মক করে তুলতে পারে ।
প্রতিবাদী যাত্রী : আপনের কথা শুইনাত মনে লয় হাগার সাথে আপনার বহুদিনের প্রেম.কন্ঠে একটু মস্করা টাইপ ত্রল্য ছিল
.. পাশ থেকে থাকতে না পেরে মোজাফফর বলে বসলো ,"এই জীবনে কত কিছু দেখলাম কিন্তু পায়খানা নিয়া ঝগড়া করতে কাউরে দেখি নাই,মরার আগে যে আরও কত কিছু খোদায় দেখাইব !!!!!!!!
" অবশেষে ড্রাইভার বাস থামাইয়া বলল,"যান ভাই নিচে নাইমা যত খুশী হাগেন,বাস এর মধ্যেত গু ছুড়াছুড়ি কইরা বাসটারে শেষ কইরা দিলেন"
প্রতিবাদী যাত্রী বিড়বিড় করে বলল,"দেশে আইন কানুন বলতে কিছু নাই,যার যা খুশী করতেছে,যেখানে খুশী বাথরুম করতেছে,এই পায়খানা নিয়া একটা আইন করা উচিৎ"
মোজাফফর মিয়া আর থকতে না পাইরা কইলো ,"ভাই,মানু­ষ খুন কইরাও শাস্তি হয় না, আপনার হাগার আইন কেডা মানব"
পুর্তিবাদী যাত্রীঃ "ওই মিয়া চুপ থাকেন ---আজাইরা কথা কইয়েন না"
মোজাফফর মিয়া:: আচ্ছা ঠিক আমি আর কিছু কইলাম না,কিন্তুক আসল কথা হইল ,"বাস কিন্তু এখন হাগার দখলে--- আর হাগা যেদিকেই উল্টান দুই পাশেই সমান দুর্গন্ধ ।

আমাগো ম্যাঙ্গ পাবলিকের অবস্থা ... যেদিকেই যাই , হাগা, গু, যেদিকেই উল্টান সমান দুর্গন্ধ -- সেটা বিম্পি জামায়াত জোট হোক আর হামবালিগ এর মহাজোট ই হোক ।

লিন্কুতে গুঁতা দিয়া উত্স দেখতারেন ১

লিন্কুতে গুঁতা দিয়া উত্স দেখতারেন 2

Comments

সাগর সাগর এর ছবি
 

:হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

 
নুর নবী দুলাল এর ছবি
 

:হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:
রুশো ভাই পড়ে হাসতে হাসতে পেটে খিল ধরে গেছে। আপনার লেখনি শক্তি অনেক ধারালো হয়েছে। চালিয়ে যান। সাথে পাবেন।

 
শামীমা মিতু এর ছবি
 

:হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

---------------------------------------------------------
মরার জন্য যারা জন্মায় আমি সেই ধর্মবংশ
বাঁচিয়ে রাখার জন্যে বারবার ঝুলি না ফাঁসিতে

 
হাসনাত মিলন এর ছবি
 

চরম হয়েছে... ব্যাফুয়ক... Smile

----------------------------------------------------------------

“The greatest enemy of knowledge is not ignorance, it is the illusion of knowledge.”

― Stephen Hawking

 
সুমিত চৌধুরী এর ছবি
 

:হাসি: :হাসি: :হাসি: :হাসি: :হাসি: :হাসি:

○●○●○●○●○●○●○●○●○●○●○●○●○●○●○●○
জয় বাংলা... জয় বঙ্গবন্ধু...
নিজেই কানা পথ চিনে না,পরকে ডাকে বারংবার।
জামাত-শিবির রাজাকার এই মুহুর্তে বাংলা ছাড়।

 
শামীমা মিতু এর ছবি
 

"ওই ড্রাইভার বাস থামা,হাগা ব্যারে গেল

অহনো হাস্তেছি :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

---------------------------------------------------------
মরার জন্য যারা জন্মায় আমি সেই ধর্মবংশ
বাঁচিয়ে রাখার জন্যে বারবার ঝুলি না ফাঁসিতে

 
ব্রহ্মপুত্র এর ছবি
 

:হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

 
নাভিদ কায়সার রায়ান এর ছবি
 

কঠিন মজা পাইসি! জটিল লিখসেন!

 
শ্রমিক এর ছবি
 

চরম।

স্বপ্ন দেখি ধর্ম বিহীন সুন্দর এক পৃথিবীর।

 
আকাশ এর ছবি
 

চ্ররম বহিছে কিন্তুক।

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

রুশো পাগলা
রুশো পাগলা এর ছবি
Offline
Last seen: 2 years 1 month ago
Joined: শনিবার, ফেব্রুয়ারী 2, 2013 - 9:20অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর