নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

There is currently 1 user online.

  • উদয় খান

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

বাঙলাদেশের মানুষজন কি বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডে সন্তুষ্ট


মানুষ'জন হচ্ছে একেক'টা বিবেক বুদ্ধিহীন স্বার্থবাদী পিশাচ। যত'ক্ষণ না পর্যন্ত নিজের ঘাড়ে কোপ লাগবে কিংবা যত'ক্ষণ না পর্যন্ত নিজের স্বার্থে আঘাত লাগবে কিংবা যতো'ক্ষণ না পর্যন্ত নিজের ঘরের কেউ গুম, খুন, বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড, ধর্ষণ, এসিড নিক্ষেপ, দুর্নীতি, জালিয়াতি, চুরি বাটপারি, ডাকাতি, রাহাজানি, প্রতারণা, ঘুষ, জমিদখল, সাইবার ক্রাইম, নারী অবমাননা, যৌন হয়রানি, মাদক ব্যবসা, শিশু পর্নোগ্রাফি, শিশু পাচার, শিশু নির্যাতন, সড়ক দুর্ঘটনা'র শিকার হবেন ততো'ক্ষণ পর্যন্ত সকলে'ই বুদ্ধি প্রতিবন্ধী'র মতো ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে নাটকীয়'তা দেখবে এবং ভয়ংকর ও ভয়ানক সকল অপরাধ'কে মুখ বুজে মেনে নিবে।

কক্সবাজারের টেকনাফে র‍্যাব নামক রাষ্ট্রে'র প্রকাশ্য সন্ত্রাসী সংগঠন দ্বারা কাউন্সিলর একরামুল হক কি বিচার বহির্ভূত হত্যা'কাণ্ডের প্রথম শিকার? না, তা নয় তো। স্বাধীন'তার পর থেকে'ই তো এভাবে'ই বাসা থেকে তুলে নিয়ে, মিথ্যা নাটক সাজিয়ে হত্যা করার সংস্কৃতি গড়ে উঠেছিল। স্বাধীন'তার ৪৭ বছর ধ'রে চলমান বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বর্তমানে বাঙলাদেশে'র নির্মম সত্য। এই ৪৭ বছরে কি একবারও বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড নিয়ে জনগণ সোচ্চার হয়েছিলো? হাজারো মানুষে'র প্রতিবাদের ঢল নেমে'ছিল? লক্ষ মানুষে'র কণ্ঠ কি জেগে উঠে'ছিল? অধিকাংশ'ই ইনিয়ে-বিনিয়ে অপরাধ'কে সমর্থন করে গেছে ও যাচ্ছে। এখন কোন'ভাবেই এই ধরণে'র বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বা গুম থামানো সম্ভব নয়। যেহেতু এই রাষ্ট্র গণতান্ত্রিক নয় এবং এখানে'র মানুষ'জন নিজের অধিকার সম্বন্ধে সচেতন নয়ও- এই দুটি কারণ'ই যথেষ্ট গুম ও হত্যা'কে টিকিয়ে রাখার জন্য।

চার দলীয় জোট সরকারে'র আমলে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানের নামে অপারেশন ক্লিনহার্ট আর মাদক'বিরোধী বন্দুক'যুদ্ধের নাটক সাজিয়ে ক্রসফায়ারের সংস্কৃতি একে অন্যের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। ২০১১ সালে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের সংখ্যা ছিল ৩৩। অধিকারের তথ্য অনুযায়ী ২০১২ সালে ২৪টি গুমের ঘটনা ঘটেছিল। বিভিন্ন গণমাধ্যম, মানবাধিকার সংস্থা, সরকারের তথ্য অনুযায়ী ২০১২ সালে ৭০টি বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছিল। এর মধ্যে ৪০টি হত্যাকাণ্ডের জন্য র‍্যাব দায়ী বলে তথ্য পাওয়া গিয়েছিলো। র‍্যাবের বাইরে অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ২৪টি বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড হয়েছিল। মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের মতে, ২০১৪ সালে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের শিকার ছিল ১৪৭ জন। এছাড়া গুম হয়েছিল ৫৫জন এবং রাজনৈতিক সহিংসতায় মারা গেছে ১৫১ জন। ২০১৫ সালে বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের শিকার ছিল ১৮৩ জন ব্যক্তি। ২০১৬ সালে সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে ক্রসফায়ারে নিহত হয়েছিল ১৫০ জন। এর মধ্যে ৩৪ জন নিহত হয়েছিল র‍্যাবের হাতে, ১১ জন ডিবি পুলিশের হাতে, একজন বিজিবির হাতে, ৩ জন নিহত যৌথ সোয়াত অভিযানের সময় এবং ৬১ জন নিহত পুলিশ বাহিনীর হাতে।

একদা, খালেদা'র শাড়ির প্রশংসা করার জন্য এক'দল তথাকথিত বুদ্ধিজীবী অধির আগ্রহে অপেক্ষা করতেন আর এখন'কার অধিকাংশ তথাকথিত বুদ্ধিজীবী’রা হাসিনা'র পায়ের নিচে তাদের বেহেশতে খুঁজে বেড়ায়। যত'দিন না পর্যন্ত ১৬ কোটি মানুষে'র পরিবারে অন্তত একজন বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের শিকার হবেন না, তত'দিন পর্যন্ত এই স্বার্থ'পর মানুষ'ও সোচ্চার হবেন না।

বিভাগ: 

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

অনন্য আজাদ
অনন্য আজাদ এর ছবি
Offline
Last seen: 1 দিন 21 ঘন্টা ago
Joined: শুক্রবার, সেপ্টেম্বর 4, 2015 - 10:56অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর