নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • শাম্মী হক
  • সলিম সাহা

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

মাদক অভিযানের সঠিক পদক্ষেপ


চুনোপুঁটি মাদক ব্যবসায়ীরা অস্ত্র পায় কোথায় থেকে যে বন্দুক যুদ্ধে নিহত হচ্ছে! তবে বলা যায়, এই অস্ত্রের জোরেই তারা মাদক সামগ্রী কারবার করতো।
এই অস্ত্রগুলো আসলো কোথায় থেকে? নিশ্চয়ই বাংলাদেশে অস্ত্র ব্যবসায়ী রয়েছে! তাহলেতো আগে অস্ত্র ব্যবসায়ীও নিধন করা জরুরী।

মাদক নিধন যুদ্ধে অনেক মাদক ব্যবসায়ী ক্রসফায়ারড্ হয়েছে যা দৃশ্যমান। তবে তাদের থেকে উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্য সামগ্রীগুলো কোথায় কিভাবে ধ্বংস করা হচ্ছে তা কিন্তু দৃশ্যমান নয়। সাধারণ জনগন ও মুক্তমনারা আজ জানতে চায় এইসব দ্রব্য কি তারা বিক্রি করছে যারা কিলিং মিশন চালাচ্ছে?? ফেনী জেলায় ক্রসফায়ারে চারজন মারা গিয়েছহে। তার মধ্যে দু'জনের আমার বাড়ি থেকে বেশি দূরে নয়। তাদের থেকে পাওয়া মাদকদ্রব্যগুলো প্রকাশ্যে কেন পুড়ে ফেলা হয়নি বা হচ্ছে না?

বিক্রয়কর্মীরা নিহত হচ্ছে আর যারা এ্যাজেন্ট সম্রাট তারা ইফতার পার্টি করছেন হাই সোসাইটিতে বসে। আমরা ভাই বড়ই আজব! এখনও মানুষ হতে পারিনি।

আরেকটি কথা না বললেই নয়, আমার বাড়ি যেহেতু সীমান্তবর্তী এলাকায় তাই আমি যখন বাড়ি যেতাম তখন স্বচক্ষে দেখতাম যে বিজিবি ক্যাম্প আর থানাকে অর্থের বিনিময়ে চুক্তি করে মাদক ব্যবসায়ীরা চোরাচালান করতো।

পুলিশ, বিজিবি, স্থানীয় ইউপি সদস্য, চেয়ারম্যান ও স্থানীয় সাংসদরা যদি আগে থেকে কঠোর হস্তক্ষেপ করতেন তাহলে আজ লক্ষ লক্ষ ছেলে মেয়ে মাদকের ছোবলে দংশিত হতো না। মাদক ব্যবসায়ীরাও বিক্রি করা থেকে বিরত থাকতো।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে আগামী প্রজন্মকে মাদকের থাবা থেকে রক্ষা করতে এমন কঠোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তার জন্য সাধুবাদ জানাই। তার পাশাপাশি আরেকটি অনুরোধ, কয়েক সপ্তাহের জন্য মাদক বিরোধী মিশন চালিয়ে তাতে স্বল্প কয়েকদিনের জন্য লাভ হবে। তাই অনুরোধ রইলো, যেহেতু পুলিশ এবং বিজিবির উপর জনগন আস্থা হারিয়েছে তাই তাদেরকে এখনের মত আগামীদিনেও সততার সাথে মিশন অভ্যহতি রাখে তার দিকে একটু সুদৃষ্টি দিবেন। তাহলে সার্থক হবে এই মিশন।

বিরোধীতা নয়, সমাজকর্মী হিসেবে জানতে চাই, ক্রসফায়ার কি মানবাধিকর বহির্ভূত কাজ নয়?

প্রতিদিন কোটি কোটি টাকা ভারত ও মায়ানমারে চলে যাচ্ছে। দুইদেশই লাভবান হচ্ছে আর বাংলাদেশে আর্থিক ও সামাজিক মর্যদার ক্ষতি হচ্ছ। আমরা মনে করি বাংলাদেশে যদি ৮% ভলিউম বিয়ার স্বল্প মূল্যে উন্মুক্ত করে দেই তাহলে রাজস্বখাত বৃদ্ধি পাবে, ফেন্সিডেল ও ইয়াবা সেবনকারীরাও ফালতু মরণ নেশা থেকে দূরে থাকবে। প্রতিবাদ আসতে পারে শতকরা নব্বই ভাগ মুসলমান দেশে এটা সম্ভব নয়। আরে ভাই! মুসলমানের মেয়েরা যদি বেশ্যাগিরী করতে পারে, লক্ষ লক্ষ যুবক যুবতী যদি লোকচোক্ষুর অন্তরালে, গাঁজা, ইয়াবা, হিরোইন, আফিম ব্যবহার করতে পারে তাহলে ৮% বিয়ার ওপেন করে দেওয়ায় শ্রেয়।

বিভাগ: 

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

ইকরামুল শামীম
ইকরামুল শামীম এর ছবি
Offline
Last seen: 2 weeks 5 দিন ago
Joined: বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 7, 2017 - 7:42অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর