নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • মাহের ইসলাম
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি
  • নুর নবী দুলাল
  • প্রত্যয় প্রকাশ
  • কাঙালী ফকির চাষী

নতুন যাত্রী

  • নীল মুহাম্মদ জা...
  • ইতাম পরদেশী
  • মুহম্মদ ইকরামুল হক
  • রাজন আলী
  • প্রশান্ত ভৌমিক
  • শঙ্খচূড় ইমাম
  • ডার্ক টু লাইট
  • সৌম্যজিৎ দত্ত
  • হিমু মিয়া
  • এস এম শাওন

আপনি এখানে

একজন সংশয়বাদীর প্রশ্নঃ কি ও কে আপনি ?



আপনি যদি কাউকে প্রশ্ন করেন আপনি কে ? তাহলে আমরা সাধারনত যে উত্তর পেয়ে থাকি তা হচ্ছে প্রথমে সেই ব্যাক্তির নাম যা থেকে কিছুটা ধর্ম, বর্ণ ও বংশের পরিচয় পাওয়া যেতে পারে। এরপরে সেই ব্যাক্তি হয়তো হেসে আপনাকে তার কর্মজীবনের কিছু তথ্য দিবে সে কোন কোম্পানীতে কাজ করছে তার পদবী কি ইত্যাদি। একটা পর্যায়ে হয়তো সে পকেট থেকে একটা ভিজিটিং কার্ড বের করে দিয়ে বলবে এটা আমার কার্ড। যদি আপনি সেই ব্যাক্তির সম্পর্কে আরেকটু গভীরভাবে জানতে চান তাহলে হয়তো তার ডিগ্রি বা বিশ্ববিদ্যালয়ের নামও সে বলা শুরু করবে। অনেকেই আছে নিজেদের জ্ঞানও জাহির করতে চাইবে যে গতবছর আমার প্রজেক্ট পাশ হয়েছে অমুক দেশে এরকম কিছু। কিন্তু এই আমিত্ববোধ আর আমার পরিচয়ের মাঝে ডুবে থাকা প্রতিটি মানুষের একটি পরিচয় আছে। সেটা হচ্ছে মানুষ (Human) বা হোমোস্যাপিয়েন্স (Homosapien).

প্রকৃতিতে আমি, তুমি, আমরা বলে কিছুই নেই। প্রানীজগৎ এর মধ্যে কারো কোন এরকম নাম নেই যে নাম ধরে হরিণের পালের মধ্যে থেকে একটি হরিণকে আলাদা করা যাবে। ঠিক তেমনি বিজ্ঞানী এলবার্ট আইনিস্টাইন তার যে কর্ম রেখে গিয়েছেন এই পৃথিবীতে তাই কিন্তু টিকে আছে তিনি কিন্তু নেই। আইনিস্টাইনকে বা তার নাম আমরা চিনি তার কর্মের মাধ্যমে। এই নাম দিয়েছি আমরা মানুষেরা আমাদের সুবিধার জন্য। ধরুন যুরাসিক যুগের ডাইনোসররা জানতো না যে তাদের নাম আজ কোটি কোটি বছর পরে এসে ডাইনোসর হবে। একেক প্রজাতীর ডাইনোসর এর একেকটা নাম হবে যেমন, একজাতীয় ডাইনোসর ছিলো যারা লতাপাতা খেয়ে বেঁচে থাকত। এদের ছিল খুব লম্বা লম্বা গলা। মানুষ এদের চেনার জন্য নাম দিয়েছে (Sauropods) আরেকটি জাত ছিলো লতাপাতা ভোজি যাদের কারো কারো পাখির মতো ঠোঁট ছিল তাদের বলা হয় (Ornithischia) এরপরে (Armoured dinosaurs) এদের পিঠে ছিল বড় বড় হাড় যা এদেরকে রক্ষা করত। (Ornithopoda) এরা “duck-billed” ডাইনোসর। (Pachycephalosauria) এসব ডাইনোসরের মাথা ছিল খুব শক্ত। (Ceratopsia) এদের মাথায় শিং ছিলো । এরকম শত শত প্রজাতির ডাইনোসরের নাম দেওয়া হয়েছে শুধু তাদের চিহ্নিত করার জন্য। কিন্তু একটা বিষয় কি আমরা লক্ষ করেছি এই প্রানীগুলা কয়েকশো কোটি বছর আগে আমাদের এই পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হয়ে গিয়েছে।

আস্তিক, সংশয়বাদী,আজ্ঞেয়বাদীদের কাছ থেকে এমন প্রশ্ন আসার কারণ হচ্ছে বিভিন্ন ধর্মের বিশ্বাস ও মতবাদ মতে মানুষকে এমন কিছু ধারনা দেওয়া হয়ে থাকে তাতে তারা ভাবতে থাকে আমি হয়তো এই প্রকৃতির বাইরের কোন ব্যাক্তি বা প্রানী। কিছু কিছু ধর্ম মতে বলা হয়ে থাকে সৃষ্টির সেরা জীব। আসলে কিন্তু একটি মানুষ বাচেঁ মাত্র ৬০ বছর আরেকটি কচ্ছপ বাচেঁ ৫০০ বছর। যারা সব বিশ্বাস করে তারা প্রত্যেকেই কিন্তু একজন বা বহুজন সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস করে যার ফলে তারা কেউ কেউ ধর্মীয় মতবাদও বিশ্বাস করে থাকে। পৃথিবীর প্রচলিত প্রায় ৫২০০ প্রাতিষ্ঠানিক ধর্মের মধ্যে একেকটি ধর্মে মানুষ সম্পর্কে একেকটি ধারণা দেওয়া হয়ে থাকে। বিভিন্ন ধর্মীয় মতবাদে মৃত্যু পরবর্তি জীবন বা পরকাল নিয়ে কিছু কল্পিত মতবাদ প্রচলিত আছে। মানুষ মারা গেলে তাদেরকে সেই কল্পিত জগৎ এ যেতে হবে শেখানে তাদের বিচার হবে এরকম অনেক মতবাদ। বেশ কিছু ধর্মে একটি কল্পিত চরিত্র আছে যার নাম “আত্মা”। আর এই আত্মা নিয়েও বিভিন্ন ধর্ম মানুষকে বিভিন্নভাবে ধোকা দিয়ে থাকে এবং তাদেরকে বোকা বানাতে থাকে। বাস্তবে এই “আত্মা” নামক কল্পিত চরিত্রটির কোন প্রমাণ নেই। এরকম নানা কারণেই আধ্যাতিকতার চর্চাকারী বা আস্তিক্যবাদের চর্চাকারী মানুষের মধ্যে এই জাতীয় প্রশ্ন তৈরি হয়ে থাকে “আপনি কে ? বা আপনি কি ?”

আপনি কে ও কি ? এই প্রশ্নের উত্তরে আমরা যেটা বলতে পারি সেটা হচ্ছে এই পৃথিবীর এখন পর্যন্ত আবিষ্কার হওয়া জীবজগৎ এর ৫৫ লক্ষ প্রজাতির প্রানীর মধ্যে সেই আপনিও একটি প্রানী মাত্র যাকে চেনার জন্য আমরা মানুষ বলে থাকি। আর এই মানব জাতি সভ্য ও জ্ঞানী হবার পরে একেকজনের একেকটি নাম দেওয়া হয়েছে সাথে পরিচয়। আমি, আপনি, আমরা সকলেই এই পৃথিবীর প্রচলিত প্রকৃতির নিয়মের মধ্যেই এই পৃথিবীতে মানব প্রজাতি হিসাবে জন্ম গ্রহন করেছি এবং নির্দিষ্ট একটি সময় অতিবাহিত হলে আমার দেহের সমস্ত কোষের মৃত্যু ঘটার অর্থ আমারও মৃত্যু হওয়া এরপরে সেই মৃতদেহ প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মের মাধ্যমে সধারনত ৪০ দিনে প্রকৃতিতে মিশে যাবে। এরপরে আর কোন কিছুই অবশিষ্ট থাকেনা। আর এটাই হচ্ছে সহজ ভাষায় “আপনি কে ও কি ?” এর উত্তর।

মৃত কালপুরুষ
১৫/০৫/২০১৮

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

মৃত কালপুরুষ
মৃত কালপুরুষ এর ছবি
Offline
Last seen: 3 ঘন্টা 49 min ago
Joined: শুক্রবার, আগস্ট 18, 2017 - 4:38অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর