নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • প্রত্যয় প্রকাশ
  • কাঙালী ফকির চাষী
  • সাইয়িদ রফিকুল হক

নতুন যাত্রী

  • নীল মুহাম্মদ জা...
  • ইতাম পরদেশী
  • মুহম্মদ ইকরামুল হক
  • রাজন আলী
  • প্রশান্ত ভৌমিক
  • শঙ্খচূড় ইমাম
  • ডার্ক টু লাইট
  • সৌম্যজিৎ দত্ত
  • হিমু মিয়া
  • এস এম শাওন

আপনি এখানে

এবং এন্টেনা গিয়ে স্যাটেলাইট এলো


শুনি এত টকশো(যদিও ঘরে দূরদর্শনের বালাই নেই এবং অপটিক ক্যাবল ও বিতাড়িত),
তবে অনলাইনে,সোস্যালে দেখি দেশটা তালেবানি উটের কুঁজে হেলেদুলে চলছে,
বাপ এবং স্বামীর নামে তসবী জপসে কয়েকজন,
সারাদেশবাসী শামিল সেই শ্রাদ্ধবাসরে,
ওদিকে কারো গলায় কেউ দিচ্ছে চপ্পল ও মতান্তরে কেউ দিচ্ছে ফুলেল সংবর্ধনা।
চাকুরীর পরীক্ষায় টেবিলের ওপাশ থেকে প্রশ্ন আসে-
“আপনি কি রাষ্ট্রবিজ্ঞান পড়েছেন অথবা পৌরনীতি”।
-থোরা,থোরা,সাব।
“কি!উর্দু,বিদেশী ভাষা,অপসংস্কৃতি”।
-আইজ্ঞে না,হিন্দি ছিল জনাব।
“মারহাবা!মারহাবা!তাইলে ঠিক আছে।বলুন গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় সংসদ কি?”
-সংসদ একটি পারিবারিক সংগঠন যেখানে মান-অভিমানের পালা চলে,
একপরিবার আগুন দেন অন্য পরিবার কুম্ভীরাশ্রু বর্ষন করেন।
অশ্রোল্লাসে দেশে আসে বান,রাস্তায় চলে নৌকো,ধানেরশীষ পর্যন্ত ডুবে যায়।
অপরপক্ষে দাঁত কপাটি বের করে ছাদে লাগানো গোলাপ পকেটে গুঁজে
একজন কালো পোশাকে বসে থাকেন,
কখন কাকে দিয়ে বিরোধী আসনটা পোক্ত করা যায়।
“খামোশ!রাজাকারের বাচ্চা,দেশে এখন বান ডেকেছে
যে তরীতে না যাবি ভেসে যাবি বানের জলে।শুনিসনি কবিগুরু পর্যন্ত উঠতে চেয়েছেন-এবার আমারে লহ করুনা করে,বলিয়া”!
-দুঃখিত,জনাব আমি হুজুগে চলি না এবং আমি পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী নই।
“তাহলে ভাগ বেটা!ছাত্রাবাসে তোর জায়গা হবে না,হবে না গভমেন্ট জব।
তোর রগ কাটা হবে।ছাল তুলে ঝুলিয়ে দেয়া হবে বঙ্গভবনের দেয়ালে।
সেখানে ধোয়ামোছা চলছে সংবিধান।শীঘ্র দেশটাও ধোয়ামোছা হবে,
বুদ্ধিজীবীদের গিফট করা হবে স্টেইনসেল স্টিলের চশমা,চোখে দিয়ে তারা টকশোতে যাবেন,দেখবেন দেশের এনডিপি ,জিডিপি তরতর অথবা তড়তড় করে বেড়ে গেছে,দেশ হয়ে গেছে উন্নয়নশীল(মতান্তরে) থেকে উন্নত।
আবার রাস্তা আটকে আবার হবে সেলিব্রশান এবং মাস্টারবেশান।
দেখিসনি যেমনটা হয়েছিল দেশ যখন হয়েছিল উন্নয়নশীল।নাকি প্যান্টুলুন খুলে মুখ গুঁজে বসে থাকিস উরুর দিকে চেয়ে,দেশের উন্নয়নের মিছিল চোখে পড়ে না,ভাসিস না উন্নয়নের জোয়ারে,নাকি ইদানীং প্লানচ্যাট ফ্যাট করছিস,নাকি হয়ে গ্যাছিস নিহিলিস্ট?”
-আজ্ঞে না ,জনাব।দেখেছি তো।রাস্তা আটকে সমাবেশ,সংবর্ধনা করে দেশটা দরিদ্র থেকে উন্নয়নশীল হলো।আনন্দবাজার থেকে এফ,এইচ, হল পর্যন্ত এসে আটকে যাই,নেমে পড়ি রিকশা থেকে রিকশাওয়ালা বুড়ো বলে, “দ্যাখছেন নি আমাগো প্যাডে লাথি দিয়া এগো কি লাভ”।
আমি বললাম ভোটটা তো আপনিই দেন,৪৫,৫৫,৬৫ পারসেন্ট ভোট কি এমনিতে পড়ে?
“ভোটফোট,আব্বা দিই না,লাইনে দাঁড়াই ভোট দিবার গ্যালে রিকশা চালাইবো ক্যাডা,আর ঘরে এক বেইল রান্ধা না অইলে কারুর মাইয়া তো আমারে খাওয়াইবো না, পাঁচটা টেকা বাড়াই দ্যান বাপ”।
দেবার মালিক সংসদ,ওখানে যান এই বলে হাঁটা দিই এফ এইচ হল টু ফার্মগেট।
দেখি মিছিলের তোপ,দেখি রাস্তায় ঠল দেয় উর্দিপরা যান্ত্রিক রোবট,
শুনছি এরা যাবে জারজ সঙ্গমে,এইসব যন্ত্র ও দানবের মিছিলে পিষ্ট হলো
দিনমজুর ও রিকসাওয়ালার পাকস্থলী , চুপসানো ইনটেস্টাইন(অন্ত্র)।
রাস্তায়-পোস্টারে-ব্যানার-মিছিলে দেখি একই ব্যাপার-আর কতদিন নাম বেঁচে খাবেন?এবার নিজেরা কিছু করুন,আপনার ভবিষ্যত কি পুঁজি করে মিছিল পোস্টার-প্যানা করবে।কতদিন কবর থেকে তুলে জাতির দরজায় বিলি করবেন ছবিবেচা লিফলেট।রাস্তায় দেখি পদদলিত অসংখ্য ছবি ও লিফলেট,লাইটপোস্টে লাগাবার আগে ভাবুন লাইটপোস্টে দিনে ঠ্যাং তুলে মূত্রবিসর্জন করে নেড়ী,রাতে করে মাতাল।
আর কতদিন কবর থেকে উঠিয়ে আনবেন লাশগুলো,ছবি ছাপ দেবেন দুই টাকার নোটেও।
বরঞ্চ কিছুটা শান্তি দিন তাদের যাতে কেউ না ঘাটেন ডাস্টবিন কেউ ভাতের অভাবে না বলে, “ভাত দে হহারামজাদা!নইলে মানচিত্র খাবো”।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

কৌশিক মজুমদার শুভ
কৌশিক মজুমদার শুভ এর ছবি
Offline
Last seen: 10 ঘন্টা 18 min ago
Joined: রবিবার, এপ্রিল 2, 2017 - 7:31অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর