নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • মুফতি মাসুদ
  • নুর নবী দুলাল
  • আবীর নীল
  • নরসুন্দর মানুষ

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

পরিচয়হীন পরিচয়


কিছুদিন আগে এক ভদ্রলোক বাঙলাদেশ থেকে জার্মানি'তে একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার জন্য এসেছিলেন। তিনি আমার সাথে দেখা করার ইচ্ছা পোষণ করেন। আমি পারতপক্ষে প্রবাসী/বাঙালি থেকে দুরেই থাকি কারণ তারা মারাত্মক প্রতিক্রিয়াশীল। কিন্তু তারপরও কেউ যখন দেশ থেকে আসেন এবং দেখা করার ইচ্ছা পোষণ করেন আমি সাদরে গ্রহণ করি।

ভদ্রলোকটির সাথে দেখা হওয়া মাত্র তিনি আমাকে জিজ্ঞাসা করেন, 'হিটলারের দেশে কেমন লাগছে'? তিনি হয়তো ভেবেছিলেন আমার কাছ থেকে এমন কোন উত্তর পাবেন যাতে তিনি তৃপ্তিবোধ করবেন। গুঁতোগুঁতির সংস্কৃতি পালনে যে বাঙালির অসুস্থ চিন্তাবোধ প্রকাশ পায় তাতে তারা বিচলিত নন। মানুষকে গুঁতনোর মধ্যে বাঙালিরা কেনো জানি শান্তি পেয়ে থাকেন! মানুষকে গুঁতনোর সংস্কৃতি বাঙালির মধ্যে প্রবল। কিন্তু যে ব্যক্তি গুঁতনো'কে পছন্দ করে থাকেন, তিনি কেনো জানি আশা করেন না যে অন্য কেউ বা বিপরীত প্রান্তে থাকা মানুষটিও বিদ্রূপ বা ব্যাঙ্গ বা মস্তিষ্ক জ্বালিয়ে দেবার মতো ক্ষমতা রাখতে পারেন।

ভদ্রলোকটির প্রশ্নের জবাবে যখন বললাম, 'গোলাম আযমের দেশে নিশ্চয়ই আপনি সুখে শান্তিতে আছেন'! তিনি উত্তরটি হজম করতে পারেন নি। গ্রহণ করা তো দূরের কথা; তিনি উত্তেজিত হয়ে যান। বাঙালির চিন্তারাজ্য যেহেতু কফিনের চারকোণা বাক্সের থেকে খুব একটা বিস্তৃত নয়, সেহেতু তাদের জ্ঞান ও যুক্তি কফিনের মধ্যখানেই ঘুরপাক খেয়ে থাকে। কিন্তু বাঙালি বোধ করে তারা প্রত্যেকে সবজান্তা, বিশেষজ্ঞ, জ্ঞানী, পণ্ডিত।

অসভ্য সমাজে, অসভ্য মানুষের কাছে হিটলার জনপ্রিয়। কারণ অসভ্য সমাজের মানুষের মধ্যে হিটলারের বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান। যেহেতু তারা এখনো সভ্য হতে পারে নি, সভ্যতার সাথে যেহেতু তাদের এখনো পরিচয় হয় নি, মনুষ্যত্ববোধ যেহেতু তাদের মধ্যে এখনো আসে নি, গ্রহণের চেয়ে বর্জনে যেহেতু তারা বেশি বিশ্বাসী- সুতরাং হিটলারের মাঝে তারা তাদের প্রতিচ্ছবি দেখতে পায়। তাদের ঈশ্বর যেহেতু জাতি-ধর্মবিদ্বেষী গুন্ডা, ঈশ্বরের প্রজাও যেহেতু ছিল বিদ্বেষ সৃষ্টিকারী খলনায়ক সুতরাং তাদের অনুসারীরাও উপর মহলের গুন্ডাদের অনুকরণ ও অনুসরণকারী আহম্মক।

মুসলমানদের কাছে হিটলার ততোটাই জনপ্রিয়, যতোটা সভ্য মানুষের কাছে হিটলার নিন্দনীয়। সভ্য সমাজে হিটলারের কোন গ্রহণযোগ্যতা নেই। জার্মানি'কে হিটলারের দেশ হিসেবে তারাই জানে ও পরিচয় করিয়ে দেয়, যারা অসভ্য সমাজের অসভ্য ও অশিক্ষিত মানুষ। জার্মানি, একটি দেশ প্রায় পুরো ধ্বংস হয়ে আবার ওঠে দাঁড়িয়ে বর্তমানে পৃথিবীর শক্তিশালী ও মানবিক রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত লাভ করতে সক্ষম হয়েছে। অথচ স্বাধীনতার ৪৬ বছরে বাঙলাদেশ কতদূর এগোতে পেরেছে? পৃথিবীর মানুষ কি বাঙলাদেশ'কে গোলাম আযম বা দেলোয়ার হোসেন সাঈদির মাধ্যমে চিনবে নাকি শেখ মুজিব, আহমদ শরীফ, হুমায়ুন আজাদের মাধ্যমে চিনবে?

বিভাগ: 

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

অনন্য আজাদ
অনন্য আজাদ এর ছবি
Offline
Last seen: 5 ঘন্টা 20 min ago
Joined: শুক্রবার, সেপ্টেম্বর 4, 2015 - 10:56অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর