নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • মিশু মিলন
  • নরমপন্থী

নতুন যাত্রী

  • নীল মুহাম্মদ জা...
  • ইতাম পরদেশী
  • মুহম্মদ ইকরামুল হক
  • রাজন আলী
  • প্রশান্ত ভৌমিক
  • শঙ্খচূড় ইমাম
  • ডার্ক টু লাইট
  • সৌম্যজিৎ দত্ত
  • হিমু মিয়া
  • এস এম শাওন

আপনি এখানে

মোহাম্মদের মেরাজ ঘটনার মতই আর একটি গল্প।



মোহাম্মদের মেরাজ ঘটনার মতই আর একটি গাজাখুরিপ্রথমেই নিচের সূরা দুটি খেয়াল করুন-

আমি কোরআনকে সহজ করে দিয়েছি বোঝার জন্যে। অতএব, কোন চিন্তাশীল আছে কি?কোরান, 55:17

আমি কোরআনকে বোঝার জন্যে সহজ করে দিয়েছি। অতএব, কোন চিন্তাশীল আছে কি?কোরান, 55:22

তার মানে কোরানের সব কিছুই খুব সহজেই বোঝা যাবে কারন স্বয়ং আল্লাহই সেটা সহজ করে প্রকাশ করেছে।এবার নিচের আয়াত দেখুন-
তারা বলে, তার পালনকর্তার পক্ষ থেকে তার প্রতি কিছু নিদর্শন অবতীর্ণ হল না কেন? বলুন, নিদর্শন তো আল্লাহর ইচ্ছাধীন। আমি তো একজন সুস্পষ্ট সতর্ককারী মাত্র। এটাকি তাদের জন্যে যথেষ্ট নয় যে, আমি আপনার প্রতি কিতাব নাযিল করেছি, যা তাদের কাছে পাঠ করা হয়। এতে অবশ্যই বিশ্বাসী লোকদের জন্যে রহমত ও উপদেশ আছে। সূরা-আনকাবুত-২৯:৫০-৫১

গল্প।প্রথমেই নিচের সূরা দুটি খেয়াল করুন-খুব সরল ভাষায় এখানে বলা হচ্ছে যে অলৌকিক ঘটনা আল্লাহর ইচ্ছাধীন ও মোহাম্মদ শুধুই একজন সতর্ককারী । আর কোরানই হলো অলৌকিক ঘটনার যথেষ্ট প্রমান, এ ছাড়া আর কোন অলৌকিক ঘটনা প্রদর্শনের ক্ষমতা মোহাম্মদের নেই। এটা মোহাম্মদ কখন বলেছিলেন? যখন তার অনুসারী বেশী ছিল না।যদি মোহাম্মদের কোন অলৌকিক ক্ষমতা থাকত তাহলে খৃষ্টান ও ইহুদিদের দাবীর প্রেক্ষিতে তখনই তা প্রদর্শন করতেন উক্ত আয়াতের নামে তাদেরকে ধোকা দিতেন না।আর যখন তার অন্ধ অনুসারীর সংখ্যা কিছু বৃদ্ধি পেল যারা মোহাম্মদ যা বলবে তাই বিশ্বাস করবে তখন তার মূখ যে নিচের আয়াত বের হয়-
কেয়ামত আসন্ন, চন্দ্র বিদীর্ণ হয়েছে। তারা যদি কোন নিদর্শন দেখে তবে মুখ ফিরিয়ে নেয় এবং বলে, এটা তো চিরাগত জাদু।কোরান, ৫৪: ১-২

বলা হচ্ছে এটা তার বিখ্যাত চাঁদ দ্বিখন্ডিত করার মোজেজা।দেখুন কত দ্রুত মোহাম্মদ ভিন্ন কথা বলছেন। অর্থাৎ পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে তার কথা পাল্টে গেছে। আর পূর্বোক্ত আয়াত অনুযায়ী কিন্তু আমাদের বুঝতেও কোন অসুবিধা নেই কারন কোরান খুব সহজ ও সরল ভাবে আল্লাহ কর্তৃক প্রকাশিত।উল্টা পাল্টা বোঝার কোন সুযোগ নেই।
এবার আসুন বাস্তবতায়। চাঁদ দ্বিখন্ডিত হলে তা এ গোলার্ধের সকল দেশ হতে দেখতে পাওয়ার কথা কারন তা রাতের বেলা ঘটেছিল ও দীর্ঘক্ষন খন্ডিত অবস্থায় ছিল। তার মানে, শুধুমাত্র আরবের কতিপয় মোহাম্মদ অনুসারী ছাড়াও ইউরোপ ও এশিয়ার প্রায় সকল দেশের লোকদেরই তা দেখতে পাওয়ার কথা।তখন আরবদের চাইতে উন্নত বহু জাতি গোষ্ঠি ছিল আর ছিল তাদের বহু জ্যোতির্বিদ। এ ধরনের একটা অসাধারন ঘটনা ঘটে থাকলে হাজার হাজার নয় লক্ষ লক্ষ লোকের দেখতে পাওয়ার কথা।তাই তা সকল দেশের ইতিহাস ও জ্যোতির্বিজ্ঞান কিতাব সমূহে লিখিত থাকার কথা।কারন হাজার হাজার বছর আগেও যে সব তারকা সুপারনোভা আকারে বিস্ফোরিত হয়ে চুপসে গেছে, যার ফলে অকস্মাৎ রাতের আকাশ বেশ আলোকিত হয়ে উঠেছিল সেসব ঘটনা ও দীর্ঘ মেয়াদী সূর্য গ্রহন বা চন্দ্র গ্রহনের ঘটনাও কিন্তু ইতিহাসে লিখিত আছে আর তখন দুনিয়াতে বেশী লোকও ছিল না, সভ্য জাতির সংখ্যাও ছিল না।অথচ চাদঁ দ্বিখন্ডিত হওয়ার মত ঘটনা কেউ কোথাও দেখেনি , তাই লিপিবদ্ধ করেনি। তাছাড়া , আর যাই হোক যাদু দিয়ে চাঁদ দ্বিখন্ডিত করা যায় না যা সেসময়ের মানুষগুলোও ভাল বুঝত।এমন কি আজকের এই বিজ্ঞানের যুগে কোন লোক এসে যদি চাঁদকে দ্বিখন্ডিত করে তাহলে দুনিয়ার সকল মানুষ তার পায়ে লুটিয়ে পড়বে।আর তখন খৃষ্টান , ইহুদি বা পৌত্তলিক তারা যদি সত্যিই এ ঘটনা দেখে থাকে তাদের মনে মোহাম্মদের নবূয়ত্ব নিয়ে কোনই সন্দেহ থাকার কোন কথা না কারন তারা আজকের মানুষের মত এত জ্ঞান বিজ্ঞান জানত না।তাই তাদেরকে এ ঘটনার দ্বারা বিশ্বাস করানো ছিল অতীব সহজ।অথচ এর পরেও তারা মোহাম্মদের ওপর বিশ্বাস আনেনি। তার সোজা কারন মোহাম্মদ এ ধরনের কিছু ঘটাতে পারেন নি। শুধু এ ঘটনাই নয়- গোটা কোরানে এ ধরনের স্ববিরোধী কথা বার্তা বহু আছে যা আপনি মুক্তমনার বহু লেখকের ও আমার অন্যান্য নিবন্ধে জানতে পারবেন। এ ছাড়া খোদ কোরানের ভাষাটাই লক্ষ্য করুন, ব্যকরনের কোন নিয়ম নীতিই সেখানে মানা হয় নি, যেন আল্লাহ কোন ব্যকরনই জানে না।এটা কিভাবে সম্ভব? মোহাম্মদ নিরক্ষর ছিলেন, কিন্তু কিচ্ছা কাহিনী বলতে গেলে তো লেখাপড়া জানতেই হবে এমন কথা নেই। গ্রাম গঞ্জে এখনও বহু নিরক্ষর মানুষ পাওয়া যাবে যারা চমৎকার করে নানা কিচ্ছা কাহিনী বলতে পারে। কিন্তু তাই বলে তো তারা বিশুদ্ধ ব্যকরন অনুসরন করে বাক্য রচনা করতে পারবে না। ঠিক এটাই ঘটেছে মোহাম্মদ বর্নিত কোরানে।যেটুকু ব্যকরনগত শুদ্ধতা দেখা যায় তা হলো তার কতিপয় শিক্ষিত সাহাবীর কৃতিত্ব কারন তারাই তো অবশেষে কোরানকে লিখিত আকারে লিপিবদ্ধ করেছে।
Robiul Alam

Comments

মৃত কালপুরুষ এর ছবি
 

ধন্যবাদ আপনাকে এবং স্বাগতম ইস্টিশন ব্লগে। আশা করি আপনি এখন থেকে ইস্টিশনে লেখা দিবেন।

-------- মৃত কালপুরুষ

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

রবিউল আলম ডিলার
রবিউল আলম ডিলার এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 2 দিন ago
Joined: বুধবার, এপ্রিল 25, 2018 - 1:32পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর