নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 2 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • শাম্মী হক

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

নাস্তিকরা হলো মাথা মোটা, সব এক একটা গাধা!


নাস্তিকরা হলো মাথা মোটা, সব এক একটা গাধা! বয়ানে- ইসলামের নামজাদা মোল্লা৷ তো গাধা কে তাতে পরে আসি আগে একটা মাঠ ধাপাই৷ অস্ত্র জমা দিলেও ট্রেনিংতো জমা দিইনি কি বলেন!?
১৷ মুফতি রাজ্জাক বিন শির্ক ইউসুফ বয়ান ঝাড়ছেন, ২১শে ফেব্রুয়ারীতে শহীদের ফুল দেয়া শির্ক৷ এগুলা কি শহীদরা পায়? রফিক সালাম জব্বার ইউসুফ এদের কি কিছু লাভ হয়? কিছু আসে যায়? সবাই বললো ঐ সম্মেলনে যায়না৷ আমিও বলছি হ্যাঁ যায়না৷ কিন্তু আপনারাইতো বুঝেননা এটা৷ এত টাকা খরচ করে যে সৌদিতে যান হজ্জ্ব করেন, তাতে কিছু হয়? নবীর জন্মদিন পালন করেন তাতে কিছু হয়? শয়তানকে ঢিল মারেন তাতে শয়তানের কিছু আসে যায়? নিশ্চই যায় না? এই যে আল্লাহ আল্লাহ করেন, তাতে লাভ কি? তাতে আল্লাহ কিছু আসবে যাবে? মানুষতো তাদের স্মরণ করছে যারা ত্যাগ দিয়েছে প্রাণ তাইনা? যদি আপনার নবী পায়, তারাও পাবে৷ আর যেটা ফেক আইডি মানে আল্লাহ, সেটাতো প্রাণহীন একটা নাম মাত্র আর কিছুই না, তবুও আল্লাহ আল্লাহ করেন৷ যেটা ছিলোইনা সেটা নিয়ে জীবনটা দিতে পারেন, আর যেটা ছিলো তাদের ফুল দিতে পারবেনা! আহা ক্ষেপে যাচ্ছেন? না এখন না আরো বাকী আছে৷ আপনাদের গাল গপ্পের যুক্তি দিয়ে আপনাদের
২৷ সবাই যখন গঞ্জে যাচ্ছিলো ইব্রাহিম যাচ্ছিলো না৷ কারণ তার মূর্তি ভাঙ্গার সখ জাগলো৷ সবাই যখন চলে গেল, সে মূর্তি সব ভেঙ্গে একটা ভাঙা মূর্তির হাতে কুড়ালটা দিয়ে চুপ মেরে থাকলো৷ সবাই এসে হতবাক৷ এ মূর্তি কে ভাঙলো? বললো এখানে একজনই ছিলো ইব্রাহিম৷ কই তাকে ডাকো৷ ইব্রাহিমকে ডেকে জিজ্ঞাসা করলো ইব্রাহিম! মূর্তি কে ভেঙেছে? ইব্রাহিম বললো আমি কি জানি, ঐ মূর্তির হাতে কুড়াল তাকে জিজ্ঞাস করেন৷ আরে! মূর্তি কি কথা বলতে পারে যে মূর্তিকে জিজ্ঞাসা করবো? তখন ইব্রাহিম বলছে, যে কথা বলতে পারে না তাকে পূজা করেন কেন?
এই যে দেখুন ইব্রাহিম বলেছিলো যেটা কথা বলতে পারে না, তাকে পূজা করেন কেন? তাহলে আল্লাহ কি কথা বলতে পারে? তার আরাধনা করেন কেনো? যদি আল্লাহর আরাধনা করতে পারেন, তবে মূর্তির পারবে না কেন আর ঐ ভাষা শহীদরাই বা কেন সম্মান পাবেনা? ইব্রাহিম মূর্তি ভাঙলো কেন, আল্লাহতো হতে বললে হয়ে যায়৷
আসুন এবার একটু ভাষা নিয়ে মরি৷ বাংলা ভাষা নিয়ে বেশ নাক ছিটকানি আছে আপনাদের তা একুশে ফেব্রুয়ারী আর পহেলা বৈশাখ এলে বুঝা যায়৷ এতই যদি আরবিয়ান বা উর্দূ প্রেমী হবেন বাংলায় থাকেন কেনো? বাংলা খারাপ হলে মুহাম্মদ নামটা বাংলায় লিখা কি শির্ক নয়? বাংলায় যে লিখতে হয় এ লজ্জায় আরবে চলে যাওয়া উচিৎ৷ কবি আব্দুল হাকিম বলেছিলাম-
"যেসব বঙ্গেতে জন্মি হিংসে বঙ্গ বাণী
সেসব কাহারো জন্ম নির্ণয় ন'জানি৷"
সহজ ভাষায় এক শব্দে কি বলেছিলেন বুঝলেনতো! নাকি তাও আরবী বললে বুঝা যেত?
আচ্ছা এই জন্ম নিয়ে যখন কথা বললামই তখন মনে পড়লো ইচা মাছের কথা৷ ওহ্ মাছ না ইসা নবীর কথা, মানে যিশুর বিবর্তন আরকি! আল্লাহ ইব্রাহিমকে লাঠি দেন, যে লাঠি দিয়ে মাটি দোভাগ হয়, সাগর বানিয়ে শত্রু নিধন করা যায়৷ মোহাম্মদের জন্য এলিয়েন পাঠায় আর বাপ নেই বলে এতিম বলে যিশুকে খুঁটিতে খাড়া করে দেয়া হয়৷ ইব্রাহিমে লাঠি দিয়া মাইনষেরে গুতায় আর মাইনষে গুতায় যিশুরে৷ আল্লার প্রেরিত দূতকে এভাবে কেউ উল্টো খাড়া করে দিয়েছে এটা বিশ্বাসযোগ্য? যেখানে আল্লাহ সর্বশক্তিমান! তার কতা ছাড়া গাছের পাতাও নড়েনা? তিনি হয়ে যাও বললে হয়ে যায় অথচ মানুষের ঠেলায় যিশুর বেলা হলোনা৷ আল্লাহ পরম দয়ালু অথচ ঈসারে গুতাইলো কিন্তু সব চুপ৷ খৃস্টানরা না হলে হয়তো গল্পটা যিশুর গুতানি খাইতো৷

এবার আসি মাথা মোটায়৷ হ্যাঁ নাস্তিকদের মাথা মোটা৷ তাই তাদের টুপি পাগড়ি দিয়া মোটা করা লাগেনা৷ যুক্তিতেও স্বাস্থ্যবান৷ আর গাধা কে সেটা দেখা যাক৷৷ হুজুর নাস্তিকরা কেমন গাধা সেটা প্রমাণ করতে একটা গল্প ঝাড়লেন- এক গাধার পিঠে তার মালিক লবণের বস্তা দিয়ে বললো যাও এটা অমুক জায়গায় দিয়ে আসো৷ গাধার যেতে যেতে হঠাৎ পিপাসা পেলো৷ সামনে একটা পুকুর দেখে নামতে গিয়ে পিচলে পানিতে গিয়ে পড়লো৷ লবণতো পানি পেলে পানি হয়৷ গাধাটা পানি খেয়ে উঠতে গিয়ে বললো "সোবাহান আল্লাহ" পানি খেলে বোঝা পাতলা হয়ে যায় দেখছি!আমাকে প্রতিদিন বোঝা খেতে হবে যেন কষ্ট না হয়৷ তার পরের দিন আবার মালিক তুলার বস্তা নিয়ে পাঠালেন৷ এবারো গাধা নামলো, রিচলে পড়লো, পানি খেলো৷ এবার দেখলো বোঝা ভারী হয়ে গেছে৷ এই হলো নাস্তিক গাধা ঠিক কিনা!! সামনেরগুলা বললো ঠিক ঠিক৷

প্রশ্ন হলো বোঝা পাতলা হোক আর ভারী হোক, নাস্তিক কি কখনো মাশাল্লাহ সোবাহান আল্লাহ এগুলা বলবে? এগুলা কারা বলে? তাহলে যারা বলে তারা......? মোট কথা কি দাড়ালো, গাধারাই এসব বলে, সেই গাধা আর কেউ নয়৷ আর গাধার মালিক আরো নির্বোধ, যে গাধাকে পাঠাচ্ছে বার বার, পিচলাও বার বার খাচ্ছে৷
শুধু গল্প বানালে হয়, সবকিচু ঠিক আছে কিনা তাও দেখতে হবে নাকি ? গাধায় গাধার গল্প বললে, গাধারা ঠিক ঠিক বলবে নাতো কারা বলবে? এখানেই নাস্তিকদের সাথে গাধার ব্যবধান৷ গাধা গল্প বলছে আর গাধার শিষ্যরা বুঝুক না বুঝুক হ্যাঁ হ্যাঁ করছে বলেতো সবাই করবেনা৷ এজন্যই বলে মোল্লার দৌড় মসজিদ পর্যন্ত৷

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

কাঙালী ফকির চাষী
কাঙালী ফকির চাষী এর ছবি
Offline
Last seen: 14 ঘন্টা 59 min ago
Joined: শুক্রবার, ডিসেম্বর 29, 2017 - 2:02পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর