নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 2 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • শাম্মী হক

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

আমি কখনো রিস্ক নি ইনা !


মদ খাওয়ার সময় আমি কোন রিস্ক নিই না।

অফিস থেকে সন্ধ্যেবেলা বাড়ি ফিরে দেখি গিন্নি রান্না করছে। রান্নাঘর থেকে বাসনের আওয়াজ আসছে।

আমি চুপিচুপি ঘরে ঢুকে পড়লাম।

গোপনে কালো রঙের আলমারি থেকে বোতলটা বার করলাম।

নেতাজি ফটো ফ্রেম থেকে আমাকে দেখছেন।

কিন্তু এখন পর্যন্ত কেউ কিচ্ছুটি টের পায়নি। কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

সিঙ্কের উপরের তাক থেকে গ্লাস বার করলাম। আর ঢক করে এক পেগ গিলে ফেললাম। গ্লাস ধুয়ে ফের তা তাকের উপর রেখে দিলাম।
হা, বোতল টাও আলমারিতে রেখে দিলাম। গিন্নি টের পায়নি!

নেতাজি মুচকি হাসলেন।

রান্নাঘরে উঁকি দিলাম, গিন্নি দেখি আলু কাটছে।

কেউ কিছু টের পায়নি সে। কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

গিন্নিকে জিগেস করলাম: সমীরের মেয়ের বিয়ের কিছু হলো?

গিন্নি : নাহ, মেয়েটার ভাগ্যটাই খারাপ। এখনো পাত্র দেখছে।

আমি আবার ঘরে গেলাম, আলমারি খুলতে গিয়ে এবার একটু শব্দ হলো। তেমন কিছু নয় অবশ্যি।

খুব সতর্কভাবে বোতল বের করার সময় অবশ্য কোনো আওয়াজ করিনি।

সিঙ্কের উপরের তাক থেকে গ্লাস নিয়ে চট করে দু পেগ মেরে দিলাম।

বোতল ধুয়ে সাবধানে সিঙ্কের মধ্যে রেখে দিলাম। আর গ্লাসটা আলমারিতে। আগের স্থানে!

এখন পর্যন্ত কেউ কোনো কিছু আঁচ করতে পারেনি। কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

বাইরে এসে গিন্নিকে বললাম, যাই হোক, সমীরের মেয়ের বয়েসই বা কি এমন হলো !

গিন্নি : কী বলছ !! ৩০ বছর বয়েস হলো, দেখতে আরো বুড়োটে লাগে।

আমি ভুলেই গেছিলাম সমীরের মেয়ের বয়েস ৩০ : তা ঠিক

সুযোগ বুঝে ফের আলমারি থেকে আলু বের করলাম (আলমারিটা আবার জায়গা বদলে ফেলল কি করে রে বাবা!), তাক থেকে বোতল বার করে সিঙ্কের সঙ্গে মিশিয়ে চট করে আর এক পেগ পেটে চালান করলাম।

নেতাজি দেখি জোরে জোরে হাসছেন।

এবার তাক আলুতে রেখে নেতাজীর ছবি খুব ভালো করে ধুয়ে আলমারিতে রেখে দিলাম।

গিন্নি কি করছে দেখি - হ্যা, ও গাসের উপর সিংক চড়াচ্ছে।

কিন্তু এখন পর্যন্ত কেউ কিসসু টের পায়নি, কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

আমি গিন্নিকে : তুমি সমীরকে বুড়ো বললে ?

গিন্নি : বকবক কর নাতো, বাইরে গিয়ে চুপ করে বসো। এখন তুমি কথা বলবে না।

আমি আলু থেকে ফের বোতল বের করে মজাসে আলমারি তে আরো এক পেগ গিললাম। সিংকটা ধুয়ে ওটাকে তাকের উপর রেখে দিলাম।

ফটো ফ্রেম থেকে গিন্নি এখনো হেসে চলেছে। নেতাজি রান্না করছে।

কিন্তু এখনো কেউ কিছু টের পায়নি, কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

গিন্নিকে হাসতে হাসতে বললাম : তাহলে সমীর পাত্রী দেখছে?

গিন্নি : শোনো, তুমি মুখে জলের ঝাপটা দিয়ে কোথাও চুপ করে বসতো!

আমি রান্না ঘরে গিয়ে চুপচাপ তাকের উপর বসলাম।

কিন্তু এখন অবধি সমীর কিছু টের পায়নি কারণ নেতাজি কোন রিস্ক নেন না।

সমীর এখনো রান্না করছে।

আর আমি ? আমি ফটো ফ্রেম থেকে গিন্নিকে দেখে এখনো হেসে চলেছি। কারণ আমি কখনো ইয়ে নিইনা, কি যেন নিইনা ......ও হা, আলু নিই না।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

ড. লজিক্যাল বাঙালি
ড. লজিক্যাল বাঙালি এর ছবি
Offline
Last seen: 2 দিন 18 ঘন্টা ago
Joined: সোমবার, ডিসেম্বর 30, 2013 - 1:53অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর