নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • দ্বিতীয়নাম
  • নিঃসঙ্গী
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • মিঠুন বিশ্বাস

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

কিসের একুশ কিসের বায়ান্ন? যূগ তো ইংলিশ মিডিয়ামের..!


কি হচ্ছে ইংলিশ মিডিয়ামে?

বৃটিশ শাষনের কিছু পরে ইংরেজ ঐতিহাসিক উইলিয়াম হান্টার বলেন,"আমরা এ দেশে এমন এক সিলেবাস দিয়ে গেলাম যার দ্বারা শিক্ষিত হয়ে এদেশের যুবক যুবতীরা তাদের মুসলিম পিতা মাতাকে উপহাস করবে এবং নাস্তিক হয়ে আস্তিক পিতা মাতাকে মূর্খ মনে করবে,তাদের কাছে ঈমান,ধর্ম থেকে ইংরেজদের আনুগত্য করা বেশি লোভনীয় হবে"..
আসুন একটু আশে পাশে তাকাই,
বাংলাদেশের মধ্যে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র আমেরিকা আছে, জানেন কি?
দেখবেন দেয়ালে লিখা আছে,হার্ভাড এর শিক্ষাপদ্ধতিতে পড়ানো হয়,
আসলে কি তাই?
তাহলে তো ভালোই,কোনো ভাষা শিখা পাপের কিছু নয়,জ্ঞ্যানার্জনেও ক্ষতি নেই,কিন্তু সেখানে শিক্ষাপদ্ধতি ব্যবহার হয়না,ব্যাবহার হয় জীবনপদ্ধতির..
অর্থাৎ,
সেই ইংলিশ মিডিয়ামের চৌকাঠে পা রাখামাত্র একজনকে ইংরেজ হয়ে যেতে হয়,যেখানে আমরা বাঙালীরা রাস্তাঘাটের একটু আঁধার খুজি মেয়ের হাত ধরার জন্য,সেখানে ঐ মিডিয়ামে তা প্রকাশ্য দিবালোকে পিতামাতার সামনেই করা যায়..
ছোট থেকে ভাত আর মাছ খেয়ে আসছি তা ভুলে যেতে হয়,আসলে ভুলাতে জোর করা হয়,উগলে বের করতে হয় রাইস আর ফিশ,বাবাকে ড্যাড বলতে হয়,আদরের ডাক মা,ওটাকে মম,মাম্মা বানাতে হয়..
এমনকি তারা ইংরেজীকে দ্বিতীয় ঈশ্বর বলতে দ্বিধা করেনা,সেটাকে আবার গর্বভরে প্রচারও করে..
সেখানে যেয়ে বাংলা বলতে ক্যামন যেন লজ্জা করে,সবাই বিলাতি লেবু,শালা আমি একটা দেশি কলা..
হায়,
এটাই তাহলে আমার অহংকার,আমার একুশ!
আজ আমার দেশেরই বাচ্চারা বাংলা বুঝতে পারেনা,তাদের বাংলা বুঝতে কষ্ট হয়!
বাঙালী কৃষককে এরাই গরীব চাষা বলতে শেখায়,এরা ভুলে যায় তার খাদ্য ডাল মাছ আর ভাত,এটা আমাদের গৌরব,..ফ্রাইড রাইস আর চিকেন,বিফ নয় কখনো..
আচ্ছা কখনো কি চিন্তা করে দেখতে পারিনা যে,
ওরা যদি পারে নিজের ভাষাকে গোটা বিশ্বের ওপর চাপাতে,আমরা ক্যানো পারিনা?
কারণ ওইতো,
বাঙালের কিছু জাত জিন্সের প্যান্ট পড়ে ছাল তুলতেই পছন্দ করে,যতই আরামদায়ক সালোয়ার কামিজ দেয়া হোক তাতে মন ভরেনা,
আসল রাজাকার তো এরাই,
উচ্চ শিক্ষার জন্য ক্যামব্রীজ,অক্সফোর্ডে যায়ে শিক্ষার চেয়ে কুশিক্ষা আর নৈতিকতার চেয়ে বেশরমী আর বেহায়ায়ী শেখার প্রতিযোগীতা চলছে..ভুলে যাচ্ছে বাঙালী সংস্কৃতি, পশ্চিমা হতে হতে হারিয়ে যাচ্ছে নিজস্ব স্বকীয়তা, নিজেদের একুশ,নিজেদের ভাষা,নিজেদের পোষাক,হারাচ্ছে লজ্জা,হারাচ্ছে সরলতা..!
ধিক্কার,
শত ধিক্কার এসব রাজাকারদের প্রতি যাদের কারণে বাংলার সোনার ফসলের উৎপাদককে চাষা বলার সুযোগ করে দেয়,যার কারণে কথায় কথায় ইংরেজি না বললে হেয় হতে হয় সবখানেই,!
সাবধান,
বাংলাকে বাঙালী দিয়েই জিইয়ে রাখো,যদি ইংরেজ বানাতে চাও তবে ঐ ক্যামব্রীজ আর হার্ভাডের বিদ্যাকে টিস্যু বানাতে একমুহূর্ত ভাবতে হবেনা..
ইংরেজী শিখতে চাই,ইংরেজ হতে চাইনা...

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

রিজওয়ান অনুভব
রিজওয়ান অনুভব এর ছবি
Offline
Last seen: 3 months 3 weeks ago
Joined: রবিবার, জানুয়ারী 28, 2018 - 9:19অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর