নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • দ্বিতীয়নাম
  • নিঃসঙ্গী
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • মিঠুন বিশ্বাস

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

আমরা প্রবাসিরা মেথর, চাকর, কুলি, দিন মজুর হতে পারি কিন্তু দেশ লুট করিনা৷


এই লোকটার বালিশে মুখ লুকিয়ে কাঁদা কোন ছলনার অশ্রু নয়৷ তার হাতে টাকা থাকলে হয়তো এমন করতো না কিংবা তার দিন ভালো চললে, তা আমরা প্রবাসিরাই জানি৷ চোখের জলের চেয়ে বুকের গভীরের অপারগতার ক্ষত আরো বেশি৷ বুক ফাটা কষ্টের আর্তনাদ তার উপরের পাগলামী, হয়তো দেখে হাসি পাবে, হয়তো কেউ বলবে নিজের ক্ষতি করলো অনর্থক, এমন অনেক কিছুই আছে যার বুক ভাঙা অর্থ থেকেও আমাদের কাছে অনর্থক৷ এসব সইতে না পেরে কেউ আত্মহত্যাও করে৷ দুঃখ, সংগ্রাম আর যন্ত্রনা সইতে না পারা এ মানুষগুলো কারো কাছে মূর্খ, কারো কাছে মেথর, কারো কাছে অযোগ্য ছোট লোক প্রতারক, কারো কাছে হাসির পাত্র৷

এয়ারপোর্টে নামা মাত্রই পুলিশরা বা কোন কর্মীরা এদের কাছে ডলার, দেরহাম, দিনার চেয়ে বসে৷ আমি নিজে তার শিকার, এক মিনিট ফোন করেছি তার জন্য একশ ডলার৷ ডলার যেন আমরা বস্তা ভরে নিয়ে যাচ্ছি৷ এক ডলার কামাই করতে আমাদের কি অবস্থা তা আমরাই জানি৷

২০১২ হতে ১৬ পর্যন্ত টানা ১৮ ঘন্টা কাজ করতাম৷ বসার সময়টা নেই৷ গার্মেন্টসে চাকরী করলে আট, দশ, বারো ঘন্টা কিন্তু আমাদের তার সুযোগ নেই৷ রাতে শুতে গেলেই পা ঠন ঠন কিন্তু পরিশ্রমের চাপে ঘুম আসতো৷ সকাল ছয়টায় আবার ঘুম অমনিতেই পালাতো৷ প্রথম প্রথম কষ্ট হতো তারপর অভ্যাস৷ অন্যদিতে এযারপোর্টের পুলিশ বা কর্মীরা চায় একদিন কিন্তু মা বাপ ভাই বোনরা চায় প্রতিদিন তার উপর কত রঙ্গ৷ এ মনে করে ব্যাংকে জমাচ্ছি, ও মনে করে আয়েশ করছি৷ আবার ঘরে একজন মনে করে আরেকজনকে দিচ্ছি তাকে দিচ্ছিনা৷ আর আমরা? আমরা নিজে এক বেলা না খেয়ে হলেও, নিজের সৌখিনতা বিসর্জন দিয়ে তাদেরই দিচ্ছি, পরিনামে খারাপ হচ্ছি৷ বেতন বাড়েনা কিন্তু বিদেশ গেলে সন্তান সৌখিনতা বাড়ে৷ আমরা পকেটে না থাকলে ধার দেনা করে দিচ্ছি, দিয়ে যাচ্ছি৷

বাংলাদেশের বেশিরভাগ শ্রমিক থাকে আরবে৷ চামড়া পোড়ার জ্বালা তারা জানে৷ আমি যেখানে থাকি সেখানে আরো বিপদ৷ গরমে প্রচন্ড গরম, শীতে হাড় মাংস এক করা ঠান্ডা৷ আমি তাও অনেক সুখে, আছে এসি, আছে হিটার কিন্তু যারা বাইরে কাজ করে? এই মানুষটার কান্নার জল কঠিন, মোবাইল ভাঙার চেয়ে বুক ভাঙার শব্দ হয়তো কম কিন্তু যন্ত্রনা বেশি৷ আমরাওতো মানুষ, না হয় মূর্খ, না হয় মেথর, কুলি, দিন মজুর৷ কিন্তু আমরা দেশ লুট করিনা, ঘামের দামে লাখ লাখ পরিবার চালাই৷ আমাদের ঘৃনা করা তাই হয়তো সহজ, খুব অল্পতেই৷ আমরা থাকি গল্পতেই, বাস্তবে আমরা নাক ছিটকানিতে থাকি৷ তবুও আমরা মানুষ...

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

কাঙালী ফকির চাষী
কাঙালী ফকির চাষী এর ছবি
Offline
Last seen: 3 দিন 2 ঘন্টা ago
Joined: শুক্রবার, ডিসেম্বর 29, 2017 - 2:02পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর