নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • দ্বিতীয়নাম
  • নিঃসঙ্গী
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • মিঠুন বিশ্বাস

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

ইস্পা হত্যা:ওসি সাহেব মামলা না নিয়ে দিয়েছিলেন বিজ্ঞানভিত্তিক পরামর্শ


(ছাতকে আগুনে পুড়ে গৃহবধূর মৃত্যু)এই শিরোনামে ০৮ মে ২০১৭ সমকাল অনলাইন পত্রিকায় একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল। সেখানে ঘটনার সময় উল্লেখ করা হয়েছিল রাত ১১.০০ ঘটিকা, আগুনে দগ্ধ হওয়ার স্থানটি রান্না ঘর ছিল বলে উল্লেখ করা হয়েছে সংবাদে,রান্না ঘরের কাজ করার সময় দুর্ঘটনা ঘটেছিল মুলত সেই বিষয়েই খবর প্রচার হয়েছিল সেদিন ।জন্ম মৃত্যু হারানো ঘোরানোর সংবাদগুলো মূলত ইচ্ছুক মানুষের মনমত করেই প্রকাশিত হয় এটা আশাকরি সবারই জানা,পারিবারিক সায়সংবাদ প্রকাশ করার জন্য মিডিয়া কর্মীরা ছোট কিংবা বড় শহরের আবাসিক এলাকার অলিগলিতে কাগজ কলম ক্যামেরা লইয়া ঘুরাঘুরি করেনা এটিও কিন্তু সত্য।পরিবারের লোকজন উক্ত গৃহবধূ আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছে দাবী করা সত্ত্বেও;রান্না ঘরের গ্যাসের চুলায় আগুন ধরানোর সময় দুর্ঘটনা ঘটার খবর সমকাল পত্রিকার ছাতক প্রতিনিধি কিভাবে জানেন?

ছাতকে আগুনে পুড়ে গৃহবধূর মৃত্যুর শিরোনামে যে সংবাদটি প্রকাশ করা হয়েছিল সেই অগ্নি দগ্ধ গৃহবধূর নাম ইস্পা,মেয়েটি একটি দুগ্ধপোষ্য শিশুর মা।মেয়েটির বাবার বাড়ি সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার বিছনা নামক প্রত্যন্ত একটি গ্রামে।শশুর বাড়ি সুনামগঞ্জের দোয়ারা বাজার উপজেলা হলেও স্বামী সন্তান শশুর বাড়ির অন্যান্য সদস্যদের সাথে সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার বাগবাড়িতে বসবাস করতো ইস্পা।

ইস্পার তিনজন ভাই সিলেট শহরের পাঠানটুলা এলাকায় একটি ছাত্র ম্যাসে থাকে,সিলেটের পাঠানটুলা আর ছাতকের বাগবাড়ি এম্বুলেন্স যুগে পঁয়তাল্লিশ পঞ্চাশ মিনিটের পথ এবং সিএনজি চালিত অটোরিকশা দিয়ে এক ঘন্টা সময়ের মধ্যে এই পথ অতিক্রম করা যায়।

অগ্নি দগ্ধ হওয়ার বিষয়টি বাবার বাড়ির লোকজনদেরকে জানানো হয়েছিল রাত সোয়া একটায়,অগ্নিদগ্ধ রোগীকে চিকিৎসা দেওয়ার উদ্দেশ্যে সিলেট শহরে নিয়ে আসা হয়েছিল রাত পৌনে দুইটার সময়।অগ্নিদগ্ধ হওয়ার সংবাদটি রোগীর বড় ভাই রাসেলকে মোবাইলের মাধ্যমে জানানো হয়েছিল;এক মিনিটের চেয়ে কম সময়ের আলাপচারিতায় “ইস্পা আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে”শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছিল সেদিন।নিজ খরচে সংবাদ পত্রে উল্লেখিত ঘটনার সময় রাত ১১.০০ঘটিকা এই রাত এগারোটা থেকে রাত সোয়া একটা পর্যন্ত অগ্নিদগ্ধ রোগীর ভাইকে জ্ঞাত করার আগ পর্যন্ত ঘটনার সমস্ত আলামত নষ্ট করা এবং আসল ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার নানা রকম চেষ্টা অব্যাহত ছিল ।এমনটা যদি না'ই হতো তাহলে এতো দেরি করে ইস্পার ভাইয়ের সাথে যোগাযোগ করা হলো কেন?

ওসমানী মেডিকেল থেকে ঢাকায় যাওয়ার পথে এম্বুলেন্সে ইস্পার ভাইদের সাথে আলাপচারিতায় বেডরুমের পাশ্ববর্তী একটি ছোট রুমে নিজ শরীরে পেট্রল ছিটিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল বলে জানিয়েছিল ইস্পার স্বামী লিটন শরীরের নব্বই শতাংশ অংশ পুড়ে ছাই হয়ে যাওয়া দেহটিকে জড়িয়ে ধরে ঘরের মেঝের মধ্যে হামাগুড়ি দিয়ে আগুন নিভিয়েছে এমনটি জানিয়েছিল ইস্পার স্বামী;নব্বই ভাগ শরীর আগুনে পুড়ে যাওয়া একটি মানুষকে জড়িয়ে ধরিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণকারী একটা মানুষ কাপড় চোপড় চামড়া সহ কিভাবে অক্ষত থাকে ?

পেট্রল গায়ে মেখে আত্মহত্যার কোন আলামত মেডিকেল রিপোর্টে খুঁজে পাওয়া যায়নি কেন ?

ইস্পা যেদিন অগ্নি দগ্ধ হয়েছিল সেদিন রাত থেকেই পাড়া প্রতিবেশীদের আনাগোনা শুরু হয়েছিল,প্রতিবেশী মহিলাদের কাছে শাওয়ার বাথরুমের সিটকিনিটা আটকিয়ে দেশলাই কাঠি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল বলে হাউমাউ জড়িত কান্নায় ভেঙে পড়তে পড়তে অগ্নি দগ্ধ হবার ঘটনার বর্ণনা দিয়েছিলেন লিটনের মা অর্থাৎ ইস্পার শাশুড়ি।অগ্নি দগ্ধ হওয়ার সময় থেকে লাশ সৎকারের পরবর্তী সময়গুলোতে ইস্পার শশুর বাড়ির মানুষ গুলো একের পর এক সাদৃশ্যহীন কথাবার্তা জন্ম দিতে শুরু করেছিল।

ইস্পার শাশুড়ির মুখের কথা শুনে কিছু মহিলা অগ্নি দগ্ধের স্থান অর্থাৎ বাথরুমটা দেখতে গিয়েছিল,বাথরুম পরিচ্ছন্ন এবং বাথরুমের সিটকিনিটা অক্ষত অবস্থায় দেখতে পেয়েছিল মহিলারা।ঘটনাস্থল ঘুরেঘুরে দেখে আসা ও নাম প্রকাশে ইচ্ছুক নন এমন একজন মহিলার সাথে মোবাইলের মাধ্যমে আমি নিজেও একদিন কথা বলেছিলাম।ইস্পার স্বভাবসুলভ শান্তশিষ্ট সে দায়িত্বশীল মেয়ে ছিল,শশুর বাড়ির আর্থিক অবস্থা অন্যান্য বউদের বাবার বাড়ির আর্থিক অবস্থা ইস্পার বাবার বাড়ির চেয়ে অনেক বেশি স্বচ্ছল ছিল বলে ইস্পা মনেমনে কিছুটা বিব্রত বোধ করতো আর সেই কারনেই ইস্পা আত্মহত্যা এধরনের কথাবার্তা ইস্পার শাশুড়ির মুখ থেকে শুনেছিল জনৈক মহিলা।

কথিত আত্মহত্যার বেশকিছুদিন আগ থেকে ইস্পা জ্বীন দ্বারা আক্রান্ত হয়েছিল,অগ্নিদগ্ধের ঘটনা ইস্পা নয় জ্বীন দ্বারা সংঘটিত হয়েছিল বলে সৎকার পরবর্তী সময়ে ইস্পার এক ভাইয়ের কাছে একদিন মোবাইল ফোনে মন্তব্য করেছিল ইস্পার স্বামী লিটন।

ইস্পার স্বামী, স্বামীর বাড়ির লোকজনের কথাবার্তা ইস্পার বাবার বাড়ির মানুষের মনে যথেষ্ট সন্দেহের কারণ হয়ে দাড়ায়,একপর্যায়ে হত্যা মামলা দায়ের করার সিদ্ধান্ত নেয় ইস্পার বাবার পরিবারের সবাই।

ছাতক থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে ইস্পার বড় ভাই রাসেলকে কিছু বিজ্ঞান ভিত্তিক পরামর্শ দেন থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা,ফরেনসিক রিপোর্ট ঢাকা থেকে আসার পর মামলা দায়ের করার পরামর্শ দিয়েছিলেন ছাতক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।ফরেনসিক রিপোর্টে আগুনে জ্বলসে যাওয়ার পূর্ববর্তী শারীরিক নির্যাতনের চিহ্ন স্পষ্ট দেখা যাবে;দেখা না গেলে-দেখা যাওয়ার সুবন্দোবস্ত করে অপরাধীকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে বলে ইস্পার ভাইকে আশ্বস্ত করেছিলেন ছাতক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

বোনের মৃত্যুর শোকে কাতর,মামলা মকদ্দমা ফরেনসিক এমসি রিপোর্ট সম্মন্ধে অনভিজ্ঞ সহজ সরল ভাইটি-ফরেনসিক রিপোর্ট এক্সরে অথবা আলট্রাসনোগ্রাফি জাতীয় কোনো রিপোর্ট টিপোর্ট হবে ভেবে বেশ কিছু দিন স্বস্তির নিঃশ্বাস নিয়েছিল।

এভাবে বেশকিছুদিন গত হলো দিন গেল মাস ফুরালো হঠাৎ কোনো এক শুভলগ্নে ইস্পা আত্মহত্যা করেছে এই মর্মে ছাতক থানায় নাকি একটি অপমৃত্যু মামলাও রুজু হয়েছিল বলে জানা যায়।থানায় মামলা দায়ের করার সুযোগ না পেয়ে প্রায় মাস খানেক পর ইস্পার বড় ভাই রাসেল আদালতে হাজির হয়ে অবশ্য একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছিল মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন পুলিশের সিআইডি কর্তৃক পরিচালিত হচ্ছে এই মামলার প্রধান আসামী লিটন এখন জেল হাজতে আছে ।

ইস্পার মৃত্যুর প্রকৃত বিষয়টি প্রথম থেকেই সুপরিকল্পিত মেধা সূক্ষ্ম কৌশল অর্থনৈতিক রাজনৈতিক ক্ষমতা ব্যবহার করে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে এতে সন্দেহ পোষণ করার কোনও সুযোগ নেই;তবুও বিশ্বাস মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োজিত আইনজীবী এবং পরিবেশ পরিস্থিতি কোনো কিছু দ্বারা প্রভাবিত না হলে সত্য বিষয়টি ভোরের আলোর মত প্রতিভাত হবেই।

বিভাগ: 

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

জলাভূমি
জলাভূমি এর ছবি
Offline
Last seen: 2 months 3 weeks ago
Joined: বুধবার, নভেম্বর 1, 2017 - 6:51অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর