নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 8 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • ওয়াহিদা সুলতানা
  • মোমিনুর রহমান মিন্টু
  • দীপ্ত সুন্দ অসুর
  • নগরবালক
  • উদয় খান
  • আশিকুর রহমান আসিফ
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি
  • কাঙালী ফকির চাষী

নতুন যাত্রী

  • আরিফ হাসান
  • সত্যন্মোচক
  • আহসান হাবীব তছলিম
  • মাহমুদুল হাসান সৌরভ
  • অনিরুদ্ধ আলম
  • মন্জুরুল
  • ইমরানkhan
  • মোঃ মনিরুজ্জামান
  • আশরাফ আল মিনার
  • সাইয়েদ৯৫১

আপনি এখানে

ধর্মীয় কুযুক্তি


মাঝে মাঝে ধর্মীয় চ্যানেল গুলো দেখি। না আমি ধার্মিক না যে ধর্ম জানার জন্য দেখি। আমি দেখি যে ধর্ম প্রচারকরা কত টুকু অযুক্তিক যুক্তি দিতে পারেন আর মানুষ কিভাবে কুযুক্তি গুলো গ্রহণ করে। ধর্ম প্রচারকরা আজকাল ধর্মকে বিজ্ঞান সম্মত প্রমান করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন। কে কতটুকু বিজ্ঞান সম্মত প্রমান করতে পারেন তা নিয়া তাদের মাঝে প্রতিযোগিতা চলছে। আর এ কাতারে তাদের প্রধান হাতিয়ার হলো বিজ্ঞানের সীমাবদ্ধতা। আমরা জানি যে আজ বিজ্ঞান সব রহস্যের সমাধান করতে পারে নাই। বিজ্ঞান আজ অনেক অনেক কিছু জানে না। আর এটাকেই ধর্ম প্রচারক রা তাদের কাজে লাগান। আজ বিবর্তনবাদ যদিও পরিক্ষিত ভাবে প্রমানিত যে প্রকৃতির সবকিছু ক্রমবিবর্তন এর মাধ্যমে সহজ অবস্তা থেকে এই জটিল অবস্থায় এমনি এমনি এসেছে। কোনো স্রষ্টার সাহায্য ছাড়াই। তারপর ও প্রকৃতির দিকে তাকালে আর প্রকৃতির এই জটিল সৃষ্টিগুলোকে দেখলে সত্যি এমনি এমনি হয়েছে তা মেনে নিতে কষ্ট হয়। হয়তবা আর একটা কারণ আছে যা আজও অজানা। আর আমরা জানি বা কতটুকু? আমরা শুধু জগতের সেই অংশটুকু কে জানি যেখানে বস্তুর আকার, আয়তন, ওজন ইত্যাদি আছে। এই জগতের আরেকটা অংশ কি থাকতে পারে না যে অংশে বস্তুর আকার, আয়তন, ওজন ইত্যাদি নাই?

যাই হোক, আপনি খেয়াল করলে দেখবেন যে যখনি বিবর্তনবাদ আমাদের সব প্রশ্নের উত্তর এখন দিতে পারছে না তখনি ধর্ম প্রচারক রা স্রষ্টা কে খুঁজে পান। আমরা কোনো কিছুর কারণ পুরোপুরি না জানলেই কি একজন স্রষ্টা কে অনুমান করা উচিত? কই যুগ যুগ ধরে মানুষ কত কিছু অনুমান করত। কিন্তু মানুষের অনুমান কি স?সঠিক হয়েছে?

একসময় তো অনুমান করা হত প্রথিবী মহাবিশ্বের কেন্দ্রে অবস্তিত। যদিও এই অনুমান টা ধর্মে প্রভাবিত ছিল। তা কি সঠিক হয়েছে? সব ধর্মে মহাবিশ্বের যে প্রতিরূপ আমরা পাই তা তো এখন ভুল প্রমানিত। আবার বিজ্ঞানের যে আবিস্কার গুলো সরাসরি ধর্মে বিপরীতে সেগুলোর কাতারে ধর্ম প্রচারক রা প্রচার করে যে ওগুলো ভুল। যেমন বিবর্তনবাদ এখন পরীক্ষিত সত্য এবং আমার জানা মতে সব বিজ্ঞানী রা বিবর্তনবাদ কে সঠিক বলে মেনে নিয়েছেন। কিন্তু ধর্ম প্রচারক রা বলে এটা নাকি ভুল। তার পক্ষে তারা যুক্তি দেখায় যে আজ পর্যন্ত কেহ দেখে নাই কোনো প্রাণী বিবর্তিত হয়ে অন্য প্রাণী হয়ে যেতে। এটা দেখা কি সম্ভব?ছোট একটা পরিবর্তন হতে যেখানে হাজার হাজার বছর লাগে। ব্যপার টা একটু অন্যভাবে বলি। ধরেন আপনি সাদা পানির মাঝে খুব সামান্য পরিমানে লাল রং মিশাচ্ছেন অনেক সময়ের ব্যবধানে। এক্ষেত্রে ছোটো একটা পরিবর্তন কি আপনি বুঝতে পারবেন? অনেক সময় পরে যখন পরিবর্তন টা বেশি হবে তখন হয়ত বুঝতে পারবেন। আমাদের চেনা পরিবেশ ও খুব অল্প পরিমানে আস্তে আস্ত পরিবর্তন হচ্ছে। আমাদের সল্প সময়ের অভিজ্ঞতায় টা বুঝা যাবে না। তাহলে কি বিবর্তন ধারা যে পরিবর্তন হচ্ছে তা কি স্বাভাবিকভাবে আমদের দেখতে পারা উচিত? আপনার সামান্য একটা ভুল জ্ঞান আপনার নিজের জন্য ক্ষতিকর, আপনার নিজের পরিবারের জন্য ক্ষতিকর, আপনার সমাজের জন্য ক্ষতিকর, আপনার দেশের জন্য ক্ষতিকর। আর হ্যাঁ আপনি নিশ্চয় মনে করবেন না দুনিয়ার যেসব বিজ্ঞানী রা বিবর্তনবাদ কে সঠিক মনে করে তারা আপনার চাইতে কম জ্ঞানী। যেমন স্টিফেন হকিং। উনিও কিন্তু তার সর্বশেষ বইয়ে স্রষ্টাকে মেনে নেন নাই....

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

শহিদুজ্জামান সরকার
শহিদুজ্জামান সরকার এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 1 দিন ago
Joined: রবিবার, মার্চ 1, 2015 - 1:49অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর