নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • অনন্য আজাদ
  • নগরবালক

নতুন যাত্রী

  • আরিফ হাসান
  • সত্যন্মোচক
  • আহসান হাবীব তছলিম
  • মাহমুদুল হাসান সৌরভ
  • অনিরুদ্ধ আলম
  • মন্জুরুল
  • ইমরানkhan
  • মোঃ মনিরুজ্জামান
  • আশরাফ আল মিনার
  • সাইয়েদ৯৫১

আপনি এখানে

স্ট্রোক- বর্তমান সময়ের বিভীষিকার নাম



স্ট্রোক- বর্তমান সময়ের বিভীষিকার নাম। অহরহ ঘটছে এই রোগ।
চিকিৎসা করবে চিকিৎসক। কিন্তু আপনি, আমি সাধারণ মানুষ কি করব?
>কখন বুঝবেন স্ট্রোক হয়েছে?
সাধারণ লক্ষন হল হটাত শরীরের কোন এক পাশ দূর্বল বা অবশ হয়ে যাওয়া, মাথা ব্যথা, শরীরের এক পাশ বাকা হয়ে আসা, অজ্ঞান হয়ে যাওয়া।
>কি করবেন?
স্ট্রোক রোগীর ক্ষেত্রে মোটেও তাড়াহুড়ো করবেন না।
প্রথমেই রোগীকে নিরাপদ স্থানে নিয়ে একদিকে কাত করে শুইয়ে দিন। চিৎ করেরাখবেন না। এতে মুখের লালা ফুসফুসে জমে ভয়াভয় সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে যাপ্রাণঘাতী হতে পারে।
>রোগীর মুখের ভিতর পরীক্ষা করুন, জ্বিহ্বা উল্টে গলা- শ্বাসনালী বন্ধ করে দিতে পারে যা তাৎক্ষণিক মৃত্যুর কারন হতে পারে।
>কি করবেন না
রোগীকে কোন অবস্থাতেই জল বা তরল কোন খাবার মুখে দেবেন না। এটি পেটের পরিবর্তে ফুসফুসে গেলে ভয়ানক বিপদ ডেকে আনবে যা রোগীর প্রাণ সংকটের কারনহতে পারে।
>স্ট্রোকের রোগীর রক্তচাপ বেশি দেখে তাড়াহুড়া করে ডাক্তারের পরামর্শ ব্যতিত উচ্চরক্তচাপের ওষুধ ব্যবহার করবেন না। এতে রোগীর মস্তিষ্কের রক্ত সরবরাহ কমে বড়ক্ষতির কারন হতে পারে।
>দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ মত চিকিৎসা করান।
হাসপাতালে থাকা কালীনঃ
+ প্রতি ২ ঘন্টা পর পর রোগীকে পাশ ফিরিয়ে দিন। একই ভাবে দীর্ঘক্ষন যেন না থাকে। এতে রোগীর শরীরে মারাত্মক ঘা হতে পারে।
+ নল দিয়ে বা মুখে যেভাবেই খাওয়ান , সম্পুর্ন বসিয়ে খাওয়ান, খাওয়ার পর ৩০ মিনিট বসিয়ে রাখুন।
+ রোগীর অবশ/দূর্বল হওয়া অঙ্গ চিকিৎসকের দেখানো নিয়মে ব্যায়াম করান। যা রোগীকে পঙ্গুত্বের হাত থেকে রক্ষা করবে।
+ যেভাবেই খাদ্য দিন না কেন খাওয়ানোর সময় যদি রোগী হাঁচি/ কাশি দেয় তাৎক্ষণিক খাওয়ানো বন্ধ করে চিকিৎসককে জানান।
+রোগী আগে যেসব খাবার খেত, অর্থাৎ বাড়িতে যা স্বাভাবিক খাওয়া হয় সেইখাবারই রোগীকে দিন। খাদ্য যেন সুষম হয়, প্রতিদিনের স্বাভাবিক প্রয়োজনীয় লবনযেন পায় তা নিশ্চিত করুন। পুষ্টিকর খাদ্যের নাম করে পয়সা নষ্ট করে আজেবাজেখাবার পরিহার করুন।
হাসপাতাল ত্যাগের পরঃ
= রোগীকে হাটাচলা, বেড়ানো, স্বাভাবিক কাজকর্মে অভ্যস্ত করে তুলুন।
= নিয়ম মত ব্যায়াম চালিয়ে যান।
= রোগীকে হাসিখুশি রাখুন।
= একবার স্ট্রোক করা রোগী পুনঃ স্ট্রোক করার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে তাই নিয়মিত চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে থেকে সুস্থ্য জীবন যাপন করুন।

************************************************************************************************** লেখাটি সেই সব মানুষদের জন্য উৎস্বর্গিত যারা মানুষের অসুস্থ্যতায় নিস্বার্থপরতায় পাশে থাকে। **************************************************************************************************

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

অনুপম দাস
অনুপম দাস এর ছবি
Offline
Last seen: 5 দিন 13 ঘন্টা ago
Joined: রবিবার, ফেব্রুয়ারী 23, 2014 - 12:17অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর