নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

There is currently 1 user online.

  • নুর নবী দুলাল

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

প্রশ্ন-ফাঁস? নাকি গলায় ফাঁস?



শিক্ষামন্ত্রী নাহিদ বিগত কয়েক বছর ধরে দাবি করে আসছেন যে, প্রশ্ন ফাঁস সংক্রান্ত কোন ঘটনা পাবলিক পরীক্ষাগুলোতে ঘটে নি(!), কিন্তু এখন তিনি এস.এস.সি.র প্রতিটি পরীক্ষা শুরুর আগের দু-এক ঘণ্টা ফেইসবুক বন্ধ রাখতে চাইছেন, আবার পরীক্ষার আগের কিছুদিন কোচিং সেন্টারগুলিও বন্ধ করে রাখতে চাইছেন (!) কিন্তু কেন? ”প্রশ্ন তো আসলে ফাঁস হয় না” বলেই শিক্ষামন্ত্রনালয় বলে এসেছে এতদিন, তাহলে হঠাৎ আজ এত চিৎকার চেঁচামেঁচি কেন মন্ত্রীপাড়ায়?

প্রশ্ন ফাঁসের প্রতিটি অভিযোগের সুনির্দিষ্ট প্রমাণ থাকা সত্ত্বেও কেন আমাদের শিক্ষামন্ত্রী বিগত বছরগুলিতে নির্লজ্জভাবে অস্বীকার করেছেন?

একজন মানুষ ক্ষমতায় থেকে দিনের পর দিন প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনাকে অস্বীকার করে নিজেকে দায়িত্বশীল-নীতিবান মানুষ হিসেবে টিকিয়ে রাখতে গিয়ে যে বিবৃতি দিয়ে গেছেন মিডিয়ার সামনে, তা আজকে নিরর্থক, অন্তসার শূণ্য। তারমানে দাঁড়াচ্ছে এই যে, তিনি বিগত বছরগুলোতে কোমল মতি শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারণা করেছেন নির্লজ্জভাবে! শিক্ষার মতো জায়গায় এমন একজন মানুষ মন্ত্রীত্বের চেয়ারে কীসের যুক্তিতে এখনো বসে থাকেন?

আসলে, আমাদের হাত-পায়ে পরানো শেকল আজ এত শক্তভাবে বাঁধা যে, আমরা জিম্মি হয়ে গেছি, জিম্মি হয়ে গেছে আমাদের আগামী প্রজন্ম। শিক্ষামন্ত্রীর ভাগ্য ভাল যে, দেশটার নাম বাংলাদেশ, যেখানে অন্যায়কে মাথাপেতে নিয়ে দু-বেলা খেতে পারলেই সুখ খুঁজে পায় দেশটির মানুষ।

বুঝতে পারছি না, প্রযুক্তির ধারণা নেই কার? মন্ত্রী? সচিব? নাকি সংশ্লিষ্ট কেউ? উনারা কি জানেন, ফেইসবুক ছাড়াও কত কত সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যাপস্ আছে মানুষের স্মার্ট ফোনে? একটি প্রশ্নের ছবি কোন অসৎ কর্মকর্তা একবার যদি তুলতে পারেন, সেটা ছড়ানোর জন্যে ফেইসবুক ছাড়াও আছে বহু রকমের মিডিয়া। হোয়াটস্ আপ, ভাইবার, ইমু, মেসেঞ্জার, মেইল… আরো কত কিছু।

আমি দৃঢ়ভাবে বলতে পারি, বিগত বছরগুলিতে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগগুলি গুরুত্বসহকারে আমলে নিয়ে, তদন্ত করে, খুব সহজেই গোড়াটা চিহ্ণিত করে, যদি দোষীদের শাস্তির ব্যবস্থা করা যেত তাহলে পরিস্থিতি এত নাজুক হতো না কোনদিন। কিন্তু এই কাজটি কখনোই করেন নি আমাদের শিক্ষামন্ত্রী! উল্টো প্রশ্নফাঁসকে নিয়মিত অস্বীকার করে তিনি প্রশ্ন-ফাঁসকে দারুণভাবে উৎসাহিত করেছেন!

কোচিং সেন্টারগুলি এস.এস.সি. পরীক্ষার আগে কিছুদিন বন্ধ রাখতে চান শিক্ষামন্ত্রী। তার মানে, তিনি বলতে চাইছেন বছরের বাকী সময়গুলিতে কোচিং সেন্টারগুলির ব্যাপারে উনার জোরালো এবং পরোক্ষ সমর্থন আছে। কাজেই কোচিং ছাড়া যদি এদেশের সিংহভাগ ছেলেমেয়ের ভাল রেজাল্ট নিশ্চিত না হয়, তবে অযথা এত এত স্কুল-কলেজ খুলে রেখে ব্যয় বাড়ানো অর্থহীন। জনগনের পকেটের টাকায় এমন অপচয় সহ্য করতে রাজি নই আমরা।

শিক্ষার বাইরে আরো কিছু যোগ করতে চাই।
গত রাতের ফেইসবুকের নিউজফিডে দেখলাম একটি সেতু তৈরির পর তা হেলে পড়েছে! গরীবের এমনিতেই টাকা নেই, হাঁড়ি পাতিল হাতড়ে যা কিছু জড়ো করা হয়, তা যখন বিলীন হয় কাদা-পানিতে তখন আফসোস হয়, প্রচণ্ড ক্ষোভ কাজ করে।

আমি জেনেছি যে, দেশে এখন আয়কর বাধ্যতামূলকভাবে নেয়া হয়, প্রতিটি পণ্যের সাথে ভ্যাট নেয়া হয়, প্রিয়জনের সাথে কথা বলতে যেয়ে প্রতিটি মিনিটে কর নেয়া হয়, করের খাতগুলির লিস্ট ধরিয়ে দিলে কপালে ওঠবে চোখ! ব্যবসায়ীরাও কর দেন, তাই ব্যবসায়ীরা জিনিসের দাম বেশি নেন, দাম বেশি নেবার পরও ১৫% ভ্যাট ধরিয়ে দেন!

তবুও লড়াই করে বাঁচে এদেশের মানুষ। মাথানিচু করে ম্যানিব্যাগের শেষ নোট টি তুলে দেন।

আমরা দারুণভাবে হতাশ হয়ে যাই যখন দেখি, জনগণের পকেটের টাকায় বানানো ফ্লাইওভারে নকশার ত্রুটিজনিত কারণে ট্রাফিক সিগন্যাল বসানো হয় কথিত জনবান্ধব ফ্লাইওভারে! আমরা হতাশ হই যখন রাস্তা মেরামতের নামে যাচ্ছেতাই কাঁচামাল ব্যবহার করে জনগনের টাকার অপচয় করা হয়, আমরা গভীর হতাশায় নিমজ্জিত হই যখন জনগনের পকেটের টাকায় নির্মানাধীন সেতু হেলে পড়ার মাধ্যমে নতুন করে ব্যায় বৃদ্ধি পায়। আমরা হতাশার অন্ধকারে ডুবে মরি যখন জনগনের টাকায় উন্নয়নের গল্প রচিত করতে যেয়ে প্রকৃতির ভারসাম্য নষ্ট হওয়ার মত ঝুঁকিপূর্ণ উদ্যোগ নেয়া হয়। কিন্তু আর কত?

প্রশ্ন-ফাঁসকে মেনে নিতে বাধ্য হয়েছে নিরুপায় নাগরিক, কিন্তু গলায় আটকে যাচ্ছে যে ফাঁস- তা যে তাদের অস্তিত্বেরই হুমকি!

বিভাগ: 

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

অনিন্দ্য বর্ষণ
অনিন্দ্য বর্ষণ এর ছবি
Offline
Last seen: 2 months 2 weeks ago
Joined: সোমবার, এপ্রিল 10, 2017 - 2:32পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর