নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • শাম্মী হক
  • সলিম সাহা
  • নুর নবী দুলাল
  • মারুফুর রহমান খান
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

নৈপথ্যে থেকে মুখোশধারী সন্ত্রাসী লেলিয়ে প্রতিবাদী কন্ঠ মিঠুন চাকমাকে হত্যা, এটা রাষ্ট্রের বড় পরাজয়!



মিঠুন চাকমার লাশ চিরশায়িত হয়ে শুয়ে আছে। নিথর মিঠুন চাকমার বুকে বুলেটের ক্ষতর চিহ্ন। মিঠুন চাকমা এখন রক্তাক্ত শরীরের লাশ। মিঠুন চাকমা এখন পাহাড়ের মানুষের কাছে একটি ইতিহাস। রাষ্ট্র-প্রশাসনের সৃষ্ট নব্য সন্ত্রাসীর গুলির বুলেট মিঠুন চাকমার বুক এফোঁড় ওফোঁড় করে দিল! ঘাতকের গুলির বুলেট তার জীবন-প্রদীপকে মুহুর্তে নিবিয়ে দিল। ছবিতে দেখা যাচ্ছে মৃত বাবার লাশের পাশে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে কাঁদছেন মিঠুন চাকমার অবুঝ শিশু-সন্তানরা। বাবা হারানোর যন্ত্রনায় অঝোড়ে কেঁদে যাচ্ছে তার শিশু সন্তানগুলো। মিঠুনের স্ত্রী কি করে দেবে এই অবুজ সন্তানগুলোকে বাবা হারানোর সান্তনা? পৃথিবীর কোনো শ্রেষ্ঠ কথা আদৌ আছে কি, এই বাবা হারা অবুঝ সন্তানগুলোকে সান্তনা দেয়ার? যে মানুষটি গতকালও ছিল খাগড়াছড়ির জুম আদিবাসীদের কাছে অধিকার রক্ষার এক স্বপ্নদ্রষ্টা। নীপিড়িত অনগ্রসর ক্ষুদ্র জাতিগৌষ্ঠি জুম আদিবাসীদের সভ্য চেতনায় উন্নত করার এক "থিংকট্যাংক" নামে পরিচিত ছিলেন তিনি। যে মানুষটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতার সুযোগ পেয়েও এক নিশ্চয়তায় ভরা ভবিষ্যতের জীবন ছেড়ে এসে নিজের স্বাতন্ত্রিক জাতিস্বত্তাকে আগলে রেখে বাঁচতে চেয়েছিলেন। নিজেদের ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীকে সাথে নিয়ে আত্নমর্যদার সাথে পৃথিবীর বুকে মাথা তুলে দাঁড়াতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নিজের জাতিত্বের গরিমা থেকে উগ্র জাতীয়বাদকে প্রশ্রয় দেননি কখনো। সংগ্রাম হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন কলম আর রাজনৈতিক জীবন। তিনি হয়তো ভেবেছিলেন সশস্ত্র সংগ্রাম দিয়ে কোনো কিছু প্রতিষ্ঠা করা এটা ভুল আদর্শ। তাই তিনি রাষ্ট্রের অন্যায়কে রাজনৈতিক ভাবে মোকাবেলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। সেই লক্ষ্যে মিঠুন চাকমারা কয়েক জন মিলে ১৯৯৭ সালে ২৫ই ডিসেম্বর গড়ে তুলে ছিলেন ইউপিডিএফ নামক এক রাজনৈতিক দল।

তিনি সভ্যতার পথ ধরেই রাষ্টের অন্যায় অনাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে চেয়ে ছিলেন। যতক্ষন দেহে প্রাণ ছিলেন, লড়ে গেছেন নীপিড়ীত অধিকারহীন মানুষের পক্ষ হয়ে। তিনি শুধু নিজ জাতিস্বত্তার অধিকার রক্ষার জন্য সীমাবদ্ধ ছিলেন না। প্যালেস্টাইনের অধিকার নিয়েও বলেছেন, আমাদের বাংলা, বাঙালী, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়েও লিখেছেন বিভিন্ন সময় অনেক ব্লগে। সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে তার প্রতিবাদী কলম ছিল লক্ষনীয়। তিনি তার নিজস্ব ব্লগে শিক্ষা বঞ্চিত, চিকিৎসা বঞ্চিত, মৌলিক অধিকার বঞ্চিত পাহাড়ি মানুষের গল্পও বলতেন। তিনি চুলছেঁড়া বিশ্লেষণ করে দেখিয়ে দিতেন পাহাড়ের অনগ্রসর মানুষগুলো রাষ্ট্রের শিক্ষা, চিকিৎসা ব্যবস্থা থেকে আসলে কতোটা দূরে আছে। একবার সাজেকের খাদ্য সংকটের কথা তুলে ধরেছিলেন তার ব্লগে। এতেই নাকি রাষ্ট্রের মহাজন শ্রেণীর দৃষ্টিতে তিনি অপরাধ করে ফেলেছিলেন!

এদেশের সরকারের পোষা দালাল মিডিয়া আর পত্রিকাগুলো যখন ক্ষুদ্র জাতিগৌষ্ঠী পাহাড়ি আদিবাসীদের উপর সেনাবাহীনি ও বাঙালী মুসলমান সেটেলার কর্তৃক হত্যা ধর্ষণ নির্যাতন ও সাম্প্রদায়িক হামলার এইসব চিত্র কখনোই তুলে ধরে না, ঠিক তখন মিঠুন চাকমাই রাষ্ট্র কর্তৃক পাহাড়ের আদিবাসী মানুষের উপর নির্যাতন ও তাদের দুর্দশার কথা তুলে ধরার জন্য নিজেই দায়িত্ব এর দায়িত্ব নেন। সেনা ও বাঙালী সেটেলার দ্বারা আদিবাসীদের উপর অত্যাচারের চিত্র দেশের মানুষের কাছে তুলে ধরার লক্ষ্যে তিনি chtnews.com নামে অনলাইনে পত্রিকা খুলেন। এটাই তার জন্য মৃত্যুর কাল হয়ে দাঁড়ায়। মিঠুন চাকমাকে রাষ্ট্র ও প্রশাসন কর্তক ১২টা মামলা দিয়েও যখন তার বিরুদ্ধে আদালতে যথাযথ অভিযোগ গঠন করা যাচ্ছেনা, তখন গত বছর রাষ্ট্র তাকে মধ্য যুগীয় বর্বর কালো আইন ৫৭ ধারা প্রয়োগ করে ফাঁসিয়ে দেয়। এতেও মিঠুন চাকমাকে কালো বর্বর আইন ৫৭ ধারা দিয়ে দমিয়ে রাখতে পারেনি আমাদের রাষ্ট্র ও বর্বর প্রশাসন। মিঠুন চাকমা ঠিকই তিন মাস জেল খেটে জামিনে বেড়িয়ে আসেন।

একটা মানুষ এতো প্রতিকুল বৈরী পরিবেশে থেকেও নিজের মতার্দশে ছিলেন একদম অটুট। পাহাড়ে রাষ্ট্রের জলপাই রঙের সেনাবাহিনীর দমন শাসন ও প্রশাসনের ভয়-ভীতির চোখ রাঙানিকে উপেক্ষা করে নির্বিঘ্নে বলে গেছে জুম আদিবাসীদের অধিকারের কথা। নির্ভয়ে তুলে ধরেছিলেন রাষ্ট্রের সেনাবাহিনী ও বাঙালী মুসলমান সেটেলার দ্বারা আদিবাসীদের ধর্ষণ নির্যাতন ও ভুমি দখলের চিত্র। বিরামহীন বলে গেছেন রাষ্ট্রের পরিচালিত অন্যায় বিরুদ্ধে। রাষ্ট্রের দেয়া প্রতিটি মামলার বিরুদ্ধে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আইনিক লড়াই করেছেন তিনি। তবুও মিঠুন চাকমাকে তার স্বাধীন চিন্তাস্বত্তা থেকে এক চুল পরিণামও টলাতে পারেনি এই রাষ্ট্রযন্ত্র। সামরিক বাহিনীর সমস্ত শক্তি দিয়েও নিরস্ত্র নির্ভীক মিঠুন চাকমার আদর্শের সামনে দাঁড়াতে এই পারেনি এই রাষ্ট্রের দমননীতি। তাই রাষ্ট্রযন্ত্র নৈপথ্যে থেকে মিঠুন চাকমাকে হত্যা করার জন্য লেলিয়ে দেয় কিছু মুখোশধারী সন্ত্রাসী। আর ভীতু কাপুরুষ সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মুখে হায়েনার মতো ঝাঁপটে ধরে তুলে নিয়ে গিয়ে মিঠুন চাকমাকে নৃশংসভাবে হত্যা করে গত বুধবার দুপুরে। একটা নিরস্ত্র মানুষকে অস্ত্র দিয়ে হত্যা করা এটা কোনো বাহাদুরী প্রকাশ পায় না, এটা আদর্শের পদতলে কাপুরুষতার লুটিয়ে পড়ার পরাজয়।

---মিঠুন চাকমা একেধারে ব্লগার, আদিবাসী বিষয়ক অনলাইন পত্রিকার নিউজ সম্পাদক, স্ব-সাংস্কৃতিকপ্রিয় জাতিস্বত্তার অধিকার সচেতন একজন মানুষ। তাছাড়া যেখানে অন্যায় দেখেছেন, সেখানেই তার প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর সরব ছিল। তিনি নিজের আর ব্লগ সহ ইস্টিশন ব্লগে লিখবেন না। জুম আদিবাসীদের জন্য ইউপিডিএফের সভায় তর্জনী উঁচিয়ে আর অধিকারের কথা বলবেন না। অনলাইন ভিত্তিক নিউজ পোর্টালে আর আদিবাসীদের নীপিড়ণের কথা তুলে ধরবেন না। এটাই আমাদের কষ্ট। মনে হচ্ছে পার্বত্য অঞ্চলের জুম আদিবাসীরা তাদের এক স্বপ্নদ্রষ্টাকে হারালেন। জুম আদিবাসীদের আশা জাগানিয়া মিঠুন চাকমাকে নৈপথ্য থেকে হত্যা করে যেন রাষ্ট্র জুম আদিবাসীদের আশার প্রদীপটাই একেবারে নিভিয়ে দিল! হায়রে মিঠুন চাকমা তোমাকে বাঁচাতে পারলাম না। তোমার মৃত্যুর গ্লানি নিয়ে এখনো বেঁচে আছি আমরা। অথচ কমরেড তোমার বেঁচে থাকাটা খুব প্রয়োজন ছিল খুব। নিজের জন্য না হলেও অন্যের জন্য টিকে থাকাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। কিন্তু ওরা হত্যা করে তোমার জীবনেকেই থামিয়ে দিল বন্ধু। আমি জানি তোমার আদর্শের দাবানল কেউ নেবাতে পারবে না। সেই রাষ্ট্র যতো শক্তিশালী ও আগ্রাসী হোক না কেন! প্রত্যাশা করি আগামীতে জুম আদিবাসীদের অধিকার আদায়ের জন্য মিঠুনের আদর্শকে ধারন করে পাহাড়ের প্রতিটি বর্গফুটে আরো শত শত মিঠুন চাকমা জম্ম নেবে। কমরেড মিঠুন চাকমা, স্যেলুট তোমায় স্যেলুট....

বিঃ দ্রঃ এখানে মিঠুন চাকমার অনলাইন ভিত্তিক নিউজ পত্রিকা, নিজস্ব ব্লগ ও ইস্টিশন ব্লগের লিংকগুলো নিচে দিলাম। মিঠুন চাকমা কি বলতেন? কি লিখতেন? কেমন ছিলো তার ছিল তার মতাদর্শের চিন্তাধার। একবার পড়ে আসুন না.....


মিঠুন চাকমার নিজস্ব ব্লগ
http://mithunchakma.blogspot.in/?m=1


ইস্টিশনে মিঠুন চাকমার ব্লগগুলো
https://www.istishon.com/?q=blog/3571


মিঠুন চাকমার সম্পাদিত অনলাইন পত্রিকা www.chtnews.com

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

অপ্রিয় কথা
অপ্রিয় কথা এর ছবি
Offline
Last seen: 2 weeks 3 দিন ago
Joined: শনিবার, ডিসেম্বর 24, 2016 - 2:15পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর