নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 2 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • মারুফুর রহমান খান
  • মিঠুন বিশ্বাস

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

জেগে উঠার গল্প - কাঙালী ফকির চাষী


একটু বড় হলাম যখন, বলত তখন মায়!
কাপড়-চোপড় ঠিক করে চল, নজর পড়বে গায়৷
তখনো ঠিক বুক গজায়নি, তবু মায়ের ভয়!
মায়ে বলতো মেয়েরে তোর, সামলে চলতে হয়৷
মায়ের কথা বুঝিনি ঠিক! পাড়ার ছেলের দল
গায়ে পড়ে বলতো কথা, চোখে খেলতো ছল৷
যখন আমার বুক গজালো, ডাঙ্গর গতর গায়
নিষেধ হলো বেড়ে দ্বিগুন, ভয়ে থাকত মায়!!
হাঁটতে পথে পান্ডা ছেলের, চোখ খেলত নেশা
এদিক ওদিক তাকানোটাই, রোজ যাদের পেশা৷
মুখে থাকত লজ্জা আমার, বুকে থাকত ভয়!!
মায়ের বাড়ন মাইয়া মাইনষের, চুপ থাকিতে হয়৷
স্নানের বেলা পুকুর ঘাটে, মারত চোখ উঁকি
লজ্জা আমার সাড়া গায়ে, ঘোর লজ্জামুখি৷
আমার কতো ইচ্ছে হতো, পাখ মেলে উড়ি
ভালবাসার আকাশটাতে, মন ইচ্ছে ঘুরি৷
তবু আমি থেমে যেতাম, মায়ের শুনে স্বর
সমাজ আমায় দেখিয়ে দেয়, আঁধার কোণের ঘর৷
একদিন যবে স্কুল হতে, ঘর ফিরছি একা৷
সেদিন আমার শরীর নিয়ে, হয় তাদের দেখা৷
চিৎকার দেব তাও হলনা, জোর আহাজারি
উদয় হলো মায়ের কথা, আমি এক নারী৷
যে শরীরটা নিয়ে ছিল, মায়ের এত ভয়
সে শরীরতো হায়নার চোখে, মাংস পিন্ডময়৷
বুকের কাপড় খুলে নিয়ে, বুকে দিল হাত
হাত নয় ওরা থাবাই দিলো, বসায় দিলো দাঁত৷
যে তল দিয়ে জন্ম ওদের, সেই তলে দেয় শূল
শরীর নিয়ে লজ্জা মায়ের, সবই ছিল ভুল৷
সাড়া শরীর চিবে খেল, ফাটিয়ে দিল তল
রক্ত গেল তানা তানা, বিষিয়ে দিল জল৷
চুষে খেল শরীর খানা, জনের পরে জন
দাঁড়াবারও শক্তি আমার, ছিলনা তখন৷
কাঁদতে কাঁদতে ডেকেছিলাম, ঈশ্বর তুমি কই?
বাঁচাও আমায় চুপ থেকোনা, মেয়ে যদি হই!?
বাঁচাইনি নির্লজ্জ্য ইশ্বর, চেয়ে দেখলো শুধু!!
ঈশ্বর তারা যাদের কাছে, নারীর কায় মধু৷
কোনমতে কষ্ট শয়ে, বাড়ি ফেরার পর,
মাতো আমার অর্ধমৃত, একি হলো তোর!?
দেখনা মা তোর লাজুক মেয়ের, একি হল হাল!!
তোর কাছে মা তলোয়ারের, থাকতে হবে ঢাল৷
কাপড়ের পর কাপড় দিয়ে, শরীর ঢাকা যায়
লজ্জা ঢাকবি কি দিয়ে মা, কলঙ্কিনির গায়?
যত পারিস কাপড় দে মা, লাজ যদি ঢাকে,
নরপশুর লজ্জা যদি, এই বস্ত্রে থাকে৷
তুইতো জানিস তোর মেয়েটা, তোর অবাধ্য নয়
কেন তবে এমন হবে? এমন কেন হয়!?
তোর সমাজের কথা শুনে, রাখলি মেয়ে কোণে
তোর মেয়েকে চিবিয়ে খেল, সে সমাজের জনে৷
স্বামি-স্ত্রীর মিলন শেষে, শরীর নাপাক হয়
স্নানে আনে পবিত্রতা, ধর্মে তোরে কয়৷
তবে মাগো জল ঢেলে দে, করে দেমা পাক
কলঙ্ক মা শরীর থেকে, ধুয়ে মুছে যাক৷
আর কতদিন এভাবে মা, আড়াল হবি বল!?
কত মেয়ের আর্তনাদে, চোখে ফেলবি জল৷
উড়ার সময় তোরা মাগো, ভেঙে দিস ডানা
প্রতিবাদের কোন ভাষায়, নাই কি মা জানা?
এই ভাবেই কি বেঁচে থেকে, নারীর জীবন যাবে?
আমার ছোট্ট বোনটি ও কি , এমন সাজায় পাবে?
এভাবে আর কত মাগো, মুছবি বল হাসি?
আমরা হব ধর্ষিতা মা, তুই হবি দাসী!!
মরতে গিয়ে পারিনি মা, মরবো কেন বল?
মরলে আমি পশ্রয় পাবে, নারী খেঁকোর দল!!
চিৎকার করে সমাজটাকে, দেখিয়ে দি মা আয়
নির্যাতনকে লাতি মেরে, পিষিয়ে দিতে পায়৷
বাঁচতে হলে আয় মা এবার, বাঁচার সাধ বাঁচি
লুকানো মা মরার সমান, জানবে হ্যাঁ আছি!!
জাগুক জাতি নারী সমাজ, জাগুক যত বোন
আগে বাড়ো নারী তুমি, ছাড়ো ঘরের কোন৷
ফকির বলে- সালাম নারী, গুছে তুলো পাপ
তালা ভেঙ্গে দাও সে তোমার, শিরসোজা জবাব৷

নিজেকে আজ ধিক্কার দিয়ে, একটা কথায় বলব
এটা কোন কবিতা নয়, জেগে উঠার গল্প...

বিভাগ: 

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

কাঙালী ফকির চাষী
কাঙালী ফকির চাষী এর ছবি
Offline
Last seen: 9 ঘন্টা 19 min ago
Joined: শুক্রবার, ডিসেম্বর 29, 2017 - 2:02পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর