নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি
  • মোমিনুর রহমান মিন্টু
  • রহমান বর্ণিল

নতুন যাত্রী

  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান
  • একরামুল হক
  • আব্দুর রহমান ইমন
  • ইমরান হোসেন মনা
  • আবু উষা
  • জনৈক জুম্ম
  • ফরিদ আলম
  • নিহত নক্ষত্র

আপনি এখানে

নবীর অমর প্রেম কথা ২ :


মুহাম্মদ উম্মে হানীকে একচান্সে বিয়ে না করতে পারলেও, এত সহজে হাল ছেড়ে দেয়নি ! তার সাহায্যে তারই মস্তিস্ক উস্প্রিত আল্লাহ বারবার উদয় হয়েছে মুশকিল আসান হয়ে আর এবারও একই পুনরাবৃত্তি হলো । আল্লা পত্রপাঠ মার্কেটে ছাড়ল আয়াত ৩৩:৫০ যাতে বলা হলো নবী ইচ্ছে করলেই যে কোন চাচাত, ফুফাতো, মামাত, খালাত বোনদের সাথে যৌন কর্মে লিপ্ত হতে পারবে বিনা বিয়েতেই,শুধু ওই বোনদের মদিনায় হিজরত করতে হবে। নবী জানত এই আয়াতের ফল কি হতে পারে তার সেক্স লোভী আরব অনুসারীদের জন্য আর তাই আল্লা কিঞ্চিত কারসাজি করলো আয়াতে এই বিধান দিয়ে যে এই অতি নিকট আত্মীয়দের সাথে বিয়ে বহির্ভূত যৌন-লীলার অনুমতি শুধুমাত্র নবীর জন্যই ,অন্য মুসলিমদের জন্য নয় !
আয়াত ৩৩:৫০ :
'হে নবী। আপনার জন্য আপনার স্ত্রীগণকে হালাল করেছি, যাদেরকে আপনি মোহরানা প্রদান করেন। আর দাসীদেরকে হালাল করেছি, যাদেরকে আল্লাহ্‌ আপনার করায়ত্ত করে দেন এবং বিবাহের জন্য বৈধ করেছি আপনার চাচাতো ভগ্নি, ফুফাতো ভগ্নি, মামাতো ভগ্নি ও খালাতো ভগ্নিকে যারা আপনার সাথে হিজরত করেছে। কোন মুমিন নারী যদি নিজেকে নবীর কাছে সমর্পণ করে, নবী তাকে বিবাহ করতে চাইলে সে—ও হালাল। এটা বিশেষ করে আপনারই জন্য—অন্য মুমিনদের জন্য নয়। আপনার অসুবিধা দূরীকরণের উদ্দেশে। মুমিনগণের স্ত্রী ও দাসীদের ব্যাপারে যা নির্ধারিত করেছি আমার জানা আছে। আল্লাহ্‌ ক্ষমাশীল, দয়ালু।'-- (অনুবাদ: মাওলানা মুহিউদ্দিন খান, তাফসীর মাআরেফুল কোরান) ।। কিন্তু আগেও একবার একটা লেখাতে বলেছি যে আরবি থেকে বাংলা অনুবাদগুলোতে কারচুপি থাকে আর সেটা প্রমান হবে এই আয়াতের দুটো ইংরাজি অনুবাদ দেখলে:

১."YUSUFALI: O Prophet! We have made lawful to thee thy wives to whom thou hast paid their dowers; and those whom thy right hand possesses out of the prisoners of war whom Allah has assigned to thee; and daughters of thy paternal uncles and aunts, and daughters of thy maternal uncles and aunts, who migrated (from Makka) with thee; and any believing woman who dedicates her soul to the Prophet if the Prophet wishes to wed her;- this only for thee, and not for the Believers (at large); We know what We have appointed for them as to their wives and the captives whom their right hands possess;- in order that there should be no difficulty for thee. And Allah is Oft-Forgiving, Most Merciful".

২."Hilali and Khan : O Prophet (Muhammad)! Verily, We have made lawful to you your wives, to whom you have paid their Mahr (bridal money given by the husband to his wife at the time of marriage), and those (captives or slaves) whom your right hand possesses whom Allâh has given to you, and the daughters of your ‘Amm (paternal uncles) and the daughters of your ‘Ammah (paternal aunts) and the daughters of your Khâl (maternal uncles) and the daughters of your Khâlah (maternal aunts) who migrated (from Makkah) with you, and a believing woman if she offers herself to the Prophet, and the Prophet wishes to marry her; a privilege for you only, not for the (rest of) the believers. Indeed We know what We have enjoined upon them about their wives and those (captives or slaves) whom their right hands possess, – in order that there should be no difficulty on you. And Allâh is Ever Oft¬Forgiving, Most Merciful".

ইবনে কাসীর অনুযায়ী উম্মে হানী বৈধকৃত স্ত্রীদের মধ্যে ছিল না এবং হিজরতকারিদের অন্তর্ভূক্তও না, কারণ সে মক্কা বিজয়ের পর ঈমান এনেছিল । আবার তিরমিজি শরীফ অনুযায়ী উম্মে হানী বলেছিল :'আমি উনার জন্য আইন সঙ্গত ছিলাম না কারণ আমি হিজরত করি নাই। আমি তুলাকাদের মধ্যে একজন ছিলাম ।' তুলাকার হলো তারা, যারা মক্কা বিজয়ের পর ঈমান এনেছিল ।(জামি আত তিরমিজি, খণ্ড ৫, হাদিস নম্বর ৩২১৪, পৃঃ ৫২২; অনুবাদ -আবুল কাশেম) ।। মুহাম্মদ মদিনায় হিজরতের আয়োজন করল। উম্মে হানীকে সঙ্গে চাইল। উম্মে হানীকে আবার বিয়ের অফার দিল। উম্মে হানী সতিনদের সাথে মুহাম্মদের সংসারে ঢুকতে চাইল না আর বিয়ের প্রস্তাব নাকচ করলো। আল্লাহ মার্কেটে ছাড়ল আয়াত ৩৩:৫০। মুহাম্মদ উম্মে হানীকে বলল আল্লাহ অনুমতি দিয়েছে যে চাচাত (অথবা ফুফাতো, মামাত, খালাত) বোন যেই তার সাথে হিজরত করবে তাকে সে বিয়ে করতে পারবে। উম্মে হানী পাল্টা জবাব দিল যে সে হিজরতে যাবেনা আর তাই মুহাম্মদের স্ত্রীও হতে পারবে না !

(চলবে................)

Comments

কাজি দীন মোহাম্মাদ এর ছবি
 

আপনি যে একজন অযোগ্য পাঠক সেটা আপনার উদ্ধৃতি থেকে প্রমাণিত। আপনি যে বিষয়ে মিথ্যাচার করছেন আপনারই উদ্ধৃত টেক্সট তা উড়িয়ে দিচ্ছে। আপনি বলছেন, মুহাম্মাদ ইচ্ছা করলেই "বিনা বিয়েতে" চাচাত, ফুফাতো, মামাত, খালাত বোনদের সাথে যৌন কর্মে লিপ্ত হতে পারবে শুধু ওই বোনদের মদিনায় হিজরত করতে হবে, অথচ আপনার উদ্ধৃত টেক্সট বলছে, “এবং বিবাহের জন্য বৈধ করেছি আপনার চাচাতো ভগ্নি, ফুফাতো ভগ্নি, মামাতো ভগ্নি ও খালাতো ভগ্নিকে”। এখানে “বিবাহের মাধ্যমেই বৈধতা” উল্লেখিত, কিন্তু বিদ্বেষ ও জ্ঞানের স্বল্পতা ভেদ করে তা আপনার সমঝে প্রবেশ করেনি। যে নারী মদিনায় হিজরত করেনি, তার সাথে কিভাবে বিবাহ হবে? সে পৌত্তলিক থাকলে অমনিতেই বিয়ে হবে না, আর মুসলিম হলে নবীর স্ত্রী হয়ে মক্কায় থাকতেও পারবে না: এই ধরনের প্রাথমিক জ্ঞান আপনার নেই।
তারপর, “আত্মীয়দের সাথে বিয়ে বহির্ভূত যৌন-লীলার অনুমতি শুধুমাত্র নবীর জন্যই ,অন্য মুসলিমদের জন্য নয়!” এটি হচ্ছে মূর্খ কথা। যেসব আত্মীয়ের কথা এখানে উল্লেখ হয়েছে সেসব আত্মীয়ের সকল মুসলিমদের বিয়েও বৈধ। এই সম্পর্কগুলোতে বিয়ে আজো পর্যন্ত দৈনন্দিনভাবে হচ্ছে। এখানে আল্লা কোন কারসাজি করল? ‘অন্য মুসলিমদের জন্য নয়’ –কথাটি আপনি বুঝতে পারেন্নি। এখানে, নবীর কাছে যে নারী বিনা মহরে বিবাহ বন্ধন চায় সেটি তাঁর জন্য বৈধ বলা হয়েছে যা সকল মুসলমানদের জন্য নয়, যদিও কোন নারীকে নবী বিনা মহরানায় গ্রহণ করেননি। এই উদাহরণ মাইমুনার (রা) ক্ষেত্রে হয়েছিল যিনি বিনা মহরে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে চেয়েছিলেন।
তারপর এখানে যে ঢেকুর তুলছেন, “আগেও একবার একটা লেখাতে বলেছি যে আরবি থেকে বাংলা অনুবাদগুলোতে কারচুপি থাকে আর সেটা প্রমান হবে এই আয়াতের দুটো ইংরাজি অনুবাদ দেখলে” কিন্তু কোন অনুবাদক কিভাবে কারচুপি করলেন সেটা দেখাতে পারলেন না। আপনি কি আরবি জানেন? না জানলে কারচুপি দেখাবেন কিভাবে? কোনটিতে কারচুপি দেখাবেন? অরিজিনাল আরবি উৎস সামনে না রেখে, এবং শব্দ, বাক্য ও ব্যাকরণ না দেখিয়ে তা কি সম্ভব? এসবের মধ্যে মুর্খামির পদাচরণ হচ্ছে।
শেষের অংশে যে মিথ্যাচার এল এর উৎস কোথায়? মক্কায় যেখানে উম্মে হানির স্বামী আছে, সেখানে মুহাম্মাদ তাকে কিভাবে বিয়ে করতে পারেন, মদিনায় হিজরত করাতে পারেন? ও উম্মে হানি ও মুহাম্মাদকে নিয়ে রসাল কথাবার্তার উৎস কোথায়? এই সুরাহ (৩৩), ও তার ৫০ নম্বর আয়াত মদিনায় হিজরতের ৫ম বর্ষে নাজিল হয়েছিল, সুতরাং তখনকার সেই প্রেক্ষাপটে এর অর্থ খুঁজতে হবে। যদি এই আয়াত মক্কায় নাজিল হয়ে গিয়ে থাকে, তবে সেই উৎস দেখিয়ে আপনার গল্প সাজাতে হবে।
তারপর “ইবনে কাসীর অনুযায়ী উম্মে হানী বৈধকৃত স্ত্রীদের মধ্যে ছিল না” এই কথার অর্থ কি? কারা কারা ইম্মে হানিকে নবীর বৈধকৃত স্ত্রীদের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করেছিল যা ইবন কাসিরকে প্রত্যাখ্যান করতে হল?
এ পর্যন্ত আপনার গল্প বানোয়াটই থেকে গেল -কোন ঐতিহাসিক উৎসে প্রমাণিত হয়নি।

 
রাজর্ষি ব্যনার্জী এর ছবি
 

প্রকাশকদের বলেছিলেন? একটু তাড়াতাড়ি প্লিস !!.........

..........
রাজর্ষি

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

রাজর্ষি ব্যনার্জী
রাজর্ষি ব্যনার্জী এর ছবি
Online
Last seen: 39 min 14 sec ago
Joined: সোমবার, অক্টোবর 17, 2016 - 1:03অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর