নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • সংশপ্তক শুভ
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি
  • মোমিনুর রহমান মিন্টু
  • রহমান বর্ণিল

নতুন যাত্রী

  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান
  • একরামুল হক
  • আব্দুর রহমান ইমন
  • ইমরান হোসেন মনা
  • আবু উষা
  • জনৈক জুম্ম
  • ফরিদ আলম
  • নিহত নক্ষত্র

আপনি এখানে

একটি মেঘের গল্প


সবে মাত্র বাড়িতে ঢুকতে যাব, এমন সময় আমন্ত্রন এসে জড়ায়ে ধরলো। আমন্ত্রন আমার বোনের ছেলে। আমার দেখা সবথেকে ট্যালেন্ট একটা ছেলে। আমাকে একবার প্রশ্ন করেছিল আচ্ছা মামা আমরা তো ভাত খাই, পানি খাই, চিপস খাই, চকলেট খাই এজন্য আমাদের ক্ষুধা লাগে না গাছ কি খায়? আমি ওকে বলেছিলাম গাছ কিভাবে খাবার খায়। ঐ একবারই বলেহিলাম। তারপর তো ওর ঐটা মুখস্ত । মাত্র ছয় বছরের একটা ছেলে সালোকসংশ্লেষণ প্রক্রিয়া ঘট ঘট করে বলে দিতে পারে। ভাবা যায়? ও অনেক প্রশ্ন করতো ওর মা ওর সব প্রশ্নের জবাব দিত না। মাঝে মাঝে আমি ওর প্রশ্নের জবাব দিতাম। কিন্তু বেশিরভাগ সময় উদ্ভট পরিস্থিতিতে পরতাম। একদিনের ঘটনা , আরো ছোট ছিল তখন। ভ্যানে করে যাচ্ছিলাম। ব্রীজের উপর এসে নদী দেখে বলে এটা কি? আমি বলি নদী। তখন বলে নদী কি? আমি বলি যেখানে পানি থাকে ঐটাই নদী। আবার বলে তাইলে পানির বোতল ও নদী? আমরা সবাই সে কি হাসি।

যাই হোক গল্পে ফেরা যাক। আমার পিঠ থেকে ব্যাগটা নিল।তুলতে পারছে না তবুও টেনেটুনে আমার ঘর পর্যন্ত নিয়ে গেল। ব্যাগ রেখেই আমাকে বলে মামা চলো আমার ভাইয়ের সাথে পরিচয় করায়ে দেই। ভাই?? মাথা খারাপ হয়ে গেল নাকি ভাগিনার? ওর ভাই হলে আমি জানতাম না? কি হলো আসো বলে হাত ধরে টেনে বাহিরে নিয়ে আসলো। এই দ্যাখো আমার ভাই। এর নাম মেঘ। নামটা সুন্দর না? আমি রাখছি। মেঘ দেখ কে আসছে। এটা তোমার মামা। আমন্ত্রন আমাকে মেঘের সাথে পরিচয় করায়ে দিচ্ছিল আর আমি হ্যাঁ হয়ে ওকে দেখছিলাম। এই মেঘ কোন মানব সন্তান নয়। এই মেঘ একটা ছাগল। ব্যাপারটা যতোটা না অবাক হলাম তার থেকে বেশী উপভোগ করলাম।

লং জার্নি বুঝেন ই তো অনেক ক্লান্ত ছিলাম বলে ফ্রেশ হয়ে খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েছিলাম। কেমন জানি শীত শীত করছিল বলে ঘুম ভেঙ্গে গেল। ঊঠে দেখি আমন্ত্রন আমার বিছানায় পানি ঢেলে ভিজিয়ে দিচ্ছে। রাগ হলো খুব কিন্তু কিছু বলতে পারলাম না। আসলে ভালবাসার মানুষকে কিছু বলা যায় না। বিছানা ছেড়ে উঠতেই আমন্ত্রন বললো কখন থেকে তোমাকে ডাকছি। তাড়াতাড়ি করো একসাথে গোসল করবো। আমি বাথরুমে যাচ্ছি তুমি আসো। আমি থাকলে আমিই ওকে গোসল করাই। বাথরুমে গিয়ে তো মেজাজ খারাপ হয়ে গেল। এই ছেলেটা দিনদিন কি সব কান্ডকারখানা শুরু করছে। সুস্থ মানুষ এর সাথে থাকলে তো পাগল হয়ে যাবে। একটা ছাগলকে বাথরুমে ঢুকায়ে শাম্পু করাচ্ছে। আমি চিৎকার দিয়ে উঠলাম, আপা দেখে যান আপনার ছেলে ছাগলকে আমার বাথরুমে গোসল করাচ্ছে। এই কথা শুনে ও বেরিয়ে এসে আমাকে উল্টা ঝাড়ি দিয়ে বলে মামা এটা আমার ভাই। এটা ছাগল না এর নাম মেঘ। কিছু একটা বলতে গিয়েও থেমে গেলাম।

আমন্ত্রন আর ওর ভাইয়ের অনেক কান্ডকারখানা দেখলাম। আসলে মেঘকে প্রথমে বিরক্ত লাগলেও আমন্ত্রণের মেঘের প্রতি ভালবাসা আমাকে মুগ্ধ করে। আমিও মেঘের মামা হয়ে যাই। মেঘ আর ভাগিনা কে নিয়ে ভালই চলল দুদিন। বাড়িতে একটা গরু ও আনা হয়েছিল। কাল কোরবানী ঈদ।

খুব সকালে ঘুম থেকে উঠলাম। ঈদের দিন ফজর ওয়াক্ত মিস দিলে ঈদ টাই মাটি। ফজর নামাজ শেষে দাদা দাদীর কবর জিয়ারত শেষে বাড়ি ফিরলাম। বাড়ির সবাই ব্যস্ত। আমিও ব্যস্ত। আমন্ত্রণ আর মেঘকে সামলানোর দায়িত্ব আমার। যদিও দায়িত্বটা কেউ দেয় নি আমি নিজেই নিয়েছি।

মামা ভাগিনা নতুন পাঞ্জাবি পড়ে রেডি । এমন সময় আমন্ত্রণ আমার একটা গেঞ্জি মেঘকে পরায়ে দিয়ে আমার আঙ্গুল ধরে বললো এবার ঠিক আছে। আমিও একটা মুচকি হাসি দিয়ে ওকে সায় দিয়ে নামাজে চললাম।

নামজ শেষে মোনাজাতের শুরুতে আকাশ কালো করে ঝুম বৃষ্টি । সবাই কোন রকমে মোনাজাত শেষে দৌড় দিলাম। আমাদের বাড়ির পাশেই একটা প্রাইমারী স্কুল আছে সেখানে দাড়ালাম। কিছুক্ষণ পর বৃষ্টি থামলো। আমন্ত্রণকে নিয়ে দোকানে গেলাম। চিপস, চকলেট আর আইসক্রিম কিনে ফেরার পথে আমন্ত্রণ বললো মামা মেঘ তো এসব খায় না। মেঘের জন্য কলা কিনতে হবে। এই ঈদের দিন কলা কোথায় পাই এখন? অনেক খোঁজাখুঁজির পর কলা পাওয়া গেল।

বাড়ির উঠোনে আসতেই আমন্ত্রণ চিৎকার করে কান্না শুরু করলো। বুঝলাম না কেন কাঁদছে। সামনে তাকাতেই দেখি মেঘকে জবাই করে গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। আর সবাই গরু কাটছে। আমি আমন্ত্রণকে জাপটে ধরেছিলাম। কিন্তু ওর কান্নার গতি বেড়েই চলছে। আমি কোন কথা বলতে পারছি না। মনে হচ্ছে সব শক্তি হারিয়ে গেছে। এমন সময় আবার বৃষ্টি শুরু হলো। আকাশ ও বোধহয় আজ মেঘের জন্য কাঁদছে। শুধু আমি ঠায় দাঁড়িয়ে আছি।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

মিথুন
মিথুন এর ছবি
Offline
Last seen: 7 ঘন্টা 29 min ago
Joined: বুধবার, অক্টোবর 7, 2015 - 8:46অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর