নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 8 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • কাঠমোল্লা
  • নুর নবী দুলাল
  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • চিত্রগুপ্ত
  • মৃত কালপুরুষ
  • অ্যাডল্ফ বিচ্ছু
  • নরসুন্দর মানুষ

নতুন যাত্রী

  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান
  • একরামুল হক
  • আব্দুর রহমান ইমন
  • ইমরান হোসেন মনা
  • আবু উষা
  • জনৈক জুম্ম
  • ফরিদ আলম
  • নিহত নক্ষত্র

আপনি এখানে

সেদিন মানুষের জন্য আমাদের প্রাণ কাঁদেনি, কেঁদেছিলো ধর্মের জন্য।


মিয়ানমারে উগ্র বার্মিবাদীদের হাতে যখন রাখাইনরা নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছিলো, তখন আমাদের দেশের মানুষের মানবতা অন্তত প্রথম বারের জন্য হলেও উঁকি দিয়েছিলো। আমরা যারা মানুষের জন্য মানুষের মন সিক্ত হওয়ার মতো জগৎশ্রেষ্ঠ সুন্দর দৃশ্যটি দেখার অপেক্ষায় ছিলাম, তারা খুশি হলাম এই ভেবে যে, যাক আমরা শেষ পর্যন্ত মানুষ হতে পারলাম! মানুষের জন্য কাঁদার মানসিকতার মতো মনোহরবৃত্তি জগতে আর কিছু নেই। আমরা সেটা রপ্ত করে ফেলেছি! পৃথিবীর ইতিহাসে বৈচিত্রময় ধর্মীয় জাতিগোষ্ঠির সেই হারানো সহবস্থান আমরা আবার ফিরে পেয়েছি। ভাতের অভাব সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেচে নেয়া শেরপুরের কনিকাদের লাশের উপর দিয়ে যখন রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে ত্রাণবাহী ট্রাকের সারি চলে গেছে, তখন আমরা নিজেদের বুঝিয়েছি এই বলে যে, নিজে না খেয়ে বিপদগ্রস্থ মানুষের মুখে অন্ন তুলে দেয়ার মতো চওড়া বুক কেবল বাঙালিরই আছে। কিন্তু দিন শেষে আমাদের ভুল ভাঙলো! সেদিন মানুষের জন্য আমাদের প্রাণ কাঁদেনি, কেঁদেছিলো ধর্মের জন্য।

রাখাইন মুসলমানদের উপর উগ্র বার্মীবাদী মিয়ানমার প্রশাসনের নির্যাতনে যে চিত্র দেখে আমাদের প্রাণ কেঁদে কুকড়ে উঠেছিলো, সেই প্রাণ এবার ইস্পাত বর্ম ধারন করছে রংপুরে হিন্দুদের বেলায়! আমাদের যেই চোখ মানবতার অশ্রুতে সিক্ত হয়েছিলো, এবার সেই চোখে ক্রোধ, প্রতিশোধ, ঘৃণা আর সাম্প্রদায়িকতার ক্রুর হাসি। দিন শেষে আবার আমাদের হতাশ হবার পালা। রাখাইন মুসলমানদের নির্যাতনে সোচ্ছার এ দেশের মানুষ রংপুরে সংখ্যলঘু হিন্দু নির্যাতন ঘটনায় বলে উঠলো- ঠিক হয়েছে, উচিৎ হয়েছে"। শুধু এতটুকু হলেও না হয় মানা যেত! আমরা যারা বরাবরের মতো সাম্প্রদায়িকতা বা সংখ্যালঘু নির্যাতনের বিরুদ্ধে দু'চার কথা বলি, তাদের উপর নেমে এলো ভার্চ্যুয়াল আক্রমন! আমরা নাস্তিক! সুশিল! চেতনা ব্যবসায়ী! ভারতে দালাল! বাঁকা পথে সস্তায় জনপ্রিয়তা সন্ধানি! ধর্ম হাসিল হবে না, যদি না আমাদের গর্দান হাসিল করা যায়!

রংপুরের ৪০টি হিন্দু বাড়িতে আগুন দিয়ে সেই সব হিন্দুদের সর্বশান্ত করার ইস্যুতে লিখেতে গিয়ে আমি ইতিহাস এবং বর্তমানের একটি যোগসূত্র দাড় করাতে চেষ্টা করেছিলাম। আমরা লেখাটির বিষয়বস্তু ছিলো- দ্বিজাতিতত্ত্বের কারণে দেশ বিভাগ, ধর্মঘেষা শিক্ষাব্যবস্থা এবং নিশ্চুপ মধ্যপন্থি মেজরিটি। এই তিনটি বিষয়কে আমি আজকের সংখ্যালঘু নির্যাতন বা সাম্প্রদায়িক মানসিকতার জন্য দায়ী করেছিলাম। কিন্তু হতাশার বিষয়, আমার লেখাটির পাঠোদ্ধার করতে ব্যার্থ হয়ে কিংবা ইচ্ছাকৃতভাবে লেখাটির গোড়াতে না গিয়ে একশ্রেনীর ধর্মান্ধগোষ্ঠী আমাকে আর আমার লেখাকে নিজেদের সওয়াব কামানোর উপলক্ষ্য হিসেবে নিয়েছে। সেই সব মুমিন মুসলমানের কাছে আমার ইমানি প্রশ্ন- কোরআনের কোথায় লেখা আছে 'অমুসলিমদের পক্ষে কথা বললে ধর্ম খর্ব হবে'? আমরা দিকে তেড়ে আসা তীরটা প্রাসঙ্গিক হতো, যদি আমি শুধু মাত্র হিন্দু কিংবা অন্য কোন অমুসলিম সম্প্রদায়ের পক্ষেই লিখতাম!

মিয়ানমারে যখন রাখাইন জনগোষ্ঠি নির্যাতিত হয়েছিলো আমি তখনো লিখেছি। ব্লগে, পোর্টালে, নিজের ফেসবুক আইডিতে। সিরিয়ানদের নিয়ে লিখেছি, কাশ্মীরের মুসলমানের নির্যাতনের সমালোচনা করে লিখেছি। মার্কিন সাম্রাজ্যবাদী মানসিকতার শিকার ইরাক-আফগানের মুসলমানদের নিয়েও লিখেছি, চেচনিয়া-বসনিয়া সংখ্যালঘু মুসলিম নির্যাতনের কথা লিখেছি। ভারত সংখ্যালঘু মুসলমানদের নিয়েও অনেক লেখা আছে। সোচ্ছার ছিলাম বাংলাদেশের অভ্যান্তরে আদিবাসী শাঁওতাল, চাকমা, মারমাসহ সব পাহাড়ি জনগোষ্ঠির নির্যাতনের বিরুদ্ধেও। এরই ধরাবাহিকতায় পৃথিবীর কোন প্রান্তে কোন গোষ্ঠি বা সম্প্রদায় সংখ্যাগরিষ্ঠের দ্বারা আক্রান্ত হলে বিবেকের তাড়নায় প্রতিবাদ করি লেখনির মাধ্যমে। সেখানে আক্রান্ত জাতি মুসলিম নাকি হিন্দু, খৃস্টান না বৌদ্ধ, সে বিচারে যায় না। সে সব লেখার কিছু আমার টাইম লাইনে এখনো আছে।

আমি মানুষকে সর্বাগ্রে 'মানুষ' হিসেবে মুল্যায়ন করি। তারপর তার জাতিসত্তার পরিচয়। একান্ত আবশ্যকতা না থাকলে তার ধর্মের পরিচয় খুজতে যায় না। আমার কাছে মানুষের ধর্ম পরিচয়টা খুব বেশি গুরুত্বপূর্ন নয়। ধর্মের মানদন্ডে মানুষকে মাপার এখতিয়ার আমার নেই। সেই ফয়সালার ভার স্বয়ং সৃষ্টিকর্তার হতে রক্ষিত। প্রত্যেক মানুষেরই তার নিজ ধর্ম পালনে স্বাধীনতা থাকা উচিৎ বলে আমি বিশ্বাস করি। স্বয়ং ইসলাম সেটার স্বকৃতি দিয়েছে। বিদায় হজের ভাষনে নবী (স.) স্বয়ং বলেছেন- "ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করো না, যার ধর্ম তাকে পালন করতে দাও। ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করে তোমাদের আগে বহু জাতি ধ্বংস হয়ে গেছে"। কিন্তু আমাদের দেশের স্ব-ঘোষিত ইসলামের বীর সেনানীরা ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়িটাকে এমন পর্যায়ে নিয়ে গেছে যে, তারা জানতেই পারছে না নিজের অলক্ষ্যে তারা অধর্মের চুড়ান্ত পর্যায়ে গিয়ে ঠেকেছে।

আমাদের দেশে একজন মুক্তচিন্তার মানুষ নাস্তিক হয়ে যাওয়ার পেছনে তার মতাদর্শ যতটা না কাজ করে, তার থেকে বেশি কাজ করে উগ্র ধর্মান্ধ গোষ্ঠির উস্কানি। ইতিপূর্বে নাস্তিক বনে যাওয়া মানুষগুলোর অতিত জীবন পর্যালোচনা করলে বুঝতে পারা যায়, প্রথাগত সংস্কারের বিরুদ্ধে লেখালেখির কারনে তাদেরকে এই উগ্রবাদীদের দ্বারা নানান আঘাত, নির্যাতন সহ্য করতে হয়েছে। ফলশ্রুতিতে ইসলাম এবং মুসলমানেদের প্রতি তাদের এক ধরনের বিরুপ ধারনা তৈরী হয়েছে। নাস্তিক্যবাদ যদি পাপ হয়, সে পাপের সমান হিস্যা এ দেশের ধর্মান্ধ গোষ্ঠির উপরও বর্ত্যায়। একজন মানুষ জ্ঞান-বিজ্ঞানের পথে হাটলে, কুসংস্কার পরিত্যাগ করলে, মানবতার কথা বললে, যুগশ্রেষ্ঠ বিপ্লবীদের আদর্শ অনুসরন করলে, মধ্যযুগীয় সংস্কার ছাড়তে চাইলে, প্রথাগত সংস্কারকে যুক্তিশাস্ত্রে নিরীখে ব্যাখ্যা করলে ধর্মের কি ক্ষতি হয় আমি অবধিত নই। তবে ধর্মান্ধের ভন্ডামির মুখোশ উন্মোচিত হয়ে যাওয়ার একটা আশংকা থাকে এটা চিরন্তন সত্য। তবে কি এজন্যই মুক্তচিন্তায় তাদের এত ভয়!

মানুষ তার সংস্কারের ঊর্ধে গিয়ে কিছু করতে পারে না। সাময়িক কোন স্বার্থ হাসিলের জন্য দু'য়েক বার দু'য়েক ছত্র হয়তো লেখা যায়, কিন্তু আমি যবে থেকে বুঝতে শিখেছি, তবে থেকেই ধর্মান্ধের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে লিখছি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা আমার সাথে যুক্ত আছেন, তারা জানেন আমার লিখাই আমার সংস্কার, আমার বিশ্বাস! আমি সেটাই বলি, যেটা আমি বিশ্বাস করি। ধর্মকে জানি বলেই ধর্মান্ধতা নামক চরম অধর্মের বিরুদ্ধে লেখার প্রেরণা পাই।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

রহমান বর্ণিল
রহমান বর্ণিল এর ছবি
Offline
Last seen: 7 ঘন্টা 11 min ago
Joined: রবিবার, অক্টোবর 22, 2017 - 9:43অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর