নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • রসিক বাঙাল
  • এলিজা আকবর

নতুন যাত্রী

  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম

আপনি এখানে

কেন শরিয়া বা ইসলামী আইন সমস্ত সমাজের জন্য খারাপ?


বাংলাদেশর সাধারণ মুসলিমরা কেন ইসলামিক আইনকে প্রত্যাখ্যান করে।যেখানে বাংলাদেশ ৯৫% মুসলিম ধর্মাবলীদের দেশ।তার পরেও কেন শরিয়া আইন অকার্যকর?এইটা কি ইসলাম ধর্মের দূর্বলতাকে প্রমান করে না?

মুসলিম পণ্ডিতরা গর্ব প্রকাশ করে যে ইসলাম বিশ্বের সেরা এবং সর্বাধিক ধর্ম, কারণ এটি জীবনের প্রতিটি দিকের কর্তব্য এবং প্রয়োজনীয়তা নির্দিষ্ট করে।কিন্তু এই নিয়ন্ত্রণ যদি অত্যাচারের মত হয় তাহলে ?
ইসলামী পন্ডিতরা যা ন্যায়বিচার ও মানবাধিকার প্রচার করে, কিন্তু তাদের ধর্মের উত্থানে লুকিয়ে থাকা অপ্রীতিকর সত্যের মোকাবিলা করতে অনিচ্ছুক তারা।
কিন্তু ইসলাম কি ন্যায়বিচার অনুশীলন করে? ইসলাম কি সত্যিই মানবাধিকারের পক্ষে?ইসলাম এসেছিল চরমপন্থীদের ভয়ঙ্কর কল্পনায় একটি কঠোর এবং অত্যধিক বর্বর আইন।যা কোরআনে এবং হাদিসে ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা থেকে সরাসরি তার উদাহরণ। একজন মুসলিম ধর্মপ্রচারক, যিনি বিশ্বাস করেন যে ইসলাম বিশ্বজগতের সর্বোত্তম ধর্ম এবং এটি পৃথিবীর চারপাশে বিস্তৃত করতে চায়।

কেন শরিয়া বা ইসলামী আইন সমস্ত সমাজের জন্য খারাপ তার কিছু কারণ আলোচনা করব।

ইসলামে স্বামীকে তাদের স্ত্রীদের আঘাত করার অনুমতি দেয়।

সৌদি আরবে বাড়িতে নারীদের সহিংসতা সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য তার অজুহাত প্রকাশ করেন।
সৌদি টেলিভিশন একটি টক শো সম্প্রচার করেছে যা এই বিষয়ে আলোচনা করেছে।একজন ইসলামি পণ্ডিত ব্যক্তি ঘোষণা করেন স্বামীরা তাদের স্ত্রীদের আঘাত করতে পারবে ইসলামিক আইনে।
ঠিক কোরআনে ও একই কথাই বলা আছে
(4:34)
الرِّجَالُ قَوَّامُونَ عَلَى النِّسَاء بِمَا فَضَّلَ اللّهُ بَعْضَهُمْ عَلَى بَعْضٍ وَبِمَا أَنفَقُواْ مِنْ أَمْوَالِهِمْ فَالصَّالِحَاتُ قَانِتَاتٌ حَافِظَاتٌ لِّلْغَيْبِ بِمَا حَفِظَ اللّهُ وَاللاَّتِي تَخَافُونَ نُشُوزَهُنَّ فَعِظُوهُنَّ وَاهْجُرُوهُنَّ فِي الْمَضَاجِعِ وَاضْرِبُوهُنَّ فَإِنْ أَطَعْنَكُمْ فَلاَ تَبْغُواْ عَلَيْهِنَّ سَبِيلاً إِنَّ اللّهَ كَانَ عَلِيًّا كَبِيرًا

পুরুষেরা নারীদের উপর কৃর্তত্বশীল এ জন্য যে, আল্লাহ একের উপর অন্যের বৈশিষ্ট্য দান করেছেন এবং এ জন্য যে, তারা তাদের অর্থ ব্যয় করে। সে মতে নেককার স্ত্রীলোকগণ হয় অনুগতা এবং আল্লাহ যা হেফাযতযোগ্য করে দিয়েছেন লোক চক্ষুর অন্তরালেও তার হেফাযত করে। আর যাদের মধ্যে অবাধ্যতার আশঙ্কা কর তাদের সদুপদেশ দাও, তাদের শয্যা ত্যাগ কর এবং প্রহার কর। যদি তাতে তারা বাধ্য হয়ে যায়, তবে আর তাদের জন্য অন্য কোন পথ অনুসন্ধান করো না। নিশ্চয় আল্লাহ সবার উপর শ্রেষ্ঠ।
আচ্ছা একজন মানুষের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কাজ করার কোন অধিকার আপনার নেই।আর আল্লাহ এবং মুহাম্মদ যদি এই আদেশ দেয় তাহলে তারা কিভাবে সবচেয়ে উচ্চ এবং মহান হয়?আবার তিনি কি ভাবে নিজেই ঘোষণা করে যে নিশ্চয় আল্লাহ সবার উপর শ্রেষ্ঠা?
হাদিস আছে যে মুহাম্মদের সময় বিয়ের আইন বিভ্রান্তির জন্য মুসলিম মহিলারা বিভিন্ন সহিংসতার শিকার হয়।এটা দাবি করা হয় যে কঠোর আইন বা রীতিনীতির কারণে ইসলামী সমাজে ব্যভিচার ও ব্যভিচারের কম ঘটনা রয়েছে, উদাহরণস্বরূপ, তাদের মুখগুলির উপর পর্দা ঢেকে রাখা বা সামাজিক সেটিংস থেকে পুরুষদের থেকে আলাদা রাখা।কিন্তু যৌন "অপরাধের" ফলাফল অন্যান্য অঞ্চলে থেকে বেশি,আবার মহিলাদের নিপীড়ন হিসাবে তা অনেক অমানবিক।শরিয়া আইন নারীর সামাজিক গতিশীলতা এবং ব্যক্তিগত অধিকারকে নিয়ন্ত্রণ করে, উদাহরণস্বরূপ, রক্ষণশীল সৌদি আরবের মহিলাদের গাড়ি চালানোর অনুমতি নেই।আবার নারী সাক্ষ্য পুরুষের অর্ধেক গণনা করে, এবং ব্যভিচারের জন্য শুধু নারীদের পাথর ছুঁড়ে হত্যা করে।

আবার ইসলাম আদেশ দেয় যে একজন পুরুষ ও মহিলাকে চুরির অপরাধে হাত কাটতে হবে।

আচ্ছা এই কেন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে?
কিন্তু যে কেউ অন্যায় কাজের পরে তওবা করে এবং সংশোধন করে নেয়।তাহলে আল্লাহ কি তার তওবা কবুল করবেন না? তাহলে আল্লাহ কি ভাবে ক্ষমাশীল, করুণাময় হয়?
মুহাম্মদ নিজেই বলেছেন যে তার নিজের মেয়ে ফাতিমাও যদি চুরি করে তাহলে হাত কেটে দিত।

আবার দেখুন ইসলাম আদেশ দেয় যে সমকামীদের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা উচিত।

২০০৫ সালের এপ্রিল মাসে, কুয়েতের একটি ধর্মীয় নেতা বলেছিলেন যে সমকামিতাকে একটি পর্বত থেকে ছুঁড়ে ফেলা হবে অথবা পাথর মেরে হত্যা করা উচিত।
২০০৫ সালের ৭ ই এপ্রিল, এটি রিপোর্ট করা হয়েছিল যে সৌদি আরব ১০০ জনেরও বেশি "সমকামী আচরণ" এর জন্য দোষী সাব্যস্ত এবং তাদের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।
হাদিসে বলেছে যে-
"যদি আপনি সমকামী বা এমন কাউকে খুঁজে পান, তবে যে ব্যক্তি এটি করে, তাকে হত্যা করুন এবং যার সাথে করা হয় তাকেও" (আবু দাউদ নং।4447)।
এই হাদিস আরও বলেছে যে সমকামীদেরকে জীবিত পুড়িয়ে ফেলা উচিত বা তাদের উপর প্রাচীর ঢেকে দেওয়া হবে:
ইবনে আব্বাস এবং আবু হুরায়রা হযরত উসমান (রা।) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, "লূতের লোকেরা যে কাজ করে তা শয়তান।। ।ইবনে আব্বাস কর্তৃক এই হাদীসটি বলছে যে, আলী [মুহাম্মদ এর চাচাত ভাই এবং জামাতা] দুইজন লোককে পুড়িয়ে মেরেছিল এবং আবু বকর [মোহাম্মদ এর প্রধান সঙ্গী] তাদের একটি দেওয়ালের উপর ফেলে দিয়েছিল।
তার পরেও কি আমাদের বুঝাতে সমস্যা হওয়ার কথা, কেন ইসলামিক আইন বিশ্বের অনেক দেশেই অমানবিকতার কারণে স্থগিতাদেশ এবং অকার্যকর হয়ে আছে।
বিশ্ব এখন সব অমানবিকতাকে পিছুনে ফেলে মানবিক পথেই এগিয়ে চলছে।আর বর্বরতা কে ছুড়ে ফেলার সময় এসেছে।

আবার দেখুন মদ্যপান করলে শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

২০০১ সালে, ইরানী কর্মকর্তারা তিনজনকে অবৈধ যৌন নিপীড়ন করে তাদের কোন বিচার হয়নি। কিন্তু শুধুমাত্র অ্যালকোহল পান করার জন্য চাবুক মারার আইনে দণ্ডিত হয়েছিল অনেকেই।
২০০৫ সালে, নাইজেরিয়াতে একটি শরিয়া আদালত আদেশ দেয় যে একজন মাদকাসক্ত কে বেধে চাবুক মারতে হবে।
২০০৫,সালে ইন্দোনেশিয়া বিশাল জামায়াতের সামনে ১৫ জনকে বেঁধে চাবুক আঘাত করে। সর্বজনীনভাবে করা হয় যাতে সবাই দেখতে পারে।
কোরআন এবং হাদিসে সরাসরি এসেছে মদ্যপানকারীকে শাস্তি দিতে।মুহাম্মদ যদি এতই মানবিক হয়ে থাকে তাহলে কেন পুনর্বাসনের প্রস্তাব দেননি? কেন তিনি সর্বদা শারীরিক শাস্তি অবিলম্বে যেতে বলেন।এটি কখনও কখনও যুক্তি দেওয়া হয় যে ইসলামী দেশগুলি বিশুদ্ধ।কেউ কেউ এই পরবর্তী দাবির সঙ্গে তর্ক করতে পারেন, কিন্তু ইসলামী দেশ বিশুদ্ধ?কিন্তু শরিয়া আইনের দেশে এখনো অনেক বেশি মদ্যপান এবং জুয়া খেলা রয়েছে।তাহলে মদ্যপ কে পুনর্বাসন না করে শুধু শাস্তি দেওয়া কি মুহাম্মদকে ভুল প্রমাণ করে না?
তার পরেও কি আমাদের বুঝাতে সমস্যা হওয়ার কথা, কেন ইসলামিক আইন বিশ্বের অনেক দেশেই অমানবিকতার কারণে স্থগিতাদেশ এবং অকার্যকর হয়ে আছে।
বিশ্ব এখন সব অমানবিকতাকে পিছুনে ফেলে মানবিক পথেই এগিয়ে চলছে।আর বর্বরতা কে ছুড়ে ফেলার সময় এসেছে।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

নষ্ট নীড়
নষ্ট নীড় এর ছবি
Offline
Last seen: 1 দিন 1 ঘন্টা ago
Joined: বুধবার, অক্টোবর 25, 2017 - 12:44পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর