নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • রসিক বাঙাল
  • এলিজা আকবর

নতুন যাত্রী

  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম

আপনি এখানে

একই নাটক, ধর্মানুভূতি। শুধু সময় ও ক্ষেত্রটা ভিন্ন!!



ছবিটি আজকের রংপুরের ঘটনার - যেখানে ইসলাম ধর্মানুভূতির আগুনে বৃদ্ধার বসতবাড়ীর ছাই হযেছে এবং সেই ভস্মাগুনের পাশে তাঁর কাঁন্নার ছবি।

বছর খানেক আগে ব্রাহ্মণবাড়ীযার নাসিরনগরেও একই নাটক মঞ্চস্হ হয়েছিল এবং সেখানেও এমনই ছবি ছিল। আরো পেছনের সময়ের দিকে তাকালে একই ঘটনা চট্টগ্রামে পাঁচলাইশ, যশোরের অভয়নগর, সিলেট, পাবনা, দিনাজপুর কিংবা কক্সবাজারের রামুতে এমন ছবি পাওয়া যাবে। এতো গেলো ভিন্ন ভিন্ন সময়ে সংঘটিত ধর্মানুভূতির আগুনে নাটকের কিছু খন্ড চিত্র।

এই ধর্মানুভতির বাইরেও কিছু কিছু অনুভূতি আছে - সেগুলোতেও একই ছবি ধরনের মেলে। যেমন ধরুন ১৯৯০ ও ৯২ সালে ভারতের বাবরী মসজিদ ভাঙ্গার ফলে এদেশের ধর্মপ্রাণ রাজণেতিক দল ও মানুষের যে দুঃখানুভূতি হয়েছিল, সে অনুভুতির জোয়ার এদেশের রাজধানী সহ প্রায় সবকটি জেলায় একযোগে বয়ে ছিল - তখনও এছবি ছিল। কিংবা ২০০১ বিএনপি ও জামাত নির্বাচনে জেতার ফলে যে বিজায়ানুভুতি হয়েছে - সেখানে দেশ ব্যাপি কয়েকদিন ধরে ভয়ংকর রকমে পাবনা, ফেনী, সাতক্ষীরা, ভোলা, লক্ষ্মীপুর সহ বাংলাদেশের বহু জেলা এধরনের ছবি ছাড়াও গনহারে নারী ধর্ষনের ছবি ছিল। আবার ২০১৪তে বিএনপি জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহন না করার ফলে দলের সর্বস্তরে নেতাকর্মীদের মধ্যে যে দুঃখানুভূতি সৃষ্টি হয়েছে - তাতে যে প্রতিত্রিয়া ছিল সেখানেও একই ছবির দেখা মেলে।

এসব অনুভূতিতে ছাড়িয়ে ছিল ২০১২ সালে বিচারানুভূতি। ১৯৭১ সালে যারা জেনোসাইড করেছিল - তাদের বিরুদ্ধে মামলার রায় ঘোষিত হবার ফলে ২০১২ সালে ফেব্রুয়ারীতে সারা দেশ জুড়ে কম্পনানুভুতির সৃষ্টি হয়েছিল। বিশেষ করে মাওলানা সাঈদীর রায় ঘোষিত হবার পরপর সারাদেশ ব্যাপী এর কম্পন চরম আকার ধারণ করছিল। আওয়ামী লেবাসের অনেক সাঈদী ভক্ত নিজহাতে আছাড় দিয়ে ঘরের টিভি ঙাঙ্গার ঘটনা ঘটেছিল সে কম্পনে। সেকম্পনেরও সময়েও হিন্দুর ঘর পুড়েছিল, আর বৃদ্ধা হিন্দু মাকে এভাবে কাঁদতে হয়েছিল।

১৯৭১ বাংলাদেশটার প্রসব কালেও এরকম হিন্দু মাকে কাঁদতে দেখেছিল ধরিত্রী, পুড়েছিল বাড়ী ঘর, কিংবা ১৯৪৭শে পাকিস্তান নামক বেজম্মা দেশটার ভূমিষ্ট হবার সময়ও একই ঘটনা বড়সড় আকারে হয়েছিল - ইতিহাসে গ্রেটার নোয়াখালী কিলিং নামে পরিচিত।

কবে এবং কখন থামবে এসব হিন্দু বৃদ্ধার কান্না??? কে বলতে পারে একই নাটকের পুনরাবৃত্তি আবার ঘটতে যাচ্ছে নতুন কোন জেলা কিংবা নতুন কোন স্হানে? কোন হিন্দু বৃদ্ধা আবাব কাঁদবেন এবং একইভাবে তাঁর ছবি পাব ছাই ভস্ম বাড়ীঘর পেছনে রেখে??? ...(চিত্রগুপ্ত)

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

চিত্রগুপ্ত
চিত্রগুপ্ত এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 1 দিন ago
Joined: মঙ্গলবার, মে 2, 2017 - 1:00অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর