নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • কাঠমোল্লা
  • সাতাল
  • সৈকত সমুদ্র
  • মৃত কালপুরুষ

নতুন যাত্রী

  • সুমন মুরমু
  • জোসেফ হ্যারিসন
  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান

আপনি এখানে

আত্মন‌িয়ন্ত্রণাধ‌িকার আন্দ‌োলন‌ে মানব‌েন্দ্র নারায়ণ লারমার অবদান


সামন্ত সমাজ‌ে আবদ্ধ জুম্ম জনগণ‌ের পুর্ব‌ে ক‌োন রাজন‌ৈতিক জ্ঞান,অভ‌িজ্ঞতা ও ধারণা ছ‌িল না। য‌েকোন সমাজ ব্যবস্থার মুল উপাদান তার অর্থনীত‌ি বা উৎপাদন ব্যবস্থা। সামন্ত সমাজ‌ ব্যবস্থায় সহজ সরল হওয়ার জুম্মদ‌ের চ‌িন্তা চ‌েতনাও সহজ সরল। তখন সমাজ‌ের মধ্য ত‌েমন ক‌োন রাজন‌ৈতিক চ‌েতনা গড়‌ে উঠেনি। ঠ‌িক স‌ে অবস্থায় জুম্ম জনগণ‌ের অগ্রদুত মহান ন‌েতা মানবেন্দ্র নারায়ণ লারার আব‌ির্ভাব ঘট‌ে। ত‌িনি উপলব্দ‌ি কর‌েছিল‌েন জুম্ম জনগণ জাত‌ি হিস‌েবে ক্ষুদ্র, দুর্বল, ত‌েমন‌ি শ‌িক্ষা দীক্ষায়ও পশ্চাৎপদ। দুর্বল জাত‌ির পক্ষ‌ে পৃথ‌িবীত‌ে বেঁচ‌ে থাকা বড়ই কঠ‌িন। কারণ, দুর্বল‌ের উপর সবল‌ে অত্যাচার সবচ‌েয়ে ব‌েশি। এই দুর্বল জাত‌িদে‌র পৃথ‌িবীত‌ে বেঁচ‌ে থাকার একমাত্র উপায় হচ্ছ‌ে সংগ্রাম করা। আমাদের ন‌েতা তাই উপলব্দ‌ি কর‌েছিলেন। তারই প্রথম পদক্ষ‌েপ হ‌িসেবে আত্মন‌িয়ন্ত্রাণাধ‌িকার আন্দ‌োলন‌ এটাই ছ‌িল মহান ন‌েতার প্রথম পদক্ষ‌েপ। তাই ত‌িনিই আমাদ‌ের অগ্রদুত।

মানব‌েন্দ্র নারায়ণ লারমা ছাত্র অবস্থায় ব‌িভিন্ন প্রগত‌িশীল রাজন‌ৈতিক দল‌ের সাথ‌ে যুক্ত ছ‌িলেন ।ব‌িভিন্ন রাজন‌ৈতিক দল‌ের সাথ‌ে যুক্ত থাকার ফল‌ে তিনি উপলব্দ‌ি কর‌ে বুঝতে প‌েরেছ‌িলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম‌ের জুম্ম জনগণ‌ের সমস্যার কথা। এই উপলব্দ‌ি থেকে মহান ন‌েতা মানব‌েন্দ্র নারায়ণ লারমা পার্বত্য চট্টগ্রাম‌ে একট‌ি রাজন‌ৈতিক সংগঠন গঠন কর‌েন। অর্থাৎ, য‌ে দল জুম্ম জাত‌িকে সঠ‌িক পথ‌ে এগ‌িয়ে নিয়ে যাব‌ে এবং ম‌ুক্ত‌ি দিতে পারব‌ে। রাজন‌ৈতিক দল গঠন আত্মন‌িয়ন্ত্রণাধ‌িকার আন্দ‌োলন‌ে এম এন লারমার গুরুত্বপুর্ণ অবদান। স‌েই পশ্চাৎপদ জুম্ম জাত‌িকে মহান ন‌েতা মানব‌েন্দ্র নারায়ণ লারমা ক‌িভাব‌ে সংগঠন করত‌ে হয় তা শ‌িখিয়‌ে গেছেন। সংগঠনক‌ে ক‌িভাব‌ে নেতৃত্ব দ‌িতে হয় বুঝ‌িয়ে দ‌িয়ে গেছ‌েন। সংগঠনক‌ে রাজন‌ৈতিক রুপ দ‌িয়ে কিভাব‌ে সংগ্রাম করত‌ে হয় তা জুম্ম জাতিকে শিখ‌িয়ে গ‌েছেন। তাঁর অক্লান্ত প্রচ‌েষ্ট‌ায় কঠ‌োর পর‌িশ্রম‌ে জুম্ম জাত‌ির অধ‌িকার আদায়‌ের একমাত্র সংগঠন বা রাজন‌ৈতিক দল "পার্বত্য চট্টগ্রাম জন সংহত‌ি সম‌িতি" গঠন কর‌েন। পার্বত্য চট্টগ্রাম‌ে জন সংহত‌ি সম‌িতি গঠন কর‌ে নিয়মতান্ত্র‌িক আন্দ‌োলন‌ে‌র পথ প্রশস্ত করা ছ‌িল তাঁর প্রধান উদ্দ‌েশ্য। কারণ, গণতান্ত্র‌িক ব্যবস্থায় ন‌িয়মতান্ত্র‌িক আন্দ‌োলন একমাত্র সর্বজনস্বীকৃত ও বাস্তসম্মত। মহান ন‌েতা মানব‌েন্দ্র নারায়ণ লারমা ১৯৭০ সাল‌ে পাক‌িস্তান‌ের প্রাদ‌েশিক পর‌িষদ‌ে‌র ও ১৯৭২ সাল‌ে স্বাধীন বাংলাদ‌েশের সংসদ সদস্য ছ‌িলেন এবং স‌েই সময় ন‌িয়মতান্ত্র‌িক পদক্ষ‌েপ হ‌িসেব‌ে জুম্ম জাত‌ির সমস্যা সমাধান‌ের লক্ষ্য তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শ‌েখ মুজ‌িবের কাছ‌ে ৪ দফা প‌েশ কর‌েন। কিন্তু, শ‌েখ মুজ‌িব তা প্রত্যাখান কর‌ে এম এন লারমাক‌ে কটাক্ষ কর‌ে বাঙালী হয়‌ে যাওয়ার জন্য ন‌ির্দ‌েশ দ‌েন।

যারফল‌ে নিয়মতান্ত্র‌িক আন্দ‌োলের পথ রুদ্ধ হল‌ে এম এন লারমা পার্বত্য চট্টগ্রাম‌ে জনসংহত‌ি সম‌িতির সামর‌িক বা সশস্ত্র শাখা "শান্ত‌িবাহ‌িনী" গঠন কর‌েন । জুম্ম জনগণ‌ের ন‌িজস্ব সশস্ত্র ব‌াহি‌নী শান্ত‌ি বাহ‌িনী গঠন‌ের সমস্ত কাজ‌ে তিনি প্রথম সার‌িতে নেতৃত্ব দ‌িয়েছেন। শান্ত‌িবাহ‌িনীর জন্য রণনীত‌ি ও রণক‌ৌশল ন‌ির্ধ‌ারণ কর‌েন। একজন দশজন‌ের ব‌িরুদ্ধ‌ে লড়ো - এই রণনীত‌ি ও দশজনক‌‌ে একজন‌ের ব‌িরুদ্ধ‌ে লড়ো-রণ ক‌ৌশল প্রয়‌োগ কর‌েন। একজন দশজন‌ের ব‌িরুদ্ধে লড়ো -অর্থাৎ একজন ব্যাক্তিকে দশজন‌ের গুণসম্পন্ন হত‌ে হব‌ে। একজন ব্যাক্ত‌িকে যুদ্ধ‌ের পাশাপাশ‌ি সাংগঠন‌িক, তথ্যপ্রচারসহ সকল কাজ‌ে পারদর্শী হত‌ে হব‌ে। আর দশজনক‌ে একেজন‌ের ব‌িরুদ্ধ লড়ো - অর্থাৎ দশজন ব্যাক্ত‌ি মিলে একজনক‌ে আক্রমণ ক‌রে‌ সফলতা ন‌িশ্চ‌িত করত‌ে হব‌ে। ন‌েতৃত্ব হ‌িসেবে রণনীত‌ি ও রণক‌ৌশল ন‌ির্ধারণ এম এন লারমান গুরুত্বপুর্ণ অবদান। পার্বত্য চট্টগ্রাম‌ের ১১ ভাষাভাষ‌ি ১৪ ট‌ি জাত‌িগ‌োষ্ট‌ির অস্ত‌িত্ব রয়‌েছে। এই ১৪ ট‌ি জাত‌িগোষ্টীর মধ্য‌ে ভাষাগত প‌ার্থক্য থাকল‌েও অর্থন‌ৈতিক ও সাংস্কৃত‌িক, জীবন, চ‌িন্তা চ‌েতনা এক ও অভ‌িন্ন। এই ক্ষুদ্র জাত‌িগোষ্টীগুল‌োকে ঐক্যবদ্ধ কর‌ে আন্দ‌োলন‌ে যে ন‌েতৃত্ব দ‌েয়া সম্ভব তা মহান ন‌েতা মানব‌েন্দ্র নারায়ণ লারমা স্বার্থকভাব‌ে প্রমাণ কর‌েছেন। এম এন লারমার ক্ষুদ্র জাত‌িগুল‌োর মধ্য‌ে বৃহত্তর ঐক্য‌ের সৃষ্ট‌ির লক্ষ্য য‌ে জাতীয়তাবাদ‌ের ডাক দ‌েন তা হচ্ছে -জুম্ম জাতীয়ত‌াবাদ। আত্মন‌িয়ন্ত্রণাধ‌িকার আন্দ‌োলন‌ে মানব‌েন্দ্র নারায়ণ লারমার অবদান গুরুত্বপুর্ণ। ত‌িনি স‌েই পশ্চাৎপদ ও ঘুমন্ত জাত‌িকে জাগ্রত কর‌ে অধ‌িকার আদায়‌ের সংগ্রাম‌ে উদ্বুদ্ধ কর‌েছিলেন। জুম্মজাত‌ির অস্ত‌িত্ব ও জন্মভুম‌ির রক্ষার আন্দ‌োলন‌ে এম এন লারমার অবদান অপর‌িসীম।

জুম্মজাতীয় চেতনার অগ্রদূত
মহান নেতা মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার
সংক্ষিপ্ত জীবনপঞ্জী
নাম: মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমা
ডাক নাম: মঞ্জু
জন্ম: ১৫ সেপ্টেম্বর ১৯৩৯
জন্মস্থান: মহাপুরম (মাওরুম), বুড়িঘাট
মৌজা, নানিয়ারচর, রাঙ্গামাটি পার্বত্য
জেলা (বর্তমানে কাপ্তাই হ্রদের নীচে)
বিবাহ: ১৯৭১ সাল
পিতার নাম: চিত্ত কিশোর চাকমা
মাতার নাম: সুভাষিণী দেওয়ান
স্ত্রীর নাম: পঙ্কজিনী চাকমা
সন্তান: ১ ছেলে ও ১ মেয়ে;
ছেলে – জয়েস লারমা (জ্যেষ্ঠ সন্তান)
মেয়ে – পারমিতা লারমা (কনিষ্ঠ সন্তান)
ভাইবোন:
১। জ্যোতিপ্রভা লারমা, ডাকনাম – মিনু
(বড় বোন)
২। শুভেন্দু প্রভাস লারমা, ডাকনাম – বুলু
(বড় ভাই)
৩। জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা,
ডাকনাম – সন্তু (ছোট ভাই)
শিক্ষা জীবন:
(ক) প্রাথমিক শিক্ষা – মহাপুরম জুনিয়র
হাই স্কুল
(খ) ম্যাট্রিক – ১৯৫৮ সাল, রাঙামাটি
সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়
(গ) আই এ – ১৯৬০ সাল, চট্টগ্রাম সরকারি
কলেজ
(ঘ) বি এ – ১৯৬৫ সাল, চট্টগ্রাম সরকারি
কলেজ
(ঙ) বি এড – ১৯৬৮ সাল
(চ) এল এল বি – ১৯৬৯ সাল

কর্মজীবন:
(ক) ১৯৬৬ সালে দীঘিনালা উচ্চ বিদ্যালয়ে
সহকারী শিক্ষক পদে যোগদান।
(খ) ১৯৬৮ সালে চট্টগ্রাম রেলওয়ে কলোনী
হাই স্কুলে প্রধান শিক্ষক ছিলেন।
(গ) ১৯৬৯ সালে চট্টগ্রাম বার
এসোসিয়েশনে আইনজীবি হিসেবে
যোগদান।
রাজনৈতিক জীবন:
১৯৫৬ সাল থেকে ছাত্র আন্দোলনের
মাধ্যমে রাজনৈতিক জীবনে পদার্পন।
১৯৫৬ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম পাহাড়ী ছাত্র
সম্মেলনের অন্যতম উদ্যোক্তা।
১৯৫৮ সালে পূর্ব পাকিস্তান ছাত্র
ইউনিয়নে যোগদান।
১৯৬০ সালে পাহাড়ী ছাত্র সমাজে
নেতৃস্থানীয় ভূমিকা পালন।
১৯৬১ সালে কাপ্তাই বাঁধ নির্মাণের
বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগঠিতকরণ।
১৯৬২ সালে অনুষ্ঠিত পাহাড়ী ছাত্র
সম্মেলনের প্রধান উদ্যোক্তা।
১৯৬৩ সালের ১০ ফেব্রুয়ারী নিবর্তনমূলক
আইনে আটক (চট্টগ্রামের পাথরঘাটাস্থ
পাহাড়ী ছাত্রাবাস হতে)।
১৯৬৫ সালের ৮ মার্চ চট্টগ্রাম কারাগার
থেকে শর্ত সাপেক্ষে মুক্তি লাভ।
১৯৭০ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম নির্বাচন
পরিচালনা কমিটি গঠন ও অন্যতম
উদ্যোক্তা।
১৯৭০ সালে পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক
পরিষদের সদস্য নির্বাচিত।
১৯৭২ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারী প্রধানমন্ত্রী
শেখ মুজিবুর রহমানের নিকট ৪ দফা সম্বলিত
আঞ্চলিক স্বায়ত্বশাসনের দাবীনামা
পেশ।
১৯৭২সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি
সমিতি গঠন ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে
নির্বাচিত।
১৯৭২ সালের ৩১ অক্টোবর বাংলাদেশ
সংবিধানে জুম্মদেরকে ‘বাঙালি’ হিসেবে
আখ্যায়িত করার প্রতিবাদে গণ পরিষদ
অধিবেশন বর্জন।
১৯৭৩ সালে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের
সদস্য নির্বাচিত।
১৯৭৩ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি
সমিতির সভাপতির দায়িত্ত্ব গ্রহণ।
১৯৭৪ সালে সরকারের পার্লামেন্টারি
প্রতিনিধি হিসেবে কমনওয়েলথ সম্মেলনে
যোগদান উপলক্ষে লন্ডন সফর।
১৯৭৫ সালে বাকশালে যোগদান।
১৯৭৫ সালের ১৬ আগস্ট থেকে আত্মগোপন
করেন।
১৯৭৭ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি
সমিতির ১ম জাতীয় সম্মেলনে সভাপতি
হিসেবে পুনঃ নির্বাচিত।
১৯৮২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর পার্বত্য
চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির ২য় সম্মেলনে
সভাপতি হিসেবে পুনঃ নির্বাচিত।
মৃত্যু:
১৯৮৩ সালের ১০ নভেম্বর ভোর রাতে
বিভেদপন্থী গিরি-প্রকাশ-দেবেন-পলাশ
চক্রের বিশ্বাসঘাতকতামূলক অতর্কিত
আক্রমণে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার
পানছড়ি উপজেলার খেদারাছড়ার থুমে
নির্মমভাবে নিহত হন।

বিভাগ: 

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

রেবেল ওয়ারিয়র ব...
রেবেল ওয়ারিয়র ব্যাবিলন এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 1 দিন ago
Joined: রবিবার, ফেব্রুয়ারী 14, 2016 - 12:55পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর