নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • রসিক বাঙাল
  • এলিজা আকবর

নতুন যাত্রী

  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম

আপনি এখানে

“আমরা সেই পীর ধরা জাতি”


সমাজে,রাষ্ট্রে একটি জনগোষ্ঠীকে বিভাজন করা হচ্ছে বিভিন্ন শ্রেনী এবং গোত্রে।আর সেই সবের পিছনের কারন হচ্ছে রাজনৈতিক ও ধর্মীয় প্রভাব।আর এই বিভাজিত জনসংখ্যাকে আরো ক্ষুদ্র থেকে ক্ষুদ্রতর করা হচ্ছে মানুষের ব্যক্তিগত পছন্দের ভিত্তিতে,যেই ব্যক্তিগত পছন্দগুলো একান্ত মানুষের নিজের জীবনে প্রভাব বিস্তার করে অন্য কারো জীবনে প্রভাব বিস্তার করার সুযোগ নেই,কিন্তু তবুও সমাজ-জাতি বিভাজিত হয়ে যাচ্ছে।ধর্ম যখন চোখের সামনে এক সাথে ভয় আর পরকালের প্রাপ্তির লোভ দেখিয়ে মানুষ্য বিবেককে হতবুদ্ধ করে,এবং ধর্মান্ধ মানুষগুলোকে করে তুলে হিংস্র রক্ত শোষক এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে আত্নঘাতি।আর যারা সমাজের সাধারন অল্প চিন্তার এবং ভীত অজ্ঞ মানুষের দূর্বল আবেগগুলোকে ব্যবহার করে তাদের দিয়ে ধর্মের নামে অরাজকতা ছড়িয়ে যাচ্ছে হাজার হাজার বছর ধরে তাদের সংঙ্গা তো অনেক কিছু আছে,কিন্তু মুক্ত চিন্তার মানুষের কাছে তারা হচ্ছে ভন্ডপীর বা অন্ধবিশ্বাসীর পীর বাবা। সেরকম পীর বাবা বাংলাদেশের রাজনীতির আষ্টে-পৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে।

আমাদের বাস্তব জীবনে পীরের অভাব নেই, আজ পীরদের জায়গা দখল করে আছে আমাদের দেশের অধিকাংশ রাজনীতিবিদ। আমাদের মনের মতো কেউ মুখরোচক কথা বললেই তাকে পীর মানা শুরু করি। আর একবার পীর মানলেই তার দোষ গুন আর চোখে পড়ে না, সে সমালোচনার উর্দ্ধে অবস্থান করে, যেইভাবে আমরা প্রভূকে স্থান দেই। এই ফেসবুকেও তাই অনেকেই পীর ধরে চলে, অনেকই হয়তো জানেন না একটা আইডি একটা মানুষের কারো কারো ইমভেস্টমেন্টও, কোন কারনে একটা আইডি দাড়িয়ে গেলে ভাল লাইক কমেন্ট কিংবা ফলোয়ার হয়ে গেলে প্রতিষ্ঠিত হয়ে যায় তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার।

তাই অনেকেই তখন বিচার করার ক্ষমতা ও হারিয়ে ফেলে। সে যদি মিথ্যা গোড়ামী ও দেয় ধীরে ধীরে তবুও তাকেই অনুসরন করে, এটাই খারাপ একটি দিক। কিছু বিষয় খুব ধীরে ধীরে মানুষের মস্তিষ্কে প্রবেশ করানো হয় যা কেউ উপলদ্ধী করার আগেই ব্রেন ওয়াশ হয়ে যায়।

অথচ আমাদের অধিকাংশই চায় না নিজের মেরুদন্ডের উপরে দাড়াতে। আমাদের মধ্যে যারা নেতা আছে তারাও ঐসব ছা-পোষা মুরিদদেরকেই বেশী পছন্দ করে থাকে। যখনই তার চেয়ে বেশী যোগ্যতাসম্পন্ন কাউকে দেখে তখনই তাকে প্রতিদ্বন্দ্বী কিংবা শত্রু ভাবা শুরু করে এবং সেটাই সবচেয়ে ক্ষতিকর দিক।

অধিকাংশই পীরই চান না তার কোন সমকক্ষ থাকুক। সে তার মুরিদগন নিয়ে তার পথেই চলতে ভালবাসেন। এবং মুরিদগনও এক সময় অন্ধ বিশ্বাসে ভালবেসে থাকেন। তখন সাধারনের চোখে অনেক কিছু ভুল মনে হলেও ঐ মুরিদদের চোখে সেটাকে সব সময়েই সঠিক মনে হয়। এর বড় উদাহরণ হিসেবেই দেখবেন কেউ কেউ এতোটাই নেতা প্রেমী কিংবা ফেসবুকে সো কল্ড সেলেব্রেটী প্রেমী যে তার বিন্দু সমালোচনা মুরিদগন নিতে পারে না।

কিছু বললে যতোটা না পীরের গায়ে লাগে তার চেয়ে বেশী লাগে ঐসব অন্ধ অবিবেচক মুরিদগুলোর উপর। এই জাতি যতোদিন নিজের পায়ে না দাড়িয়ে পীরের উপর ভর করে দাড়াতে চাইবে ততোদিন অন্ধ সমর্থক ঠিকই বাড়বে তাতে সম্পূর্ণ ঐ পীর গুলোর ইচ্ছের উপরেই নির্ভর করবে যে তারা কি তাদের মুরিদগনকে সঠিক পথে পরিচালিত করবে নাকি, নিজের সুবিধার জন্য ব্যবহার করবে? যতোদিন এমন থাকবে ততোদিন এই জাতির কপালে প্রকৃত গনতন্ত্র জুটবে না

তাই ঘুম ভাঙ্গুক সকলের এই প্রত্যাশাতেই অপেক্ষামান এই আমি। পীরের আস্তানা গুড়িয়ে লাল শালুহীন বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে সংগ্রাম চলবেই চলবে। উদ্দেশ্য একটাই সচেতন স্বশিক্ষিত সমাজ গড়া।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

হিউম্যানিস্ট বা...
হিউম্যানিস্ট বাই নেচার এর ছবি
Offline
Last seen: 22 ঘন্টা 23 min ago
Joined: বুধবার, এপ্রিল 5, 2017 - 4:57পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর