নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • রসিক বাঙাল
  • এলিজা আকবর

নতুন যাত্রী

  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম

আপনি এখানে

যয়নব, মুহাম্মদ ও আল্লাহর নৈতিকতা ১:



আল্লাহ মুহাম্মদের পুত্রবধূ যয়নবের সঙ্গে তার বিয়েকে অনুমোদন দিয়েছিল অনৈতিক যৌন কামনা চরিতার্থ করার জন্য । হ্যা, মানতে কস্ট হলেও এটাই সত্য ! এই বিয়েটা ছিল যয়নবের প্রকৃত বিয়ে করা স্বামী যায়েদের জন্য জীবন ধ্বংসকারী এক অভিজ্ঞতা । মুহাম্মদের অন্যান্য স্ত্রীদের যয়নব বলেছিল : “তোমাদের বিবাহের ব্যবস্থা করেছিলেন তোমাদের পিতারা, কিন্তু আমার জন্য বিবাহ ঠিক করেছিলেন সাত আসমানের উপর থেকে আল্লাহ।” এই কথা বলে যয়নব অন্যান্য নারীর তুলনায় তার শ্রেষ্ঠত্ব জাহির করেছিল। ইতিহাসের এই ঘটনাটা এখনও পর্যন্ত মুসলমানদের তাড়িয়ে ফেরে ! আল্লাহকে দত্তক গ্রহণের প্রথা নিষিদ্ধ করতে হয়েছিল মুহাম্মদের যৌন লালসাকে পরিতৃপ্ত করার জন্য আর একটি নিকৃষ্ট বিধান চালু করতে হয়েছিল যাতে করে প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ নারীর স্তনদুধ খেতে পারে! মুসলমানরা এখন পর্যন্ত “পর্দা (হিজাব) আয়াত” সম্পর্কে কনফিউসড এবং বিভক্ত, আর মুসলমান নারীরা ইসলামের অন্ধকার গর্তে। কোরান এবং আল্লাহর নবীর নানা জীবনীগুলোতে এই ঐতিহাসিক ঘটনাগুলো উল্লেখ করা আছে এবং এগুলোর যথার্থতা সম্পর্কে কোন মুসলমান সচরাচর প্রশ্ন করতে পারে না !

যয়নব বিন্‌তে জাহ্‌শ তার মায়ের দিক থেকে মুহাম্মদের সম্পর্কিত ছিল। যয়নব মুহাম্মদের থেকে তেইশ বছরের ছোট ছিল। মক্কায় বসবাসের সময় মুহাম্মদের তার সৌন্দর্য চোখে পরেছিল। তাই মুহাম্মদ তাকে যায়েদের স্ত্রী হিসাবে পছন্দ করেছিল । অপরদিকে যায়েদ ইব্‌ন হারিথা একজন আরব দাস, যাকে মুহাম্মদের প্রথম স্ত্রী খাদিজাকে উপহার হিসাবে দেওয়া হয়। খাদিজার মৃত্যুর পর মুহাম্মদ যায়েদকে উত্তরাধিকার সূত্রে পেয়ে যায় আর যেহেতু খাদিজা তাকে খুব পছন্দ করত, সেহেতু মুহাম্মদ যায়েদকে দত্তক পুত্র হিসাবে গ্রহণ করে ।

দত্তক প্রথাটাকে আরবরা সাম্যবাদী চোখে দেখত। আরবের প্রথানুযায়ী দত্তক সন্তানরা মা-বাবার আপন সন্তানদের মত অধিকার ভোগ করত। যায়েদ তার প্রভু মুহাম্মদের প্রতি দৃষ্টান্তমূলক বাধ্যতা ও আনুগত্য দেখিয়েছিল এবং তার সেবায় অনন্ত নিবেদিত ছিল। মুহাম্মদও যায়েদের প্রতি সদয় ছিল, এবং সেটা এত বেশী যে, মুহাম্মদ তাকে তার পুত্র হিসাবে দত্তক নেয়।

আনুমানিক ৬২৯ খ্রীষ্টাব্দে মদীনায় যায়িদ এবং যয়নবের বিয়ে হয় আর সেই সময় মুহাম্মদ আরবের একজন বিখ্যাত রাজনৈতিক নেতা । এই বিয়েতে নাকি যয়নব এবং তার ভাই আপত্তি জানিয়েছিল, তাদের যায়িদের তুলনায় শ্রেণীগত উচ্চ অবস্থানের জন্য । অনেক ক্ষেত্রে এরকম দাবীরও উল্লেখ পাওয়া যায় যে যয়নব যায়িদকে না, মুহাম্মদকে বিয়ে করতে চেয়েছিল । ইচ্ছেটা খুব একটা অযৌক্তিক নয়, মদীনায় সেই সময়ে মুহাম্মদের প্রতিপত্তির কথা মাথায় রাখলে, যদিও যায়িদ কোনো আফ্রিকান দাস ছিল না, সে ছিল একজন আরব যুদ্ধবন্দী।

যায়িদ ও যয়নব স্বামী-স্ত্রী মদীনায় যখন তাদের নিজগৃহে থাকত, সেই সময় একদিন যায়িদ বাড়ী না থাকালীন হঠাত মুহাম্মদ তাদের বাড়িতে আসে। মুহাম্মদ যখন দরজায় দাঁড়িয়ে তখন দরজার হাল্কা পর্দা হওয়াতে সরে যাওয়ার ফলে মুহাম্মদ ঘরের ভিতরে থাকা যয়নবকে প্রায় নগ্ন অবস্থায় দেখতে পায়- এটার নানা কারণ হতে পারে, যেমন যয়নব হয়ত তখন সদ্য স্নান সেরে তৈরী হচ্ছিল, কিন্তু সেটা এখানে মুখ্য নয় ! মুহাম্মদ প্রায় উলঙ্গ সুন্দরী যয়নবকে দেখে হতচকিত হয়ে :“সকল প্রশংসা আল্লাহর, হৃদয় যেভাবে চায় তিনি সেভাবে বদলে দিতে পারেন”-- মন্তব্য করে চলে যায় । মানেটা খানিকটা এরকম: মুহাম্মদ যখন যায়িদের সাথে যয়নবের বিয়ে দিয়েছিল তখন সে যয়নবকে যে চোখে দেখত, আজ তার উলঙ্গ সুন্দরী যয়নবকে দেখে দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টেছে !

কী এমন পরিবর্তন হয়েছিল যয়নবের যাতে মুহাম্মদের মাথা ঘুড়ে গেল ? মুহাম্মদের যখন যয়নবের দিকে চোখ পরেছিল তখন নিশ্চই সে তার ব্যক্তিত্বে কোন পরিবর্তন দেখেনি ! দেখেছিল যৌন আবেদনময় এক প্রায় নগ্ন নারীকে। যাবার সময় মুহাম্মদ যা বলেছিল আর যা কিছু ঘটেছিল যয়নব সেটা তার স্বামীকে বলেছিল। অনেক সংসারে পরিবারের নারী এবং পুরুষরা কখনো কখনো একে অপরকে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে দেখে ফেলে। সেই ঘটনা তারা উপেক্ষা করে অথবা সম্পূর্ণরূপে ভুলে যাবার চেষ্টা করে যাতে এসবের কোন ধরনের ক্ষতিকর প্রভাব তাদের জীবনে না পরে। যয়নবের বাড়ির দরজায় যা ঘটেছিল সেটা মুহাম্মদ ছাড়া অন্য কোন লোক হলে সেখানেই শেষ হয়ে যেত !

(চলবে..................................)

Comments

কাঠমোল্লা এর ছবি
 

মুহাম্মদের জন্যে যে কোন লোকের স্ত্রীকেও হালাল করা হয়েছিল কারন আল্লাহ জানত মুহাম্মদ ছিল একটা জাত লুইচ্চা। তাই মুহাম্মদের লুইচ্চামির খায়েশ পুরনের জন্যেই আল্লাহ সদা ব্যস্ত থাকত। এতে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই , বরং এতে আল্লাহর মহান দয়ার গুনের কথাই বোঝা যায়।

 
পার্থিব এর ছবি
 

আল্লাহ মুহাম্মদের পুত্রবধূ যয়নবের সঙ্গে তার বিয়েকে অনুমোদন দিয়েছিল অনৈতিক যৌন কামনা চরিতার্থ করার জন্য ।

সেই পুরাতন চর্বিত চর্বন। রফারেন্স ছাড়া চটি রচনা। কাউকে বিয়ে করে যৌন কামনা চরিতার্থ করার মধ্যে কোন অনৈতিকতা নেই ভায়া। অনৈতিকতা হচ্ছে বিয়ে না করেই যে কোন সংখ্যক মেয়েকে বিছানাতে নিয়ে যৌন সম্ভগ করা। যেটা আপনাদেরই আদর্শ। আপনাদের কথিত সভ্য দেশগুলোতে বিয়ে না করেই অবাধ যৌন সম্ভগ, নাইট ক্লাবে গিয়ে মেয়ে ভাড়া করে রাত্রি যাপন খুবই সাধারন আর নিত্য নৈমত্তিক ব্যাপার। এ ধরনের আদর্শ নিয়ে ইসলামের বিরুদ্ধে লড়াটা খুবই হাস্যকর একটা ব্যাপার।

 
কাঠমোল্লা এর ছবি
 

মুহাম্মদ অর্ধ নগ্ন জয়নাবকে দেখে উন্মাদ হয়ে গেছিল তার ইমান দন্ড খাড়া হয়ে গেছিল। এসব লেখা আছে আল তাবারিতে সুন্দরভাবে। এর পরেও বলবেন রেফারেন্স ছাড়া কথা।

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

রাজর্ষি ব্যনার্জী
রাজর্ষি ব্যনার্জী এর ছবি
Online
Last seen: 9 min 21 sec ago
Joined: সোমবার, অক্টোবর 17, 2016 - 1:03অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর