নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • রসিক বাঙাল
  • এলিজা আকবর

নতুন যাত্রী

  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম

আপনি এখানে

প্রিয় টুকটুকি, মামনি অামার !


টুকটুকি, মামনি অামার! অাব্বুকে অাব্বু ডাকতে তুমি শিখেছ অারো দু'বছর পূর্বে। চকলেটকে চক্কা, বিস্কুটকে বিক্কু, কমলাকে কম্মা, ভাতকে বাক, গোস্তকে গুক্কু বলতে তুমি।
গ্রামে গেলে মাঠেঘাটে তোমাকে কোলে নিয়ে ঘুরে বেড়াতাম, তোমার অাম্মু এবং নানু টেনশন করতো - দুই বছরের মেয়েকে নিয়ে এত সময় কেউ বাইরে থাকে?

তোমাকে নদীরপাড়ে, খোলা ফসলের মাঠে, সবুজ ঘাসের উপরে হাঁটাতাম হাত ধরে ধরে - মনে পড়ে কি মা?
তুমি যা কিনতে চাইতে তা-ই কিনে দিতাম নির্দ্বিধায়। ইমাম সাহেবের মেয়ে হওয়ায় তোমাকে ভালোবাসতো সবাই, অাদর করতো সবাই।

বাসা থেকে তোমাকে ফাঁকি দিয়ে বের হওয়া যে কত কঠিন কাজ ছিল তা কি তুমি জানো? 'কোলে' বলতে পারতে না, বলতে - অাব্বু, কুযা ! (কোলে উঠতে চাওয়ার ভাষা।)

মা টুকটুকি, কিছু বুঝে ওঠার অাগেই তোমার অাব্বু এবং অাম্মুর পথ ভিন্ন হয়ে গেল! তুমি এখনো তোমার অাব্বুর কোলে উঠতে চাও নিশ্চয়ই? কিন্তু পাচ্ছ না!
তোমার অাব্বু কি তোমাদেরকে ফাঁকি দিয়ে পালিয়েছে? তোমার অাব্বু কি সন্তানের দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করেছে?
.....এসব জ্বলন্ত প্রশ্ন, সময়ই বলে দেবে এর উত্তর ।

প্রিয় মামনি, অামি তোমাদের টানে বাংলাদেশে ফিরে অাসতে চেয়েছিলাম, কিন্তু অামি নিজে একজন সাবেক হেফাজতী হিসেবে হেফাজতী তথা ইসলামিস্ট-সাইকোলজী সম্পর্কে অজ্ঞ নই।
অামি তেঁতুল হুজুরের কাছে জীবনের নিশ্চয়তা চাইলাম, তেঁতুল হুজুর ইসলাম গ্রহণের শর্তে নিরাপত্তাদানের অঙ্গীকার করলেন !
প্রিয় মামনি, তোমার অাম্মু যে ইসলামের প্রতি অনুরক্ত সে ইসলাম কি একজন বাবার কোলে সন্তানের থাকার অধিকারকে সমর্থন করে?
অামার বুকে মাথা রেখে অামার টুকটুকি ঘুমাবে, এটা কি তারা সমর্থন করবে?
অামি অাবারো অামার টুকটুকিকে কোলে নিয়ে মাঠেঘাটে, সবুজঘাসে হাঁটবো এটা কি তারা মেনে নেবে?
তারা কি মা, বাবা, সন্তান, স্ত্রী, প্রিয়জনের কাছে প্রিয়জনকে থাকতে দিতে চায়; নাকি অন্ধকারে পেছন দিক দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে মানুষকে?
তারা কি মায়ের কোল থেকে সন্তানকে, সন্তানের কোল থেকে মাকে, মাসুদের কোল থেকে টুকটুকিকে ছিনিয়ে নেয়নি?
অাবার কতিপয় ধান্ধাবাজ বলে, তারা নাকি শান্তির প্রতিভূ!

লক্ষ লক্ষ তেঁতুল এবং বরই বসে অাছে বাংলাদেশে, অামাকে হত্যা করে বেহেশত পাবার অাশায়। তা-ও অামি ফিরে অাসতাম, কিন্তু তোমার অাম্মু মুরতাদের সাথে থাকতে রাজি নয়, এবং মুরতাদ বাবার সাথে সন্তানের দেখা করতে দিতে রাজি নয়, তাহলে কার কাছে ফিরবো অামি ?

তোমার অাম্মু একজন খাঁটি ইসলামিক নারী, পীর বংশের মেয়ে। শৈশব হতে সে তার বাবা-মা, মামা, খালু, চাচাদেরকে দেখেছে, যারা ধার্মিক হয়েও ভালো মানুষ। বিয়ে হয়েছে একজন পরহেজগার হুজুরের সাথে, স্বামীও তার দৃষ্টিতে ভালো মানুষ ছিল। অালেমের কাছে মেয়ে বিয়ে দেয়ার নিয়ত ছিল তোমার সরকারি অফিসার নানাজীর। তিনি অালেমের কাছেই মেয়েটা বিয়ে দিলেন, এবং মেয়ে-জামাই যথারীতি দশবছর অধিককাল সুখে কালাতিপাত করতে লাগলো।

তারপরে যা ঘটে গেল তা তো বর্তমান সময়ের অালোচিত ঘটনা !

প্রিয় টুকটুকি, অারেকটু বড় হলে তোমার উপরে চেপে যাবে বোরকা নামক একটি পোশাক। তোমার বাবার কোলে থাকলে বিশ বছর বয়স হলেও তোমার বোরকা পরার প্রয়োজন হতোনা, তোমার বাবা কোন ভীরু কিংবা অথর্ব বাবা নয় টুকটুকি, ইভটিজারের বাপেরনাম ভুলিয়ে দেয়ার শক্তি রয়েছে তোমার বাবার। অবশ্য তারপরও তোমার মা দোজখের শাস্তি থেকে বাঁচতে বোরকা পরতো! অামি বলতাম - বোরকা ছেড়ে দাও, তোমার দিকে কেউ বাজে দৃষ্টি দিলে তার চোখ অামি উপড়ে ফেলবো! কিন্তু সে বোরকা পরতো শুধুমাত্র দোজখের অাগুন থেকে বাঁচার জন্য!

অামি যখন ইমাম ছিলাম তখন মাঝেমাঝে এমন হতো - বাসা থেকে নামাজ পড়ানোর জন্য মসজিদের উদ্দেশ্যে বেরিয়েছি, তুমি কাঁদছো অাব্বুর সাথে বাইরে ঘোরার জন্য; রাস্তায় এসে কান্নার অাওয়াজ পেয়ে পুনরায় বাসায় ফিরে এসে তোমাকে কোলে করে মসজিদে যেতাম। অামার মাদ্রাসার একজন শিক্ষককে নামাজ পড়াতে বলতাম, অার অামি
মসজিদের দোতলায় গিয়ে তোমাকে পাশে বসিয়ে নামাজ পড়তাম। অাবার তুমি অন্য কোথাও চলে যাও কিনা তাই একজন ছাত্রকে তোমার পাহারায় রাখতাম! দেড় দুই বছরের বাবু তখন তুমি, তোমার তো সেসব মনে না থাকারই কথা।
এখন সবেমাত্র অাড়াই বছর বয়স তোমার।

প্রিয় টুকটুকি, তোমাকে খুব অনুভব করি। কল্পনা করি মাঝেমধ্যে - টুকটুকি অামার কাঁধে চড়ে ঘুরছে চিড়িয়াখানা, ঘুরছে এয়ারফোর্স মিউজিয়াম, ঘুরছে শিশুপার্ক, ঘুরছে ক্যান্টনমেন্টের পার্কে!

প্রিয় টুকটুকি মামনি, অনেক দূর প্রবাসে তোমার অাব্বু এখন। শান্তির ফেরিওয়ালাদের কারণে তোমার বাবা এখন নিভৃতচারী। হয়তো তোমাকে কোলে নিতে পারবোনা কোনোদিন। শান্তি নামক একটি ধর্ম নাকি মানুষে মানুষে বন্ধন দৃঢ় করে, মডারেটরা বলে থাকে! অথচ শান্তি নামক ধর্মের অনুসারীরা এখন ধারালো অস্ত্র নিয়ে প্রতিনিয়ত অামাকে খুঁজে বেড়ায়, অামি নাকি তাদের গুরুদেবের সর্বনাশ করছি!

প্রিয় টুকটুকি, শান্তি নামক ধর্মে একটি শিশুর শৈশবকে হত্যা করার সুনিপুণ পদ্ধতি বাতলে দেয়া অাছে। একটি নারীর পুরো জীবন অর্থহীন করার সুচতুর ব্যবস্থা রয়েছে। অার তাই হাজারো মানুষের শৈশব বাঁচাতে, হাজারো টুকটুকির জীবন বাঁচাতে অামি এখন এক লড়াকু যোদ্ধা হয়ে গেলাম।

অামি এখন শুধু এক টুকটুকির বাবা নই, অামি এখন পৃথিবীর সব টুকটুকির বাবা।

প্রিয় টুকটুকি মামনি, সুদূরে থেকেও তোমার কাছে খোলা চিঠি পাঠালাম। বড় হয়ে যদি কোনোদিন তোমার সমাজকে তুমি নিরাপদ মনে না কর তাহলো চলে এসো বাবার কাছে, তোমার বাবার স্নেহ তোমার জন্য অপরিসীম, ঠিক অাগের মতই।

Comments

নষ্ট নীড় এর ছবি
 

সত্যি আপনজনের প্রতি ভাল বাসা গুলি প্রকাশ করেও শেষ করা যায়।প্রতিটি শব্দ আমার মধ্যে কষ্টকর অনুভূতি তৈরি করেছে।সন্তান কে কাছে পাওয়া, আদর করা এক বাবার ইচ্ছে গুলি আমাকে দুঃখ দিয়েছে।কি পেয়েছি কি হারিয়ছি এই প্রশ্নগুলির মুখামুখি হতে চাই না।

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

মুফতি মাসুদ
মুফতি মাসুদ এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 2 দিন ago
Joined: সোমবার, আগস্ট 14, 2017 - 6:00অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর