নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • মাইকেল অপু মন্ডল
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি
  • সুবর্ণ জলের মাছ
  • দ্বিতীয়নাম

নতুন যাত্রী

  • অনুপম অমি
  • নভো নীল
  • মুমিন
  • মোঃ সোহেল রানা
  • উথোয়াই মারমা জয়
  • শাহনেওয়াজ রহমানী
  • জিহাতুল
  • আজহারুল ইসলাম
  • মোস্তাফিজুর রহম...
  • রিশাদ হাসান

আপনি এখানে

ধর্ম ও উপসনা ধর্ম


কেউ যদি প্রশ্ন করেন- ধর্ম কি? কিংবা ধর্ম বলতে আপনি কি বোঝেন ইত্যাদি তবে প্রথমেই আমার মাথায় একটা কোতুহলী প্রশ্ন আসে যে- এই প্রশ্ন প্রশ্নকারী কোন মানসিকতায় করেছেন?

একটি বালক যদি প্রকৃতই ধর্ম কি তা জানার জন্য সরলভাবে ঐ প্রশ্নটি করে, তবে বুঝে নেওয়া যায় যে সেই বালকটি ধর্মের অর্থ কিংবা সংজ্ঞা জানতে চায়। কিন্তু পরিপূর্ণ বয়োসের একজন মানুষ (পুরুষ অথবা মহিলা) ঐ প্রশ্নটি করলেই বোঝা যায় যে তার সেই প্রশ্নের অন্তরালে একটা বিশেষ উদ্দেশ্য থাকে। সে নিজে ধর্ম বলতে যা বোঝে তারই প্রতিফলন সে প্রত্যাশা করে উত্তর দাতার নিকট। অথবা সে যখন বোঝে যে একজন মানুষ প্রচলিত ধর্ম সম্পর্কে বিরুপ প্রতিক্রিয়া প্রদর্শন করে তখন তার মনে ও মগজে যে হিংসাত্মক প্রতিক্রিয়া উদিত হয় তা প্রশমিত করনার্থেই সে ঐ প্রশ্ন করে থাকে।

আমি এখানে একাডেমিক শিক্ষাপ্রসুত শব্দার্থ বা সংজ্ঞা আলোচনা করবোনা। আমার নিজস্ব কিছু অনুভুতি শেয়ার করবো মাত্র।
জৈনক এক বিজ্ঞানীর মতে; প্রত্যেক বস্তুর সমান ও বিপরীত প্রতিক্রিয়া রয়েছে,যাহা হচ্ছে ঐ বস্তুর ধর্ম।ধর্ম বলতে আমি বুঝি পদার্থের গুণ এবং ক্রিয়া।যেমন আগুনের ধর্ম দহন, পানির ধর্ম নিম্নগামী প্রবাহ, সিক্তকরন ইত্যাদি।আগুন বা পানি কোনো প্রাণী নয়,বস্তু। আর বিবৃত বিষয়গুলো এদের গুণ,সেই অর্থে ধর্ম।অর্থাৎ আগুনের ধর্ম দাহ্যকরণ,পানির ধর্ম সিক্তকরণ।পশুদের এমনি অনেক ধর্ম আছে।কিন্তু মানুষের ক্ষেত্রে গুণবাচক ধর্মের বাইরেও আরেকটি ধর্ম যোগ হয়েছে যাকে বলা হয় উপাসনা ধর্ম।

মানুষ ব্যতিত মহাবিশ্বের আর কিছুই উপাসনা ধর্ম পালন করেনা। তাহলে বুঝা যায় যে মহাবিশ্বে মানুষের আবির্ভাবের পূর্বে আর কেহই বা কিছুই উপাসনা ধর্ম পালন করতোনা। মহা বিশ্বে মানুষের আবির্ভাব কিছুকালের বিষয় মাত্র। তার পূর্বে কুটি কুটি শতকুটি বছর উপাসনা ধর্ম বলে কিছু ছিলোইনা।মানবসমাজের উৎপত্তির সুতিকা পর্বেও উপাসনা ধর্ম ছিলোনা।প্রাচীন গুহাযুগেই সম্ভবত: উপাসনা ধর্মের উতপত্তি। সেই উতপত্তির অজস্র নানা ব্যাখ্যা রয়েছে। যেগুলোর মূল কেন্দ্রে রয়েছে সূর্য, চন্দ্র, গ্রহাদি, বৃক্ষ, সাগর, পর্বত ইত্যাদি। মানুষের মন ও মগজে ঐসকল বস্তুর গুণ-ধর্মই মানুষকে উপাসনায় প্রবৃত্ত করিয়েছিলো।আর সেই ধারাবাহিকতায় কালের বির্বতনে বিভিন্ন ধর্ম সাধক,নবী ও রাসূল তাদের লোভ লালসার উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য বিভিন্ন সাজানো গল্প কাহিনী ও মতবাদকে স্বর্গীয় আদের্শ বলে চালিয়ে গেছেন।ঐসব অসাধু ধর্ম ব্যবসায়ীরা ব্যক্তি স্বার্থে ঐসব মতবাদ প্রচার ও প্রসার করেছেন।বর্তমানে ঐসব কাল্পনিক মিথ্যা সাজানো মানব বিদ্বেষী মতবাদ গুলোই ধর্ম হয়ে মানুষের সকল কিছুর নিয়ন্ত্রক হয়ে গেছে। অথচ এই সব মতবাদের কোনো বাস্তব সম্মত প্রমান নেই, এবং প্রমান দিতে ব্যর্থ।কিন্তু সাধারন মানুষকে বোকা বানানোর কৌশল কিন্তু ঐসব পুরানো ধর্ম সাধকদের আধুনিক অনুসারীদের ভালো জানা।তাই তারা অধিকাংশ সাধারন মানুষকে মিথ্যা ভিত্তিহীন উপসনার ধর্মীয় মততবাদ খুব সহজে বুঝাতে সক্ষম হচ্ছেন,আর তার মাধ্যমে তাদের পূর্বসরিদের মতো তারাও ব্যক্তি স্বার্থ বেশ ভালোভাবে আদায় করেন।মানুষ হচ্ছে তাদের ধর্ম ব্যবসায়ের পন্য যাহা ক্রয়-বিক্রয় দুই হচ্ছে।

বস্তুর উপরের উল্লেখিত ধর্মগুলো বাস্তব সম্মত ও ব্যবহারিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে বিজ্ঞান বহুকাল ধরে প্রমান করে আসছেন।সেই সাথে বিজ্ঞান ধর্মীয় সব কুসংস্কারের ও প্রাচীন থেকে বর্তমান সকল ধর্ম ব্যবসায়ীদের মুখোশ খুঁলে দিচ্ছেন। বিজ্ঞান অনেক ধর্মীয় মতবাদের ভূল প্রমান করেছেন।কিন্তু তারপরও উপসনা ধর্মের মিথ্যাটাকে আঁকড়ে ধরে রেখেছেন অধিকাংশ মানুষ সেই প্রচীন কাল থেকে।সব ধর্মের সৃষ্টি প্রচীন মিথগুলো থেকে যাহার সত্যতা যাচাই করতে পারছে না স্বয়ং আধুনিক ধর্মগুরুরাও।
কিন্তু শুনতে অবিশ্বাস্য হলেও "ধর্ম" বলতে ঐ উপাসনা ধর্মকেই অধিকাংশ মানুষ বুঝে এবং বুঝাই।অথচ যেখান থেকে ধর্মের উৎপত্তির সেই বস্তুবাদ উপসনা ধর্মকে অবাস্তব বলছে।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

হিউম্যানিস্ট বা...
হিউম্যানিস্ট বাই নেচার এর ছবি
Offline
Last seen: 4 দিন 17 ঘন্টা ago
Joined: বুধবার, এপ্রিল 5, 2017 - 4:57পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর