নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • লিটমাইসোলজিক
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • কাঠমোল্লা
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • জহিরুল ইসলাম
  • নুর নবী দুলাল

নতুন যাত্রী

  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান
  • একরামুল হক
  • আব্দুর রহমান ইমন
  • ইমরান হোসেন মনা
  • আবু উষা
  • জনৈক জুম্ম
  • ফরিদ আলম
  • নিহত নক্ষত্র

আপনি এখানে

জন্মনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থায় অনীহা রোহিঙ্গা নারীদের”.........নাস্তিক (বাংলাট্রিবিউন)


জন্মনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থায় অনীহা রোহিঙ্গা নারীদের”

পোর্টালটির ফেসবুক পেইজে এই খবরের নিচে অনেক কমেন্ট পড়েছে-
১) Shazzad Hossain : এইজন্য মায়ানমার ওদের লাথি মেরে বের করে দিসে
২) Rased Khan : সবাইকে অপারেশন করে বাচ্চা হওয়া বন্ধ করা হোক।
৩) Rased Khan : পেটে ভাত নাই,,,ওই কামের বেলায় ঠিকঠাক
৪) Rashidul Islam : উপায় নাই । রোহিঙ্গার অশিক্ষিত, কুসংস্কারাচ্ছন্ন, অদক্ষ, বিজ্ঞানবিমুখ, বিশ্বায়নের ধারা বিচ্যুত এইমানুষ গুলো বর্তমানে বাংলাদেশের জন্য মারাত্নক বোঝা বটে। রোহিঙ্গারা কোন সরকারের কাছেই তাদের আর্থ- সামাজিক, শিক্ষা- জ্ঞান- দক্ষতা উন্নয়ের সুয়োগ পায়নি। এরা সবার কাছে বিষফোঁড়া হয়েআছে।
৫) Mazedul Islam Rokon : এরা হল বাচ্চা উতপাদনের মেসিন... কয়েকদিনের মধ্যে দেশ ভরায় ফেলবে
৬) Safayat Ullah : আধুনিক শিক্ষার অভাব।
৭) Shariful Alam : এদের ইনঞ্জেকশন দিতে হবে
৮) Shamiz Shuvo : পেটে ভাত না থাকলেও বাচ্চা থাকতে হবে।
৯) ইফতেখার হোসেন : চুদার মেশিন শালিরা
১০) Raja Shahid : এটাই হোলো পাগল অশিক্ষিত বদ মাইশ বছরের আগা মাথায় বিয়ায়। নিজে খাইতে পায়না খালি পোলাাপান পয়দা করে। দেশের কপালে বিরাট খারাবী আছে। ১০ বছরের মাথায় এদের সংখ্যা হবে ৫০ লক্ষ,কক্সবাজারে এরা স্বাধীনতা ডাক দিবো।এরা মাদার চোদ।
(http://bit.ly/2wzKJzj)

কমেন্টকারীরা সবগুলো মুসলমানের বাচ্চা। অন্তত নাম দেখে মুসলমানই মনে হচ্ছে।
অথচ এত এত সন্তান সম্পর্কে আমাদের প্রাণপ্রিয় নবী করিম সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন- “তোমরা কুমারী ও অধিক সন্তান জন্মদানে সক্ষম নারীদের বিয়ে করো। কেননা কেয়ামতের দিন আমি আমার উম্মতের সংখ্যার আধিক্য দিয়ে অন্যান্য উম্মতের ওপর গর্ব করব।’(আবু দাউদ, হাদিস : ২০৫০)

অধিক উম্মত হলে আমাদের নবী কিয়ামতের দিন গর্ব করবেন, কিন্তু সেই অধিক সন্তানকে নিয়ে কেউ যদি গালি দেয়, হেয় করে, তবে সে কি ঈমানদার থাকতে পারবে ?

বাংলাট্রিবিউন পত্রিকাটি আওয়ামী নাস্তিক রেহমান সোবহানের ছেলে কাজী আনিস আহমেদের। বাংলাদেশে নাস্তিকতা ও ইসলামবিদ্বেষ ছড়ানো এদের উদ্দেশ্য। সেই নাস্তিকরা মুসলমানদের হেয় করে একটা নিউজ করলো, আর মুসলমানদের বাচ্চাগুলো সব ঝাপিয়ে পড়েছে সেই নাস্তিকের সাথে তাল মেলাতে।

প্রশ্ন আসে ইসলামে কি জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি গ্রহণ হালাল না হারাম ?

উত্তর- ইসলামের জন্ম নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ হারাম। পবিত্র কুরআন পাকে আছে-
১) “তোমরা অভাবের আশঙ্কায় সন্তানকে হত্যা করো না। আমি তাদের ও তোমাদের রিযিকের ব্যবস্থা করে থাকি, তাদের হত্যা করা নিঃসন্দেহে মহাপাপ।” (বানী ইসরাঈল : ৩১)

২) যারা অজ্ঞতা ও নির্বুদ্ধিতার দরুণ আল্লাহ প্রদত্ত রিযিককে আল্লাহরই প্রতি মিথ্যা দোষারোপ করে নিজেদের জন্য হারাম করে দিয়েছে এবং সন্তানদের হত্যা করেছে তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।” (আনআম : ১৪০)

যদি কোন মায়ের শারীরিক অসুস্থতা থাকে এবং সন্তান ধারণ করলে মৃত্যুর আশঙ্কা থাকে তবে জন্মনিয়ন্ত্রণ করা যাবে , তবে সেটা হালাল হবে না, মুবাহ হবে। কিন্তু খাওয়া – পরার কথা চিন্তা করে জন্ম নিয়ন্ত্রণ করা সম্পূর্ণ কুফরী এবং ঈমানহারা হওয়ার কারণ। কারণ রিজিকের মালিক একমাত্র আল্লাহ তায়ালা।

তাই শরীয়তের দৃষ্টিকোন থেকে রোহিঙ্গা মুসলমানরা সঠিক কাজটি করেছে, কিন্তু তাদের শরীয়ত পালনের যারা বিরোধীতা করছে, তারা কি ঈমানদার থাকতে পারবে ?

অনেকে হয়ত বলতে পারেন, তারা তো এখন বাংলাদেশে এসেছে। আমাদেরকে তাদের খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করতে হচ্ছে।

এ সকল লোকদের উদ্দেশ্যে বলবো-
আপনি নিজে কয় টাকা ঐ রোহিঙ্গাদের দিয়েছেন ?
১০, ২০, ৬০ বছর বয়সী যে ৪ লক্ষ রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে এসেছে, তারা যে এতদিন লক্ষ লক্ষ টন খাবার খেয়ে বেচেছিলো, সেই খাবার তাদের কে দিয়েছে ? আপনি কয় লোকমা খাবার তাদের দিয়েছেন ?
আসলে সমস্ত খাবার দেয়ার মালিক মহান আল্লাহ তায়ালা। হয়ত বাংলাদেশী এখন তাদেরকে কিছু খাবার সরবরাহ করছে, বিদেশ থেকে হাজার হাজার টন খাবার আসছে। ঐ রোহিঙ্গাদের পূজি করে অনেক বাংলাদেশীদেরও রিজিকের ব্যবস্থা হচ্ছে, অর্থনৈতিক উন্নতি হচ্ছে।
আসলে কেউ কাউকে খাবার দিতে পারে না । সে একটা উছিলা হতে পারে মাত্র। এ সম্পর্কে কুরআন পাকে আছে-
--“পৃথিবীতে বিচরণশীল এমন কোন জীব নেই যার রিযিকের দাইত্ব আল্লাহ তা‘আলা গ্রহণ করেননি। (হূদ : ৬)
--“অসংখ্য জীব এমন আছে যারা কোন মওজুদ খাদ্য ভাণ্ডার বয়ে বেড়ায় না, অথচ আল্লাহ-ই এদের রিয্ক দিয়ে থাকেন তিনি তোমাদেরও রিয্কদাতা।” (আনকাবুত : ৬০)
মহান আল্লাহ তায়ালা যে সমস্ত প্রাণীর রিজিকের জিম্মাদার তার সবচেয়ে বড় দলিল হচ্ছে, কোন সন্তান জন্মগ্রহণ করা মাত্র তার মায়ের কাছে সন্তানের খাবার চলে আসে।]

বাংলাদেশের মানুষ রোহিঙ্গাদের খাওয়াচ্ছে না। বরং বাংলাদেশের মানুষ শুধু মেহমানদারি করছে মাত্র। মানুষকে খাওয়ানো মহান আল্লাহ তায়ালার সুন্নত, সেই সুন্নত পালন করে মানুষ নিজেই ধন্য হচ্ছে। সবার পক্ষে নেক কাজ করা সম্ভব না। বাংলাদেশের মানুষ যে একটা নেক কাজ করতে পারছে, সেটা বড় সু-নসিব। মহান আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমত। অশেষ রহমত না হলে বাংলাদেশের মানুষের পক্ষে এত বড় নেক কাজ করা সম্ভব হতো না।

আসলে মুসলমানদের জনসংখ্যা কমানো কাফিরদের একটা ষড়যন্ত্র। যদি মুসলমানদের সংখ্যা বেড়ে যায়, তবে একদিন মুসলমানরা সবকিছু দখল করে নেবে। এই ভয়ে কাফিররা খাওয়ার পরার ভয় দেখিয়ে মুসলমানদের জন্মনিয়ন্ত্রণে প্ররোচিত করে। জন্মনিয়ন্ত্রণ যে কাফিরদের ষড়যন্ত্র তার দলিল হচ্ছে, বিদেশী কাফিরদের এনজিও বাংলাদেশে জন্মনিয়ন্ত্রণে কাজ করছে। কিছুদিন আগে ভারতের উগ্রহিন্দুত্ববাদী আরএসএস ঘোষণা দিয়েছে প্রত্যেক হিন্দুদের ১০টি করে সন্তান নিতে এবং আইন করে যেন মুসলমানদের জন্মনিয়ন্ত্রণ এর ব্যবস্থা নিতে।

আসলে বর্তমান মুসলমানরা শুধু নামে মুসলমান। কুরআন হাদীসের উপর তাদের ঈমান উঠে গেছে। এ কারণে তাদের মুখ দিয়ে এসব ইসলামবিরুদ্ধ কথা বের হয়।

Comments

নুর নবী দুলাল এর ছবি
 

বাংলাদেশের মানুষ রোহিঙ্গাদের খাওয়াচ্ছে না। বরং বাংলাদেশের মানুষ শুধু মেহমানদারি করছে মাত্র।

আল্লাহ এই পর্যন্ত কত ট্রাক ত্রাণ পাঠিয়েছে মুসলমানদের জন্য? আর বাঙলাদেশ বা মুসলিম বিশ্বের কতজন মুসলমান রোহিঙ্গাদের জন্য খাবার পাঠিয়েছে? যা পাঠিয়েছে বা পাঠাচ্ছে সবইতো নাস্তিক-নাসারাদের দেশ থেকে। মুসলমানদের মত হিপোক্রেট জাতি নাই। বদমাইশের দল এরা।

 
জহিরুল ইসলাম এর ছবি
 

না ভাই। সবাই বদমাইশ না।

johirul islam

 
ড. লজিক্যাল বাঙালি এর ছবি
 

পড়লাম।
==============================================
ফেসবুকে আমার ইস্টিশন বন্ধুদের Add করার ও আমার ইস্টিশনে আমার পোস্ট পড়ার অনুরোধ করছি। লিংক : https://web.facebook.com/JahangirHossainDDMoEduGoB

===============================================================
জানার ইচ্ছে নিজেকে, সমাজ, দেশ, পৃথিবি, মহাবিশ্ব, ধর্ম আর মানুষকে! এর জন্য অনন্তর চেষ্টা!!

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

জহিরুল ইসলাম
জহিরুল ইসলাম এর ছবি
Online
Last seen: 1 ঘন্টা 31 min ago
Joined: বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 21, 2017 - 3:58পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর