নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 8 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • গোলাম রব্বানী
  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • অনন্য আজাদ
  • নুর নবী দুলাল
  • আব্দুল্লাহ্ আল আসিফ
  • মোমিনুর রহমান মিন্টু
  • মিশু মিলন
  • সত্যর সাথে সর্বদা

নতুন যাত্রী

  • ফারজানা কাজী
  • আমি ফ্রিল্যান্স...
  • সোহেল বাপ্পি
  • হাসিন মাহতাব
  • কৃষ্ণ মহাম্মদ
  • মু.আরিফুল ইসলাম
  • রাজাবাবু
  • রক্স রাব্বি
  • আলমগীর আলম
  • সৌহার্দ্য দেওয়ান

আপনি এখানে

রোহিঙ্গা সমস্যায় কতটা মানবিক হবে বাংলাদেশ?


মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যের নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী রোহিঙ্গাদের উপর সামরিক বাহিনীর নির্যাতন সম্প্রতি মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে।জাতিসংঘের প্রতিবেদন অনুযায়ী প্রায় ২ লক্ষ ৭০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।প্রতিদিন হাজারো রোহিঙ্গা এদেশে পালিয়ে আসছে।বাংলাদেশ সরকার ও বিজিবি নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের প্রতি মানবিক আচরণ দেখিয়ে আশ্রয় ও ত্রাণ প্রদান করছেন।এখন প্রশ্ন হলো রোহিঙ্গা সমস্যায় কতটা মানবিক হবে বাংলাদেশ?সমস্যাটা বাংলাদেশের না,বরং বাংলাদেশের উপর চাপানো হয়েছে।দেশের একশ্রেণির মানুষ বলছেন,সীমান্ত খুলে দাও, রোহিঙ্গারা বাঁচুক।রোহিঙ্গারা ধর্মে মুসলিম বলেই বাংলাদেশি মুসলমানদের কাছ থেকে বেশি মানবিক সমর্থন পাচ্ছে।মজার ব্যাপার হলো,এতকাল ধরে যারা তীব্র ভারতবিদ্বেষী ছিল তারাই এখন একাত্তর সালে বাংলাদেশিদের ভারতে আশ্রয় নেওয়ার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে রোহিংগাদের জায়গা দেওয়ার কথা বলছে!

রোহিঙ্গাদের ইতিহাস পড়লে জানা যায়,এরা দীর্ঘকাল ধরে মায়ানমারের সকল নাগরিক সুবিধা বঞ্চিত।সেদেশে এদের বিদেশি হিসেবে দেখা হয়।ব্রিটিশ সরকার মায়ানমারের নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী হিসেবের সময় কোনো এক অজানা কারণে রোহিঙ্গাদের নাম বাদ দিয়েছিল।সেই থেকেই তারা কোনো দেশেরই নাগরিক না।শিক্ষা,চিকিৎসা সহ সকল মৌলিক অধিকার বঞ্চিত এ জাতি তাই লড়াকু হতে পারেনি, হয়েছে চোরাগুপ্তা হামলাকারী,মাদক ব্যবস্যায়ী।আর তাদের উপর মায়ানমার সরকারের নির্যাতন আজই প্রথম না।১৯৭৮ সালে নির্যাতিত ১ লক্ষ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছিল। ১৯৯১-৯২ সালে প্রায় দুলক্ষ রোহিঙ্গা এদেশে পালিয়ে এসেছিল।এরা কেউ কিন্তু মায়ানমারে ফিরে যায়নি।কারণ তাদের সে দেশের নাগরিক হিসবেই বিবেচনা করা হয়না।আশ্রিত অশিক্ষিত রোহিঙ্গাদের বেশিরভাগই পেটের দায়ে বাংলাদেশে নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়েছিল।এমনকি রাজনৈতিক নেতাদের স্বার্থসিদ্ধির অস্ত্রে পরিণত হয়েছিল।

আর বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে ১ কোটি শরণার্থী ভারতে আশ্রয় নিয়েছিল।বাংলাদেশিরা যুদ্ধ করে নিজেদের দেশ স্বাধীন করেছে।এবং স্বাধীনতা অর্জনের পর ১ কোটি শরণার্থীই এদেশে ফেরত এসেছিল।কেউ ভারতে অরজাতকতার সৃষ্টি করেনি।যারা রোহিঙ্গা সমস্যা আর বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধকে গুলিয়ে ফেলছে তারা গাধা ছাড়া আর কিছুই না।

রোহিঙ্গাদের ইতিহাস থেকেই একটা কথা স্পষ্ট হয়,আশ্রিত রোহিঙ্গারা কেউ মায়ানমারে ফেরত গিয়ে মরতে চায় না। এ জন্যেই তারা বাংলাদেশের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে পড়ছে।এবং ইতোমধ্যে কক্সবাজার অঞ্চলে নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়েছে।ঢাকায় বসে নয় লাখ মুসলিম রোহিঙ্গার জন্য বুক ফাটানোই যায়।কিন্তু আমি কক্সবাজারবাসীর সাথে কথা বলে দেখেছি।তারা কেউই চায় না এদেশে রোহিঙ্গারা থাকুক।কারণ তারাই রোহিঙ্গা সমস্যার সবচেয়ে বড় ভুক্তভোগী। আমাদের ভুলে গেলে চলবে না, নামের আগে মোহাম্মদ থাকলেই কেউ মুহাম্মদ সা: এর আদর্শ মুসলিম হয়ে যায় না।নির্যাতিত, শিক্ষাবঞ্চিত একটা জাতির কাছ থেকে তেমন কিছু আশাও করা যায় না। আর বাংলাদেশ লাখো শিক্ষিত বেকার,কর্মহীন যুবকে ভরা পৃথিবীর সবচেয়ে জনবহুল কিন্তু অনুন্নত একটা দেশ।নয় লাখ অশিক্ষিত রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়ে তাদের কর্মসংস্থান করা বা দীর্ঘদিন লালন পালনের সামর্থ বাংলাদেশের নাই।এই রোহিঙ্গারা পেটের দায়েই নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়বে। এছাড়া অতীতের মতই রাজনীতিবিদদের হাতের পুতুল হলে, দেশে ছড়িয়ে থাকা অসংখ্য জিহাদি সংগঠনে জড়িয়ে পড়লেও অবাক হওয়ার কিছু নাই।ভাতের ক্ষুধা সবচেয়ে বড়।বাংলাদেশ সরকার রোহিঙ্গাদের সাথে এদেশিদের বিয়ে নিষিদ্ধের মত একটা কার্যকরী উদ্যোগ নিয়েছে।রোহিঙ্গারা এদেশে বিয়ে করলে আর মায়ানমারে ফেরত যাবে কেন? কিন্তু কিছু বোকা মানুষ সরকারের এ আইনেরও বিরোধিতা করছে!

শেষকথা: মানুষের চেয়ে বড় কিছু নাই।তাই আমরা মানবিক হব।তবে সেই মানবিকতা শুধু বাংলাদেশকেই কেন দেখাতে হবে?তুরস্ক, ইন্দোনেশিয়া রোহিঙ্গাদের ত্রাণ দিলেও এমন একটা অশিক্ষিত, স্বভাবে উগ্র গোষ্ঠীর দায়িত্ব নিতে চাইছে না। এক্ষেত্রে দ্রুত একটা আন্তর্জাতিক উদ্যোগ নিতে হবে।রোহিঙ্গাদের মুসলিম হিসেবে নয়, মানুষ হিসেবে বিবেচনা করে বাংলাদেশ সহ সামর্থ থাকা সব দেশেই সাময়িকভাবে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে হবে।মায়ানমারের উপর আন্তর্জাতিক চাপ প্রয়োগ করে গণহত্যা বন্ধ করে রোহিঙ্গাদের দ্রুত নাগরিক সুবিধা প্রদান করে মৌলিক অধিকার রক্ষা করতে হবে।তা না হলে মানষের পরাজয় ঘটবে। পৃথিবী দেখবে মানুষের অমানুষিক আচরণের জঘন্য দৃষ্টান্ত।

Comments

ড. লজিক্যাল বাঙালি এর ছবি
 

পড়লাম। বিশেষ কারণে কোন মন্তব্য করবো না।
==============================================
আমার ফেসবুকের মূল ID হ্যাক হয়েছিল ২ মাস আগে। নানা চেষ্টা তদবিরের পর আকস্মিক তা ফিরে পেলাম। আমার এ মুল আইডিতে আমার ইস্টিশন বন্ধুদের Add করার ও আমার ইস্টিশনে আমার পোস্ট পড়ার অনুরোধ করছি। লিংক : https://web.facebook.com/JahangirHossainDDMoEduGoB

===============================================================
জানার ইচ্ছে নিজেকে, সমাজ, দেশ, পৃথিবি, মহাবিশ্ব, ধর্ম আর মানুষকে! এর জন্য অনন্তর চেষ্টা!!

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

উলুল আমর অন্তর
উলুল আমর অন্তর এর ছবি
Offline
Last seen: 1 দিন 8 ঘন্টা ago
Joined: বুধবার, ফেব্রুয়ারী 15, 2017 - 1:09পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর