নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • হাসান নাজমুল
  • শ্রীঅভিজিৎ দাস
  • মুফতি বিশ্বাস মন্ডল
  • নিরব
  • সুব্রত শুভ

নতুন যাত্রী

  • নিনজা
  • মোঃ মোফাজ্জল হোসেন
  • আমজনতা আমজনতা
  • কুমকুম কুল
  • কথা নীল
  • নীল পত্র
  • দুর্জয় দাশ গুপ্ত
  • ফিরোজ মাহমুদ
  • মানিরুজ্জামান
  • সুবর্না ব্যানার্জী

আপনি এখানে

যারা বন্দিনী নারী ধর্ষন করবে না ও মুতা(সাময়িক বিয়ে) করবে না , তারা খাটি মুমিন না


কিছু মুসলমান মনে করে ঠিক মতো নামাজ পড়লে বা রোজা রাখলেই খাটি মুমিন হওয়া যায়। কিন্তু না। কোরান ও মুহাম্মদের বিধান মোতাবেক বন্দিনী নারী ধর্ষন ও মুতা না করলে সে খাটি মুমিন হবে না। কোরানে বলেছে ---

সুরা নিসা -৪: ২৪: এবং নারীদের মধ্যে তাদের ছাড়া সকল সধবা স্ত্রীলোক তোমাদের জন্যে নিষিদ্ধ; তোমাদের দক্ষিণ হস্ত যাদের মালিক হয়ে যায়-এটা তোমাদের জন্য আল্লাহর হুকুম। এদেরকে ছাড়া তোমাদের জন্যে সব নারী হালাল করা হয়েছে, শর্ত এই যে, তোমরা তাদেরকে স্বীয় অর্থের বিনিময়ে তলব করবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করার জন্য-ব্যভিচারের জন্য নয়। অনন্তর তাদের মধ্যে যাকে তোমরা ভোগ করবে, তাকে তার নির্ধারিত হক দান কর। তোমাদের কোন গোনাহ হবে না যদি নির্ধারণের পর তোমরা পরস্পরে সম্মত হও। নিশ্চয় আল্লাহ সুবিজ্ঞ, রহস্যবিদ।

উক্ত আয়াত পড়ে আসলে পরিস্কার কিছু বোঝা দু:সাধ্য। অথচ উক্ত আয়াত নাজিল হয়েছিল বন্দিনী নারীকে ধর্ষন ও মুতা বিযে করার অনুমোদন দেয়ার জন্যেই। সুতরাং উক্ত আয়াতের পরিস্কার অর্থ বুঝতে হলে আমাদেরকে উক্ত আয়াত বিষয়ক সহিহ হাদিস দেখতে হবে। উক্ত আয়াতের প্রথম অংশের অর্থ হলো নিম্নরূপ:--------

দুধপান অধ্যায় ::সহিহ মুসলিম :: খন্ড ৮ :: হাদিস ৩৪৩২
উবায়দুল্লাহ ইবন উমর ইবন মায়সারা কাওয়ারীরী (র)......।আবু সাঈদ খুদরী (রাঃ) থেকে বর্ণিত যে, রাসুলুল্লাহ (সা) হুনায়নের যুদ্ধের সময় একটি দল আওতাসের দিকে পাঠান । তারা শক্রদলের মুখোমুখী হয়েও তাদের সাথে যুদ্ধ করে জয়লাভ করে এবং তাদের অনেক কয়েদী তাদের হস্তগত হয় । এদের মধ্য থেকে বন্দিনী নারীদের সাথে সহবাস করা রাসুলুল্লাহ (সা) -এর কয়েকজন সাহাবী যেন না জায়িয মনে করলেন, তাদের মুশরিক স্বামী বর্তমান থাকার কারণে । আল্লাহ তায়ালা এ আয়াত অবতীর্ণ করেন "এবং নারীর মধ্যে তোমাদের অধিকারভূক্ত দাসী ব্যতীত সকল সধ্বা তোমাদের জন্য নিষিদ্ধ-, অর্থাৎ তারা তোমাদের জন্য হালাল, যখন তারা তাদের ইদ্দত পূর্ন করে নিবে(নিসা-৪:২৪)" ।

সুনান আবু দাউদ :: বিবাহ অধ্যায় ১২, হাদিস ২১৫৫
উবায়দুল্লাহ্ ইবন উমার ইবন মায়সার -আবূ সাঈদ আল খুদরী (রা) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) হুনায়নের যুদ্ধের সময় আওতাস্ নামক স্থানে একটি সৈন্যদল প্রেরণ করেন। তারা তাদের শত্রুদের সাথে মুকাবিলা করে তাদেরকে হত্যা করে এবং তাদের উপর বিজয়ী হয়। আর এই সময় তারা কয়েদী হিসাবে ( হাওয়াযেন গোত্রের ) কিছু মহিলাকে বন্দী করে। তখন রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) - এর কিছু সাহাবী তাদের সাথে অনধিকারভাবে সহবাস করতে ইচ্ছা করে, কেননা তাদের স্বামীরা মুশরিক ছিল। তখন আল্লাহ্ তা‘আলা এই আযাত নাযিল করেনঃ ( অর্থ) যে সমস্ত স্ত্রীলোকদের স্বামী আছে তারা তোমাদের জন্য হারাম। তবে যারা তোমাদের অধিকারভুক্ত দাসী অর্থাৎ যেসব মহিলা যুদ্ধবন্দী হিসাবে তোমাদের আয়ত্বে আসবে তারা ইদ্দত ( হায়েযের) পূর্ণ করার পর তোমাদের জন্য হালাল।

এবার দ্বিতীয় অংশের অর্থ কি সেটা জানা যাক ----------------

বিয়ে-শাদী অধ্যায় ::সহিহ বুখারী :: খন্ড ৭ :: অধ্যায় ৬২ :: হাদিস ১৩
কুতায়বা ইব্ন সাঈদ (রা) ..... আবদুলস্নাহ্ ইব্ন মাসউদ (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমরা রাসূল (সা)-এর সাথে জিহাদে অংশ নিতাম; তিন্তু আমাদের কোন কিছু ছিল না। সুতরাং আমরা রাসূলুলস্নাহ্ (সা)-এর কাছে বললাম, আমরা কী খাসি হয়ে যাব? তিনি আমাদেরকে খাসি হতে নিষেধ করলেন এবং কোন মহিলার সাথে একখানা কাপড়েরর বিনিময়ে হলেও সাময়িকভাবে শাদী করার অনুমতি দিলেন এবং আমাদেরকে এই আয়াত পাঠ করে শোনালেনঃ "হে মু’মিনগণ! আলস্নাহ্ যে পবিত্র জিনিসগুলো তোমাদের জন্য হালাল করেছেন তোমরা তা হারাম করো না এবং সীমালংঘন করো না। আলস্নাহ্ সীমালংঘনকারীদের পছন্দ করেন না(সুরা মায়দা- ৫: ৮৭)"।

তার মানে মুহাম্মদ নিজেই বলছে যে আল্লাহ মুতা বা সাময়িক বিয়েকে হালাল করে দিয়েছে , সুতরাং সেটা যেন মুমিনরা হারাম বলে গণ্য না করে। আর সেটা কোরানও বলেছে। অনেকেই বলবে ইহা তো বিয়ে , মুতা বা সাময়িক বিয়ে না। সে ক্ষেত্রে আমরা আরও অনেক হাদিস দেখতে পারি ---

নিকাহ (বিয়ে-শাদী) অধ্যায় ::সহিহ মুসলিম :: খন্ড ৮ :: হাদিস ৩২৪৬
মুহাম্মাদ ইবন বাশশার (র)......জাবির ইবন আবদুল্লাহ (রাঃ) ও সালামা ইবনুল আকওয়া (রাঃ) থেকে বর্ণিত । তারা উভয়ে বলেন, আমাদের সামনে রাসুলুল্লাহ (সা)-এর ঘোষক বেরিয়ে এসে বললেন, রাসুলুল্লাহ (সা) তোমাদের মুতআ বিবাহ করার অনুমতি দিয়েছেন ।

নিকাহ (বিয়ে-শাদী) অধ্যায় ::সহিহ মুসলিম :: খন্ড ৮ :: হাদিস ৩২৪৭
উমায়্যা ইবন বিসতাম আল আয়শী (র)...... সালামা ইবনুল আকওয়া (রাঃ) ও জাবির ইবন আবদুল্লাহ(রাঃ) থেকে বর্ণিত যে, রাসুলুল্লাহ (সা) আমাদের নিকট এলেন এবং আমাদের মুতআর (সাময়িক বিবাহের) অনুমতি দিলেন

নিকাহ (বিয়ে-শাদী) অধ্যায় ::সহিহ মুসলিম :: খন্ড ৮ :: হাদিস ৩২৪৮
হাসান হুলওয়ানী (র)......আতা (র) বলেন, জাবির ইবন আব্দুল্লাহ (রাঃ) উমরা পালন করতে এলেন । তখন আমরা তাঁর আবাসে তাঁর নিকট গেলাম । লোকেরা তাঁর নিকট বিভিন্ন বিষয়ে জিজ্ঞেসা করল । অতঃপর তারা মুতআ সস্পর্কে উল্লেখ করলে তিনি বলেন, হ্যা, আমরা রাসুলুল্লাহ (সা) -এর যুগে এবং আবু বকর (রাঃ) ও উমর (রাঃ) এর যুগে মুতআ (বিবাহ) করেছি ।

এইসব হাদিস দেখার পর , কিছু ধান্ধাবাজ মুমিন এসে বলবে , মুতা বিয়ে তো পরে হারাম করা হয়েছে। তারা তাদের দাবী প্রমানের জন্যে নিচের হাদিস দেখাবে ----

নিকাহ (বিয়ে-শাদী) অধ্যায় ::সহিহ মুসলিম :: খন্ড ৮ :: হাদিস ৩২৪৯
মুহাম্মাদ ইবন রাফি (র)......আবু যুবায়র (র) বলেন, আমি জাবির ইবন আবদুল্লাহ (রাঃ)-কে বলতে শুনেছিঃ আমরা এক মুঠো খেজুর অথবা ময়দার বিনিময়ে রাসুলুল্লাহ (সা) এর যুগে এবং আবু বকর (রাঃ)-এর যুগে মুতআ বিবাহ করতাম । শেষ পর্যন্ত উমর (রাঃ)আমর ইবন হুরায়সের বিষয়টিকে কেন্দ্র করে তা নিষিদ্ধ করেছেন ।

এখন কথা হলো - সুরা নিসা - ৪:২৪ আয়াত দ্বারা মুতা বিয়ের বিধান আল্লাহ নিজেই দিয়েছে , পরে মায়দা ৫: ৮৭ আয়াত দ্বারা আল্লা ও মুহাম্মদ উভয়ই সেটা পুনরায় সাক্ষ্য দিয়েছে। তো যে বিধান স্বয়ং আল্লাহ নিজে চালু করে , সেই বিধান কি কোন মানুষ বা নবী বা খলিফা রদ করতে পারে ? কিছু হাদিস দ্বারা দেখা যাচ্ছে খলিফা ওমর উক্ত মুতা বিয়ে রদ করেছে। তার মানে এখানে আল্লাহর বিধান ওমর রদ করে দিয়ে বরং সে আল্লাহর বিরোধীতা করেছে। আল্লার বিরোধীতা করে ওমর পরে কিভাবে আর মুসলমান থাকে ? আল্লাহর আদেশ লংঘন করে ওমর তো তখন মুর্তাদে পরিনত হয়ে গেছিল , আর তখন অন্য মুমিনদের দায়ীত্ব হয়ে গেছিল ওমরের কল্লা কাটা। কিন্ত তখন সেই মুমিনদের সেই ক্ষমতা ছিল না। বর্তমান কালের মুসলমানরা এই ঘটনা জানার পর কিভাবে দাবী করে ওমর একজন খাটি মুসলমান ছিল আর তার আল্লাহ দ্রোহী হাদিস দ্বারা মুতা রদ হয়ে গেছে বলে বান্দরের মত কিভাবে লাফাতে পারে ? তাহলে বর্তমান মুসলমানদের কাছে কি আল্লাহ ও মুহাম্মদের চাইতে ওমরের মত একটা বর্বর হিংস্র খুনি লোক বেশী গ্রহনযোগ্য ?

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

কাঠমোল্লা
কাঠমোল্লা এর ছবি
Offline
Last seen: 2 ঘন্টা 27 min ago
Joined: শুক্রবার, এপ্রিল 8, 2016 - 4:48অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর