নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 8 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • চিত্রগুপ্ত
  • কাঠমোল্লা
  • নুর নবী দুলাল
  • মৃত কালপুরুষ
  • অ্যাডল্ফ বিচ্ছু
  • নরসুন্দর মানুষ

নতুন যাত্রী

  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান
  • একরামুল হক
  • আব্দুর রহমান ইমন
  • ইমরান হোসেন মনা
  • আবু উষা
  • জনৈক জুম্ম
  • ফরিদ আলম
  • নিহত নক্ষত্র

আপনি এখানে

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে আইনমন্ত্রীর বক্তব্য ও আমার কিছু প্রশ্ন


সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের পূর্ণাঙ্গ রায়ে প্রধান বিচারপতি বলেছেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা কোন একক ব্যক্তির কারণে হয়নি।
আমাদের আইনমন্ত্রী মশায় প্রধান বিচারপতির এই বক্তব্যে মর্মাহত হয়েছেন। কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেছেন, ১৯৪৮ থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা লাভ করা পর্যন্ত যত আন্দোলন হয়েছে, সবগুলো বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে হয়েছে। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের কারাগারে থাকলেও, তার নেতৃত্বে এবং তার আদর্শেই যুদ্ধ পরিচালিত হয়েছে।

আইনমন্ত্রীর এই বক্তব্যের সাথে অনেক ক্ষেত্রে আমার দ্বিমত থাকলেও, যুক্তির খাতিরে তার বক্তব্য সত্য বলে মেনে নিচ্ছি। কিন্তু এতে করে কি প্রমাণ হয়, শুধু বঙ্গবন্ধুর কারণেই আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি? পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠির ২৪ বছরের শোষনের বিরুদ্ধে লড়াই করা মুক্তিকামী মানুষদের কি কোন অবদান নেই? যেই গণ আন্দোলন শেখ মুজিবকে পাকিস্তানি কারাগার থেকে মুক্ত করে বঙ্গবন্ধু বানিয়েছে, সেই আন্দোলনের শহীদ কিংবা নেতৃত্ব দেয়া নেতাদের কি স্বাধীনতা সংগ্রামে কোন অবদান নেই? ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে স্বাধীনতা সংগ্রাম পর্যন্ত যতো সংগ্রাম, সেই আন্দোলনে অংশ নেয়া ছাত্র জনতার কি স্বাধীনতা পাওয়ার ক্ষেত্রে কোন অবদানই নেই? সব অবদানই কি একমাত্র বঙ্গবন্ধুর?

বাংলাদেশের স্বাধীনতা পাওয়ার ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর অবদান, তার নেতৃত্বের কথা কেউ অস্বীকার করতে পারবে না। এটা অস্বীকার করা হবে দিনের আলোকে অস্বীকার করার সমান! আমার মনে হয় প্রধান বিচারপতিও সেই অবদানকে অস্বীকার করেন নি। স্বাধীনতা সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর যেমন অবদান রয়েছে, তেমনি সকল মুক্তিসংগ্রামিরও অবদান আছে। বঙ্গবন্ধু তো ১৩ বছর জেল খেটেছেন, ৩০ লাখ শহীদ তো নিজের সর্বোচ্চ সম্পদ প্রাণটাই বিসর্জন দিয়েছেন। স্বাধীনতায় তাদের অবদান কি একটুও নেই?
খেলায় ১১ জন খেলোয়াড় থাকে, সবাই কিন্তু অধিনায়ক হয় না। সবচেয়ে অগ্রগণ্য খেলোয়াড়টিই অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করে। তবে খেলায় সব সময় যে অধিনায়কই জয়ের নায়ক হবেন, তেমনটি নয়। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধু হচ্ছেন অধিনায়ক, যার নেতৃত্বে যুদ্ধ পরিচালিত হয়েছে আর ত্রিশ লক্ষ শহীদ এবং লাখ মুক্তিসেনা, লাখ বিরাঙ্গনা হচ্ছেন মুক্তিযুদ্ধ তথা স্বাধীনতার নায়ক। এই সহজ সত্যটি মেনে নিতে অসুবিধে কোথায়?

জগতে সবকিছু একজন মানুষের পক্ষে করা সম্ভব নয়। একটা দেশের স্বাধীনতা অর্জন তো নয়ই। তবু কেন সব কিছুর কৃতিত্ব একজনকেই দিতে হবে? তবু কেন সবকিছুতেই একজনের অবদানকেই বড় করে দেখাতে হবে? সবার কথা বললে কি সেই একজনের অবদান খাটো হয়ে যায়? সবাইকে কৃতিত্ব দিলে কি সেই একজনের ভাগে কম পড়ে যাবে?

সবকিছুর ভাগ একা নেয়ার চেষ্টা করাটা হীনমন্যতার পরিচায়ক। ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে অবদান রাখায় মহাত্মা গান্ধী ‘বাপুজি' হয়েছেন, পাকিস্তানিদের কাছে জিন্নাহ ‘কায়েদে আজম', যা সবাই মেনে নিয়েছে। অথচ আওয়ামীলীগের চাটুলারদের হীনমন্যতার জন্যই বঙ্গবন্ধু এদের সমান তুলনীয় হলেও, তিনি হয়েছেন এদেশের মানুষের গাড়ে চাপিয়ে দেয়া ‘জাতির পিতা'!

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

কফিল উদ্দিন মোহাম্মদ
কফিল উদ্দিন মোহাম্মদ এর ছবি
Offline
Last seen: 1 দিন 8 min ago
Joined: রবিবার, মে 8, 2016 - 11:31পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর