নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • শ্মশান বাসী
  • আহমেদ শামীম
  • গোলাপ মাহমুদ
  • সলিম সাহা

নতুন যাত্রী

  • নীল মুহাম্মদ জা...
  • ইতাম পরদেশী
  • মুহম্মদ ইকরামুল হক
  • রাজন আলী
  • প্রশান্ত ভৌমিক
  • শঙ্খচূড় ইমাম
  • ডার্ক টু লাইট
  • সৌম্যজিৎ দত্ত
  • হিমু মিয়া
  • এস এম শাওন

আপনি এখানে

বিশ্বজিৎদের বিচার চাওয়া অন্যায়।



২০১২ সালের আমাদের বিজয়ের মাস ডিসেম্বরের ৯ তারিখ। বিজয়ের মাসে আরেকটি নতুন ধরনের বিজয়ের শুভ সূচনা যেন সেদিনই করে গিয়েছিলেন বিশ্বজিৎ। বিশ্বজিৎ দাস এক দর্জির দোকানের কর্মচারী। প্রতিদিনের মত সেদিনও নিজের কর্মস্থলে যাত্রা করেছিলেন। কিন্তু এই নতুন বিজয়ের দায়ভার যে তার ঘারেই চেপেছে তা তিনি জানতেন না। এ বিজয় কোন অসাধারন বিজয় নয়। এ বিজয় ৩০ লক্ষ্য প্রাণ আর ২ লক্ষ্য মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত কোন নতুন স্বপ্নের, বা স্বাধীনতা এনে দেবার বিজয় নয়। এ বিজয় স্বপ্ন ভাঙার, নিজের স্বাধীনতাকে জলাঞ্জলি দেবার বিজয়। হত্যাকারীরা বিশ্বজিতের স্বাধীনতা কেড়ে নিয়ে তার সকল স্বপ্নকে ভেঙে গুড়ো করে দিয়ে এ বিজয় অর্জন করেছে।

সত্যিই তো, সামান্য এক দর্জি দোকানের কর্মচারী ও তার পরিবারের এত সাহস হয় কিভাবে হত্যাকারীদের বিচার চাওয়ার? বিশ্বজিৎকে এখন প্রায় সবাই চেনে, প্রতিদিন তার নাম পত্রিকার শিরোনাম হয়। তার নামে উইকিপিডিয়ায় একটি নিবন্ধ রচিত হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতেও বিশ্বজিৎ একটি পরিচিত মুখ। বিশ্বজিতের চৌদ্দগুষ্ঠির মাঝেও এমন ব্যক্তিত্ব পাওয়া যাবে কিনা সন্দেহ। কারন যদি থাকতো তাহলে মনে হয় সে ন্যায়বিচার পেতো। আর সরকার দলীয় কারও আত্মীয় হলেও একটা কথা ছিল।

তার পরিবারকে রক্ষা করা ছাড়া কি করেছে বিশ্বজিৎ দেশের জন্য? সরকারের জন্য? অন্যদিকে তার হত্যাকারীরা প্রত্যেকেই শিক্ষিত, রাজনীতির সাথে জরিত উদীয়মান ছাত্রনেতা। সকলেই যেন এক একটা বাঘের বাচ্চা। শুধু সাহসী নয় বাঘের মতই পশু।

সেদিন মিডিয়ার সামনেই হত্যা করা হয়েছিল বিশ্বজিৎকে। মিডিয়ার লোকজন, সাধারন জনতা, ছিল বাংলার জনগণের বন্ধু পুলিশ। সবাই দর্শকের মত দেখেছে। কেউ এগিয়ে আসেনি। ঘটনাটা বিশ্বজিতের বেলায় না হয়ে সাধারন জনতার যে কারোর প্রতিই হতে পারতো। তখনো সবাই হা করে দেখতো আর রক্ত দেখার স্বাদ নিতো। মিডিয়ার সামনে একটি হত্যাকান্ড, ভিডিওটি দেখে মনে হয় যে কোন সিনেমার দৃশ্য।

যাই হোক মিডিয়ার কল্যাণেই হত্যাকারীদের চিহ্নিত ও সনাক্ত করা হয়। দ্রুত বিচারে তাদের সাজা দেওয়া আবার তাদের রায় পরিবর্তন করা এতসব নাটকের কি দরকার? হত্যাকারী সনাক্ত করার পরও বেশির ভাগ পলাতক, তাদেরকে ধরা যাচ্ছেনা ইত্যাদি নাটকের তো কোন প্রয়োজনই ছিলনা। বাংলাদেশের জনগণের এমন ঘটনা দেখতে দেখতে এখন অভ্যাস হয়ে গেছে। তারা এসবের কোন প্রতিবাদ করবেনা এটা সরকারের আগেই বুঝা উচিৎ ছিল। শুধু শুধু সময় নষ্ট।

আমাদের সোনার বাংলার সোনার ছেলেরা দিন দিন যেসব বিজয় অর্জন করছে তাতে করে এটুকু বলা যায় সোনার বাংলা অচিরেই সোনার বাংলায় পরিণত হবে (স্বর্ণ নয় গালি বা খারপ অর্থে)। বিশ্বজিতের রক্তের দাগে রচিত বিজয়ই হবে সোনার বাংলার বিজয়।

Comments

ড. লজিক্যাল বাঙালি এর ছবি
 

পড়লাম। ৫৭-ধারার কারণে কোন মন্তব্য করবো না।
==============================================
আমার ফেসবুকের মূল ID হ্যাক হয়েছিল ২ মাস আগে। নানা চেষ্টা তদবিরের পর গতকাল আকস্মিক তা ফিরে পেলাম। আমার এ মুল আইডিতে আমার ইস্টিশন বন্ধুদের Add করার ও আমার ইস্টিশনে আমার পোস্ট পড়ার অনুরোধ করছি। লিংক : https://web.facebook.com/JahangirHossainDDMoEduGoB

===============================================================
জানার ইচ্ছে নিজেকে, সমাজ, দেশ, পৃথিবি, মহাবিশ্ব, ধর্ম আর মানুষকে! এর জন্য অনন্তর চেষ্টা!!

 
মোঃ যীশুকৃষ্ণ এর ছবি
 

৫৭ ধারা এক সময় আমাদের বোবা বানিয়ে ছাড়বে।

সোনালী ভোর
আর কতদূর

দেখা কী পাব তার

এ জীবন থাকতে আমার???

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

মোঃ যীশুকৃষ্ণ
মোঃ যীশুকৃষ্ণ এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 1 দিন ago
Joined: শনিবার, এপ্রিল 29, 2017 - 10:02অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর