নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 8 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • মোমিনুর রহমান মিন্টু
  • নকল ভুত
  • মিশু মিলন
  • দ্বিতীয়নাম
  • আব্দুর রহিম রানা
  • সৈকত সমুদ্র
  • অর্বাচীন স্বজন
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী

নতুন যাত্রী

  • সুমন মুরমু
  • জোসেফ হ্যারিসন
  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান

আপনি এখানে

শহুরে বাগান -৪



আমাদের আশেপাশে সামান্য কিছু ছোট খাটো জিনিস এর সঠিক ব্যবহার আমাদের বাগান/ টবের গাছ করে তুলতে পারে মোহনীয়।
তাই আজকে আপনাদের জন্য রইল আরেকটি টোটকা সলিউশন। আমরা অনেকেই অ্যাসপিরিন মেডিসিনের নাম শুনেছি। সাধারণত অ্যাসপিরিন ব্যবহার করা হয় মাথা ব্যথায়। এছাড়া এই মেডিসিনটা পড়েই থাকে বাক্সের এক কোণে।

কিন্তু এই অ্যাসপিরিন এর রয়েছে বাগান করার ক্ষেত্রে অনেক জাদুকরী ভূমিকা। University Of Rhode Island তাদের সাম্প্রতিক গবেষণায় উদ্ভিদের উপর অ্যাসপিরিন ব্যবহার এ পেয়েছে অভূতপূর্ব সাফল্য।
তো আসুন জেনে নেই এই অ্যাসপিরিন এর জাদুকরী সলিউশন গুলো:

১।রুট এজেন্ট: অ্যাসপিরিন রুট এজেন্ট হিসেবে দারুণ কার্যকর। যখন কোন ফুল গাছ বা অন্য কোন গাছ ট্রান্সপ্ল্যান্ট করবেন সেক্ষেত্রে তাদের বলিষ্ঠ শিকড় তৈরীতে এর ভূমিকা অনন্য। রিপটিং করার ৫/৬দিন আগে ২টা অ্যাসপিরিন ও ৫০০ মিলি পানি মিশিয়ে গাছের মাটিতে ও গাছে স্প্রে করুন। এতে চমৎকার শিকড় তৈরী হবে ।

২। জারমিনেশন বাড়াতেঃমাটিতে পোতা বীজের জারমিনেশন বাড়াতে- দুইলিটার পানিতে এক চামচ অ্যাসপিরিন গুড়ো মিশিয়ে তা মাটিতে অল্প অল্প করে স্প্রে করুন।
আর অন্যান্য গাছেও এই পানি ইউজ করতে পারেন। এতে জারমিনেশন রেট ৯৯% বাড়বে। এমনকি আপনার যে গাছটি মরো মরো অবস্থা এই সলিউশন তা রোধ করতে সহায়তা করবে। আপনার গাছ সতেজ হতে থাকবে

৩। ফুলদানীতেঃ ফুলদানীতে ফুল রাখার আগে একটা অ্যাসপিরিন এর হাফ ভেঙ্গে পানিতে দিন । এটা আপনার ফুলদানীর ফুলকে অনেকদিন সতেজ রাখবে।

৪। এলারজি রোধেঃ বাগানে কাজ করতে যেয়ে অনেক সময় অনেক পোকামাকড়/ মৌমাছি কামড় দেয়। একটা অ্যাসপিরিন ট্যাবলেট গুড়ো করে অল্প কিছু পানিতে মিশিয়ে আক্রান্ত স্থানে লাগান। খুবই দ্রুত রিলিফ পাবেন।

৫। গাছের ফলন ও বৃদ্ধিঃ দুইলিটার পানিতে এক চামচ অ্যাসপিরিন গুড়ো মিশিয়ে তা তিন সপ্তাহ পর পর স্প্রে করুন। গাছের ফলন ও ফুল খুব দ্রুত হতে থাকবে।

৬। টমেটোঃ টমেটোর বীজ মাটিতে পোঁতার আগে, এক চামচ অ্যাসপিরিন গুড়ো আর ৫০০ মিলি পানির সলিউশনে ডুবিয়ে রাখুন এক রাত। টমেটোর ফলন ভালো হবে।

৭। এন্টিফাংগাল এজেন্টঃ মাটিতে বা গাছের পাতায় ফাংগাস এর আক্রমণ দেখলে অ্যাসপিরিন গুড়ো পানিতে মিশিয়ে স্প্রে করুন। খুব দ্রুত রোগমুক্তি হবে।
-
অ্যাসপিরিন এর ব্যবহার কোন অরগানিক সলিউশন এর মধ্যে না পড়লেও, অন্যান্য কেমিকেল সলিউশনের চেয়ে অনেক বেশি নিরাপদ গাছের জন্য। কারন অ্যাসপিরিন এর মূল উপাদান হল এসিটাইল স্যালিসাইলিক, যা একটিভ এজেন্ট আসে স্যালিসাইলিক এসিড থেকে। এই স্যালিসাইলিক এসিড প্রাকৃতিক ভাবে পাওয়া যায় Willow গাছের ছাল থেকে। তবে হ্যা! অ্যাসপিরিন গাছে ব্যবহার করার জন্য ভোরের টাইমটা উপযুক্ত কারন এতে সন্ধ্যার আগেই সারাদিনে সলিউশন শুকিয়ে যায়। এটা গাছের শোষন করতে সুবিধা হয়।

বাংলাদেশে এর প্রাইজ লিস্ট জানার জন্য নিম্নোক্ত লিংক দেয়া হলো
http://bddrugs.com/product5.php?idn=133
শুভকামনা সকলের জন্য।
Happy Gardening.

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

উর্বি
উর্বি এর ছবি
Offline
Last seen: 2 দিন 15 ঘন্টা ago
Joined: রবিবার, মে 21, 2017 - 1:29পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর