নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 12 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • উর্বি
  • নুর নবী দুলাল
  • আরমান অর্ক
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • কিন্তু
  • পৃথু স্যন্যাল
  • মিশু মিলন
  • সুমিত রায়
  • মিসির আলী
  • হেজিং

নতুন যাত্রী

  • অন্নপূর্ণা দেবী
  • অপরাজিত
  • বিকাশ দেবনাথ
  • কলা বিজ্ঞানী
  • সুবর্ণ জলের মাছ
  • সাবুল সাই
  • বিশ্বজিৎ বিশ্বাস
  • মাহফুজুর রহমান সুমন
  • নাইমুর রহমান
  • রাফি_আদনান_আকাশ

আপনি এখানে

উন্নয়নের জোয়ারে ভেসে যাচ্ছে ব্যাংক; ৯ মাসে সরকারি মালিকানাধীন ৮ ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৪১,৪২৩ কোটি টাকা।



দেশের ৫৫টি ব্যাংকে চলতি অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে খেলাপি ঋণ গ্রহিতার (ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান মিলিয়ে) সংখ্যা ২ লাখ ২ হাজার ৬২৩ জন । চলতি ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই থেকে মার্চ পর্যন্ত (৯ মাস) সরকারি মালিকানাধীন আট ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৪১ হাজার ৪২৩ কোটি টাকা। এ সময় খেলাপি ঋণ আদায় হয়েছে ৩ হাজার ১৫২ কোটি টাকা । চলতি অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে মোট খেলাপি ঋণ আদায় হয়েছে ৭ দশমিক ৬ শতাংশ।

**সোনালী ব্যাংক এর খেলাপি ঋণ ১০ হাজার ৬২৯ কোটি টাকা এর মধ্যে নগদ আদায় করতে সক্ষম হয়েছে ৬৫৪ কোটি টাকা। খেলাপি ঋণগ্রহীতার সংখ্যা ৬ হাজার ৯৫৪ জন।
**জনতা ব্যাংক এর খেলাপি ঋণ ৬ হাজার ৫১০ কোটি টাকা এর মধ্যে নগদ আদায় করতে সক্ষম হয়েছে ২৫৪ কোটি টাকা। খেলাপি ঋণগ্রহীতার সংখ্যা ৪ হাজার ৪৯৪ জন।
**অগ্রণী ব্যাংক এর খেলাপি ঋণ ৬ হাজার ৮৬ কোটি টাকা এর মধ্যে নগদ আদায় করতে সক্ষম হয়েছে খেলাপি ঋণগ্রহীতার সংখ্যা ৮ হাজার ৬০০ জন।
**রূপালী ব্যাংক এর খেলাপি ঋণ ৪ হাজার ২৬৪ কোটি টাকা এর মধ্যে নগদ আদায় করতে সক্ষম হয়েছে ৩২৮ কোটি টাকা। খেলাপি ঋণগ্রহীতার সংখ্যা ১ হাজার ৫৮৪ জন।
**বেসিক ব্যাংক এর খেলাপি ঋণ ৭ হাজার ৩৭৪ কোটি টাকাচ এর মধ্যে নগদ আদায় করতে সক্ষম হয়েছে ১৫০ কোটি টাকা।
**বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক এর খেলাপি ঋণ ৮৫৪ কোটি টাকা এর মধ্যে নগদ আদায় করতে সক্ষম হয়েছে ১৩০ কোটি টাকা।
**বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক এর খেলাপি ঋণ ৪ হাজার ৬৭৯ কোটি টাকা এর মধ্যে নগদ আদায় করতে সক্ষম হয়েছে ৯৩০ কোটি টাকা।
**রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক এর খেলাপি ঋণ ১ হাজার ৫ কোটি টাকা এর মধ্যে নগদ আদায় করতে সক্ষম হয়েছে ২২৩ কোটি টাকা ।
**বেসরকারি ব্যাংকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি খেলাপি ঋণ গ্রহিতার সংখ্যা ব্র্যাক ব্যাংকের ৩৯ হাজার ৫৬২ জন। বিদেশি ব্যাংকের মধ্যে বেশি স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের ৩০ হাজার ৩৩৯ জন।

এই হচ্ছে উন্নয়নের চিত্র । একদিকে ব্যাংক গুলো লুটপাট করে এর মুলধন প্রায় নিঃশেষ এর কোঠায় এনে এই লুটপাটের টাকা পুরণ করতে ব্যাংকে রাখা জনগণের আমানতের উপর আবগারী শুল্ক (Excise Duty) বসিয়েছে।

উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশ সময় এখন আমাদের’ এমন স্লোগানকেই সামনে রেখে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে প্রস্তাবনা করা হয়েছিল। আর এই "উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশ" এমন বুলি আওরে ব্যাংক গুলোকে লোপাট করে তা পুরণ করার জন্য বিশাল বাজেট এবং এই বাজেটের করের বোঝা জনগনের উপর চাপিয়ে দেওয়া। একদিকে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের পুর্বের লুটপাট পুরণ করতে এবং নতুন লুটপাটের সুযোগ তৈরি করতে ঋণ নিয়ে বিশাল বাজেট তৈরি আর এই বাজেটে্র টাকা ও ঋণ এর সুদ পরিশোধে জনগণের উপর বিশাল করের বোঝা চাপিয়ে দিয়ে জনগণকে পদপৃষ্ঠ করছে ।

ঠিক এই মুহূর্তে যে শিশুটির জন্ম হলো, তারও মাথাপিছু ঋণ প্রায় ৪০ হাজার টাকা। আর অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত নতুন যে বাজেট দিলেন, তাতে মাথাপিছু ঋণ বেড়ে হবে ৪৬ হাজার ১৭৭ টাকা । অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে পাওয়া তথ্যমতে, বর্তমানে পুরো দেশের মানুষের ওপর ৬ লাখ ৫৯ হাজার ৩৯০ কোটি টাকা ঋণ রয়েছে। আগামী অর্থবছরে নতুন করে এক লাখ কোটি টাকারও বেশি ঋণ নেবে সরকার যা আগামী অর্থবছর শেষে দেশি-বিদেশি মিলিয়ে রাষ্ট্রের মোট ঋণ দাঁড়াবে ৭ লাখ ৬১ হাজার ৯৩০ কোটি টাকা।

২০১৭-১৮ অর্থবছরে শুধু সুদ পরিশোধে যত টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে, তা শিক্ষ ও স্বাস্থ্য বাজেটে বরাদ্দের প্রায় সমান। ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের সুদ পরিশোধের এই পরিমান টাকা দিয়ে পদ্মা সেতুর মতো প্রায় দুইটা সেতু নির্মাণ করার যেত ।

শেখ হাসিনার আওয়ামী সরকার এনালোগ বাংলাদেশকে পরিণত করেছে ডিজিটাল বাংলাদেশে।অনুন্নত বাংলাদেশকে নিয়েছে উন্নয়নের মহাসড়কে। নিন্ম আয়ের দেশকে পরিণত করেছে নিম্ম মধ্য আয়ের দেশে। যার ফলশ্রুতিতে ১০ টাকার মোটা চাল আজ ৪৮ টাকা, ২৫০ টাকার গ্যাসের চুলা আজ ৯৫০ টাকা, ৩৫ টাকার ডিজেল আজ ৬৮ টাকা, ১২ টাকা কেজি লবণ আজ ৪০ টাকা, ৪০ টাকা কেজি সয়াবিন তেল আজ ১১০ টাকা, ১৮০ টাকা কেজির মাংস আজ ৫০০ টাকা। দেশ চলেছে আজ দুরন্ত গতিতে চারিদিকে শুধু উন্নয়ন আর উন্নয়ন ।

যে দেশে ২/১ লক্ষ কোটি টাকা প্রতিবছর শুধু ব্যাংক থেকেই লুটপাট হয়ে যায, রেলপথ-রাজপথ-সেতু -ফ্লাই ওভার নির্মানে যে দেশে বিশ্বের সর্বোচ্চ ব্যয় করা হয়, যে দেশে সংসদে অধিবেশন চলাকালে প্রতি মিনিটে খরচ হয় এক লাখ ১১ হাজার টাকা সে দেশ কে কি আর অনুন্নত বলা যায়। সে হিসেবে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে নয় উন্নয়নের আকাশ পথে উড়ছে।

আল আমিন হোসেন মৃধা (লেখক ও রাজনৈতিক কর্মী)

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

আল আমিন হোসেন মৃধা
আল আমিন হোসেন মৃধা এর ছবি
Offline
Last seen: 4 দিন 1 ঘন্টা ago
Joined: রবিবার, এপ্রিল 2, 2017 - 11:30অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর