নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নাগিব মাহফুজ খান
  • মোঃ যীশুকৃষ্ণ
  • নুর নবী দুলাল

নতুন যাত্রী

  • রৌদ্র
  • তানভীর জনি
  • জাফর মিয়া
  • প্রোফেসর পিনাক
  • কৃষ্ণেন্দু দেবনাথ
  • রাশেদুজ্জামান কবির
  • পিনাক হালদার
  • ফ্রিডম
  • অ্যানার্কিস্ট
  • আশোক বোস

আপনি এখানে

মঙ্গল শোভাযাত্রা এবং কিছু বিভ্রান্তিঃ ইসলাম


মঙ্গল শোভাযাত্রা কিঃ মঙ্গল শোভাযাত্রা বাংলা নববর্ষের প্রথমদিনের আয়োজনের অংশ।সাধারনত ঢাকা শহরকে কেন্দ্র করে এই আয়োজন হয়ে থাকে।পহেলা বৈশাখের দিন সকাল বেলা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইন্সটিটিউটের উদ্যোগে এই শোভাযাত্রায় শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ নানা পেশার মানুষ বিভিন্ন প্রতিকি শিল্পকর্মসহ অংশগ্রহন করে । এছাড়াও বাংলা সংস্কৃতির পরিচয়বাহী নানা প্রতীকী উপকরণ, বিভিন্ন রঙ-এর মুখোশ ও বিভিন্ন প্রাণীর প্রতিকৃতি এই শোভাযাত্রায় স্থান পায়।

ইতিহাসঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইন্সটিটিউটের উদ্যোগে ১৯৮৯ খ্রিস্টাব্দের সর্বপ্রথম মঙ্গল শোভাযাত্রার প্রবর্তন হয়।পূর্বে এটি বর্ষবরণ শোভাযাত্রা নামে পরিচিত ছিল।১৯৯৬ সালে এটি মঙ্গল শোভাযাত্রা নামে পরিচিত হয়।প্রথম শোভাযাত্রায় শিল্পকর্ম ছিল পাপেট,ঘোড়া ও হাতি।

স্বীকৃতিঃ বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের আবেদনক্রমে ২০১৬ খ্রিস্টাব্দের ৩০শে নভেম্বর বাংলাদেশের ‘‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’’ জাতিসংঘ সংস্থা ইউনেস্কোর অধরা বা ইনট্যানজিবল সাংস্কৃতিক ঐতিহ‌্যের তালিকায় স্থান লাভ করে।
বিভ্রান্তিঃ সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর জানিয়েছেন এবার বাংলা নববর্ষের সূচনার দিন পহেলা বৈশাখে কেবল ঢাকা নয়, সারা দেশে সরকারিভাবে মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করা হবে।এনিয়ে এদেশের আলেম সমাজের একটি বড় অংশ মঙ্গল শোভাযাত্রাকে হিন্দু সংস্কৃতি বলে প্রচারনা চালাচ্ছে।অথচ মঙ্গল শোভাযাত্রার ইতিহাস বলে এটা হিন্দু সংস্কৃতি নয়।আলেম সমাজের মতে শোভাযাত্রায় অংশ নেয়া শিল্পকর্মসমুহ মূর্তি এবং মূর্তি ইসলামে নিষিদ্ধ।এই বিভ্রান্তির মুলে হল শিল্পকর্ম ও প্রতিমার পার্থক্য করতে না পারা । কিন্তু প্রতিমা হল মানুষ যার আরাধনা উপাসনা করে, ইহকালে-পরকালে মঙ্গল চায়, ভুলের ক্ষমা চায় ইত্যাদি। আর মঙ্গল শোভাযাত্রার শিল্পকর্ম সমুহ এদেশের ঐতিহ্য ও ধর্ম নিরপেক্ষতার প্রতীক।নবি যেসব মূর্তি ভেঙ্গেছেন সেগুলোর উপাসনা করা হত।এছাড়া কিছু হাদিস আছে যেগুলো প্রমান করে নবির বাড়িতেই মূর্তি ছিল।কিন্তু সেগুলোর উপাসনা করা হত না ।

হাদিসঃ (১) সহি বুখারি ৮ম খণ্ড হাদিস ১৫১:
আয়েশা বলিয়াছেন, আমি রাসুলের (সা.) উপস্থিতিতে পুতুলগুলি লইয়া খেলিতাম এবং আমার বান্ধবীরাও আমার সহিত খেলিত। যখন আল্লাহর রাসুল (সা.) আমার খেলাঘরে প্রবেশ করিতেন, তাহারা লুকাইয়া যাইত, কিন্তু রাসুল (সা.) তাহাদিগকে ডাকিয়া আমার সহিত খেলিতে বলিতেন।

(২) সহি আবু দাউদ বুক ৪১ হাদিস নং ৪৯১৪:
আয়েশা (রা.) বলিয়াছেন, যখন আল্লাহর রাসুল (সা.) তাবুক অথবা খাইবার যুদ্ধ হইতে ফিরিলেন তখন বাতাসে তাঁহার কক্ষের সামনের পর্দা সরিয়ে গেলে তাঁহার কিছু পুতুল দেখা গেল। তিনি [(রাসুল (সা.)] বলিলেন, “এইগুলি কী?” তিনি বলিলেন, “আমার পুতুল।” ওইগুলির মধ্যে তিনি দেখিলেন একটি ঘোড়া যাহার ডানা কাপড় দিয়া বানানো হইয়াছে এবং জিজ্ঞাসা করিলেন, “ইহা কি যাহা উহার উপর রহিয়াছে?” তিনি উত্তরে বলিলেন, “দুইটি ডানা।” তিনি জিজ্ঞাসা করিলেন, “ডানাওয়ালা ঘোড়া?” তিনি উত্তরে বলিলেন, “আপনি কি শোনেননি যে সুলেমানের ডানাওয়ালা ঘোড়া ছিল?” তিনি বলিয়েছেন, ইহাতে আল্লাহর রাসুল (সা.) এমন অট্টহাসি হাসিলেন যে আমি উনার মাড়ির দাঁত দেখিতে পাইলাম।”

(৩) সহি মুসলিম – বুক ০০৮, নং ৩৩১১:
আয়েশা (রা.) বলিয়াছেন যে আল্লাহর রাসুল (সা.) তাঁহাকে সাত বৎসর বয়সে বিবাহ করিয়াছিলেন (যদিও অন্য রেওয়াতে আমরা পাই ছয় বছর: হাসান মাহমুদ) এবং তাঁহাকে নয় বৎসর বয়সে কনে হিসেবে তাঁহার বাসায় লইয়া যাওয়া হয়, এবং তাঁহার পুতুলগুলি তাঁহার সাথে ছিল এবং যখন তিনি দেহত্যাগ করিলেন তখন তাঁহার বয়স ছিল আঠারো।

(৪) সহি মুসলিম – বুক ০৩১ নং ৫৯৮১:
আয়েশা (রা.) বলিয়াছেন যে তিনি আল্লাহর রাসুলের (সা.) উপস্থিতিতে পুতুল লইয়া খেলিতেন এবং যখন তাঁহার সঙ্গিনীরা তাঁহার কাছে আসিত তখন তাহারা চলিয়া যাইত। কারণ তাহারা আল্লাহর রাসুলের (সা.) জন্য লজ্জা পাইত। যদিও আল্লাহর রাসুল (সা.) তাহাদিগকে তাঁহার কাছে পাঠাইয়া দিতেন।

কোরআনঃ তারা সোলায়মানের ইচ্ছানুযায়ী দুর্গ, ভাস্কর্য, হাউযসদৃশ বৃহদাকার পাত্র এবং চুল্লির উপর স্থাপিত বিশাল ডেগ নির্মাণ করত। হে দাউদ পরিবার! কৃতজ্ঞতা সহকারে তোমরা কাজ করে যাও। আমার বান্দাদের মধ্যে অল্পসংখ্যকই কৃতজ্ঞ। ( সুরা সাবা ,আয়াত ১৩ ) উক্ত আয়াত প্রমান করে সলাইমান নবির প্রাসাদে অসংখ্য মূর্তি ছিল।

উপসংহারঃ পরিশেষে আমরা বলতে পারি,মূর্তি ও প্রতিমার পার্থক্য করতে না পারার জন্য মঙ্গল শোভাযাত্রা নিয়ে আমাদের মাঝে বিভ্রান্তি তৈরি হচ্ছে।মঙ্গল শোভাযাত্রা আমাদের সংস্কৃতির অংশ। এবছর মঙ্গল শোভাযাত্রা বাঙ্গালীর বন্ধনকে দিঢ় করুক। সমস্ত বাঙ্গালীকে জঙ্গিবাদের মত অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে একত্রিত করুক সেই আশাই করি ।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

চাঁদসওদাগর
চাঁদসওদাগর এর ছবি
Offline
Last seen: 1 month 1 দিন ago
Joined: বৃহস্পতিবার, জুলাই 21, 2016 - 8:05অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর