নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 2 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • নীল কষ্ট

নতুন যাত্রী

  • ষঢ়ঋতু
  • এনেক্স
  • আরিফ ইউডি
  • গলা বাজ
  • হুসাইন
  • তারুবীর
  • অন্তরা ফেরদৌস
  • শেখ সাকিব ফেরদৌস
  • প্রাণ
  • ফেরদৌস সজীব

আপনি এখানে

অনেক আগে থেকেই সর্বস্তরের স্বাধীনতাবিরোধী-দুর্বৃত্তদের টার্গেট ছিলেন নিহত এমপি লিটন


গতবছরের শেষদিন প্রকাশ্য-দিবালোকে দিনদুপুরে সন্ত্রাসীদের হাতে খুন হয়েছেন গাইবান্ধা-জেলার সুন্দরগঞ্জ-আসনের সরকার-দলীয় এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন। এর পূর্বে একটি ঘটনার জন্য তিনি দেশের মানুষের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছিলেন। একটি ঘটনায় তার ছোঁড়া একটি গুলি একটি শিশুর গায়ে লেগেছিলো। আর এই নিয়ে সেই সময় ফেসবুকে তথা একটি শ্রেণীর পরিচালিত মুক্তিযুদ্ধবিরোধী-অনলাইনে নানারকম বিষোদগারও করা হয়েছিলো। আর এই ঘটনার আসল-সত্য হলো: বিগত ২০১৬ সালে, স্থানীয়-সুন্দরগঞ্জে সৌরভ-নামে একটি ছেলে দুর্বৃত্তদের দ্বারা আক্রান্ত হয়েছিলো। ঘটনাক্রমে এমপি লিটন সেদিন সেখানে উপস্থিত ছিলেন। আর তিনি শিশুটিকে রক্ষা করার জন্য দুর্বৃত্তদের উদ্দেশ্যে গুলি ছোঁড়েন। এই সময় গুলিটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে—এতে সৌরভ আহত হয়। পরবর্তীতে এই ঘটনার জন্য তিনি গ্রেফতারও হয়েছিলেন। পরে অবশ্য তিনি জামিনে মুক্ত হন।

সুন্দরগঞ্জে এমপি-লিটনবিরোধী একটি চক্রান্তকারীগোষ্ঠী রয়েছে। এরা সেই সময় আহত-শিশু সৌরভকে কেন্দ্র করে এমপি-লিটনের ভাবমূর্তি-ক্ষূণ্ণ করার জন্য সর্বাত্মক-প্রচেষ্টা চালায়। তাদের অপপ্রচারে এমপি লিটন রাতারাতি অশেষ দুর্নামের ভাগী হন। এরপর চক্রান্তকারীরা থেমে থাকেনি। তারা পুনরায় সংগঠিত হতে থাকে।

আজ এটি সত্য বলে প্রতীয়মান হয় যে, এমপি লিটন তার রাজনৈতিক জীবনের শুরু থেকে একাত্তরের হায়েনা জামায়াত-শিবিরের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক-অবস্থানগ্রহণ করেছিলেন। এর প্রকৃষ্ট প্রমাণ মেলে: ১৯৯১ সালের জাতীয় সংসদ-নির্বাচনে জামায়াত-শিবিরচক্র বিএনপি’র সঙ্গে একজোট হয়ে নির্বাচন করেছিলো। আর সেই নির্বাচনে বিএনপি জয়লাভ করে। আর এতে নির্বাচনের পর থেকে জামায়াত-শিবির বাংলাদেশের রাজনীতিতে বিরাট সুযোগ-সুবিধা-লাভ করতে থাকে (পরে অবশ্য তাদের সম্পর্কে সাময়িকভাবে একটুখানি ফাটল ধরেছিলো। আর এখন তো বাংলাদেশের রাজনীতিতে জামায়াত-বিএনপি চিরকালীন দহরম-মহরম-সম্পর্ক)। ১৯৯১ সালের নির্বাচনে বিএনপি জয়লাভ করায় জামায়াত-শিবির তাদের মিত্র হিসাবে বিশেষ ক্ষমতালাভ করে। আর এই সময় একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের সর্দার গোলাম আযম বিভিন্ন জেলায় তার সাংগঠনিক সফর শুরু করে। আর তাই, নির্বাচন-পরবর্তী গণসংযোগে—১৯৯২ সালে, বিএনপি-সরকারের দাপটের সময় গোলাম আযম বৃহত্তর রংপুর জেলায় আসে। কিন্তু ১৯৯২ সালে, এই নরখাদক গোলাম আযম একজন লিটনের সাহসিকতার কারণে সুন্দরগঞ্জে ঢোকার সাহস পায়নি। সেই সময় লিটন আওয়ামীলীগের একজন সাধারণ নেতা হিসাবে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমকে সুন্দরগঞ্জে ‘অবাঞ্ছিত’ ঘোষণা করে—তাকে ধাওয়া করে পালিয়ে যেতে বাধ্য করেন।

ইতিহাস সবসময় সত্যের পক্ষে কথা বলে। আর সেই সময় থেকে জামায়াত-শিবিরচক্র একজন লিটনের উপর ভয়ানক ক্ষিপ্ত। আর ২০১৪ সালের জাতীয় সংসদ-নির্বাচনে তিনি এমপি হওয়ার পর থেকে এলাকায় জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি একেবারে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিলেন। এতে স্বাভাবিকভাবে সবসময় ক্ষিপ্ত ছিল জামায়াত-শিবিরগোষ্ঠী। আর তার দলের ভিতরেও স্বার্থপর নেতাগোছের কেউ-কেউ ক্ষিপ্ত থাকতে পারে। আর এইজাতীয় দুর্বৃত্তশ্রেণী মিলেমিশে গাইবান্ধার একজন সাহসীমানুষ ও এমপি লিটন-কে অত্যন্ত কাপুরুষোচিতভাবে হত্যা করেছে। এখন সাহসীমানুষের বড় প্রয়োজন। আর বাংলার চিরকালীন-হায়েনাগোষ্ঠী জামায়াত-শিবিরের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর মতো সংবেদনশীল সাহসীমানুষের আরও বেশি প্রয়োজন।

এমপি লিটন এলাকায় অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন। তার জানাজায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে হাজার-হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করেছে। আর যে-শিশুটির গায়ে গুলি লেগেছিলো তারাও এমপি লিটনের অকাল-মৃত্যুতে শোকাহত। মানুষের মৃত্যু হয়েছে। একজন সাহসীমানুষ—জামায়াত-শিবিরবিরোধী মানুষের মৃত্যু হয়েছে। তাইতো দেখি, তার মৃত্যুতে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষ জামায়াত-শিবিরের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে। ফুঁসে উঠেছে বাংলার মানুষ।

আজ আর বেশি কিছু নয়—একজন রাজাকারবিরোধী তথা একাত্তরের সর্বাপেক্ষা নৃশংস ও নরঘাতক জামায়াত-শিবিরবিরোধী সৈনিকের মৃত্যুতে আমরাও শোকাহত।

জয়-বাংলা।

সাইয়িদ রফিকুল হক
মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ।
০৩/০১/২০১৭

মন্তব্যসমূহ

নুর নবী দুলাল এর ছবি
 

সন্ত্রাসীর মৃত্যু হয় অস্বাভাবিতভাবে। এই ধরনের সন্ত্রাসীর মুত্যুতে কেউ ব্যথিত নয়।

 

নতুন কমেন্ট যুক্ত করুন

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

সাইয়িদ রফিকুল হক
সাইয়িদ রফিকুল হক এর ছবি
Offline
Last seen: 5 ঘন্টা 58 min ago
Joined: রবিবার, জানুয়ারী 3, 2016 - 1:20পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর