নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 0 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    নতুন যাত্রী

    • জয়বাংলা ১৯৭১
    • জাহানারা নূরী
    • মোহাম্মদ আল আমীন
    • সজিব আহামেদ
    • সাগর সাহা
    • মাহবুব আলী
    • সাগর স্পর্শ
    • মীর মোহাম্মদ মামুন
    • শাহরিয়ার_খান_রাব্বি
    • শাহ্রিয়ার খান রাব্বি

    গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের আন্দোলন যৌক্তিকঃপুরো সমাজ ব্যবস্থার দৃষ্টিভঙ্গিগত সমস্যা


    গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের কলেজ কে ইন্সটিটিউট করার দাবিতে আন্দোলন করে আসছে।তাদের দাবি গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্ণাঙ্গ ইন্সটিটিউট করতে হবে।সাথে তারা এটাও দাবি করছেন যে গার্হস্থ্য অর্থনীতি শুধু মেয়েরা নয় ছেলেরাও পড়বে।এটা খুবই যৌক্তিক এবং সঠিক দাবি।

    ভালো নবী মুহাম্মদ, মন্দ নবী মুহাম্মদ!


    নবী মুহাম্মদকে আমি ভালো মানুষ বলি। তিনি বেশকিছু মন্দ কাজ করেছেন, তারপরও ভালো বলি। মন্দ কাজ তো সকলেই কমবেশী করে। আমার ধারণা, পৃথিবীর সব মানুষ আসলে সাধারণ মানুষ। এখানে কোন অসাধারণ বা অস্বাভাবিক বা নিখুঁত মানুষ বসবাস করে না। নবী মুহাম্মদও ছিলেন একজন সাধারণ মানুষ। তিনি তার দীর্ঘ জীবনে কিছু ভুল কিংবা কিছু অপরাধ করবেন না, তা কী করে সম্ভব? তবে তার পাপের পরিমাণ সম্ভবত তার পূণ্যকে ছাড়িয়ে যেতে পারেনি। যদিও আমি পাপপুণ্যে সর্বোচ্চ অবিশ্বাস করি।

    হিন্দু ধর্মে গুরুবাদের প্রাদুর্ভাব


    হিন্দু ধর্ম এককালে ছিল ব্রাহ্মণ্যবাদী। সেই ব্রাহ্মণ্যবাদে নেতৃত্ব দিত কথিত উচ্চবর্ণের ব্রাহ্মণশ্রেণী। ক্ষত্রিয় রাজা হলেও অর্থাৎ রাজনীতিতে ক্ষত্রিয়ের প্রভাব থাকলেও সমাজনীতিতে ব্রাহ্মনের আধিপত্য ছিলো প্রবল। একমাত্র তাদেরই ছিল ঈশ্বরের সাথে সখ্য। হিন্দু সমাজে ব্রাহ্মণ্যবাদ এখনো আছে তবে একটু ডেমোক্রেটিক ফর্মে! এবং দুর্ভাগ্যজনকভাবে ডেমোক্রেটিক হতে গিয়ে অনেকটা সেক্টারিয়ানও হয়েছে। অনেকগুলো বাস্তবসম্মত কারনে বাংলাদেশে হিন্দু ধর্মের ভেতরকার অসঙ্গতি, অমানবিকতা, আদিমতা ইত্যাদির বিরুদ্ধে কম লেখালেখি হয়। হিন্দু সমাজের হৃদয়হীনতা এবং কুসংস্কারগুলো পর্যন্ত ছাড় পেয়ে যায় এখানে নানা কারণে। একটু একটু করে লিখতে হবে এসবের বিরুদ্ধেও।

    ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের সংজ্ঞায় সংস্কার আনা একান্ত জরুরী


    বাংলাদেশের প্রচলিত আইনে কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের সংজ্ঞায় পরিবর্তন অর্থাৎ নতুন কিছু বিষয় যোগ করা একান্ত প্রয়োজন। কোন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের শাস্তির ক্ষেত্রে আমাদের দেশে প্রচলিত আইন যথেষ্ট নয়। বিষয়টির আইনি সংজ্ঞায় নতুন কিছু বিষয় যোগ করা এখন সময়ের দাবী।

    কার্ল মার্কস : সর্বহারা শ্রেণীর মুক্তির নেতা


    কার্ল মার্ক্স।আজকের এই দিনিটিতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছিলেন।১৮৮৩ সালের ১৪ই মার্চ এ বিশ্বের মহান চিন্তাবিদ, পুঁজিবাদ এর শোষণ থেকে সমগ্র মানব জাতিকে মুক্ত করার তত্ব মার্ক্সবাদের প্রধান কারিগর কার্ল হাইনরিশ মার্ক্স গতিশীল বস্তু থেকে এক গতিহীন বস্তুতে পরিণত হন।কমরেড এঙ্গেলস সে সময়ে লিখেছিলেন,

    অসাম্প্রদায়িকতা ও সুপ্রিমকোর্টে মূর্তি


    বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষ এবং অসাম্প্রদায়িক দেশ।
    এদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানের পাশাপাশি হিন্দু-বৌদ্ধরা তাদের স্ব-স্ব ধর্ম পালন করছে; ধর্মালয়ে স্থাপন করেছে দেবদেবীর মূূতি।
    তাদের ধর্মালয়ে মূর্তি স্থাপন করা নিয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম আপত্তি তথা আন্দোলন করেনি।

    কিন্ত,দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণে গ্রীক পুরাণ অনুযায়ী 'ন্যায়ের দেবী' খ্যাত 'থেমিস' মূর্তি স্থাপন করা হলে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ এদেশের জনগণ এর বিরোধিতা জানাচ্ছেন।

    মানুষ হিসাবে কেমন ছিলেন নবী মুহাম্মদ?


    নবী মুহাম্মদকে নিয়ে আমি সবসময় দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভুগি। কিছুতেই বুঝতে পারি না, তিনি ভালো মানুষ ছিলেন, নাকি একজন খারাপ মানুষ ছিলেন। এরকম দোটানা অবস্থায় না থেকে একটি স্থির সিদ্ধান্তে আসতে চেয়েছি। জানতে চেয়েছি, তাঁর মধ্যে ভালোর অংশ, নাকি মন্দের অংশ বেশী ছিল। এজন্য গত কয়েক মাস ধরে তাঁকে নিয়ে লেখা কয়েকটি বই পড়েছি। এগুলোর মধ্যে রয়েছে আলী দস্তির ‘নবী মুহাম্মদের তেইশ বছর’, ইবনে হিশামের ‘সিরাতুন্নবি’ এবং ইবনে কাসিরের 'আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া'। এসবের বাইরেও দীর্ঘসময় ইন্টারনেট ঘেঁটেছি কিছু কিছু প্রশ্নের উত্তর জানার জন্য। যদিও আরো অনেক পড়াশোনা করতে হতো, তবে মনে হচ্ছে, এখন তাঁকে নিয়ে সামান্য কিছু কথা লেখা যেত

    নারীবাদী মানে "এটা নয়, ওটা নয়, সেটা নয়.."


    ‘নারীরা কি চাইলে খাড়াইয়া মুততে পারবে? পারবে না, কাজেই পুরুষ যে অধিকার ভোগ করবে সেটা নারীরা ভোগ করার অধিকার রাখে না।’ এরকম মন্তব্য প্রতিনিয়ত শুনছি। যেন দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করা ভয়ংকর গর্বের একটি কাজ। এরকম মন্তব্যকারীরা মনে করেন, নারীরা সমানাধিকার চায় মানে হল তারা পুরুষ হতে চায়, পুরুষের মত দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করতে চায়। ‘নারীবাদ মানে পুরুষ হবার চেষ্টা নয়’। এধরণের মন্তব্য তাদের মুখেই শোভা পায়। প্রগতিশীল হিসেবে পরিচিত কেউ এধরণের মন্তব্য করলে বুঝতে হবে, তিনিও দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করার গর্বে গর্ভবতী হওয়া গ্রুপের একজন গর্বিত সদস্য। তাদের ধারণা, পুরুষ হওয়া গর্বের কিছু। তাই নারীরা শুধু পুরুষ হতে চায়। আহা! ভেবে কী সুখটাই না পায় তারা!

    আওয়ামী প্যারাডক্স (অর্থনৈতিক পর্ব)


    ‌বর্তমান জাতীয় সংসদের প্রায় ৮০ শতাংশ সদস্য ব্যবসায়ী এবং কোটিপতি। বলা বাহুল্য তারা সবই আওয়ামীলীগের সদস্য। আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা পরিষদ ও প্রেসিডিয়ামেও রয়েছে দেশের বিশিষ্ট শিল্পপতি ওরফে ঋণখেলাপি। সেখানে আছেন মিডিয়া ব্যবসায়ী, ব্যাংক ব্যবসায়ী, কাপড় ও ওষুধ ব্যবসায়ী, পরিবহন ব্যবসায়ী, দু একজন মাদক ব্যবসায়ীও থাকতে পারে। এতো সব ধনী ব্যবসায়ীদেরকে দলে রেখে আওয়ামীলীগ কিভাবে দরিদ্রদের জন্য ভাবনার অবকাশ পাবে কী?

    বর্জ্য থেকে জ্বালানি তেল


    বিশ্বব্যাপী মানব সভ্যতাকে বর্তমানে যে সকল ইস্যু শঙ্কিত করে রেখেছে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে পরিবেশদূষণ। এদেশে পরিবেশদূষণের যেসব উপাদান চারপাশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে বড় মাথাব্যাথার নাম পলিথিন বর্জ্য। তবে এই পলিথিন বর্জ্য থেকে খুবই সস্তায় জ্বালানি তেল উৎপাদন করা সম্ভব। আশাজাগানিয়া এই প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন জামালপুর সদর উপজেলার কুচঝগড় এলাকার তরুণ তৌহিদুল ইসলাম (২৫)। তার উদ্ভাবিত প্রযুক্তিতে পলিথিন বর্জ্য থেকে জ্বালানি তেল উৎপাদনে লিটারপ্রতি খরচ মাত্র ৭০ পয়সা থেকে দুই টাকা। আর তেল তৈরির সময় যে কালি বের হয় তা ব্যবহার করা যায় ফটোকপিয়ার মেশিনের কালি হিসেবে। ১১ মার্চ থেকে তিন দিনব্যাপী

    পৃষ্ঠাসমূহ

    Facebook comments

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর