নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 12 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • মূর্খ চাষা
    • নরসুন্দর মানুষ
    • রাজিব আহমেদ
    • কাঠমোল্লা
    • পৃথু স্যন্যাল
    • আল আমিন হোসেন মৃধা
    • নিরব
    • সাগর স্পর্শ
    • দ্বিতীয়নাম
    • নুর নবী দুলাল

    নতুন যাত্রী

    • মাসুদ রুমেল
    • জুবায়ের-আল-মাহমুদ
    • আনফরম লরেন্স
    • একটা মানুষ
    • সবুজ শেখ
    • রাজদীপ চক্রবর্তী
    • নাজমুল-শ্রাবণ
    • চিন্ময় ভট্টাচার্য
    • নেইমানুষ
    • পরাজিত শুভ

    রোকেয়ার ইসলামিকরণ:পর্ব:৩


    রোকেয়ার জীবদ্দশায় মুসলিম সমাজ রোকেয়ার প্রতি প্রচন্ড বিরূপ ছিলো এবং প্রতি পদে তাঁর বিরুদ্ধাচরণ করতো । সেই সময় মুসলিম সমাজে শ্রেণী হিসেবে বুদ্ধিজীবীদের তখনো আত্মপ্রকাশ ঘটেনি । সমাজে একতরফা কর্তিত্ত্ব করতো মোল্লারা । পদে পদে তারা রোকেয়াকে বিব্রত করতো সে কথা রোকেয়া সখেদে স্পস্ট ভাষায় বলে গেছেন । এক জায়গায় তিনি লিখছেন – “ আমি কারসিয়ং ও মধুপুর বেড়াইতে গিয়া সুন্দর, সুদর্শন পাথর কুড়াইয়াছি ; উড়িষ্যা ও মাদ্রাজে সাগরতীরে বেড়াইতে গিয়া বিচিত্র বর্ণের, বিবিধ আকারের ঝিনুক কুড়াইয়া আনিয়াছি । আর জীবনের পঁচিশ বৎসর ধরিয়া সমাজ সেবা করিয়া কাঠমোল্লাদের অভিসম্পাত কুড়াইয়াছি ।”(দ্রঃ রোকেয়া জীবনী, শামসুন নাহার, পৃ-৭৯

    ম্যানচেস্টার-হামলায় আবার পরাজিত হলো ধর্ম


    ধর্মের শত্রু কখনও নাস্তিক নয়। আর নাস্তিকরা ধর্মের কোনো ক্ষতি করতে পারে না। ধর্মের একমাত্র আদি-আসল শত্রু হলো—এই লোকদেখানো ধার্মিকসম্প্রদায় তথা আস্তিক-ব্যবসায়ীগণ। এরাই পৃথিবীতে ধর্মের সবচেয়ে বড় শত্রু। আজকাল দেশে-দেশে তথা বিশ্বে ইসলামের নামে আত্মস্বীকৃত ধর্মবিরোধী-মানবতাবিরোধী জঙ্গিগোষ্ঠী গড়ে উঠেছে—এর মূলে ভণ্ডামি। এরা আত্মস্বীকৃত জঙ্গি ও মুসলমান। এরা পৃথিবীতে আজ শুধু একাই বসবাস করতে চায়। আর অন্য ধর্মের সকল মানুষকে হত্যা করতে চায়। এর নাম অধর্ম ও পশুত্ব। আর এরই নাম পাপ ও শয়তানী।

    আমি ধার্মিকতা দেখেছি


    আমি ধার্মিকতা দেখছি
    হন্তারকের মাঝে
    আমি ধার্মিকতা দেখেছি
    উন্মত্ত ধর্মান্ধের মাঝে।
    আমি ধার্মিকতা দেখেছি
    নিষ্ঠুরদের নিষ্ঠুরতায়;
    আমি ধার্মিকতা দেখেছি
    চোর,লোভী ও নীচেদের মাঝে।
    আমি ধার্মিকতা দেখেছি
    ক্রোধ-চণ্ডাল বর্বরের মাঝে।
    আমি ধার্মিকতা দেখেছি
    অন্ধ অনুকারকের বিকৃত বাসনার ভিতরে।
    আমি ধার্মিকতা দেখেছি
    কপটের কাপট্যে।
    আমি ধার্মিকতা দেখেছি
    যতো হীন নীচ আর নিকৃষ্টদের মাঝেও।

    বিশ্বাসের ভাইরাস:


    'বিশ্বাসের ভাইরাস' অভিজিৎদার লেখা| অভিজিৎদার হত্যা মৃত্যু আমার মধ্যে অনেক অবিশ্বাসের ভাইরাসের জন্ম দিয়েছে| পাকিস্তানী বিশ্বাসের ভাইরাস থেকে একাত্তরে ত্রিশ লক্ষ প্রাণ আর প্রায় তিন লক্ষের উপর নারীর ইজ্জতের বিনিময়ে বাংলাদেশের জন্ম-মুক্তি|

    অভিজিৎদার মৃত্যু নিয়ে আগেও লিখেছি ও একটা id প্রায় খোয়াতে বসেছি| কাল আমার বেশ নতুন ফেসবুক বন্ধুর পোস্টে একটি কমেন্ট করাতে আবার এই প্রসঙ্গ উঠে এলো| তাকে বললাম অভিজিৎদার মৃত্যু চক্রান্ত আমার ধারণা| আপনাকে ট্যাগ করে লিখবো? নিতে পারবেন? বন্ধু অনুমতি দিল লিখতে, আর তাই লিখছি|

    রোকেয়ার ইসলামিকরণ:পর্ব:২


    তাদের রোকেয়া-চর্চায় রোকেয়ার প্রবল স্তুতি দেখা যায়। নারী-স্বাধীনতা আন্দোলনে তাঁর ভূমিকার উচ্ছ্বসিত প্রশংসায় তারা মুখর । তারা তাঁকে সমাজ সংস্কারক, নারী-স্বাধীনতা আন্দোলনের পথিকৃত, নারী-মুক্তি সংগ্রামের অগ্রণী সেনাপতি ও জননী, নারী জাগরণের অগ্রদূত ইত্যাদি বহু সন্মানে সম্মানিত করে সমাজের সবচেয়ে অগ্রগণ্য মনীষীদের আসনে বসিয়েছে। মানব সমাজের সবচেয়ে উঁচু আসন রোকেয়ার প্রাপ্য তা নিয়ে কোনো দ্বিধার জায়গা নেই । যে মনন এবং মেধা, সাহস ও দুর্লভ অবদানের জন্যে রোকেয়ার মর্যাদা ও সম্মান প্রাপ্য ঠিক সে কারণেই কিন্তু তিনি বাঙালি মুসলিম সমাজের চোখে একজন অগ্রগণ্য মনীষী নন! রোকেয়ার যথার্থ মূল্যায়ন করে তাঁকে সমাজের বহু উঁচু আসনে তাঁকে বরণ করেছে বাঙালি মুসলমান এমনটা নয়!

    সখ্যতার সঙ্গিনী


    এখানে মরুভূমির মতো গলা শুকোনো রোদ, ভরদুপুরে সবুজ রঙ থেকে হালকা টিয়েতে রুপান্তর হয় যুবক বয়সী পাতাগুলো। ফাঁকা চারপাশ সারি সারি বিন্যস্ত বাড়িগুলোতে কিছুটা পূর্ণ। এক মাইলের মতো ভেতরে ঢুকলে তখন দেখা যায় আবাদি জমির বিস্ফোরণ। মস্ত এলাকা জুড়ে খাঁ খাঁ মাঠসমুদ্র। বৈশাখের শুরুতে এখন গাছপাকা ফল, জমিতে প্রাপ্তবয়স্ক হতে শুরু করা হলুদ-সবুজাভ ধান, গ্রামের বুক ছুঁয়ে চলে যাওয়া শান্ত শীতল নদী। সবকিছুর সাহচর্যে এসেছিলো লাবণ্য। অনেকটা নিজের ইচ্ছায়, কিছুটা নিতুর প্রলোভনে পরে; তার মুখে মামার বাড়ির গ্রামের বর্ণনা শুনে। আজ মধ্যসকালে পল্লবপুরে এসে পৌঁছেছে দুজন। নিতুর থেকে শোনা তার মামাবাড়ি সম্বন্ধীয় বর্ণনা নিরপেক্ষই

    বাংলা সিনেমায় 'সিঁড়ি'তে ধারণকৃত দৃশ্যে দেশের আর্থ-সামাজিক ও রাজনৈতিক অসমতার প্রতিচ্ছবি


    অনেক বাংলা সিনেমায় ‘সিঁড়ি’র অংশে ধারণ করা দৃশ্যগুলো সিনেমার টার্নিং পয়েন্ট হয়ে থাকে। এই ‘সিঁড়ি’ তে ধারণকৃত দৃশ্য গুলো নানান রূপের হয়ে থাকে সিনেমার কাহিনী অনুযায়ী। বলা যায় আধুনিক কালে বাংলা সিনেমায় আর্থ-সামাজিক, রাজনৈতিক অসমতার সকল হৃদয়ভাঙ্গা গল্প এই ‘সিঁড়ি’র আগায় শুরু হয়, শেষ হয় ‘সিঁড়ি’র গোঁড়ায়!

    ম্যানচেস্টার ট্র্যাজিডি: আইসিস্ সমর্থকদের উল্লাস


    আর যাই হোক, শিশু হত্যাযজ্ঞের মধ্যে কোন ধরণের ’ঐশ্বরিক পরীক্ষা’ থাকতে পারে না। যা থাকতে পারে তার নাম, মানসিক দৈন্যতা অথবা মূর্খতা।

    মাত্র তিনজন মানুষ (১)মা-বাবা (২) প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক (৩) ধর্মীয় শিক্ষক – ই পারেন পৃথিবীটাকে বদলে দিতে।



    “ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ অবস্থান করছে Vally of Terrorism হিসাবে। এবং এঅবস্থান থেকে উত্তর করতে পারে মাত্র তিনজন মানুষ (১)মা-বাবা (২) প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক (৩) ধর্মীয় শিক্ষক। যদি একটি মানব শিশু জম্নের পর পর্যায়ক্রমে তিনটি অবস্থান থেকে প্রকৃত মানুষ তৈরী করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখেন, তাহলে আমাদের ভুখন্ড হিংসা, জঙ্গীমুক্ত স্বর্গ হতে বাধ্য”।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর