নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 2 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • ফারজানা সুমনা
    • মিনহাজ

    নতুন যাত্রী

    • অরুণাভ দে
    • পাহাড়ের উপমানুষ
    • পুরানো ঘড়ি
    • স্বর্ণ সুমন
    • হেজিং
    • মং চিং প্রু
    • প্রলয় দস্তিদার
    • ফারিয়া রিশতা
    • চ্যাং
    • রাসেল আহমেদ

    পাহাড় পুড়ুক; আমরা স্বাধীনতার তেল নাকে দিয়ে ঘুমাই


    কোন এক দালাল সেনাপ্রধান রাষ্ট্রপ্রধান হয়ে এ দায়িত্ব দিয়েছিল সেনাবাহিনীকে। আমাদের মাথা মোটা সেনাবাহিনী সেই দায়িত্ব আজও পালন করে যাচ্ছে। দুঃখের বিষয় হল সরকার বদল হয়, শান্তি-চুক্তি হয় তবু পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসীদের ভাগ্য বদল হয়না। মেজর জিয়া মেজর তানভীর হয়ে ফিরে আসে।

    পাহাড়ি জনগণের প্রতি একজন প্রাক্তন বাঙালির খোলা চিঠি


    পাহাড়ে আমার ভাইয়েরা-বোনেরা,

    আপনাদের উপর দুদিন পরপর নানা অত্যাচার হয় শুনি। দেখি বলতে পারলাম না, তা কেউ দেখায় না। কারণ কর্পোরেট মিডিয়া, সরকারের তাবেদার। সেখানে ঐ জলপাই বাহিনীর কি পরিণাম নজরদারি, তা কিছুটা হলেও দেখার সুযোগ হয়।

    কল্পনা চাকমা থেকে রমেল চাকমা বনাম- বাংলাদেশ


    পার্বত্য চট্টগ্রামের তিন জেলা রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবন। পাহাড় পর্বতে ঘেরা অপূর্ব প্রকৃতিক সৌন্দর্য্যে র লীলাভূমিরর এই অঞ্চলেরর সৌন্দর্য্য উপভোগের জন্য দেশ-বিদেশের পর্যটকেরা ভিড় করে নিয়মিত। কিন্তু কেউ খবর রাখে না এই অঞ্চলের উপজাতিদের খবর রাখে না সেনাবাহিনী-বাঙ্গালি সেটালার কর্তৃক নিপীড়িত নির্যাতিত আদিবাসীদের করুণ ইতিহাসের।

    ধার্মিক বনাম মানুষ


    কোন পুরুষ সুন্দর উদ্যানে একা একা ঘুরে ফিরছিল। এত আরাম-আয়েশ কিছুই ভালো লাগছিল না তার। তাই আমার জন্ম হল তার মনোরজ্ঞনের জন্য। আমি রমণী- শুধুই রমণের যোগ্য। যদি বলি আমার স্রষ্টা এত কঠোর হতে পারে না, তিনি নিরাকার হয়ে পুরুষের পক্ষপাত মোটেই করতে পারেন না। আমার জন্মকে এত ঠুনকো আর ছেলেখেলার যোগ্য হতে আমি দেবো না।

    ভারতে সংখ্যালঘু মুসলমানেরা নির্যাতিত, নিপীড়িত, শোষিত।


    আমি সেই ছোট্টবেলা থেকে এখন অবধি বাংলাদেশী মুসলমানদের কাছে থেকে শুনে আসছি ভারতে সংখ্যালঘু মুসলমানেরা নির্যাতিত, নিপীড়িত, শোষিত। মনে মনে ভাবতাম ভারতে হিন্দুরা বাংলাদেশ মুসলমানদের মতই খারাপ অমানুষ। বাংলাদেশের মুসলমানেরা যেমন হিন্দুদের নির্যাতন করে, মা বোনদের ধর্ষণ করে, জায়গা সম্পত্তি দখল করে, ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেয়, লুট করে, তেমনই বুঝি ভারতের হিন্দুরাও সংখ্যালঘু মুসলমানদের নির্যাতন করে। পরে পরে আমি বেশ কয়েক বার ভারতে বেড়াতে গিয়ে নিজে চোখে দেখে এসেছি ভারতের সংখ্যালঘু মুসলমানদের হাল অবস্থা। আমি প্রথম ভারতে যাই ২০০২ সালে। যাহোক শুনেন ভারতের নির্যাতিত নিপীড়িত মুসলমানদের কথা।

    Whisper of the Heart –স্কুল, প্রেম আর নস্টালজিয়া ।


    জীবনের একটি বিশেষ সময় অদ্ভুত রকমের কিছু স্বপ্ন আর রঙ দিয়ে মোড়া থাকে । চিন্তা-ভাবনা ছাড়া , সম্ভব-অসম্ভবকে থোড়াই কেয়ার করা , একচিলতে হাসি দেখে হাজার রাতের ঘুম হারাম হওয়া এই বিশেষ সময়টাকে আমরা স্কুল জীবন বলি । স্কুল!! আহ !! স্কুল !! মনে আছে এই সময় প্রেমে পড়াটা যেমন ছিল স্পর্ধার , অবাস্তব, অন্যদের হাসির খোরাক হওয়া অপরদিকে ছিল বিশুদ্ধ আর নিষ্পাপ । সেই সময়টা শেষ হয়ে গিয়েছে আজ অনেকদিন । তবে এই সিনেমাটা দেখলে হঠাৎ করেই বুকের বামপাশে কেমন যেন করে উঠে ।

    আওয়ামীলীগের হেফাজতপ্রীতির কারণ এবং এর প্রতিকার


    ষাট-সত্তরের দশকে আওয়ামীলীগ করতেন একদল দেশপ্রেমিক শিক্ষিত, তরুণ ও উদ্যমী মানুষেরা। আর এঁদের সকলের পড়ালেখাবিষয়ক ডিগ্রী বা শিক্ষাগত-যোগ্যতা ছিল কমপক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রাজুয়েশন পর্যন্ত। এঁরা সবাই ছিলেন পড়ুয়া ও ধীমান। এঁরা রাজনীতির পাশাপাশি প্রচুর পড়াশুনা করে সময় কাটাতেন। আর এঁদের প্রতিভা ছিল ঈর্ষণীয়। এঁদের মনুষ্যত্ব ও মানবতাবোধ ছিল সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য। এঁরা ছিলেন সত্যিকারের দেশদরদী-মানবতার সৈনিক।
    আজ সেই আওয়ামীলীগে ঢুকেছে কিছু অর্থলোভী নরপিশাচ ও আবর্জনা। এরা সীমাহীন লোভী বলেই রাজনীতি করে শুধু এমপি-মন্ত্রী-পাতিমন্ত্রী হতে চায়। আর এরা যোগ্যনেতা কিংবা যোগ্যকর্মী হওয়ার চেয়ে অতিসহজে ও অতিদ্রুত আওয়ামীলীগ ও এর যেকোনো অঙ্গসংগঠনের বড়-বড় পদগুলো অনায়াসে দখল করে নিচ্ছে। এই চক্রটি আবার ধর্মবিশ্বাসে পাকিস্তানীভাবধারার অপআদর্শে বলীয়ান ও ওহাবী-সালাফী মতাদর্শী। আর এরা কওমীমাদ্রাসার হুজুরপন্থী।

    একটি তেঁতুল গল্প!


    দীর্ঘদিন ইস্টিশন ব্লগ থেকে দূরে ছিলাম। আমার একটি লিখা মুমিনদের অনুভুতি ছিদ্র করে সাত আসমানে আল্লাহর কাছে জিব্রাঈল পৌছে দিয়েছে!! আল্লাহ্ এখনো আমায় তার চরণের তলে ডাকে নাই, ডাকিলে বেক্কেরে জানাইবো। "সেসব কথা থাক"

    কিছুদিন আগে সিলেটের এক চায়ের দোকানে বসে সিগারেট খাচ্ছিলাম, পাশেই বসা ছিলো এক মুরব্বী টাইপের সাদা "দড়ি" থুক্কু দাড়ি, পরনে সাদা পাঞ্জাবী ও পায়জামা, আর আমার সামনে মধ্য বয়স্ক দুই ব্যাক্তি আর আমার ডান পাশে বৃদ্ধ চা বিক্রেতা।

    আলোচনার ট্রফিক ছিলো "আল্লামা শফি"

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর